জন্মদিন আসলে একটি মিথ্যা প্রতারণা

শ্যাজা এর ছবি
লিখেছেন শ্যাজা (তারিখ: বুধ, ০২/০৭/২০০৮ - ২:৩৪পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

কারুবাসনার লেখা। তার সময়াভাবে বরাবরের মত আমি টেলিফোনে কথাগুলো শুনে নিয়ে আমার ব্লগে পোষ্ট দিলাম

সমস্ত উড়োখই জরাথ্রুষ্টের দিকে চলে গেল। বাইরে কোন ফুলগাছ নেই। মানে বাথটব বা টগবগ টগবগ বাত বন জায়ে টাইপের জীনাত আমান। নেই ফ্লুরিজ ফ্লুরিজ গন্ধে উড়ে আসা মৌমাছি। সুতরাং আর্কিমিডিস লাফালেন না। জল ছিটকালো না। সুতরাং জন্মদিনের প্রস্তাবনা মিথ্যে বলে প্রমাণিত হল।

নেক্সট-

সে এক ভয়ংকর প্রেমের দৃশ্য। কবি বা কবীর বিদেশিনীটিকে বাংলা ভাষা শেখাতে সমুদ্যত হলে কিনে আনে একগুচ্ছ ব্রেইলের পাতা অ আ ক খ। সাদা পোষাকে সাদা আলো বিদেশিনীর বুক বরাবর ফুটে ওঠে ব্রেইলের অক্ষর সমূহ। কবি লিখছেন বা লিখবেন কিন্তু তা প্রকৃত প্রস্তাবে জন্মদিন কখনো। এরপর প্রথমবার যখন বনবাসে গেল রাম সীতা আলদা আলাদা এক্স ও ওয়াই আলাদা আলাদা অক্ষ ধরে ক্রেজি ফোরের গান বাজছিল। তার সাথে টুনটুনি ফিঙে যেরকম নাচে। তার সাথে ঋত্বিক রোশন মায়াবতী ও পার্লামেন্ত। কিন্তু রাম সীতার গল্প এখানেই শেষ নয়। কাটাকুটি খেলা হবে খাতার শেষদিকের কোন পাতায়। এইসব সাত-পাঁচ ভেবে শিশুরা এখনো স্কুলে যায়। লেখাপড়া ও কৃষিকর্ম।কিন্তু জন্মদিন হলে তো তাদের সব বাড়িতে থাকার কথা।

নেক্সট-

আসলে জন্মদিন বলতে হয়তো একটা গভীর কথা ভাবছ। এই ছোঁয় এই ছোঁয় কাঁটা আর প্রতারণা প্রতারণা খেলা। আর যেসব ঘড়ি মূক ও বধির, কেবল মাকড়সার লালা নি:সৃত চাঁদোয়া আর শামিয়ানা পাতা। জন্মদিনের উৎসব ভুলে রাম গেছে বনবাসে। ঘড়ি স্থির। ঠিক যেন হরিণের চোখের পাতা। সীতা ফিরে ফিরে যায় ঢেউ ঢেউ খেলে। কোন এক নদীর ঘাটে সময়ের গলায় বাঁধা দড়ি নি:শ্বাসে রামছাগল গন্ধ। আর কিছু প্রতারক তার মুখে দিয়ে গেছে সজনের কচি পাতা। জন্মদিন অখন্ড রেললাইনের মত এগিয়ে আসছে সাঁই সাঁই শব্দে। আর যাবেও সে বহুদূর, পাকস্থলী হয়ে অগ্নাশয় ও রেচন প্রক্রিয়ায়। তাই তো প্রতারকেরা মুখে রুমাল বেঁধে জন্মদিন জন্মদিন খেলছে আর দস্তয়ভস্কি শুধুই ঘন্টার হিসেবে ভাড়া করা গণিকার শরীরে একটা একটা করে বিঁধিয়ে দিচ্চে সূচ। এটা সূচনা মাত্র। এরপর সূর্য উঠলে কাজকর্ম শুরু হবে। শূণ্য পানপাত্রে এসে বসবে দু একটা নীল গোলাপী মাছি।

-শেষ-


মন্তব্য

নজমুল আলবাব এর ছবি

বেটায় একটা বউ পাইছিল বটে।

ভুল সময়ের মর্মাহত বাউল

শ্যাজা এর ছবি

আবার জিগায় হাসি


---------
অনেক সময় নীরবতা
বলে দেয় অনেক কথা। (সুইস প্রবাদ)

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

@আলবাব
এই মন্তব্য কি আপনার বউ দেখছে?
______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

মুজিব মেহদী এর ছবি

লেখাটার প্রতিবিন্দু সুন্দর, গেলাটা যা একটু কঠিন।
ধন্যবাদ কে পাবেন, কারুবাসনা না শ্যাজা?

................................................................
আমার সমস্ত কৃতকর্মের জন্য দায়ী আমি বটে
তবে সহযোগিতায় ছিল মেঘ : আলতাফ হোসেন

... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ... ...
কচুরিপানার নিচে জেগে থাকে ক্রন্দনশীলা সব নদী

শ্যাজা এর ছবি

ধন্য টা কারুবাসনারে দেন আর বাদটা আমারে হাসি


---------
অনেক সময় নীরবতা
বলে দেয় অনেক কথা। (সুইস প্রবাদ)

আকতার আহমেদ এর ছবি

দু্'জনরেই ধন্যবাদ .. ভাগাভাগির দরকার কী ! চোখ টিপি

শেখ জলিল এর ছবি

ধন্যবাদ কারুবাসনা ও শ্যাজাকে..

যতবার তাকে পাই মৃত্যুর শীতল ঢেউ এসে থামে বুকে
আমার জীবন নিয়ে সে থাকে আনন্দ ও স্পর্শের সুখে!

কারুবাসনা এর ছবি

গুড জব।


----------------------
বিড়ালে ইঁদুরে হলে মিল, মুদির কিন্তু মুশকিল ।


----------------------
বিড়ালে ইঁদুরে হলে মিল, মুদির কিন্তু মুশকিল ।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA