মুক্তিযুদ্ধ

কেন যামিনী না যেতে জাগালে না, বেলা হল মরি লাজে (দ্বিতীয় পর্ব)

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি
লিখেছেন সাক্ষী সত্যানন্দ [অতিথি] (তারিখ: শনি, ২৭/০৯/২০১৪ - ২:৩৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[ এই পর্বে ২৩২ পৃষ্ঠাসংখ্যা সংবলিত বইটির ২৩ থেকে ৫২ পৃষ্ঠা পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য অংশ আলোচিত হল। আসন্ন পর্বসমূহে বইটির পরবর্তী অংশ ক্রমান্বয়ে আলোচিত হবে। মন্তব্য অংশে সকল পাঠকের সক্রিয় সহযোগিতা একান্ত কাম্য। ]


আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটরদের প্রসঙ্গে

রাজিব মোস্তাফিজ এর ছবি
লিখেছেন রাজিব মোস্তাফিজ [অতিথি] (তারিখ: মঙ্গল, ২৩/০৯/২০১৪ - ৫:১৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আপিল বিভাগের দেয়া সাঈদীর আমৃত্যু কারাদণ্ডের রায়ে বিচার প্রত্যাশী সব মানুষ যখন হতাশ, তখন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের প্রতিক্রিয়ায় আমরা আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বর্তমান প্রসিকিউশন টিমের উপর চরম অনাস্থা লক্ষ্য করি। তদন্ত প্রক্রিয়ায় ত্রুটির পাশাপাশি এই মামলার সঙ্গে যুক্ত প্রসিকিউটরদের দক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা। রায়ে হতাশা প্


(দৈনিক বাংলা, জানুয়ারী ২, ১৯৭২) 'বিচ্ছুদের' নেপথ্য কাহিনী - পরিকল্পনা ছিল তিনটা রিকশাই একসাথে পাওয়ার স্টেশনের সামনে যাবে না

শেহাব এর ছবি
লিখেছেন শেহাব [অতিথি] (তারিখ: সোম, ২২/০৯/২০১৪ - ৯:২৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আরো ভাল রেজ্যুলশনে দেখতে হলে কি করতে হবে? রাইট ক্লিক করে ইমগুর লিংকে চলে যেতে হবে।

আগের পর্ব: উলান পাওয়ার স্টেশন অপারেশন

পরের পর্ব: বিদ্যুৎ কেন্দ্রের পুলিশটি হাত উপরে তুলে বলল,-"লেকিন হিঁয়া মে তো কারফিউ


কেন যামিনী না যেতে জাগালে না, বেলা হল মরি লাজে (প্রথম পর্ব)

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি
লিখেছেন সাক্ষী সত্যানন্দ [অতিথি] (তারিখ: সোম, ২২/০৯/২০১৪ - ১:১২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[ নিন্দুকেরা খালি হরতালে ভাঙচুরের আর মনির পুড়ানো’র ছিদ্রান্বেষণ করে। হরতাল জিনিসটা আসলে খারাপ না। বইটা কেনা হয়েছে ৯ তারিখে, হাতে পেয়েছি ১২ তারিখে, পড়ে ফেলেছি ১৫ তারিখে অথচ কাজের চাপে (নাকি আলসেমি’র?) বহুদিন ধরেই এই পোস্ট লিখি লিখি করেও লিখে ফেলার সময় পাচ্ছিলাম না।

হরতালের সুবাদে পেয়ে গেলাম যখন কি আর করা। ‘হেইল হিটলার’ বলে কী-বোর্ডে ঝাঁপিয়ে পড়লুম। আপনারাও ‘হাত মে বিড়ি, মুখ মে পান/লড়কে লেঙ্গে পাকিস্তান’ বলে পড়ে ফেলুন। আজ সময় না পেলে কালকেও হরতাল আছে, তখনও ‘জয় পাকিস্তান’ বলে পড়ে ফেলতে পারবেন। মেহেরজানের গুণমুগ্ধ পাঠিকারা পাশে একটা ‘ম্যারী মি, আফ্রিদি’ প্ল্যাকার্ড রাখতে পারেন। কোনটাই পছন্দ না হলে একবাটি মুড়ি নেন। তারপর? তারপর আবার কি? মুড়ি খান! ]


(দৈনিক বাংলা, ৪ঠা ডিসেম্বর, ১৯৭২) ৫৯ সালের শেষদিকেই বঙ্গবন্ধু আন্ডারগ্রাউন্ড সেল গঠনের নির্দেশ দেন - ফজলুল হক মনি

শেহাব এর ছবি
লিখেছেন শেহাব [অতিথি] (তারিখ: বিষ্যুদ, ১১/০৯/২০১৪ - ১১:২৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১৯৭২ সালের দৈনিক বাংলায় প্রকাশিত হওয়া ফজলুল হক মনির এই সাক্ষাৎকারটি মনে হল এই সময় প্রাসংগিক। তাই দিয়ে দিলাম। এই ইমগুর লিংকে আরো ভালো রেজ্যুলুশনে এটি পড়া যাবে।


৭ই মার্চের সত্য ভাষণের খোঁজে

নজরুল ইসলাম এর ছবি
লিখেছেন নজরুল ইসলাম (তারিখ: মঙ্গল, ০৯/০৯/২০১৪ - ১২:৩২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১)

৭ মার্চের ভাষণের শেষে বঙ্গবন্ধু কী বলেছিলেন তা অডিও, ভিডিও, টেক্সট তিন ভার্সনেই সর্বত্র পাওয়া যায়। ইন্টারনেটে সহজলভ্য। সবখানেই ভাষণ শেষ হয়েছে 'জয় বাংলা' দিয়ে। কিন্তু তবু বছরের পর বছর ধরে একটা বিতর্ক চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। কেউ কেউ দাবী করছেন বঙ্গবন্ধু তাঁর ভাষণের শেষে 'জয় বাংলা, জয় পাকিস্তান' বলেছিলেন আবার কেউ নাকি শুনেছেন ‘জয় বাংলা, জিয়ে পাকিস্তান’। কিন্তু আজ পর্যন্ত এর সপক্ষে কোনো প্রমাণ কেউ দেখাতে পারেননি। রূপকথার গল্পের চরিত্রের মতো যা কিছু মানুষের কল্পনায় ঘুরপাক খায় শুধু।


পত্রিকায় ৭ই মার্চ (১৯৭২ থেকে ১৯৭৫)

শেহাব এর ছবি
লিখেছেন শেহাব [অতিথি] (তারিখ: রবি, ০৭/০৯/২০১৪ - ৪:২৮অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এয়ার ভাইস মার্শাল আব্দুল করিম খন্দকারের মিথ্যা কথা বলার পর সবাই কিছুটা বিরক্ত। কিন্তু এ নিয়ে দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। এটা তো আর ১৯৭৫ না, এটা ২০১৪। দুনিয়া চাপাবাজদের জন্য এখন আরো কঠিন। ভাবলাম সে সময়ের কিছু নিউজ কাটিং দিয়ে এনাদের জীবন আরেকটু কঠিন করে দেই।

৭ই মার্চ, ১৯৭২

দৈনিক বাংলার শেষের পাতা

৭ই মার্চ, ১৯৭৩