চলচ্চিত্র কথন : কথানদী

খেকশিয়াল এর ছবি
লিখেছেন খেকশিয়াল (তারিখ: রবি, ১৯/০১/২০২০ - ৪:৩১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চারটি অসমীয়া লোককথা। চারজনের মায়ের গল্প। সেখানে একজন হিংসুটে লোভী মা। আরেকজন এক চালতার মা। এক মায়ের শুধুই কোলখালি হয়। আরেক রাক্ষসী কখনো চায়নি মা হতে। কিছু অন্ধকার কিছু অদ্ভুত রসের গল্প। অসমীয়া ভাষার বিখ্যাত সাহিত্যিক লক্ষ্মীনাথ বেজবরুয়ার "বুঢ়ী আইৰ সাধু" (বুড়ি আইর সাধু) থেকে চারটি গল্পকে আশ্রয় করে চলচ্চিত্রখানি নির্মিত। "সাধুকথা" আমাদের ভাষায় রূপকথার সমার্থক। "বুঢ়ী আইর সাধু" হল গিয়ে কিনা আমাদের ঠাকুরমার ঝুলি।

চারটি গল্প একটি কাহিনীতেই প্রবাহিত হয়েছে, কখনো দুটো গল্পের স্রোত মিলিত হয়েছে তো কখনো সম্পূর্ণ আলাদা। গল্পগুলো কিন্তু একদম অপরিচিত নয়। যেমন লোভী মায়ের গল্পটাই যদি ধরি। এই গল্পটা খুব ছোটবেলায় মায়ের মুখে শুনি। সচলে একবার লিখেও ফেলি গল্পটা। সেই অজগরের সাথে বিয়ে হওয়া বাইল্লাচুলীর গল্প। এখানে গল্পটা একটু ভিন্ন। অজগরের সাথে বিয়ে হয় এক মেয়ের, অজগর চলে যাবার সময় অনেক ধনরত্ন দিয়ে যায়। যা দেখে অন্য ঘরের হিংসুক মা'টি ভাবেন মেয়েকে অজগরের সাথে বিয়ে দিলেই বুঝি ধনসম্পদ পাওয়া যায়।
আধ্যাত্বিক কাকার অতি বাধ্যগত ভাস্তে তাঁর পরামর্শ অনুযায়ী সন্তান জন্মানোর কিছু মাস না যেতেই একের পর এক হত্যা করতে থাকে তাদের। কিন্তু চতুর্থবারে রুখে দাঁড়ায় সন্তানের মা। কাকার সাথে দেখা হবার সময় গোপনে সাথে নিয়ে নেয় ছুরি।
এক মহিলার পিছে সারাদিনই একটি চালতা গড়াতে থাকে। যেখানেই যায় চালতাটি যায় তাঁর সাথে। সময়ের সাথে অলৌকিকতা চোখে সয়ে গিয়ে একসময় হাস্যাস্পদ করে ফেলে তাকে সমাজের চোখে। সংকট সমাধানে এগিয়ে আসে এক ভিনদেশী ব্যবসায়ী। এই ভিনদেশীর বাড়িতে আরেক গল্প। তাঁর একমাত্র মেয়েকে সে রেখে আসে সৎমায়ের কাছে। সৎমায়ের দুই চোখের বিষ সেই মেয়ে। কিভাবে তাকে শেষ করা যায় তারই চিন্তা করে সে।

চলচ্চিত্রটিতে যেমন অন্ধকারের গল্প আছে, আশাজাগানিয়া আলোর গল্পও আছে। চলচ্চিত্রখানি পরিচালনা করেছেন ভাস্কর হাজারিকা। গল্প নির্বাচনও বেশ তবে নিজ সন্তান হত্যা আর তার ব্যাখ্যার ব্যাপারের গল্পটি শুধুই একটা বোকা বাজে গল্প, অন্য বাকি তিনটি গল্পের সাথে বেশ বেমানান, অনেকেই ভুল বুঝতে পারেন। আবহ সঙ্গীত অপূর্ব, তবে কিছু জায়গায় অতিরিক্ত লেগেছে। একশো বিশ মিনিটের চলচ্চিত্রটি বের হয় ২০১৫ সালে। ২০১৬ তে ভারতীয় আঞ্চলিক চলচ্চিত্র বিভাগে শ্রেষ্ঠ অসমীয়া চলচ্চিত্র হিসেবে জাতীয় পুরষ্কার লাভ করে "কথানদী"।

ছবি: 
05/03/2008 - 10:41পূর্বাহ্ন

মন্তব্য

অবনীল এর ছবি

মুভিগুলো দেখতে চাই। অনলাইনে দেখা যাবে কি ?

___________________________________
অন্তর্জালিক ঠিকানা

হিমু এর ছবি

আরেকটু বিস্তারিত প্রেক্ষালাপ পড়তে পেলে ভালো হতো।

এক লহমা এর ছবি

সহমত।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

এক লহমা এর ছবি

দেখেছিলাম, ভাল লেগেছিল।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

মূল পোস্টের চেয়ে ক্যাটেগরির সাইজ বড়। এমন ফাঁকিবাজি করলে কি চলে? নিদেনপক্ষে চলচ্চিত্রটা দেখে কী কী তোমার ভালো লেগেছে, কী কী খারাপ লেগেছে সেটুকু বলতে পারতে। চলচ্চিত্র কথন কীভাবে লিখতে হয় সেটা এই লেখাটা থেকে বুঝতে পারবে, পড়ে দেখো।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

খেকশিয়াল এর ছবি

সংশোধন করার চেষ্টা করেছি।

-----------------------------------------------
'..দ্রিমুই য্রখ্রন ত্রখ্রন স্রবট্রাত্রেই দ্রিমু!'

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।