ওরে মুশি, পাকিস্তানে যাইছ না

কুমার এর ছবি
লিখেছেন কুমার [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৮/১২/২০১২ - ১০:১৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাংলাদেশের কোন দায় নেই পাকিস্তানকে সতী-সাধ্বী প্রমান করার। বাংলাদেশের আসন্ন পাকিস্তান সফর কোন পূর্বনির্ধারিত সফর নয়, আইসিসির সম্ভাব্য সফর-সূচীতে এই সফরের কোন অস্তিত্ব নেই, অস্তিত্ব নেই পিসিবির সূচীতেও। আইসিসির তরফ থেকে এই সফরের জন্য কোন চাপ নেই, যা আছে তা একমাত্র লোটা-পাপনের চাপ।

আইসিসি বলছে, তার সদস্য কোন দেশকে আইসিসি বাধ্য করে না কোন বিশেষ সফরের জন্য, নিতান্তই দুই দেশের পারস্পরিক সমঝোতার উপর ভিত্তি করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সফর-সূচী নির্ধারিত হয়। আইসিসি শুধুমাত্র ম্যাচ অফিসিয়াল ঠিক করে দেয়, সাথে অফিসিয়ালদের নিরাপত্তার ব্যাপার টি দেখে। অথচ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, আইসিসির বাধ্যবাধকতার কারণেই ক্রিকেটারদের পাকিস্তান সফরে যেতে হবে। এই বছরের এপ্রিল মাসে যখন হাইকোর্ট পাকিস্তান সফরের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে তার কিয়ৎকাল পূর্বেও এই “আইসিসির বাধ্যবাধকতা” নামক থলের বিড়াল উঁকি ঝুঁকি দেয়। বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি বা টি-২০ বিশ্বকাপ আইসিসি আয়োজিত ও পরিচালিত, বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর আইসিসি আয়োজিত নয়। শুধুমাত্র পরিচালনা করবে আইসিসি। আর আইসিসির বাধ্যবাধকতা যদি থাকেই, অস্ট্রেলিয়া-শ্রীলঙ্কা-সাউথ আফ্রিকা কিভাবে নিরাপত্তা ইস্যুতে পাকিস্তান সফর বাতিল করে?

পাকিস্তানের ডন পত্রিকা এনায়েত হুশেইন সিরাজের বরাত দিয়ে বলছে,

We have in principle agreed to tour Pakistan. It’s a commitment made by former BCB president Mustafa Kamal. We are keeping his word,” Enayet Husain Siraj, BCB’s head of cricket operations, said. “The tour is subject to security clearance.

ভানু’র মত বলতে হয়, দশরথ প্রতিজ্ঞা করবো, আর রাম পালন করবো! রাজা প্রতিজ্ঞা করবো, আর জনগণে ভুইগ্যা মরবো! মর জ্বালা। ওরে পাপিষ্ঠ লোটা, নিজেরে আর কত বেচবি?

ডন পত্রিকা আরও বলছে,

The second edition of the BPL is due to begin next month, days after the Pakistan tour. But according to a Monday report by the cricket website, ESPNcricinfo, Pakistan will only give its cricketers clearance to play in the tournament if Bangladesh goes ahead with the tour.

আমাদের দেশে এসে খেলে চোট্টা পাকিস্তানিরা দুইটা পয়সার মুখ দেখে খেয়ে পরে বাঁচতে পারছে। পাকিস্তানের সাথে যদি ক্রিকেটাঙ্গনে সম্পর্কের অবনতি হয়, বাংলাদেশ ক্রিকেটের বালটাও বাঁকা হবে না (কৃতজ্ঞতাঃ হিমু ভাই)।

কয়েকজন ছাগু বলছে, মাত্র তো ২টি ম্যাচ! স্পোর্টসম্যানশিপ বলে একটা ব্যাপার আছে না! তোরা স্পোর্টসম্যানশিপ যে মুখে বলিস, সেই মুখে ছ্যার ছ্যার কইরা মুইত্যা দিলাম। ভীতিকর পরিবেশে জীবন বাজি রেখে ২টি ম্যাচ খেলে ক্রিকেটের কোন উন্নতি সাধিত হবে তা বোধগম্য না। স্পোর্টসম্যানশিপের অভাব থাকলে আছে চোট্টা পাকিস্তানিদের। তাইতো মুলতান টেস্টে অলক কাপালীর শট মাটিতে পড়ার পর ক্যাচ ধরে রশিদ লতিফ আউটের আবেদন করে। আজাইরা চিমা এশিয়া কাপে রান নিতে বাধা দেয়। স্পোর্টসম্যানশিপের কোন অভাব আমাদের ক্রিকেটারদের নেই। আমাদের রফিক পাকিস্তানের ওমর গুলকে রানআউট না করে তাকে উইকেটে ফিরে আসার সুযোগ দেয়, ফলে টেস্টে হারলেও আমাদের স্পোর্টসম্যানশিপের জয় হয়।

মোটের উপর পাকিস্তান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য এখনও তৈরী না। ব্যর্থরাষ্ট্র পাকিস্তানের ক্রিকেটে কি ঘটছে প্রথমালুর কল্যাণে আমরা সবই জানছি। আলুর পাকিমেহন-চোষণ-লেহনের বিস্তারিত এখানে, ধন্যবাদ সচল সপ্নহারা। পাকিস্তান নামক সন্ত্রাসবাদী-তালেবানী রাষ্ট্রে প্রতিটি মানুষের জীবন অনিশ্চিত। এমন কোন দিন নাই যে দিনে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শুধুমাত্র চলতি বছরের (২০১২) হতাহতের একটা পরিসংখ্যান দেখা যাক (সুত্র),

Killing in Pakistan

বাংলাদেশে বোমা বিস্ফোরণের তথ্য হালনাগাদ করা না থাকলেও, গুগল করে ডিসেম্বর পর্যন্ত আরও কয়েকটি হতাহতের তথ্য পেলাম (এরমধ্যে নিজেদের বানানো বোমায় ২ জন মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু, হরতালে বোমা বিস্ফোরণে আহত কয়েকজন উল্লেখযোগ্য)। এই বছর পাকিস্তানে ৬ জন সাংবাদিককে হত্যা করা হয়, আহত হয় ৪ জন। হত্যা করা হচ্ছে বিধর্মীদের, উপজাতীদের। এই ডিসেম্বের মাসের কয়েকদিনে বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদী ঘটনায় প্রায় ৩০০ জন নিহত হয়। পাকিস্তানে মসজিদে হামলা হচ্ছে, বিমান বন্দরে হামলা হচ্ছে, হামলা হচ্ছে জনসভায়-পাঁচতারা হোটেলে-বিদেশী দূতাবাসে-বিদেশী নাগরিকদের উপর-ক্রিকেটারদের উপর-আধাসামরিক/সামরিক বাহিনীর উপর। পাকিস্তান কোনভাবেই নিরাপদ নয় টাইগারদের সফরের জন্য। নিরাপত্তাজনিত কারণে যেখানে পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলো তাদের দ্বিতীয় হোমগ্রাউন্ড শারজা বা দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে, বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচ দুবাইয়ে নয় কেন?

আমাদের দায় আছে ক্রিকেটারদের প্রতি, ক্রিকেটারদের দায় আছে বাংলাদেশের জনগণের প্রতি। বাংলাদেশের কতিপয় পাকমনপেয়ারু ছাগু/ছাগুপ্রেমী ছাড়া আর কেউ চায় না টাইগাররা পাকিস্তান সফর করুক। পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে টাইগাররা কে কি ভাবছে, তা জানার কোন সুযোগ নেই। তবে নিশ্চিত যে, টাইগারদের মা-বাবা, আত্মীয় স্বজন অনেক দুশ্চিন্তার মধ্যে আছেন। দুশ্চিন্তার মধ্যে আছে বাংলাদেশের সচেতন ক্রিকেটপ্রেমীরাও। বড়ভাই এর দাবী নিয়ে তাই টাইগার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে বলতে ইচ্ছা করে, ওরে মুশি, পাকিস্তানে যাইছ না।


মন্তব্য

অতিথি লেখক এর ছবি

চলুক হাততালি

ফারাসাত

আলতাইর এর ছবি

এহহে! আপ্নের মইদ্দেও ইস্পোর্ট্ম্যানশিপের অভাব দ্যাক্তাসি! বিসিবি'র গরিব-মিস্কিন গুলা ২-৪টা ডলার পকেটে ভরতাসে এর মইদ্দে আপ্নে এ কি হাউকাউ শুরু করলেন?

স্বপ্নহারা এর ছবি

যে দেশের জাতেীয় বিবেক রশিদ লতিফের মত চোর-বাটপার, সেই দেশের মানসিকতা ঐরামই হবে।

বিসিবি-লোটার বাপের সম্পত্তি!

চলুক চলুক চলুক

-------------------------------------------------------------
জীবন অর্থহীন, শোন হে অর্বাচীন...

কুমার এর ছবি

"যে দেশের জাতেীয় বিবেক রশিদ লতিফের মত চোর-বাটপার, সেই দেশের মানসিকতা ঐরামই হবে।" চলুক
পাকিস্তানের গেলমান মুক্ত বিসিবি চাই।

অতিথি লেখক এর ছবি

গুরু গুরু
ভালো কথাই বলছেন।

ইয়জা

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

আমিও বলি, 'পাকিস্তানে যাইছ না।' চলুক

তারেক অণু এর ছবি

ঝাক্কাস

সাফি মোঃ ইসতিয়াক এর ছবি

এই সব পকিস্তানি দালাল গুলারে চাবকানো দরকার।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।