জোছনার ফেরীয়ালা

মূর্তালা রামাত এর ছবি
লিখেছেন মূর্তালা রামাত (তারিখ: বুধ, ০৩/০৪/২০১৩ - ১১:৫০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সোনায় মোড়ানো ছাত্রলীগের যদি হইতা
দিনেদুপূরে চাপাতি দিয়া তামাম বিশ্বজিতরে টুকরা টুকরা কইরাও
প্রাইমিনিস্টারের হাত থিকা নিতা পারতা শ্রেষ্ঠ সাঁতারুর পুরস্কার;
যদি হইতা ছাত্রদলের কেউ, কাদের মোল্লারে সত্যায়ন দিয়া জিব্রাইলের ডানায়,
লাশের অপেক্ষায় ককটেল ফুটাইতে ফুটাইতে তুমি
পথে প্রান্তরে উড়াইয়া দিতা ম্যাডামের গোলাপী হরতাল
আর খোয়াবে দেখতা হাওয়া ভবনের ম্যাজিক রিয়ালিজম;
বুকে চে' ঝুলাইয়া ব্যানসন ফুকতে ফুকতে
ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের হাড্ডি মাংস আলাদা দিয়া
দিন শেষে মাল্টি ন্যাশনালের মাখন মেয়ের নরমে মাথা এলাইয়া
বেডরুম থিকা একজন সফল বিপ্লবীর আত্মকথা লিখনের সুযোগও তোমার ছিল;
চাইলে তুমি মাথায় নিয়া আসমানী কিতাবের তুকতাক
পদ্মা মেঘনা যমুনার তীরে শিবিরও গড়তে পারতা,
তখন বাংলাদেশের স্বাধীনতারে তোমার বালছাল মনে হইতো,
মুক্তিযুদ্ধের হোগায় লাথি মাইরা রাজাকারগো বগলের চিপায় খা্ড়াইয়া
পাকিস্তান জিন্দাবাদের ঘ্রাণে মাতোয়ারা তুমি
ত্রিশ লক্ষ শহীদের পতাকায় ধরায়া দিতা আগুন,
আল বদরের হিংস্রতায় উপড়ে নিতা শহীদ মিনারের ষোল কোটি চোখ
কিন্তু তুমি কারোরই হওনি শেষে
নিজেরই থেকেছো শুধু
হেঁটেছো নিজের পথে অবিরাম,
বিবেকের তড়পানো বুকে হাত রেখে অনুভব করেছো মায়ের খুবলানো দেহ,
শেয়ালে খাওয়া পিতার করোটিতে গুপ্তঘাতকের নাম পড়তে পড়তে তুমি
ক্রমশ ঝড় হয়ে নেমে এসেছো পথে-
শ্লোগানে গর্জনে অনুবাদ করেছো
সবুজ দূর্বাঘাসের তলপেটে হলদে হয়ে থাকা
পূর্বপুরুষের চাপা দীর্ঘশ্বাস-
না, তুমি কোন অস্ত্র নাওনি হাতে
রাতের আঁধারে ফালি ফালি করোনি কোন তরুণের গাঢ় চাঁদ,
তুমি গুঁড়িয়ে দাওনি কোন মন্দির প্যাগোডা হৃদয়,
চলন্ত বাস ট্রেন আর ঘরভর্তি মানুষে তুমি আঁকোনি মৃত্যৃর চোখ মুখ ইশারার ভাষা,
ভালোবেসে রক্তের দায়
তুমি কেবল জেগে উঠে অন্ধকার জনপদে
বকুল ফুলের মতো হাত ভরে জোছনার ফেরীআলা হয়েছিলে তাই
তোমাকেই বলি দিয়ে রাজনৈতিক হিসেবে নিকেশ
ক্ষমতার মোহ আর নির্বাচনী ইশতেহারসমূহ
সঙ্গমে খুঁজে ফেরে ধর্মান্ধের খোলা তলোয়ার.....!

৪/০৪/১৩
সিডনি, অস্ট্রেলিয়া।

**উৎসর্গ- সাম্প্রতিক দমন নিপীড়নের শিকার হওয়া ব্লগারেরা।


মন্তব্য

কানা বাবা এর ছবি

কিন্তু হায়, আজ আমরা কারোরই নই। মন খারাপ

/----------------------------------------------------
ওইখানে আমিও আছি, যেইখানে সূর্য উদয়
প্রিয়দেশ, পাল্টে দেবো, তুমি আর আমি বোধহয়
কমরেড, তৈরি থেকো,গায়ে মাখো আলতা বরণ
আমি তুমি, আমি তুমি, এভাবেই লক্ষ চরণ।।

অতিথি লেখক এর ছবি

অনেক দিনের জমানো ক্ষোভ দেখছি ভাই।
সদা সত্য বলাই শ্রেয়।
শুভকামনা রইল।

তুহিন সরকার।

অতিথি লেখক এর ছবি

দলান্ধ, ধর্মান্ধ, জাশি নিপাত যাক।
কবিতা ভাল লেগেছে।

সিরাজুল লিটন

অতিথি লেখক এর ছবি

তোমাকেই বলি দিয়ে রাজনৈতিক হিসেবে নিকেশ
ক্ষমতার মোহ আর নির্বাচনী ইশতেহারসমূহ
সঙ্গমে খুঁজে ফেরে ধর্মান্ধের খোলা তলোয়ার.....!
সোহরাব হোসেন।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA