তুলসীতলার গল্প

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি
লিখেছেন কুঙ্গ থাঙ [অতিথি] (তারিখ: শনি, ২৫/০২/২০১২ - ১২:৩১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তুলসীতলায় প্রতিদিন কুকুরটি এসে মুতে (শব্দটি অ-কুকুর সমাজে সেন্সরড হতে পারে) চলে যায়..

সকালে কিংবা বিকালে, কোন কোনদিন রাতের বেলা, সুযোগ বুঝে যখন কেউ দেখে না...

কুকুরটি পালিত নাকি বেওয়ারিশ, কেউ জানেনা...

এ সময়টিতে সাধারনত ধর্মকর্মের ধুম পড়ে... এখানে ওখানে মন্দির তৈরীর উৎসব চলে আর চতুর্দিকে লেগে থাকে পূজার্চ্চনা... এ সময়টিতে ঘরে ঘরে ধর্মের পতাকা উড়ে পতপত...

গেরস্ত দাঁতমুখ খিঁচিয়ে বলে, হালার কুত্তা! তোরে একদিন পাইছি তো...

দেশগ্রাম ঘুরে ঘুরে কুকুরটির ব্যস্ত সময় কাটে... সে মাংসের গন্ধ চিনতে পারে ... আগুনের স্পর্শ পেলে দৌড়ে পালায়... রক্ত চেটে চেটে খায় আর বমি করে... মানুষদের মতো সে বসে থাকে না ... তাকে প্রতিদিন খাদ্যের চিন্তা করতে হয়... নিজেকে টিকিয়ে রাখতে হয়...

কুকুরটি বিশ্রীভাবে ঘেউ ঘেউ করে ডাকে... দেশগ্রামের চমৎকার সব বৃক্ষ, সাজানো ঘরবাড়ী, দালানকোঠা, সুন্দর উঠান দেখলেই সে এক পা শূণ্যে উঠিয়ে দেয়... কুকুরটিকে হত্যার জন্য গেরস্ত দা খুন্তি লাঠি বল্লম সবকিছু নিয়ে অপেক্ষায় থাকে...

কুকুরটির ভাষা গেরস্ত ধরতে পারে না, গেরস্তের রাগও কুকুরটি বুঝতে পারে না ...

তুলসীতলার সামনে আজ ভয়ানক এক যুদ্ধ হবে!

মুল গল্পঃ শুভাশিস সিনহা
বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী থেকে ভাষান্তরঃ কুঙ্গ থাঙ


মন্তব্য

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি

তুলসীতলার সামনে আজ ভয়ানক এক যুদ্ধ হবে!

ইসস! এরপর না জানি কি হলো!

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

পরে কি হবে তা জানার আগ্রহ আমারও! পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

ভালো লাগলো

অ:ট: শুভাশিস সিনহা কি জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যতত্বের? মনিপুর থিয়েটারের?

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

হ্যা তিনিই... চিনেন নাকি?

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

হু চিনি... তার শ্রীমঙ্গলের বাড়িতে কিছুদিন আগে একটা চমৎকার দুপুর কেটেছে...

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

আচ্ছা আপনার কথা তাকে বলব ...শুভাশিসের বাড়ি শ্রীমঙ্গল নয়, কমলগঞ্জ। বইমেলায় শুভাশিসের নতুন উপন্যাস বেড়িয়েছে- কুলিমানুর ঘুম।

চরম উদাস এর ছবি

চলুক

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

আপনার অটোমেটেড কমেন্ট জেনারেটরকে ধন্যবাদ হাসি

অরফিয়াস এর ছবি

কুকুরটির ভাষা গেরস্ত ধরতে পারে না, গেরস্তের রাগও কুকুরটি বুঝতে পারে না ...

চলুক

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

ধন্যবাদ অরফিয়াস।

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

প্রদীপ্তময় সাহা, পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

খুব সুন্দর ।
গল্প এবং অনুবাদ দুটোই খুব ভাল ।

কাজি_মামুন এর ছবি

মানুষদের মতো সে বসে থাকে না ... তাকে প্রতিদিন খাদ্যের চিন্তা করতে হয়... নিজেকে টিকিয়ে রাখতে হয়...

এখানে এসে গল্পটির ইঙ্গিত কিছুটা উপলব্ধি করা যায়।

কুকুরটির ভাষা গেরস্ত ধরতে পারে না, গেরস্তের রাগও কুকুরটি বুঝতে পারে না ...

চিরকাল এমনটিই হয়ে এসেছে। আর তাইতো অবশ্যম্ভাবী হয়ে উঠে যুদ্ধ। শ্রেণীসংগ্রাম।

তুলসীতলার সামনে আজ ভয়ানক এক যুদ্ধ হবে!

শেষের লাইনটি সার্থক ছোটগল্পের দাবী পূরণ করেছে। সবার ভিতরই আসন্ন এক অনিশ্চিত পৃথিবীকে নিয়ে শঙ্কা কাজ করে।

অনুবাদককে ধন্যবাদ চমৎকার একটা ছোট গল্প বাংলা ভাষায় উপহার দেয়ার জন্য।

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

পাঠ, এবং অসাধারন বিশ্লেষনের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

আনন্দী কল্যাণ এর ছবি

গল্পের বিষয়টা দারুণ হাসি

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ হাসি

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

তাপস শর্মা এর ছবি

ভালো লেগেছে। বিশেষ করে সমাজের সাথে তুলসিতলার তথাকথিত পবিত্রতার ব্যাভিচারের উন্মোচন ভাবায়।
কিছু বছর আগে হঠাত করেই কিছু মনিপুরী গল্প হাতে এসেছিল। পড়েছিলাম। লেখকরা বেশীরভাগই আসাম অঞ্চলের সাহিত্যিক। ভালো লেগেছিল। তারপর আর বিশেষ কিছু পড়া হয়নি। তবে মনে হয়েছে মনিপুরী সাহিত্য যথেষ্ট শক্তিশালী।

এত কম লিখেন কেন? আরেকটু বেশী লিখুন, প্রত্যাশা রইলো। হাসি

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

পড়ার জন্য এবং পাঠ প্রতিক্রিয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ। ভাষাটি বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরি যা উত্তর-পুর্ব ভারতে মণিপুরি (মৈতৈ) নামে পরিচিত আরেকটি ভাষা থেকে ভিন্ন। তাবে আপনার অনুমান সঠিক। এভাষার বেশীর ভাগ লেখক আসাম অঞ্চলের সাহিত্যিক। তবে বাংলাদেশেও এ ভাষায় সাহিত্যচর্চা কম নয়। বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরি ভাষায় দুটি নিয়মিত সাহিত্য পত্রিকা বের হয় সিলেট থেকে।

সুলতানা পারভীন শিমুল এর ছবি

বেশি রকম ভালো লাগলো। চলুক

...........................

একটি নিমেষ ধরতে চেয়ে আমার এমন কাঙালপনা

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

কমপ্লিমেন্টের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

ধন্যবাদ পদ্মজা হাসি

পদ্মজা এর ছবি

শেষ দুই লাইন। অসাধারন।
চলুক

তারেক অণু এর ছবি
কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

হাসি

অমিত আহমেদ এর ছবি

গল্পটা বেশ লাগলো।
বাংলাদেশে বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী ভাষায় নিয়মিত সাহিত্যপত্রিকা বের হয়ে জেনে মনটা ভালো হয়ে গেলো!

কল্যাণ এর ছবি

চলুক

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।