#হ্যাশমারানির পুতেরা

অরফিয়াস এর ছবি
লিখেছেন অরফিয়াস (তারিখ: বিষ্যুদ, ০৮/০১/২০১৫ - ১২:৩৮পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শুরুটা বহুত দিন আগে থিকা। জমতে জমতে প্যাটে ব্যাদনা হইয়া গ্যাছে।

#গাঁজা

হ, আসলেই, টপিকটা ছিল আসলে গাজা নিয়া কিন্তু হইয়া গেল গাঁজা। ক্যান হইল সেইটাও কই। বাংলাদেশে ফি-বছর এই টপিকে মাসব্যাপী কান্দন চলে। বাংলাদেশিদের জন্য গাজা আসলে গাঁজার মত কাম করে। এর নাম চোখে পড়লেই গাঁজার ধোঁয়ায় আক্রান্তের মত সক্কলের খোমাখাতা ভইরা যায় অসংখ্য মানবদরদী হ্যাশস্ট্যাটাসে। সক্কলের কথা-বার্তা-যুক্তিতে মানবতা চুইয়া চুইয়া পড়ে। পড়তেই পারে, কোন সমস্যা নাই। মানুষ মরলে মানুষের মন কান্দব এইটাই স্বাভাবিক। #সেভগাজা #সেভগাজা করতে করতে সক্কলে হয়রান হয়। উৎসাহীরা চান্দা তুইলা ফিলিস্তিনি দূতাবাসে দিতে যায়। বিপ্লবী ছোট্টভাইয়েরা দেখি পত্রিকা বাইর করে। সবই ভাল, হওয়াই উচিত, মানুষের জন্য মানুষ করব না তো কে করব? কিন্তু ক্যাচাল লাগে আমার হিসাবে। এর মধ্যেই দেশের বিপ্লবী মুসলমান ভাইয়েরা কয়েক গ্রাম মালাউন পিটায়, ঘর জ্বালায়, কয়েকঘর পাহাড়ি দৌড়ানি দেয়, কিন্তু মানবতাবাদীদের কারও হ্যাশে কোন পরিবর্তন নাইক্কা। দেশের মানুষের কষ্টে কারও চউক্ষে জল আসেনা। হ্যাশট্যাগ চুইয়া চুইয়া মানবতা তখন এক্কেবারে বন্ধ। এমনকি কয়দিন আগেও সোশ্যাল ক্রাইসিস, ইন্টারন্যাশনাল পলিটিক্স, হিউম্যানিটি ইত্যাদি তাবৎ ভারি ভারি বিষয়ে তর্ক কইরা মুখে ফেনা তুইলা ফেলা জ্ঞানপাপীরাও নিদ্রামগ্ন। আমি ভাবি কাহিনী কি? মনে মনে সান্ত্বনা দেই, নাহ যারা হ্যাশ মারে তারা নিশ্চয়ই আমারত্থে বেশি বুঝে। চুপ থাকাই ভাল,তাই চুপ থাকি।

#গনতন্ত্র

গুলিস্তান দিয়া যারা চলাচল করে তারা লক্ষ্য করছে, আম্লিগ অফিসের সামনে খুচরা জিনিস বিক্রি করতে বসে দোকানিরা। সব রকমের জিনিস পাওয়া যায়। তবে একটা জিনিস কমন, প্রায় সব দোকানি একটা সুর ফলো করে, ওরেএএএ ভাই, যাই নিবেন ১০ টাকা, দেইখা নিবেন ১০ টাকা, বাইছা নিবেন ১০ টাকা.......। বাংলাদেশি জিনিয়াসেরা কিছু হইলেই সের দরে #গনতন্ত্রের ডালা উপুড় কইরা দ্যায়। জামাতেরে মিছিল করতে দ্যায় নাই ক্যান #গনতন্ত্রবিপন্ন। খালেদা জিয়া এক কাপড়ে দুই রাত কাটায় ক্যাম্নে #বাকশালিগনতন্ত্র। রিজভিরে হসপিটালে নিল ক্যান #নাটুকেগনতন্ত্র। মোট কথার এক কথা হইল, বিম্পি-জামাতরে ভাংচুর করতে দ্যাতে হবি। নাইলে #গণতন্ত্র থাকপে না। ভাল কথা, গনতন্ত্র না থাকলে খুব সমস্যা। এইটা ঠাণ্ডায় নিজের পাছায় কাপড় না থাকার মত সমস্যা। দাউ ভাই #গনতন্ত্র ফিরায় দাউ। কেউ কেউ ভারসাম্য রাখতে আর্থ-সামাজিক দৃষ্টিকোন হইতে ঘটনা লইয়া আর ক্যাচাল না কইরা পারিবারিক ও মানসিক বিষয় লইয়া হ্যাশ মারে, #পাগলামন।

এইদিকে #গনতন্ত্রের চর্চাকারিরা আগুন দিয়া মানুষ মারে, মনিরের বাপে ফ্যালফ্যাল কইরা চাইয়া থাকে, এক পোলার চক্ষু বুমায় উইড়া যায়। কিন্তু #গনতন্ত্র রক্ষা দিয়া হইল কথা। দুই-চাইরটা মনির কয়লা হইছে কিচ্ছু হয়না। ১০-২০জন অন্ধ হইলে কি হইছে? #গনতন্ত্র থাকতে হপে, সাথে থাকতে হপে #মনোদৈহিকশান্তি। ডাইল দিয়া ভাত খাইয়া ভড়ঙ্গের চাদ্দর গায়ে দিয়া গেছোদাদারা তাই কিবোর্ডে ঝড় তুলে। শালা, অনেকদিন পরে এক ছটাক গনতন্ত্র, এক ছটাক দেশপ্রেম মিশাইন্না বিষয় পাওয়া গ্যাছে। হ্যাশেহ্যাশে গনতন্ত্র ফিরে আসবই এনশাল্লাহ।

#ইহা সহিহ ইসলাম নহে

ঘটনা তেমন কিছুই না, পুরান জিনিস, বিল মার আর রেজা আস্লানে কাইজ্জা লাগছে। বিল মারে মুসলিমদের নিয়া খারাপ কথা কইছে, রেজা আস্লানে গোসসা করছে। ভাল কথা, করতেই পারে। আবার চারিদিকে বিলের মুণ্ডুপাত কইরা হ্যাশের ছড়াছড়ি। পারলে একেকজন হ্যাশ দিয়াই মুণ্ডু নামায় দেয় আরকি। এরমধ্যে কিছু দুষ্টু লুকে রেজার কথায় বাগড়া দেয়। পাব্লিকে মহাখ্যাপা। দেখছনি কত্ত বড় সাহস, রেজা আস্লানের মত জিনিয়াস স্কলারের কথায় বাগড়া দেয়! তো ভাল কথা স্কলারে কইছে বাগড়া না দেয়াই ভাল। তো এইদিকে বোকো হারেমের দুষ্টুলুকেরা কয়েকশ মাইয়া লইয়া যায় নিজেদের খেদমতে। পাব্লিক চুপ। জিহাদি লুকজনের খেদমতে কয়েকশ-হাজার নিতেই পারে, ব্যাপারনা। আর যদি বেশি কিছু হয় তাইলে #ইহা সহিহ ইসলাম নহে। ওইদিকে সিরিয়াতে মানুষ মরতে মরতে সাফা হয়, পাব্লিক চুপ। বেশি কিছু কইলে #ভাইয়ে ভাইয়ে ঝগড়া, আপ্নে চুপ থাকেন। ইরাকে বুমা মারে, তো ইরানে পাত্থর মারে যত যাই হোক নতুন হ্যাশ আর আসেনা। আইএসাইএস এইদিকে কল্লা নামায় সের দরে, #কোন কথা হবেনা। মাঝেমাঝে লিফলেট দেয় ক্যাম্নে বিধর্মী নারীদের নিজের আরামে ব্যাবহার জায়েজ, পাব্লিক মুখে স্কচটেপ লাগায় চুপ। কেউ কেউ তখন ভাত না খাইয়া আলু খাইলে কি হবে এই নিয়ে হ্যাশমারে। রেজার কঠর যুক্তিতে মাথা নাড়াইয়া মাথার নাট-বল্টু ঢিলা কইরা ফেলা গেছোদাদারাও চুপ, স্পিকটি নট।

ওইদিকে আরেক বাংলায় জনদরদি ন্যাতা কবির সুমন জঙ্গিদের পক্ষে সাফাই গাইয়া উপ্তা পোঁদ মারা খাওয়ায় আবার গোসসা করে বসে গেছোদাদারা। এইভাবে গুণী মানুষের পোঁদ ক্যান মারা হবে? উনি তো সাফাই নয় সংখ্যালঘুদের বাঁচাতে চাইছেন। আহা দরদ কারে বলে। হওয়াই স্বাভাবিক। মানুষের জন্য মানুষ কান্দবে। এরই মধ্যে নানা আকাম-কুকামের মাঝখান দিয়া অস্ট্রেলিয়াতে এক ক্যাফেতে এক জিহাদি ঢুইকা পুরা ধুন্ধুমার। অস্ট্রেলিয়ার এক পাব্লিকে হ্যাশ মারছে #আইরাইডউইথইউ, পাব্লিকে মহা খুশি। সবাই আবার হ্যাশ মারা শুরু। সাথে থাকে #ইহা প্রকৃত ইসলাম নহে। ব্যাপারই আলাদা।

এইদিকে পাইক্কা তালিবানরা স্কুলে হামলা কইরা কতগুলা বাচ্চা-কাচ্চা মাইরা ফেলল। দেখছনি কাণ্ড? কষ্ট লাগে, লাগাই স্বাভাবিক। সবাই আবার হ্যাশ মারে। ওইদিকে ভারতের পাব্লিক হ্যাশ মারে #উইআরউইথইউ আর পাইক্কা বাল পাকনার দল হ্যাশমারে #ইহা ভারতের কাম #উইউইলটেকরিভেঞ্জ। বাংলাদেশিরা পড়ে বিপদে, না ঘরকা, না ঘাটকা। একদিকে বাচ্চা মরার কষ্ট অন্যদিকে পাইক্কাদের আব্লামি। পুরাই হ্যাশেহ্যাশে কেলেঙ্কারি অবস্থা। তবে এইবারেও পাব্লিক ব্যালান্স রাখে #ইহা সহিহ ইসলাম নহে।

২০১৫ আইতে না আইতেই ফ্রান্সের পারিতে বন্দুক লইয়া পারাপারি কইরা জিহাদিরা মাইরা ফেলছে ১২ জন। পাব্লিক চুপ। ও ভাই চুপ ক্যান? ভাইরে যেই ঠাণ্ডা পড়ছে, কিবোর্ডে আঙ্গুল চলেনা। ধুর মিয়া একটা হ্যাশ মারতে কতক্ষন লাগে? ও আইচ্ছা, কোন সমস্যা নাই, #ইহা সহিহ ইসলাম নহে হেভভি পাওয়ারফুল হ্যাশ। এইটা চলবে।

#ইহা সহিহ ইসলাম নহে চলুক।

------------------------------------------------------------------------

তো কাহিনী হইল, হ্যাশমারানিদের এহেন কাণ্ড-কারখানা দেখলে আগে হইত রাগ আর এখন পায় হাসি। কাষ্ঠহাসি বোধহয় এরেই কয়। অনেকদিন কোন হ্যাশ মারি নাই। তাই এইবেলা একটা হ্যাশ মাইরা গেলাম #হ্যাশমারানির_পুতেরা_তোমাগ_হ্যাশ_চুদি_না।


মন্তব্য

মাসুদ সজীব এর ছবি

ধর্ম নিয়ে নতুন করে কিছু বলতে আর ইচ্ছে করে না, ধর্ম শুধু নিজে অন্ধ না, মানুষজনকে ও অন্ধ করে দেয়। ধার্মিক লোক মাত্রই অন্ধ।

আপনার কাছ থেকে আরেকটু গোছানো এবং বিস্তৃত লেখা আশা করেছিলাম, লতিফ সিদ্দিকী আর তুহিন মালিকের বিষয়টি নিয়ে বিম্পি-জামাতি রাজনীতিও আসতে পারতো। সাম্প্রদায়িকতা-ধর্মান্ধতার বিষয়গুলোতো আপনি অসাধারণ কিছু লেখা লিখেছেন বলে প্রত্যাশার বারুদটা বেশি ছিলো। ভালোথাকুন

-------------------------------------------
আমার কোন অতীত নেই, আমার কোন ভবিষ্যত নেই, আমি জন্ম হতেই বর্তমান।
আমি অতীত হবো মৃত্যুতে, আমি ভবিষ্যত হবো আমার রক্তকোষের দ্বি-বিভাজনে।

গৌতম  এর ছবি

ধার্মিক লোক মাত্রই অন্ধ।

কিভাবে ?? একটু ব্যাখ্যা করবেন কি ??

চরম উদাস এর ছবি

কি আর কমু, বুঝেনইতো খাইছে

অতিথি লেখক এর ছবি

শিরোনামের জন্য গুরু গুরু

আব্দুল গাফফার রনি এর ছবি

হাততালি গুরু গুরু

----------------------------------------------------------------
বন পাহাড় আর সমুদ্র আমাকে হাতছানি দেয়
নিস্তব্ধ-গভীর রাতে এতোদূর থেকেও শুনি ইছামতীর মায়াডাক
খুঁজে ফিরি জিপসি বেদুইন আর সাঁওতালদের যাযাবর জীবন...
www.facebook.com/abdulgaffar.rony

ধ্রুব আলম এর ছবি

গুরু গুরু

সুবোধ অবোধ এর ছবি

#হ্যাশমারানির_পুতেরা_তোমাগ_হ্যাশ_চুদি_না।

ঠিকাছে। চলুক

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

কিছু হ্যাশ থাক না গুপন চোখ টিপি

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

অতিথি লেখক এর ছবি

‘সময়ে সরব, অসময়ে নীরব‘- এসব বর্ণচোরা হ্যাশমারনিদের সংখ্যা এবং তৎপরতা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে বলেই মনে হয়। আলামত দেখে মনে হয়, দেশটা এসব হ্যাশ মারানিদের অভয় জনপদে রূপান্তরিত হতে যাচ্ছে। ধর্মকে রাজনীতিতে ব্যবহারের উন্মুক্ত লাইসেন্স যতদিন থাকবে ততদিন এ নেতিবাচকতার প্রবৃদ্ধি বহাল থাকবে বলেই ধারণা।

অতিথি লেখক এর ছবি

চার্লি হেবডতে সন্ত্রাসী আক্রমণ নিয়ে ফেসবুকে অলরেডি ত্যানাপ্যাঁচানো শুরু হয়ে গেছে; ত্যানাগুলি হলঃ

১। কার্টুনিস্টদের হত্যা করা ঠিক হয় নাই, কিন্তু ইসলামকে অপমান কইরে কার্টুন আঁকাও উচিৎ না।

২। এই হত্যার সঙ্গে বাকস্বাধীনতার কোন সম্পর্ক নাই; এইটা ইসলাম বনাম পশ্চিম/শ্বেতাঙ্গ যুদ্ধের আরেকটা বহিঃপ্রকাশ।

৩। এই হত্যার নিন্দা জানাই, কিন্তু গাজা/ইরাক/আফগানিস্তানে পশ্চিমা/ইসরায়েলী নির্যাতন আগে বন্ধ করতে হবে।

Emran

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

হ্যাশমারানি!! বেশ অনেকদিন পরে সচলে এসেই দারুণ একটা বাংলা শব্দ শেখা হলো! ধন‌্যবাদ।

____________________________

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

সবচেয়ে আমোদের বিষয় হইলো সমাজতন্ত্রের জন্য জীবন উজাড় করা লোকজনও এখন দেখি গণতন্ত্রের দাবীতে হ্যাশ মারে...
হ্যাশ মারো ভাই হ্যাশ মারো দাড়িপাল্লায় হ্যাশ মারো হাসি

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

ধ্রুব আলম এর ছবি

এক্কেবারে জায়গামত দাগা দিছেন গুল্লি

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

হ্যাশ মারানীদের চৌদ্দগুষ্ঠিরে হ্যাশ ...

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

অরফিয়াস এর ছবি

আলাদা আলাদা করে প্রতিমন্তব্য করা হল না বলে দুঃখিত। সমালোচনা-আলোচনার জন্য সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ।

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA