ফর দি লাভ অফ বাংলাদেশ

তারাপ কোয়াস এর ছবি
লিখেছেন তারাপ কোয়াস [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৯/১০/২০১০ - ৯:৫৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বিবিধ ধরনের বাদ্যযন্ত্রের প্রতি প্রচুর আগ্রহ সেই ছোটবেলা থেকে। তবে সমস্যা হলো কোনোটা ভালভাবে শেখার আগেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলি। যেমন প্রথম পছন্দ ছিলো হারমোনিয়াম। মাসতিনেক ধরে ঝিরি ঝিরি বাতাস কাঁদে আর চিরতরে দূরে চলে যাব' গানের প্রথম এক দুই প্যারা বাজানো শিখে হারমোনিয়াম থেকেই দূরে চলে গেলাম। মানে আগ্রহ হারায়ে ফেললাম আরকি। এর পরে আসলো মাউথ অর্গান। আগুনের পরশমনি, আনন্দলোকে আর নাম রেখিছি বনলতার অর্ধেকটা উঠিয়ে হারমোনিকাটা আলমারীতে উঠিয়ে রাখলাম।

মাঝে আরও একটা দুইটা বাদ্যযন্ত্র শেখার আগ্রহ উঠে মাস খানেকের মধ্যে মিলিয়ে গেছে(যেমন আর বাশীঁ)। তবে এই এতগুলান বাদ্যযন্ত্র শেখায় বাবার কাছ থেকে একটা উপাধী পেয়েছি: জ্যাক অফ অল ট্রেডস্ হাসি

কিছুদিন ঝিমমেরে থাকার পর এইবার আগ্রহ জাগলো তবলার প্রতি।
কত সহজ একটা যন্ত্র! টোকা দিলেই কি সুন্দর তাল বের হয়! তবে শিখতে গিয়ে দেখলাম ভেজাল প্রচুর। প্রথমত দুই হাত একসাথে চলে না, এরপরে পাঁচ মিনিট টোকা দিতেই হাত ব্যাথায় অবশ হয়ে আসে। লয়, মাত্রা, ঠেকা, বোল ইত্যাদি হাজারো গ্রামার জানতে হয়। যাইহোক সমস্ত বাধা দুইহাতে সরিয়ে মাস তিন চারের নিরলস চেষ্টায় একটা দুইটা তাল শিখেও ফেললাম। ক্লাবে একা একা বাজাই। লোকজন ভাবে বাঃ ছেলেটার আগ্রহ ভালো তো(তারা অবশ্য গুমোর জানতো না হাসি ওই দুই এক তাল সম্বল করেই বেশ একটা আত্নবিশ্বাস এসে গেছে, ভালোই তো বাজাই! তো খালাতো দুলাভাইয়ের সাথে সঙ্গত করতে গিয়ে, তার কাছ থেকে একটা উৎকৃষ্ট মন্তব্য পেয়ে ভালো বাজনোর আত্নবিশ্বাস চুরমার হয়ে গেলো [যে তুমারে তবলা শিখাইছে, তুমার অর্ধেক জীবনই বৃধা কইরা দিছে মন খারাপ । যাইহোক গ্রামে তবলচীর অভাব নেই। এবং বলা বাহুল্য তারা আমার মত এক দুই তালের কাণ্ডারী না। এইসব নানাবিধ কারণে তবলার প্রতি আগ্রহও নন জিরো ভ্যালু থেকে ক্রমশ জিরো ভ্যালু গ্রহণ করলো। তবে এতদিন পর ছাই ফেলতে ভাঙ্গা কূলার মত এই প্রবাসে ওই তবলা জ্ঞান আবার কাজে লাগছে। ঘটনা হলো যতক্ষণ 'অরিজিনাল তবলচী' না আসে ততক্ষণ আমাকে দিয়ে ঠেকা কাজ চালানো হয়!(অতি অবশ্যই আমার জানা তালের মধ্যে গান ধরতে হয় গায়কের হাসি

পদ্মা মেঘনায় অনেক জল গড়িয়ে গেল। কলেজে উঠলাম। থাকতাম আসাদগেট ছাত্রাবাসে। মজার জীবন। অবাধ স্বাধীনতা। মাঝে মাঝেই এই রুমে ওই রুমে পার্টি হয়(জন্মদিন, নতুন জুতো কেনা বাবদ ইত্যাদি শত কারণ)। পার্টির উপাদান হলো নরম পানি, চিপস, চানাচুর আর গিটার। বেশ কয়েকজনের গিটার আছে তবে ভালো বাজাতে পারে একমাত্র কচি ভাই। দরজা বন্ধ করে চিৎকার করে জেমস, আইয়ুব বাচ্চু বা ওয়ারফেজের গান গাওয়া হতো। দুইপা দূরে সংসদ ভবন। তখনও বক্সে বসা(স.ভবন আর এমপি হোষ্টেলের সাথে লাগোয়া ছোট্ট একটা জায়গা) নিষিদ্ধ হইনি। ওখানে আসতেন জিয়া ভাইরা। কখনও কখনও রাসেল(অর্থহীনের) বা অন্যান্য ব্যাণ্ডর দুইএকজনও। চলতো গিটারে গান বিরতিহীন।

বুদ্ধিমান যারা তারা ইতিমধ্যেই ধরে ফেলেছেন আমি কি বলতে চাচ্ছি হাসি গিটারই হলো আমার নতুন আগ্রহ। ওস্তাদ হিসাবে ধরলাম কচিভাইকে। তিনি কর্ড বা রিদম না শিখিয়ে শুরু করলে ছয় এক দুই তিন, পাঁচ এক দুই তিন ইত্যদি হাবিজাবি দিয়ে!(আমার ধারণা ছিলো কয়েকটা কর্ড আর রিদম বাজাতে জানলেই গিটার বাজানো যায়) কচি ভাইয়ের তরিকায় চললেতো বছর খানেক লাগবে শিখতে। আমার হাতেতো অত সময় নেই। তবে আমিও কম যাই না। পেতি ওস্তাদদের কাছ থেকে মেজর, মাইনর আর বারকর্ড শিখে ফেললাম।আমার প্রথম ছিলো টার্গেট গিটার বাজিয়ে গান গাওয়া। অবশ্য ইতিমধ্যে বাহাতের আঙ্গুলের চামড়া বার কতক উঠে গেছে। কুছ পরোয়া নেহি। রিদমও একটা শিখলাম ডাউন ডাউন আপ আপ ডাউন! এর পরের ইতিহাস বেশ সুখের। ধীরে ধীরে বেশ কিছুগান উঠিয়ৈ ফেললাম। বন্ধু বান্ধবদের মাঝে একমাত্র আমিই গিটার পারি তাই ছিচকা পার্টিতে বেশ কদর বিশেষ করে জুনিয়দের মাঝে! সময় অসময় নাই, গ্রামের খোলামাঠে চিৎকার করে গান করি। উল্লেখ্য আমার নিজের গিটার ছিলো না কখনোই(আর্থিক অসঙ্গতির কারণে) । মামতো ভাই বেশ মালদার আর শেখার খুব আগ্রহ। দুই আর দুই চার হয়ে গেলো। ওর গিটারই বেশীরভাগ সময় বাজাতাম। ইতিমধ্যে গ্রামের অনেক ছোটভাই গিটার কিনে ফেলেছে। টিউনিং করতে বা কর্ড শিখতে আসে আমার কাছে, বেশ একটা গম্ভীর মুড নিয়ে চলাফেরা করি। আহা কি সুখের দিন গেছে তখন!

সুখ সইলো না দীর্ঘসময় ধরে। একদিন দেখি গ্রামে জুনিয়র ছেলেপিলেদের সাথে একটা নুতন মুখ গিটার বাজাচ্ছে। স্করপিয়ন এর লিড। শুনলেই বোঝা যায় ভালো বাজিয়ে।প্রথম প্রথম পাত্তা দিতাম না। পরে দেখলাম না, ঘটনা স্রোতের উল্টোদিকে বইছে। এই ছেলে নাথিং এলস ম্যাটার থেকে শুরু করে বাচ্চুর মাধবী সবই বাজায়। এম আই সিক্সের মত ওর সাখে বন্ধুত্তের সিদ্ধান্ত নিলাম। পরে জানলাম ওর নাম স্টিভ, আমাদের সমবয়সী, ছোটবেলা থেকেই ঢাকায় থাকতো, এজন্য আগে কখনো দেখিনি।। ওর লিড বাজানো দেখে আমারও আগ্রহ জাগলো লিড বাজনোর। স্টিভ বলে স্কেল শিখতে হবে। ততদিনে বই দেখে সি মেজর স্কেলটা হালকা পারতাম। কিন্তু ওটা দিয়া লিড কিভাবে বাজায় তা মাথার উপর দিয়ে যেত। স্টিভকে ধরি, বস কও লিডের গোমর কও! আমার পিড়াপিড়িতে ও একটা টিপস দিল। বললো যে কোনো কর্ডের রুট নোট ধরে লিড বাজনো শুরু করলে ভুল হবে না। এই টিপস নিয়েই ঝাপিয়ে পড়লাম লিড বাজানোয়। একদিন যেন কিভাবে একটা লিড বেরও করে ফেললাম। এখন এই পিসটার একটা নাম দিতে হয়। প্রথম ক্যাণ্ডিডেট হলো আমার ইয়ের নাম, তবে নামটা বাতিল করলাম কারণ আমি ছিলাম ওসলার সদস্য(ওয়ান সাইডেড লভ এসোসিয়েশন, ছুটির দিন ম্যাগাজিন থেকে আইডিয়াটা পেয়েছিলাম)।অনেক ভাবতে একটা নাম মাথায় ক্লিক করলো 'স্টিভ ভাই' এর ফর 'দি লাভ অব গড' এর অনুকরণে নাম দিলাম ফর দি লাভ অব বাংলাদেশ!(স্টিভ ভাই'য়ের ওই ইনস্ট্রুমেণ্টালটার সাথে আমার লিডটার তুলনা অবশ্য সুধীর ভাই আর ৳%@ ভাইয়ের তুলনার মত হবে হাসি

মাঝে বেশকিছু বছর গিটার বাজনো গ্যাপ পড়ে গেলেও আগ্রহটা একবারে পুরোপরি চলে যায়নি(এটা আমার জন্য একটা রহস্য বটে)। এখনও মাঝে মাঝে গিটারটা হাতে
নিয়ে টুকটুক করি। কখনও স্মৃতি খুঁড়ে বের করে আনি ফর দি লাভ অব বাংলাদেশ। আমার প্রথম প্রেম বা প্রথম কবিতার মত।

(কুণ্ঠিত চিত্তে সচলায়তনের সাথে আমার সেই প্রথম ভাললাগাটা শেয়ার করলাম)

Get this widget | Track details | eSnips Social DNA


মন্তব্য

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

ভালোই। নতুন কিছু কম্পোজিশন করে তুলে দিয়েন।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

তারাপ কোয়াস এর ছবি

উৎসাহের জন্য ধন্যবাদ মুর্শেদ ভাই।


love the life you live. live the life you love.

অনিকেত এর ছবি

বাহ,বেশ ভাল লাগল বস!
গীটার এমনিতেই বড় সুরেলা যন্ত্র। এমনিতে কেউ টুং-টাং করলেই দাঁড়িয়ে পড়ে শুনতে ইচ্ছে করে আর এইটা তো পুরো দস্তুর কম্পোজিশান! খুব ভাল লাগল। বিশেষ করে ৫০ সেকেন্ডের মাথায় যখন প্রিলিউডের শেষে গানের মূল পিসটা বাজানো শুরু হয়---সেটা চমৎকার। আরো একটু বড় করতে পারতে বস--ঠিক জমে ওঠার সাথে সাথেই শেষের সুর বেজে উঠল।

আরো আরো দুর্দান্ত কম্পোজিশান আসুক তোমার হাত ধরে
অলরেডি তোমার একজন ভক্ত শ্রোতা তৈরি হয়েছে--এইটা মাথায় রেখো কিন্তু।

শুভেচ্ছা নিরন্তর---

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনিকেতদা, আপনার উদার হস্তে ভালবাসামাখা এই চমৎকার মন্তব্যটি আমার জন্যে অনেক অনেক বড় পাওয়া।

সেসময় এই পিসটা এর চেয়ে আর বড় করা সম্ভব ছিলো না।(স্কেল সম্পর্কে ব্যাপক ভাবে অজ্ঞতাই প্রধান কারন)
আপনাদের এই দুর্দান্ত উৎসাহের পর মনে হচ্ছে আবার নতুন কিছু করি। তবে সহসা আর তা হওয়ার নয়।

আবারও অনিকেতদা আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যটির জন্য।
ভালো থাকবেন।


love the life you live. live the life you love.

তিথীডোর এর ছবি

বাহ, ভাল্লাগলো! চলুক

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ তিথীডোর।


love the life you live. live the life you love.

মোশাররফ [অতিথি] এর ছবি

ভাল লেগেছে। এক সময় আমিও চেস্টা করেছি, সময়ে হালও ছেড়েছি। সুভেচ্ছা রইলো ভাই।

তারাপ কোয়াস এর ছবি

ধন্যবাদ মোশারফ। আপনাকেও শুভেচ্ছা।


love the life you live. live the life you love.

কাজী মামুন এর ছবি

ভালোই তো!

আমি একটা মাত্র যন্ত্র বাজাতে পারি, সেটা হলো একতারা দেঁতো হাসি
বাঁশিতে হালকা পাতলা সূর তুলতে পারি...গিটার হাতে নিয়েছিলাম শেখা হয় নি।
বহুদিনের পুরোনো সখ ভায়োলিন এর, শিখবো ভাবছি।
=================================
"রঙিন কাফনে মোড়া উৎসুক চোখে
ছায়া ছায়া প্রতিবিম্ব দেখি
মানুষ দেখি না।।"

=================================
"রঙিন কাফনে মোড়া উৎসুক চোখে
ছায়া ছায়া প্রতিবিম্ব দেখি
মানুষ দেখি না।।"

তারাপ কোয়াস এর ছবি

ধন্যবাদ কাজী মামুন।

একতারা বাজানো যত সহজ মনে হয় আসলে তত সহজ জিনিস না হাসি রিদম সম্পর্কে ভাল জ্ঞান না থাকলে বাজানো কষ্টকর।

সুনীলদের ভায়োলিন শুনে আমরও ইচ্ছে হয়েছিলো শেখার। একদিন এক বেয়াই এর ভায়লিন নিয়ে কিছুক্ষণ ঘষাঘষি করার পরও যখন কোনো সুরেলা শব্দ বের করতে পারনি, তখনই আমার ভায়োলিন শেখার সাধের সলিল সমাধি ঘটেছে হাসি

ভায়োলিনে আপনি সাফল্য অর্জন করুন। এর জন্য অগ্রীম শুভেচ্ছা রইলো।


love the life you live. live the life you love.

অদ্রোহ এর ছবি

গিটারবাজি ভাল্লাগলো। আরো কম্পোজিশনের আশায় রইলাম।

--------------------------------------------

আজি দুঃখের রাতে সুখের স্রোতে ভাসাও ধরণী
তোমার অভয় বাজে হৃদয় মাঝে হৃদয় হরণী।

--------------------------------------------
যদ্যপি আমার গুরু শুঁড়ি-বাড়ি যায়
তথাপি আমার গুরু নিত্যানন্দ রায়।

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ অদ্রোহ। ভবিষ্যৎএ চেষ্টা করবো।


love the life you live. live the life you love.

সাইফ তাহসিন এর ছবি

দেড় মিনিটের ক্লিপ ঝুলানির লাইগা কইষ্যা মাইনাচ চোখ টিপি দেঁতো হাসি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তারাপ কোয়াস এর ছবি

কইষ্যা মাইনাচ এর লাইগা অনেক ধন্যবাদ সাইফ ভাই চোখ টিপি


love the life you live. live the life you love.

অতিথি লেখক এর ছবি

ভালই তো হচ্ছিল। এইরকম আরো দেন।

আমার চেয়ে বড় জ্যাক অব অল ট্রেডস মনে আর কেউ নাই। আমার গিটার থাকার পরও আমি গিটারে টুংটাং করতে পারি। দেঁতো হাসি

অনন্ত

তারাপ কোয়াস এর ছবি

হাঃ হাঃ হাঃ আমার চেয়ে বড় জ্যাঅঅট্রে আছে এইটা মানা কষ্টকর।

অনেক ধন্যবাদ অনন্ত।


love the life you live. live the life you love.

মাহবুব রানা এর ছবি

সচলায়তনে এই দিকটার অভাব বোধ করি মাঝে মাঝে। বছরে মোটে দুইএকটা কম্পোজিশন, ইউটিউবের পোস্ট আসে।
ভালো লেগেছে, চলুক।

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ মাহবুব রানা।


love the life you live. live the life you love.

রাহিন হায়দার এর ছবি

বেশ ভালো! আরেকটু বড় হলে আরো ভালো লাগতো। আশা করি আরো কাজ শেয়ার করবেন সচলায়তনে।
________________________________
মা তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো...

________________________________
মা তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো...

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ রাহিন হায়দার।
অট: আপনার 'মন খারাপের দুপুর' খুবই ভালোলেগেছে, যদিও মন্তব্য করা হয়নি( আসলে বেশ কিছুদিন পরে পেয়েছিলাম)


love the life you live. live the life you love.

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

উন্নিশ্শ নব্বুই সাল থেকা গিটার আমার সঙ্গী, সোপিশ হিসাবে এইটা খ্রাপ না... এককালে কিছু কর্ড আর রিদম শিখছিলাম... এখন ব্যাগে ভইরা রাখছি। ফ্রেড বেঁকে গেছে মনে হয় এই কয় বছরে। আরেকটা কিনতে হবে

বাজনা ভাল্লাগলো... আরো দেন
______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

তারাপ কোয়াস এর ছবি

বাঁকা ফ্রেড বোর্ডের গিটারে ইজ্জত নাই নজরুল ভাই, আরেকটা জলদি লন। আর আমার গিটার দৌড় আপনার চেয়ে খুব বেশী এইটা ভাবার কোন কারণ নাই হাসি

অনেক অনেক ধন্যবাদ নজরুল ভাই উৎসাহের জন্য।


love the life you live. live the life you love.

পুতুল এর ছবি

বাজনা এবং লেখা খুব ভাল লাগল।
হতে পারে কিছু কাক তালের কারণে।

**********************
ছায়াবাজি পুতুলরূপে বানাইয়া মানুষ
যেমনি নাচাও তেমনি নাচি, পুতুলের কী দোষ!
!কাশ বনের বাঘ!

**********************
ছায়াবাজি পুতুলরূপে বানাইয়া মানুষ
যেমনি নাচাও তেমনি নাচি, পুতুলের কী দোষ!
!কাশ বনের বাঘ!

তারাপ কোয়াস এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ কায়সার ভাই।


love the life you live. live the life you love.

অতিথি লেখক এর ছবি

কি আশ্চর্য ! আমারও তো একই কাহিনী। গিটার অল্প অল্প পারি। সা রে গা মা জানি বলে হারমোনিয়ামের রিডও টেপাটিপি করি অল্প সল্প। বেহালা শিখেছিলাম মাসখানেক। পড়াশোনাটা শেষ হোক, আবার ধরব। তবলা সেই কবে থেকে ঘরে পড়ে আছে, তাল ঠোকা আর হলো না।

তবে টিভিতে যখনই গান দেখায়, আমি হা করে বাদ্যযন্ত্রীদের দিকে তাকিয়ে থাকি, ওদেরকেই আমার সত্যিকারের ম্যাজিশিয়ান মনে হয়।

জ্যাঅঅট্রে থেকে ম্যাঅঅট্রে হয়ে যাবেন একদিন নিশ্চয়, সেই শুভেচ্ছা রইল হাসি

সাত্যকি

তারাপ কোয়াস এর ছবি

হাঃ হাঃ হাঃ আমি ভাবছিলাম দুনিয়ায় আমিই শুধু বিরল প্রজাতির একপিস জ্যাঅঅট্রে!

অনেক ধন্যবাদ সাত্যকি। ভাল থাকবেন।


love the life you live. live the life you love.

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

আপনার হাত খুব পরিষ্কার এবং মিষ্টি। চর্চাটা ছাড়বেন না ভাই, প্লিজ। মাঝে মাঝেই সময় সুযোগ পেলে এরকম ছোট ছোট কিছু সলো ট্র্যাক দেবেন।

আমিও একসময়ে খুব গিটার পাগল ছিলাম। শয়নে-স্বপনে-জাগরণে শুধুই গিটার। প্রথমে কিছুদিন কর্ডস আর রিদম শিখলাম। তারপর আস্তে আস্তে লিড গিটার বাজনো শুরু করলাম। এরপর ধুমসে ষ্টেজে বাজাতে শুরু করলাম। খুব যে ভালো বাজাতাম না তা বুঝতে পারি তবে চেষ্টা করতাম। একবার সাতক্ষীরায় শো করতে গেলাম, সম্ভবত ১৯৯০ সালে। ইনডিয়া থেকে মিউজিশিয়ানরা এসেছেন। গিটারে কালীদা, কিবোর্ডে সন্তোষদা আর ভোকাল রাজু ভাই। কালীদা লিড বাজাবেন, আমার মেজাজ চরম খারাপ। আমি বেস ধরলাম জীবনে প্রথম। সেই থেকে শুরু, আর জীবনে লিড গিটারে ফেরা হয়নি। প্রথম দিনেই বেস গিটারের এমন প্রেমে পড়লাম যে বেস আর ছাড়লাম না। ২০০০ সাল থেকে আর বাজাই না। বাসায় দুটো দামী বিদেশী অ্যাকুষ্টিক পড়ে আছে, ধরা হয়না। আমার স্ত্রী সন্তান স্নেহে ওদুটোকে মাঝে মাঝে ঝেড়ে মুছে রাখেন। ৬মাসে বা বছরে এক দুইবার টুংটাং করি। স্ত্রী প্রায়ই রাগারাগি করেন এই বলে যে অনেক ছেলেরা ভালো বাজায় কিন্তু পয়সা নেই বলে একটা দামী গিটার কিনতে পারেনা। আমি কেনো ওদেরকে গিটারদুটো দিয়ে দেইনা! আমি নিরব থাকি। জীবনে মাত্র দুটো ছেলেকে মনমতো কিছু টিপস দিয়েছিলাম, আঙুলের মুভমেন্ট শিখিয়েছিলাম, ট্যাপিং-স্ল্যাপিং শিখিয়েছিলাম। রুবেল মালয়েশিয়ায় থাকতো, সেসনাল মিউজিশিয়ানের কাজ করতো। আর রানা বেশ অনেকদিন হয়ে গেলো সোলসে বাজায়। সরি ভাই, গিটারের কথা উঠলে আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনা।

এবার ভাবছি দেশে ফিরে কিছু ক্লাসিক্যাল কাজ শিখতে শুরু করবো। অনেক দিনের ইচ্ছে বাংলা লোকসংগীতের কিছু স্টাফ নোটেশন লেখার। কিন্তু জিনিসটা আগে ভালোভাবে শিখতে হবে।

এবার বলেন দেখি নিচের ছবির ভন্ডটাকে চিনতে পারেন নাকি-
g

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

তারাপ কোয়াস এর ছবি

@তাজ ভাই, আপনার এই মন্তব্যটা দীর্ঘবিরতির পর চোখে পড়লো, এর জন্য আন্তরিক ক্ষমাপ্রার্থী। আপনার অকৃত্তিম ভালবাসা আর উৎসাহ, আমার এই যৎসামান্য গিটার প্রচেষ্টায় বড় অনুপ্রেরণা হয়ে থেকেছে সবসময়।

ছবির 'ভণ্ড'কে চিনতে ভুল হয়নি! আমাদের প্রিয় তাজভাই উক্ত অপরাধী! হাসি


love the life you live. live the life you love.

কল্যাণF এর ছবি

বাসায় দুটো দামী বিদেশী অ্যাকুষ্টিক পড়ে আছে, ধরা হয়না। আমার স্ত্রী সন্তান স্নেহে ওদুটোকে মাঝে মাঝে ঝেড়ে মুছে রাখেন। ৬মাসে বা বছরে এক দুইবার টুংটাং করি। স্ত্রী প্রায়ই রাগারাগি করেন এই বলে যে অনেক ছেলেরা ভালো বাজায় কিন্তু পয়সা নেই বলে একটা দামী গিটার কিনতে পারেনা। আমি কেনো ওদেরকে গিটারদুটো দিয়ে দেইনা! আমি নিরব থাকি।

দয়া করে আর নিরব থাকবেননা, আমার তো একটা খুব দরকার

তারাপ কোয়াস এর ছবি

হো হো হো


love the life you live. live the life you love.

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।