গণজাগরণ মঞ্চ ইজ নট ইকুয়াল টু ধর্ম অবমাননা

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি
লিখেছেন মৃত্যুময় ঈষৎ [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ০৩/০৪/২০১৩ - ৪:৪৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গণজাগরণ মঞ্চ কোনদিন এক মুহূর্তের জন্যও কোন ধর্মেরই ধর্মীয় কোন বিষয় নিয়ে কোন বক্তব্য দেয় নাই। দিবেই বা কেন? যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি আর জামাত-শিবির নিষিদ্ধ করার দাবীর সাথে কোন ধর্মেরই কোন সম্পর্ক নাই। এই সহজতম সমীকরণটা বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষকে বোঝানো যাচ্ছে না। ধর্ম নিয়ে গণজাগরণ মঞ্চের শুরু থেকে একটাই বক্তব্য ছিল 'ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার', যা আমাদের সংবিধানের সাথে কোনভাবেই সাংঘর্ষিক নয়।

জামাত-শিবির প্রথম থেকেই চেষ্টা করেছে এই আন্দোলনের সাথে ধর্মের সম্পর্ক টেনে এনে একে বাধাগ্রস্ত করতে। জামাত-শিবিরের সাথে সময়ের পরিক্রমায় তাদের সাথে গলা মিলিয়েছে বিএনপি, তারপর কওমি মাদ্রাসা, তারপর হেফাজত ইসলাম, এবং সর্বশেষে আওয়ামী লীগ। একটা মিথ্যা ১০০ বার বললে সেটা সত্যের চেয়ে বড় সত্য হয়ে যায়। সেটাই হয়েছে। এই রকম একটা মিথ্যাচার সত্য হয়ে গেছে। মিডিয়া-সাংবাদিক সবাই এমনভাবে রিপোর্ট করে যেন মনে হয় এটা ফ্যাক্চুয়াল একটা অভিযোগ এবং সত্য হতেও পারে। হয়তো ১ বছর পর যখন কেউ রিপোর্ট করবে তখন সরাসরিই বলবে যে গণজাগরণ মঞ্চ ধর্মের অবমাননার সাথে সংশ্লিষ্ট। এই অপবাদ-মিথ্যাচার সহ্য করা অতি কঠিন।

কার ব্যক্তিগত দল-মত কী আছে তার সাথে শাহবাগ আন্দোলনের কী সম্পর্ক? শাহবাগের আন্দোলনের দাবী একক ও অভিন্নঃ যুদ্ধাপরাধের বিচার ও জামাত-শিবির নিষিদ্ধকিরণ। এর সাথে ধর্মের সম্পর্ক কোথায়? সরকারের কাছে অতি গুরুত্বপূর্ণ হেফাজত ইসলাম কেন বলে ধর্মের অবমাননার দায়ে গণজাগরণ মঞ্চ ভেঙে দিতে? সেই দাবিতে কীভাবে বিএনপি-এরশাদ-আওয়ামী লীগ নাচতে নাচতে সুর মেলায়? এটা কেমন দেশ? এটা কেমন বিচার বিবেচনা? এটা কি ২০১৩ সাল না আদিম যুগ?

নাস্তিকতা সাংবিধানিকভাবে কোন অপরাধ না, যে কোন ধর্মের অবমাননা অপরাধ (সমর্থনযোগ্য না অসমর্থনযোগ্য সেটা ভিন্ন আলোচনা)। বর্তমানে যে কোন ধর্মের অবমাননার জন্য শাস্তির বিধান আছে। সেটা সরকার প্রয়োগ করতে পারে। যদিও শুধু ইসলাম ধর্মের তথাকথিত অবমাননার অভিযোগই কেবল গঠিত হয়, অন্য ধর্মের অবমাননা সরকার চোখে দেখে না। কিন্তু হঠাৎ করে যেই পরিস্থিতিতে সরকার নির্বিচারে ৩ + ৩ = ৬ জন ব্লগারকে আটক করলো তা কোনভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সরকার হেফাজতে ইসলামের মত ভণ্ডদের কাছে মাথা নত করে এই কাজ করেছে। মিথ্যাচারকে প্রশ্রয় দিয়েছে, অন্যায়কে প্রশ্রয় দিয়েছে। হেফাজতে ইসলামের মূল টার্গেট গণজাগরণ মঞ্চ বন্ধ করা-যুদ্ধাপরাধীদের মুক্ত করা-জামাতকে বাঁচানো। সরকার যেই কুয়ায় হঠাৎ করে নিজে থেকে পড়ে গেল খুব সম্ভবত তারা নিমজ্জিত হতেই থাকবে, আর উঠতে পারবে না। গহীনে কেবলি অন্ধকার।

সরকারকে হেফাজতি ইসলামকে সরাসরি ৪ টি প্রশ্ন করে পরীক্ষা করে দেখতে পারে তারা কী উত্তর দেয়ঃ

প্রশ্ন ১: যুদ্ধাপরাধীর বিচার চায় কি না?
প্রশ্ন ২: গোলাম আজম, মুজাহিদ, সাঈদী, কাদের মোল্লা ও শুয়োরপ্রমুখদের যুদ্ধাপরাধী মানে কি না?
প্রশ্ন ৩: তাদের ফাঁসির রায় চায় কি না?
প্রশ্ন ৪: জামাত-শিবির নিষিদ্ধ চায় কি না?

হেফাজত ইসলাম সংবাদ সম্মলেন করে পুরো জাতির সামনে এই ৪ টি প্রশ্নের উত্তর দিক, বিশেষ করে ২, ৩ আর ৪ প্রশ্নত্রয়ের। তারপর তাদের একটা দাবীও বিন্দুমাত্র আমলে নিবেন কী না পুনর্বিবেচনা করেন, সরকার।

ধর্মের অবমাননা আর গণজাগরণ মঞ্চ/যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি/জামাত-শিবির নিষিদ্ধকরণ এই দুইটা বিষয় সম্পূর্ণভাবে আলাদা বিষয়। এই সহজ সমীকরণটা জাতির বুঝতে হবে। এই সমীকরণ জাতিকে বোঝানোর জন্য আমাদের আরো কাজ করতে হবে প্রিন্ট-ইলেক্ট্রনিক-অনলাইন মিডিয়ায় বারবার বহুভাবে।

এখন জয়টা ছিনিয়ে আনতে হবে। হয়তো পাশে কাউকে পাওয়া যাবে না। এই সময় আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে আরো।
জয় বাংলা।


মন্তব্য

ব্যাঙের ছাতা এর ছবি

সহমত। ছড়িয়ে দিলাম।

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

ধন্যবাদ।


_____________________
Give Her Freedom!

মেঘা এর ছবি

এখানেই তো সমস্যা যে এই প্রশ্নগুলো করবে না সরকার বাহাদুর।

--------------------------------------------------------
আমি আকাশ থেকে টুপটাপ ঝরে পরা
আলোর আধুলি কুড়াচ্ছি,
নুড়ি-পাথরের স্বপ্নে বিভোর নদীতে
পা-ডোবানো কিশোরের বিকেলকে সাক্ষী রেখে
একগুচ্ছ লাল কলাবতী ফুল নিয়ে দৌড়ে যাচ্ছি

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

মন খারাপ


_____________________
Give Her Freedom!

সুলতান এর ছবি

যাদের সাথে প্রিন্ট, ইলেকট্রিক বা অনলাইন মিডিয়ার যোগাযোগ নাই তাদের জন্য কিছু একটা করা উচিৎ। কারন যাদের সাথে ইলেকট্রিক বা অনলাইন মিডিয়ার সাথে যোগাযোগ আছে তারা জেনে বুঝে যে কোন একটা পক্ষ ফালাফালি করতেছে। কিন্তু মাদ্রাসার ছাত্র, অশিক্ষিত কৃষক বা গৃহবধূ এদেরকে আগে টার্গেট করা উচিৎ বলে আমার মনে হয়। কারন তারা এইসব মিডিয়ার খবরে লাফায় না তারা লাফায় মিডিয়ার খবর থেকে তৈরি গুজবে।

mamun এর ছবি

ঠিক।

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

চলুক


_____________________
Give Her Freedom!

ঊর্ণনাভ এর ছবি

সহমত। চলুক
অটঃ তোমার অফলাইন নিক কি 'মৃষৎ'। খুব পছন্দ হয়েছে নামটা।

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

(পুরো নাম লেখায় আলসেমির কারণে সংক্ষিপ্ত করে নিছি ভাই)


_____________________
Give Her Freedom!

ঈয়াসীন এর ছবি

চলুক

------------------------------------------------------------------
মাভৈ, রাতের আঁধার গভীর যত ভোর ততই সন্নিকটে জেনো।

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

হুমম


_____________________
Give Her Freedom!

অতিথি লেখক এর ছবি

শাহবাগের গণজাগরণের সাথে কখনই ধর্মের কোন সম্পর্ক ছিলনা! আমাদের দেশের মানুষের খেয়ে দেয়ে কোন কাজ নাই, যেকোন বিষয়ের সাথে কোন সম্পর্ক নাই এমন একটা বিষয় জড়িয়ে একটা জগা-খিচুরী অবস্থার সৃষ্টি করে! গণজাগরণ মঞ্চকে যদি আওয়ামিলিগ এখন বোঝা মনে করে তাহলে বুঝতে হবে তাদের বিরোধী দলে যাওয়ার সময় এসেছে! সরকার পরিচালনার বোঝা তারা আর বইতে পারছেননা!

বটতলার উকিল

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

মেনন তো বললেন আমও যাবে ছালাও যাবে!


_____________________
Give Her Freedom!

পিয়াল এর ছবি

কালের কণ্ঠে দেখলাম হেফাজত ইসলামের বড় হুজুরের বিরাট সাক্ষাতকার ছাপা হয়েছে, এই চারটা প্রশ্ন করা খুবই প্রাসঙ্গিক ছিল। কিন্তু সাক্ষাতকার গ্রহণকারী সাংবাদিককে সেই দিকে যেতে দেখলাম না।

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

যাইবো না তো বস! চুশীল মিডিয়া। আসল প্রশ্ন না কৈরা আরো তেলায়!


_____________________
Give Her Freedom!

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA