সোনালী স্নান

Sohel Lehos এর ছবি
লিখেছেন Sohel Lehos [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ২৫/০৫/২০১৬ - ৪:১৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সোনালী জলধারার নীচে শুয়ে আনিস চোখ মুদল। সুতীব্র উত্তেজনা নিম্নাঙ্গ থেকে তলপেটের উপর দিয়ে পেশীবহুল এক অজগরের মত ধীরালয়ে উপরের দিকে উঠতে লাগল। তার শ্বাস-প্রশ্বাস দ্রুত থেকে দ্রুততর হল। শীর্ষ অনুভূতির চরমে পৌঁছাতেই গোঙাতে লাগল সে। একসময় হাত পা এলিয়ে দিয়ে ফোঁসফোঁস করতে লাগল আনিস।

যার সব আছে তাকে প্রতিনিয়ত শান্তির পথ খুঁজে বেড়াতে হয়। সব কিছু থাকার মত যন্ত্রণা এক মাত্র যার আছে সেই জানে। যে দরিদ্র সে জানে প্রাচুর্য তাকে সুখ এনে দেবে। যে কুৎসিত সে জানে সৌন্দর্য তাকে শান্তি এনে দেবে। যে সদা অসুস্থ সে জানে সুস্বাস্থ্য তাকে সুখী করবে। কিন্তু যার সব আছে তার সুখ হয় কিসে?

আনিসের সব আছে। সুঠাম স্বাস্থ্য, অঢেল বিত্ত, এবং প্রায় কল্পনাতীত ক্ষমতা। তার বাবা দেশের ক্ষমতাসীন দলের প্রধান। বিত্তের দিক থেকে মুসা বিন শমসের তাদের কাছে কিছুই নয়। অগণিত টাকা পৃথিবীর নানা দেশে খাটানো আছে তাদের। আনিস বড় হয়েছে স্বর্গের মত পরিবেশে। যেখানে চাওয়া মাত্রই সব পাওয়া যায়।

চাওয়া মাত্রই পেয়ে যাবার বড় সমস্যা হল এক সময় প্রায় সব কিছুই পাওয়া হয়ে যায় বলে ক্লান্তি চলে আসে। মার্সিডিজ কিংবা বি এম ডাব্লিউ আধা ডজনের মত আছে আনিসের। ইউরোপ-আমেরিকার বহু দেশ ঘোরা হয়ে গেছে। ক্র্যাক কোকেইন, মারিহুয়ানা, হেরোইন এমনকি ইয়াবা কোন কিছুই বাদ নেই। আর মেয়ে মানুষ? হিসেব নেই। বিশ্ব সুন্দরীকেও নগ্ন করে এনে সামনে দাড় করিয়ে দিলে নিম্নাঙ্গে কোন সাড়া জাগবে কিনা আনিসের সন্দেহ আছে।

তার ক্লান্তি লাগে। ক্লান্তি লাগে বলে ইংল্যান্ডে গিয়ে বিমান ভাড়া করে বিশ হাজার ফুট উপর থেকে প্যারাশুট নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। তাতে আনন্দ লেগেছিল মাস ছয়েকের মত। পায়ে দড়ি বেধে লাফিয়ে পড়েছে কত ব্রিজ, সুউচ্চ দালান, আর পাহাড়ের উপর থেকে। সেসব থেকে প্রাপ্ত সুখও এক সময় ফিকে হয়ে গেছে। ক্লান্তি। শুধু ক্লান্তি। ক্লান্তি দূর করার জন্য প্রতিনিয়ত ফিকির করতে হয় তাকে।

সোনালী জলধারার নীচে শুয়ে আনিস ভাবে আর কত দিন এই স্নান তাকে আনন্দ দেবে? এক মাস? ছয় মাস? তারপর?

দুই লিটার পানির বোতল থেকে ঢক ঢক করে পানি গিলতে গিলতে রিয়া ভাবল,”এমন পাগলও মানুষ হয়?"

উঁচু লেভেলের অনেক ক্লায়েন্টের সাথে সে রাত কাটিয়েছে কিন্তু এমন কাওকে আগে কখনো দেখেনি। তবে এমাউন্টটা অনেক। প্রতিবারের জন্য চল্লিশ হাজার। এত টাকা এই সামান্য জিনিশের জন্য পাওয়া যাচ্ছে ভাবতেই অবাক লাগে।

দুই পা মেলে দিয়ে আনিসের বুকের উপর ছ্যাড়ছ্যাড় করে পেশাপ করতে লাগল রিয়া।


মন্তব্য

পরিবেশবাদী ঈগলপাখি এর ছবি

ওরে সর্বনাশ, গোল্ডেন শাওয়ার গড়াগড়ি দিয়া হাসি

Sohel Lehos এর ছবি

দেঁতো হাসি

সোহেল লেহস
----------------------------------------------
হে দূর্দান্ত ভাবনারা, হেয়ালি করো না। এসো এ বাহুডোরে।

Emran  এর ছবি

হেঃ হেঃ গোল্ডেন শাওয়ার!!

আপনার এই গল্পগুলা যাযাদির "প্রেমলীলা" কলামটার কথা মনে করিয়ে দেয়! খাইছে

Sohel Lehos এর ছবি

দেঁতো হাসি

সোহেল লেহস
----------------------------------------------
হে দূর্দান্ত ভাবনারা, হেয়ালি করো না। এসো এ বাহুডোরে।

অতিথি লেখক এর ছবি

এত সুখ আমি কই রাখি???
-বৃদ্ধ কিশোর

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।