আলোকচিত্র

নিজামীর জন্য জামাই আদর : ২৭শে মে, ১৯৯১ সাল

শেহাব এর ছবি
লিখেছেন শেহাব [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ২৯/১০/২০১৪ - ৩:৫১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১৯৯১ সালের ২৭শে মে যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর মনিরুজ্জামান মিঞার আমন্ত্রণে ক্যাম্পাসে গিয়ে ধোলাই খেয়েছিল। ভাবলাম সেদিনের নিউজ ক্লিপগুলো দিয়ে রাখি।

দৈনিক বাংলা


ছবিব্লগঃ দূর পাহাড়ের টানে (দ্বিতীয় পর্ব) ...

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি
লিখেছেন অনুপম ত্রিবেদি (তারিখ: সোম, ২৭/১০/২০১৪ - ২:৪৩পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

২৪ মার্চ, ২০১৪, সোমবার আমি, রাব্বি, কুমার, আরিফ, নোমান আর রনি বেরিয়ে গেলাম বান্দরবানের উদ্দেশ্যে। গন্তব্য বগালেক, পুকুর পাড়া, রাখাইন ফলস। আর আসা-যাবার সময়ের দুর্দান্ত সব পথ তো আছেই! ৫ দিন হাঁটা আর আরাম - আয়েশের একটা ট্যুর ছিলো এটি। সাথে ছিলো আমাদের গাইড বিকাশের অসাধারণ বার্বিকিউ, আমাদের মন ভরে হুল্লোড়, ছবি তোলা এবং পাহাড়ি ললনাদের সাথে সুযোগ বুঝে টাংকিবাজী। ট্যুরের দ্বিতীয় এবং শেষ কিস্তি বগালেক থেকে পুকুর পাড়া আর রাখাইন ফলস নিয়ে দিলাম।


বাংলার বনফুল-৩

আব্দুল গাফফার রনি এর ছবি
লিখেছেন আব্দুল গাফফার রনি [অতিথি] (তারিখ: শনি, ২৫/১০/২০১৪ - ১১:৩১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


ছবিব্লগঃ দূর পাহাড়ের টানে (প্রথম পর্ব) ...

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি
লিখেছেন অনুপম ত্রিবেদি (তারিখ: সোম, ২০/১০/২০১৪ - ৯:৩৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

২৪ মার্চ, ২০১৪, সোমবার আমি, রাব্বি, কুমার, নোমান, আরিফ আর রনি বেরিয়ে গেলাম বান্দরবানের উদ্দেশ্যে। গন্তব্য বগালেক, পুকুর পাড়া, রাখাইন ফলস। আর আসা-যাবার সময়ের দুর্দান্ত সব পথ তো আছেই! ৫ দিন হাঁটা আর আরাম - আয়েশের একটা ট্যুর ছিলো এটি। সাথে ছিলো আমাদের গাইড বিকাশের অসাধারণ বার্বিকিউ, আমাদের মন ভরে হুল্লোড়, ছবি তোলা এবং পাহাড়ি ললনাদের সাথে সুযোগ বুঝে টাংকিবাজী। ট্যুরের প্রথম কিস্তি শুধু বগালেক নিয়েই দিলাম।


লাইফ ইজ এলসহোয়্যার..

তিথীডোর এর ছবি
লিখেছেন তিথীডোর (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৬/১০/২০১৪ - ৬:১৮অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

Nothing happens while you live. The scenery changes, people come in and go out, that's all. There are no beginnings...
Days are tacked on to days without rhyme or reason, an interminable, monotonous addition.
Jean-Paul Sartre : Nausea
________________________________

পায়ের তলায় খাদ
[i]এ ভ্রমণ, কেবলই একটা ভ্রমণ..
এ ভ্রমণের কোন গন্তব্য নেই,


বাংলার তরু-লতা-গুল্ম-৩৬ : পেটারি

আব্দুল গাফফার রনি এর ছবি
লিখেছেন আব্দুল গাফফার রনি [অতিথি] (তারিখ: সোম, ১৩/১০/২০১৪ - ৬:২৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


কিছু জিনিস থাকে প্রিয় থেকেও বেশি প্রিয়। আমার প্রিয় গাছের তালিকাটা বেশ লম্বা। কিন্তু অতিপ্রিয় গাছের কথা বললে সবার আগে আসবে পেটারির নাম। কবে কোথায় গাছটা প্রথম দেখি, সে স্মৃতি নিউরণের অতল সমুদ্রে গা ঢাকা দিয়েছে। তবে প্রথম মুগ্ধতার কথা এখনও স্পষ্ট। সে প্রায় বছর পচিশেক আগের কথা। ৮৯-এর বর্ষণমূখর এক দিনে গিয়েছিলাম এক ফুপুর বাড়ি। গ্রামটা ভারি সুন্দর। ঝোপ-জঙ্গল, নদী, মাঠ, শস্য, ঘাসফুলে আচ্ছাদিত এক আদর্শ বাঙালী গ্রাম। বর্ষার বিশুদ্ধ পানিতে গা ধুয়ে গোটা গ্রামটাই যেন পবিত্র চেহারা পেয়েছে। বৃষ্টিস্নাত গাছপালায় সবুজের অভিযান। সবুজ-সতেজ গাছপালা যেমন আমার শিশুহৃদয়ে দাগ কাটছিল, তেমনি বাহারি ফুলের নানা রঙে স্মৃতির ক্যানভাসে অঙ্কিত হচ্ছিল অমোচনীয় সব ছবি। সেই বর্ষার সেরা ছবি হয়ে আজও আমার মানসপটে গেঁথে আছে মামুলি এক মেঠো ফুল। এরপর পল্লীবাংলার কত গাঁয়ে, কত মাঠে কত অজস্রবার একে দেখেছি তার ইয়ত্তা নেই। প্রতিবারই গাছটা আমার বুকে অন্যরকম এক অনুভূতির জন্ম দিয়েছে, বুনেছে অন্যরকম ভালবাসার জাল। আর স্মৃতির পর্দায় ডানা মেলেছে শৈশবের সেই ছবি।


আটপৌরে ঘোরাঘুরি ৪ – স্বপ্নরাজ্যে তিন দিন

ইয়াসির আরাফাত এর ছবি
লিখেছেন ইয়াসির আরাফাত [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ১০/১০/২০১৪ - ৫:৪৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

জায়গাটিতে জাদু দেখানো হয় না।

কিন্তু সবকিছুই যেন তৈরী হয়েছে কোন আশ্চর্য জাদুকরের ছোঁয়ায়। সেখানে আছে এক মায়াপর্বত, কিছু মায়াহ্রদ আর এক বিশাল মায়াপ্রাসাদ। সেখানে বছরের বারো মাসেই উৎসব, প্রতিদিন। প্রতিরাতেই প্রাসাদে জমে ওঠে আলো ঝলমলে রঙের মেলা, রূপকথার সব চরিত্র স্বপ্নের অস্পষ্ট দেয়াল ভেঙে জ্যান্ত হয়ে ওঠে চোখের সামনে।


ছবিব্লগঃ হুট করেই সাঙ্গু ভ্রমণ

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি
লিখেছেন অনুপম ত্রিবেদি (তারিখ: সোম, ২৯/০৯/২০১৪ - ৭:১৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[ একটা দিন কাটালাম সাঙ্গুর বুকে চড়ে, সেই ভোর থেকে প্রায় রাত অব্দি। দেখা পেলাম নীল পাহাড়ের বন্ধুত্বপূর্ণ কতগুলো মানুষের। আর স্বর্গের মতো সুন্দর এক পাহাড়ী গ্রাম, হাসি-খুশি ভরা মানুষের ছোট্ট একটা মেলা। এইতো আমার দেশ, এইতো আমার মাটির পরিচয়, এর আলো-হাওয়া'ই তো প্রকৃতীকে ভালোবেসে আমার হয়ে উঠা দুরন্ত দস্যু!]


ছবিব্লগঃ খৈ ভাজতে খৈয়াছড়া

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি
লিখেছেন অনুপম ত্রিবেদি (তারিখ: বুধ, ২৪/০৯/২০১৪ - ৯:৫৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চট্টগ্রামের মিরেরসরাইয়ে খৈয়াছড়া এলাকায় অবস্থিত এখন পর্যন্ত আবিস্কৃত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ঝর্ণাটি। এলাকার নাম অনুসারেই এই ঝর্ণার নাম খৈয়াছড়া ঝর্ণা। অনিন্দ সুন্দর এই ঝর্ণাটির মোট নয়টি ধাপ রয়েছে। এই কিছুদিন আগেই কয়েকজনা মিলে ঘুরে এলাম সেখান থেকে।


আশ্চর্য বটবৃক্ষের খোঁজে

আব্দুল গাফফার রনি এর ছবি
লিখেছেন আব্দুল গাফফার রনি [অতিথি] (তারিখ: সোম, ২২/০৯/২০১৪ - ৩:৩৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


আমাকে অবাক করে দিয়ে মোস্তাফিজুর ঝুরি ধরে ঝুলে পড়ল বাঁদরের মতো । তারপর টারজানের মতো তর তর করে উঠে গেল ঝুরি বেয়ে প্রায় ৬০ ফুট উচুঁতে।তখনই খেয়াল করলাম, এটাই সবচেয়ে লম্বা ঝুরি। মাটি ছুঁতে খুব দেরি নেই এটার।