Warning: Creating default object from empty value in i18ntaxonomy_term_page() (line 34 of /var/www/sachalayatan/s6/sites/all/modules/i18n/i18ntaxonomy/i18ntaxonomy.pages.inc).

ব্লগরব্লগর

"ফেলে আসা ছেলেবেলা " :সচলায়তন ঈদ সংখ্যা হিসেবে প্রকাশিত হলো একটি পূর্ণাঙ্গ ই-বুক

আরিফ জেবতিক এর ছবি
লিখেছেন আরিফ জেবতিক (তারিখ: শনি, ১৩/১০/২০০৭ - ১১:১৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ফেলে আসা ছেলেবেলাঅন্তর্জালকে মাধ্যম করে যারা বাংলায় লিখছেন ,তাদেরই একটি সংঘবদ্ধ উদ্যোগ -সচলায়তন।
অনলাইন রাইটার্স কম্যিউনিটি "সচলায়তন" ইতিমধ্যেই ভার্চুয়ালপাঠক লেখকদের মিলনক্ষেত্র
হিসেবে জনপ্র...


তাক থেকে নামিয়ে - ০৩

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি
লিখেছেন সাক্ষী সত্যানন্দ [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ০৮/০৪/২০২০ - ২:৫৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


জনাব সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর অত্যন্ত বদলোক। কেন, জানতে এখানে ক্লিক করুন!


লক ডাউননামা : এখনো পোলাপান

সুমন চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন সুমন চৌধুরী (তারিখ: মঙ্গল, ৩১/০৩/২০২০ - ১১:০৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

রহিম বাদশা এখনো পোলাপান। দ্বাদশ শ্রেণী শেষ করে উচ্চমাধ্যমিকের অপেক্ষায়। মোটামুটি গুছিয়ে এনেছে সবকিছু। তার মধ্যে এই লক ডাউন। সঠিকবেঠিক সবসময় সবাই বাড়িতে।

টেস্ট পেপারগুলি টেবিলের উপরেই ভৌগলিক অবস্থান বদলাতে থাকে। কাল থেকে পরীক্ষা শুরু হলেই ফাটিয়ে ফেলবে মেজাজ বাড়িময় ভন্ ভন‌্ করে। ঘরের মধ্যে ষোলগুটির কোর্ট বানিয়ে হাঁটে। হাঁটতে থাকে রহিম বাদশা।


লকডাউন ভাবনা ১

জিপসি এর ছবি
লিখেছেন জিপসি [অতিথি] (তারিখ: রবি, ২২/০৩/২০২০ - ৩:৪০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বিমলদা কে খুব মিস করছি বিগত দুই সপ্তাহ ধরে। মানুষটা কি এখনও বেঁচে আছে বাংলার কোন জনপদে? মহল্লার মোড়ের আলো ঝলমলে দোকানটা তো উঠে গেছে সেই কবে। দেয়ালে ছাঁটা পার্শ্বচিত্রের সেই সব সুকেশী রুপালি পর্দার নায়কদের অনেকেই আজ বয়সের ভারে কেশহীন।


করোনার দিনগুলিতে হাইকু

তানভীর এর ছবি
লিখেছেন তানভীর (তারিখ: শুক্র, ২০/০৩/২০২০ - ১০:২৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এক

বাতাসে ভাসে প্রেম,
আর ভাসে করোনা;
হাত ধুতে ভুলো না।

দুই

বেড়াতে গিয়ে ইতালি;
সাঙ্গ হলো মিতালী,
করোনার কবলে।

তিন

মুখ ঢেকে যায়
মুখোশের আড়ালে,
করোনার ছলে।

চার

উহান হতে আসে,
মজুদদার হাসে,
এন্টার্কটিক হুজুরের পোয়াবারো।


রাসেল ভাইকে মিস করছি

নুরুজ্জামান মানিক এর ছবি
লিখেছেন নুরুজ্জামান মানিক (তারিখ: বুধ, ১৮/০৩/২০২০ - ১২:৫০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

লেখক,ব্লগার ও পদার্থবিজ্ঞানী ড. রাসেল পারভেজ ওরফে ডটু রাসেল ওরফে অপবাক (জন্ম: ১০ এপ্রিল ১৯৭৬ইং - মৃত্যু: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০) ভাই আমার প্রিয় লেখক ছিলেন । তার সাথে আমার সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক ছিল । মতান্তরও ছিল কিন্তু মনান্তর ছিল না । অধ্যাপক ড .আহমদ শরীফের মত তার ছিল সাহস ও জেদি মন । যা চিন্তা করতেন তা প্রকাশে কুন্ঠিত হতেন না । একালে এমন মানুষ সহজে মিলে না । আমি তাকে খুব মিস করছি ।


আমি একটুও কাঁদতে পারিনি

নুরুজ্জামান মানিক এর ছবি
লিখেছেন নুরুজ্জামান মানিক (তারিখ: শনি, ১৪/০৩/২০২০ - ১:৪৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছে আমার ছোট আপা (পিঠাপিঠি বোন ) নাসিমা । ডাক্তার আমাকে একটা প্রেসক্রিপশন দিয়ে বললেন ,ইনজেকশন গুলি আনুন । আমি এক দৌঁড়ে ইনজেকশন নিয়ে এসে দেখি ছোট আপাকে ডাক্তার বুকে পাম্প করছে , তারপর সাদা চাঁদরে ঢেকে দিল তার নিথর শরীর । আমার পাশে অচেতন হয়ে মেঝেতে পড়ে গেলেন আম্মা ।ডাক্তার আমাকে বললেন, আপনি ভেঙ্গে পড়বেন না । হাসপাতালের অনেক ফর্মালিটি আপনাকে মেইনটেইন করতে হবে নতুবা বডি নিতে পারবে


ইস্টার্ন ক্রিকেট এসোসিয়েশান

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ২৮/০২/২০২০ - ৯:০২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify]ক্যাঙ্গারুর দেশে যারা স্নাতক পর্যায়ে পড়াশুনা করেন তাদের বেশিরভাগ ছাত্রকেই কাজ করতে হয়। একে তো গাদা গাদা পড়ার খরচ, তার উপর থাকা খাওয়ার খরচ, দেশে যত টাকা পয়সাই থাকুক, কাঁহাতক আর বাড়ি থেকে আনা যায়। না হয় পড়ার খরচটা আনা গেল, কিন্তু বাকি খরচের কিছুটা যদি কাজ করে আয় করা যায়, মন্দ কি?


রাসেল ভাই

অরূপ এর ছবি
লিখেছেন অরূপ (তারিখ: বুধ, ১৯/০২/২০২০ - ১০:৪১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আপনার নামের পাশে কটা ডট ছিল সেটা এখন আর মনে নেই ।
অপবাক কিংবা রাসেল ( ......),
আপনার জন্য শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জমানো থাকবে বাকি জীবন।


জীবন যেমন

গৃহবাসী বাউল এর ছবি
লিখেছেন গৃহবাসী বাউল [অতিথি] (তারিখ: সোম, ১০/০২/২০২০ - ৬:৫১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify] অনেকদিন বোলগ দিয়ে ইন্টারনেট চালাই না। মনটা চায়, কিন্তু সময় আর সুযোগ দুয়ে ইম্রুল কায়েসের ব্যাট আর ইশান্ত শর্মার বলের মত একত্র হয় না। সময়টাও কেমন জানি অস্থির যাচ্ছে। পিএইচডি শেষের দিকে, অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ। দেশে কিছুদিন পরপর কিছু একটা নিয়ে অস্থিরতা, পরিবারে, সমাজে। সব মিলিয়েই #কিয়েক্টাবস্থা। সবচেয়ে বেশি প্যারা দিচ্ছে পিএইচডি। মুরুব্বিরা বলেন (যারা ইতোমধ্যে এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গিয়েছেন) পিএচডির ৯৯% হলো সুপারভাইজার। করতে এসে হাড়ে মজ্জায় টের পাচ্ছি।