জিয়া হত্যা কিংবা মুক্তিযোদ্ধা আর্মী অফিসার নির্মুলকরণ প্রকল্প ?

নুরুজ্জামান মানিক এর ছবি
লিখেছেন নুরুজ্জামান মানিক (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০২০ - ৮:২৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১৯৮১ সালের ৩০মে হত্যা করা হয় মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর ও জেড ফোর্স কমান্ডার রাষ্ট্রপতি বীরউত্তম জেনারেল জিয়াকে । এরপর ১ জুন হত্যা করা হয় জিয়ার কথিত খুনি বীরবিক্রম কর্নেল মতিউর রহমান ও বীরউত্তম লেঃ কর্নেল মাহবুবকে । এরপর ২ জুন হত্যা করা চট্রগ্রাম অভ্যুত্থানের কথিত নায়ক মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তি বীরউত্তম জেনারেল মঞ্জুরকে । এরপর এক প্রহসনমুলক কোর্ট মার্শালে তেরজন মুক্তিযোদ্ধা অফিসারকে ফাঁসি দেয়া হয় ।

২৩ সেপ্টেম্বর ১৯৮১ রাত বারোটা ১মিনিট থেকে রাত ৩টার মধ্যে কুমিল্লা,চট্রগ্রাম, ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও যশোর কারাগারে একে ফাঁসির মঞ্চে মৃত্যুবরন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ব্রিগেডিয়ার মহসিন বীরবিক্রম, কর্নেল নওয়াজেশ,কর্নেল আবদুর রশিদ বীর প্রতীক, লেঃকর্নেল মাহফুজ বীর বিক্রম, লেঃ কর্নেল দেলাওয়ার বীর প্রতীক, মেজর গিয়াস, মেজর রওশন ইয়াজদানী বীর প্রতীক, মেজর কাজী মমিনুল হক, মেজর মুজিবুর রহমান, ক্যাপ্টেন আবদুস সাত্তার, ক্যাপ্টেন জামিল হক, লেঃ রফিকুল হাসান খান । ৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৮৩ সালে একই কারনে বীর মুক্তিযোদ্ধা লেঃ কর্নেল ফজলে হোসেন ফাঁসির মঞ্চে মৃত্যুবরন করেন ।

তাঁরা কি সতি জিয়া হত্যায় জড়িত ছিলেন ? নাকি হত্যাকারীদের আড়াল করতেই তাদের হত্যা করা হলো ? নাকি মুক্তিযোদ্ধা আর্মী অফিসার নির্মূল পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হলো? জেনারেল মঞ্জুর বা কর্নেল মতিউর রহমানকে কেন বিচারের সম্মুখীন করা হলো না ? কারা ছিল খলনায়কের ভূমিকায়? জিয়ার সফর সাথীরা বেঁচে গেলেন কিভাবে? নেপথ্যে ছিলেন কারা ? নেপথ্যে কোনও বিদেশী শক্তি ছিল কি?আজো কি রহস্যাবৃত হয়ে থাকবে জিয়া, মঞ্জুর হত্যার মূল ঘটনা?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জিয়া হত্যার নয়, সেনা বিদ্রোহের বিচার হয় যা ছিল প্রহসনমূলক । জিয়া হত্যার ৩৯ বছর পেরিয়ে গেলেও আজো সেই হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়নি।বিচার হ্য়নি মঞ্জুর হত্যারও । ন্যায় বিচার ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় জিয়া-মঞ্জুর হত্যা ও তথাকথিত কোর্ট মার্শালের পূনঃতদন্ত ও বিচারের জন্য একটি বিচার বিভাগীয় কমিশন গঠন করা হোক ।


মন্তব্য

ইশতিয়াক  এর ছবি

আজকের প্রথল আলো' য় জিয়া সম্পর্কিত প্রবন্ধের লিঙ্ক।
https://www.prothomalo.com/opinion/article/1659530/%E0%A6%87%E0%A6%A4%E0%A6%BF%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%A0%E0%A6%97%E0%A7%9C%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%9C%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%89%E0%A6%B0-%E0%A6%B0%E0%A6%B9%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%A8

লেখক এই পত্রিকাতে নিয়মিত লিখেন। আন্তর্জাতিক সম্পরক-রাজনীতি'র ওপর। ভাষা প্রাঞ্জল; বিশ্লেষণ মন্দ নয়; প্রাসঙ্গিকতাও আছে। কিন্তু জিয়ার উপর এই বিষ্ঠা আজকে প্রসব করেছেন।

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

মারুফ মল্লিক আর নুরুজ্জামান মানিক অভিন্ন ব্যক্তি, তাই বলছেন? ইয়ে, মানে...

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

সুমন চৌধুরী এর ছবি

দুই জন আলাদা লোক এইটা শুরুতেই পরিস্কার। প্রশ্ন হচ্ছে ঐ লেখার লিঙ্ক আপনি এখানে কেন দিলেন?

Emran  এর ছবি

অফ টপিক, ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের রচয়িতা ব্যক্তির নাম কি কেউ জানেন?

নৈষাদ এর ছবি

অর্ডিন্যান্সের কপি, প্রেসিডেন্টের সাথে সচিবের নাম আছে।

Emran  এর ছবি

অসংখ্য ধন্যবাদ, নৈষাদ!

কাজী  এর ছবি

একটা অধ্যাদেশ জারি করার কয়েকটি ধাপ আছে। কাজেই সচিবের নাম থাকা মানেই যে সে-ই এটার রচয়িতা এটা বোঝায় না। পদাধিকার বলে আইন মন্ত্রণালয় এর সচিব-এর নাম সব গেজেট-ই থাকে, কারন গেজেট পাবলিশ করার দায়িত্ব তার-ই। তবে আইন মন্ত্রানলয় এর ভেটিং ছাড়া কোন অধ্যাদেশ পাস হয় না। সেই ভেটিং ও অনেক সময় শুধু-ই একটা ফর্মালিটি হিসাবে রয়ে যায়।

এই অধ্যাদেশ কার ব্রেইন চাইল্ড সেটা কোন প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ ছাড়া বা সরকারি আন্তঃমন্ত্রণালয় নথিপত্র না ঘেঁটে জানা যাবে না।

মন মাঝি এর ছবি

আমি ছিলাম সে সময় একেবারে আই অফ দা স্টর্ম, কথিত সমস্ত ষড়যন্ত্রের আতুড় ঘর বা অভিযুক্ত নাটের গুরুর ডেরা চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্টে সাক্ষাৎ মেজর জেনারেল মঞ্জুরের কোয়ার্টারের এক / দুই বাসা পরে!!! কিন্তু কিছুই বুঝিনি, কিছুই জানতে পারিনি (রাতে বোধহয় মিলিটারি ট্রাকের ঘড় ঘড় আওয়াজ শুনেছিলাম - নিশ্চিত না)। ওয়ান ফাইন মর্নিং ঘুম থেকে উঠে শুনলাম আমার দেশের প্রেসিডেন্ট আর নাই! ঘটনা একটা ঘটে গেছে এবং এই ক্যান্টনমেন্টের নেতারা দেশের ভার গ্রহণ করেছেন!!! চট্টগ্রাম নাকি এখন দেশের এফেক্টিভ রাজধানী! টিভিতে দেখাচ্ছে (চিটাগাং স্টেশন) ক্যু-এর মহান নেতারা ওখানে বসে বসেই বাংলাদেশের সব মন্ত্রী-মিনিস্টার-নেতা-টেতাদের পাইকারি বরখাস্ত করে যাচ্ছেন! হা হা হা।----

****************************************

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।