চিন্তাভাবনা

সামাজিক ব্যবসার রকম সকম এবং রবির ফ্রি বিলবোর্ড

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি
লিখেছেন ত্রিমাত্রিক কবি [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ৩০/০৭/২০১৪ - ১:৪৪পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

কিছুদিন আগে ফেসবুক স্ট্যাটাস হিসাবে দেয়া সচল ষষ্ঠ পাণ্ডবদার একটা উক্তি দিয়ে শুরু করি,

দুই প্রকার ব্যবসায়ী আছে। প্রথম প্রকার ব্যবসায়ী চুপচাপ ব্যবসা করে যায়, কখনো সম্ভব হলে জনসেবা করে বা করে না। দ্বিতীয় প্রকার ব্যবসায়ী মহা ঢাকঢোল পিটিয়ে ব্যবসা করে, কিন্তু স্বীকার করে না যে সে ব্যবসা করছে। জিজ্ঞেস করলে বলে সে সমাজসেবা করছে বা জনগণের কল্যান করছে। এটাকে মনে হয় সামাজিক ব্যবসা বলে।


মানবতার হ্যাশট্যাগ; হ্যাশট্যাগের মানবতা

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শনি, ২৬/০৭/২০১৪ - ৩:১৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

মানবতার হ্যাশট্যাগের জোরে মানবতা ছড়িয়ে পড়ছে চারদিকে । আমরা সবাই আজ মানবতার অপরুপ নিদর্শন দেখাচ্ছি । 'যদি, কিন্তু, তবে' মুক্ত আনকন্ডিশনাল মানবতা । মানবতার এই বিশাল পর্বতের দিকে আমি অবাক হয়ে চেয়ে রই আর মাথায় কেবল একটা প্রশ্নই ঘুরপাক খায় । হামাসের রকেট, চোরাগোপ্তা হামলার টানেল কিংবা আত্মঘাতী বোমা হামলা তো পারলো না মানবতার হ্যাশট্যাগের শেষে 'যদি, কিন্তু, তবে' যোগ করে দিতে । ৩০ লক্ষ বাঙালী, নিহত ব্লগার রাজীব কিংবা ধর্ষিত সংখ্যালঘু কেন বারে বারে 'যদি, কিন্তু, তবে'র জালে পড়ে যায় ?


বাংলাদেশের ঔষুধের মান এবং ঔষুধ শিল্পের সার্বিক অবস্থা

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শনি, ২৬/০৭/২০১৪ - ৩:১২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

পানির অপর নাম যদি জীবন হয় তাহলে জীবনে বেঁচে থাকার অপর নাম হবে ঔষুধ। ঔষুধ এর প্রয়োজনীতা কিংবা এর গুরুত্ব কতটুুকু তা নতুন করে বলার কিছু নেই। সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্যে ঔষুধের কাছে অসংখবার মানুষের সাহয্য নিতে হয়। আর একটা নিদিষ্ট বয়সের পর তো সেটা নিত্যদিনের সঙ্গী হয়। কিন্তু জীবনরক্ষাকারী এই ঔষুধ ও মৃতুর কারণ হয়ে দাঁড়ায় যখন সেটি ভেজাল কিংবা মানহীন হয়। আমাদের বঙ্গদেশে প্রায় শোনা যায় ঔষুধে কারণে রোগীর ম


সাঁতার

রকিবুল ইসলাম কমল এর ছবি
লিখেছেন রকিবুল ইসলাম কমল [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৫/০৭/২০১৪ - ১১:৪০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আম্মুর খালাতো ভাই, আবুল মামা তখন অনেক ছোট। এলোপাতাড়ি ছুটে বেড়ানোই তার প্রধান কাজ। বড় বোন হিসেবে আমার আম্মু তাকে চোখে চোখে রাখে, যাতে বর্ষাকালে বাড়ির নামায় বেড়ে ওঠা পানিতে আবার পরে না যায়। কিন্তু আশংকাকে সত্যি করে দিয়ে মামা ঠিকই পানিতে পড়ে যায় এবং সাঁতার না জানার জন্যে মাটির ঢেলার মত তলিয়ে যায়। আর কারো চোখে না পড়লেও সেটা আম্মু দেখে ফেলে। যদিও আম্মু তখন সাঁতার জানেনা।


নিরপেক্ষতার মুখোশ

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ২৫/০৭/২০১৪ - ৫:৪৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ছোটকালে নিরপেক্ষতার ভূত আমার ও ছিলো। তারপর দেখলাম ছাত্রলীগ খুন করে দেখে ওরা শিবিরের রাজাকার রক্ষার হিংস্র তান্ডবকে নিরপেক্ষতার মুখোশ পরায়; শাহবাগ ৩০ লক্ষ হত্যার বিচার চায় দেখে ওরা হেফাজতের মত সুবিধাবাদী ধর্মান্ধদের জন্য চোখের জল ফেলে; আমি ২ লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রমের বিচার এক্ষুনি চাই দেখে, স্বচ্ছ নিরপেক্ষ আন্তর্জাতিক গ্রহনযোগ্য সংস্থার দাবি তুলে।


ফিলিস্তিন, হিটলার - এবং অপরবাস্তবতা

টিউলিপ এর ছবি
লিখেছেন টিউলিপ [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৫/০৭/২০১৪ - ২:৫০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গাজাতে এই মূহুর্তে যে নারকীয় যজ্ঞ চলছে সেটা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। কোন মানুষের পক্ষেই ইজরায়েল গাজাতে যা করছে সেটা সমর্থন করা সম্ভব না। এটা নিয়ে কিন্তু বলে ত্যানা প্যাঁচানোতেও আগ্রহ নেই। তবে এই লেখার বিষয় সেটা না। বরং ফিলিস্তিন সাপোর্ট দিতে গিয়ে কেউ কেউ হিটলারকে নায়ক বানাচ্ছেন কেন সেটা নিয়ে একটু জানার ইচ্ছা থেকেই এই পোস্ট।


দ্বার বন্ধ করে দিয়ে ভ্রমটারে রুখি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: বুধ, ২৩/০৭/২০১৪ - ৪:১৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গত ১৮ই জুলাই ২০১৪-এ অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালের লেখা ‘আমরা যারা স্বার্থপর’ শিরোনামের একটি লেখা বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় ও অনলাইন মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। লেখাটির মূল বিষয় ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন’। সেই বিষয়ে আলোচনার জন্য এই লেখার অবতারণা নয়, বরং ঐ লেখার শুরুতে মূল বিষয়ের বাইরে ইন্টারনেট মাধ্যম নিয়ে তিনি যা বলেছেন সেটা নিয়ে আলোচনা করা।


ব্র্যাড অ্যাডামস, এইবার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীকে একটা চিঠি লিখুন

হিমু এর ছবি
লিখেছেন হিমু (তারিখ: সোম, ২১/০৭/২০১৪ - ২:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্যে গঠিত 'এলিট ফোর্স' র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন ওরফে র‍্যাব ভেঙে দেওয়ার জন্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চিঠি লিখেছেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ নামের একটি মৌসুমী মানবাধিকারবারি সংগঠনের এশিয়া অঞ্চলের প্রধান, ব্র্যাড অ্যাডামস [সূত্র]।


অরগ্যানিক ইলেক্ট্রনিক্সঃ ভবিষ্যতের পরশ পাথর (পর্ব-৬, শেষ পর্ব)

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: রবি, ২০/০৭/২০১৪ - ৯:১৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শেষ পর্ব নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হতে অনেক দেরী করে ফেললাম; নিত্যদিনের যান্ত্রিকতা তো আছেই, তার উপর গেল বিশ্বকাপ। কি করি বলুন! আশাকরছি এই লেখাটা পড়ে অপেক্ষা করে থাকার ক্ষোভটা বেমালুম ভুলে যাবেন।

পিছনের পর্বগুলো এখানে সাজানো পাবেন চমৎকার ভাবে, ধন্যবাদ সচলায়তনকে।

শেষের শুরুটা তাহলে শেষ করে ফেলা গেল, আসুন তাহলে শেষের শেষটা নিয়ে লেগে পরি।


জীবন - এক বহতা নদী

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি
লিখেছেন প্রৌঢ় ভাবনা [অতিথি] (তারিখ: শনি, ১৯/০৭/২০১৪ - ৬:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গিয়েছিলাম কাঁচাবাজারে। গিন্নি বিরাট এক ফর্দ ধরিয়ে দিয়েছিলেন। তা দোকানিদের সাথে দরাদরি, বকাঝকা করে ফর্দমাফিক মালপত্র কেনা হলো বটে তবে ততক্ষণে আমার ব্রহ্মতালু দিয়ে আগুনে তাপ বেরুচ্ছে। যাহোক, হেকেডেকে রিক্সা জোগাড় করে ঝাকামুটে আমায় রিক্সায় তুলে দিলে। বাড়ি ফিরলাম। রিক্সা থেকে নেমে বাজারের থলেগুলো গুছিয়ে নিয়ে এক পা এগুতেই মাথাটা কেমন ঘুর দিয়ে উঠলো। হাতের থলে ফেলে দিয়ে কোন রকমে রিক্সার হুড ধরে সে যাত্রা