ইয়োগা: সুদেহী মনের খোঁজে |২২| আসন: শল্‌ভাসন।

রণদীপম বসু এর ছবি
লিখেছেন রণদীপম বসু (তারিখ: মঙ্গল, ২৪/০৩/২০০৯ - ১:১০পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

‘শলভ্‌’ শব্দের অর্থ পতঙ্গ। আসন অবস্থায় দেহটিকে অনেকটা পতঙ্গের মতো দেখায় বলে আসনটির নাম শলভাসন (Salabhasana)|

পদ্ধতি:
হাত দু’টো দেহের দু’পাশে লম্বাভাবে রেখে উপুড় হয়ে শুয়ে পড়ুন। হাতের চেটো মেঝের দিকে এবং আঙুলগুলো মুষ্টিবদ্ধ হয়ে থাকবে। চিবুক মেঝেতে বা একপাশে বাঁকিয়ে রাখতে পারেন। পায়ের গোড়ালি উপর দিকে সোজা হয়ে থাকবে। এবার পা দু’টো জোড়া ও সোজা রেখে মেঝে থেকে আনুমানিক দেড় হাত থেকে দু’হাত উপরে তুলুন। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রেখে ২০ সেঃ থেকে ৩০ সেঃ এই অবস্থায় থাকুন। এভাবে আসনটি ৩/৪ বার অভ্যাস করুন এবং প্রয়োজনমতো শবাসনে বিশ্রাম নিন।
প্রথম অভ্যাসের সময় যদি দু’পা একসাথে তোলা সম্ভব না হয়, তবে এক পা তুলে অভ্যাস করুন। দু’চার দিন অভ্যাসের পর দু’পা একসাথে তুলতে অসুবিধা হবে না।

auto

উপকারিতা:
আসনটিতে কোমর থেকে শরীরের নিম্নাংশের খুব ভালো ব্যায়াম হয়। ফলে কটিবাত, মাজা ব্যথা, মেয়েদের ঋতুকালীন তলপেটে ব্যথা কোনদিন হয় না। বাত বা সায়টিকার জন্য আসনটি আশ্চর্য এক প্রতিষেধক। তলপেটে খাদ্যগ্রহণী নাড়ি, মূলনাড়ি প্রভৃতি কতকগুলো যন্ত্র প্রয়োজনমতো আভ্যন্তরীণ চাপ সৃষ্টি করতে না পারলে অন্ত্রে অর্ধজীর্ণ খাবার এবং মল-নাড়িতে মল জমতে শুরু করে। ঐ অর্ধজীর্ণ খাবার ও মল পচে দেহে যে বিষ সৃষ্টি করে তা রক্তের সাথে মিশে দেহের সমস্ত দেহযন্ত্রকেই বিকল করে দিতে পারে। অজীর্ণ, কোষ্ঠবদ্ধতা, অম্ল বা এসিডিটি প্রভৃতি রোগ একের পর এক অতি সহজেই দেহে বাসা বাঁধতে পারে। শলভাসনে তলপেটে প্রচণ্ড চাপ পড়ায় ঐ অঞ্চলের দেহযন্ত্রগুলোর খুব ভালো ব্যায়াম হয়। ফলে তাদের কর্মক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়। আসনটি দেহের প্রসারক পেশীগুলোকে সঙ্কুচিত ও রক্তে প্লাবিত করে এবং সঙ্কোচক পেশীগুলোকে পরিপূর্ণ বিশ্রাম দেয় বলে উভয় পেশীর কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। কোমর থেকে দেহের নিম্নাংশের সমস্ত পেশী ও স্নায়ুজাল সতেজ ও সক্রিয় থাকে। আসনটি তলপেট ও কোমরের অপ্রয়োজনীয় মেদ কমিয়ে দেহকে সুগঠিত করে। ফুসফুস-সংলগ্ন স্নায়ুজাল ও ফুসফুসের বায়ুকোষ পুষ্ট ও সবল হয়। ফলে তাদের কর্মক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়। হৃৎপিণ্ডের পেশীও সতেজ ও সক্রিয় থাকে।
আসনটির সাথে পদহস্তাসন, শশাঙ্গাসন বা মেরুদণ্ড সামনের দিকে বাঁকানো যায় এই জাতীয় কোন আসন অভ্যাস রাখলে সেকরালাইজেন লাম্বাগো, লাম্বার স্পণ্ডিলোসিস, স্লীপড ডিস্ক জাতীয় রোগ কোনদিন হতে পারে না।

নিষেধ:
এ আসন অবস্থায় হৃৎপিণ্ডে ও ফুসফুসে প্রচণ্ড চাপ পড়ে বলে যাদের কোনরকম হৃদরোগ আছে, রোগ নিরাময় না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আসন করা উচিত নয়।

এ আসন চর্চায় আরও কিছু বৈচিত্র্যময় আসন রয়েছে। যেমন:

# পূর্ণ শলভাসন (Poorna Salabhasana)

auto

# অর্ধ শলভাসন- ক (Ardha Salabhasana)

auto

# অর্ধ শলভাসন- খ (Ardha Salabhasana)

auto

# উত্থান শলভাসন (Uttana Salabhasana)

auto

# বিপরীত শলভাসন (Viparita Salabhasana)

auto

[Images: from internet]

(চলবে...)

পর্ব:[২১][**][২৩]


মন্তব্য

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

আগামী বই মেলায় আপনার 'ইয়োগা' বই প্রকাশ হোক...

রণদীপম বসু এর ছবি

ধন্যবাদ শিমুল। টুটুল ভাই তো ঘাড়ে চাপিয়েই রেখেছে। এই সময়ের মধ্যে এ ম্যাগাসিরিয়ালটা সম্পন্ন করতে পারলেই তবে গ্রন্থবদ্ধ করার বিষয়ে ভাবতে পারবো। তবু চেষ্টা করবো।

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

নজমুল আলবাব এর ছবি

# পূর্ণ শলভাসন (Poorna Salabhasana) টা সুন্দর চোখ টিপি

ভুল সময়ের মর্মাহত বাউল

স্পর্শ এর ছবি

প্রথম পাতায় ব্যামকারী মর্দ দেখে ভাবলাম একটা ঝাড়ি দিয়ে যাই। পূর্ণ শলভাসন রণদা কে বাঁচিয়ে দিলো। খাইছে


ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...


ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...

রণদীপম বসু এর ছবি

দুষ্ট বালকদের সাথে থেকে স্পর্শও কি দুষ্ট হয়ে যাচ্ছে...!?

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

রণদীপম বসু এর ছবি

নজমুল আলবাব @
এই ছবি তো সৌন্দর্য্য দেখার জন্য দেয়া হয় নাই। আপনার ভুড়িটাকে নিয়ন্ত্রণের উপায় খোঁজার জন্যই এটা দেয়া। সেটার কী হবে...?

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

নীড় সন্ধানী [অতিথি] এর ছবি

রণদা কী স্কুল খুলছেন? ভর্তির আগাম বুকিং দিলাম।

আসনগুলো চমৎকার, কিন্তু দুই তিনটা বাদে বাকীগুলো করতে মেরুদন্ডের হাড় বিসর্জন দিতে হবে মন খারাপ

রণদীপম বসু এর ছবি

মেরুদণ্ডকে পুরোপুরি অর্জনের জন্যই এসব, বিসর্জনের জন্য নয়। ভয় নেই, চাইলেও আপনি বিসর্জন করতে পারবেন না। অতএব অর্জনের জন্য এখনি লেগে পড়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

আবু রেজা এর ছবি

একটা ইয়োগা বই করলে ভালো হতো।
*********************************************************** যে জন বঙ্গেতে জন্মি হিংসে বঙ্গ বাণী
সে জন কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি।।

যে জন বঙ্গেতে জন্মি হিংসে বঙ্গ বাণী
সে জন কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি।।

রণদীপম বসু এর ছবি

তাতে কী হতো...?

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

কীর্তিনাশা এর ছবি

আহা....... দেঁতো হাসি

-------------------------------
আকালের স্রোতে ভেসে চলি নিশাচর।

-------------------------------
আকালের স্রোতে ভেসে চলি নিশাচর।

রণদীপম বসু এর ছবি

বেমক্কা ব্যথাটা কি আসন করতে গিয়ে পেলেন ? না কি দেখেই....!

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

তীরন্দাজ এর ছবি

আমারও একই মত। আগামী বই মেলায় আপনার ইয়োগা বই প্রকাশিত হোক। আমিও থাকবো, দেখা হবে আমাদের!
**********************************
কৌনিক দুরত্ব মাপে পৌরাণিক ঘোড়া!

**********************************
যাহা বলিব, সত্য বলিব

রণদীপম বসু এর ছবি

প্রতীক্ষায় থাকলাম তীরুদা.....

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

ধুসর গোধূলি এর ছবি
রণদীপম বসু এর ছবি

মন ধাক ধাক করুক ক্ষতি নাই। শরীরটাকে ঝকঝকে করতে হবে না ???

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

বই আকারে আসুক। রণ'দাকে জাতীয় ইয়োগা সেন্টারের প্রেসিডেন্ট বানানো হোক দেঁতো হাসি

এইসব আসন জীবনেও প্র্যাকটিস করা হবে না মন খারাপ

রণদীপম বসু এর ছবি

তাহলে কি মরনোত্তর যোগাসনের পোস্ট দিতে হবে...!

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

মরলে তো মরলামই, তখন আর যোগাসন করে কী করব? খাইছে
তখন তো পার্টিতে ব্যস্ত থাকতে হবে সবসময় দেঁতো হাসি

অতিথি লেখক এর ছবি

ফটু কই?

-সো

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA