'সিংঘ'-কথন

মর্ম এর ছবি
লিখেছেন মর্ম [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ০৭/০৮/২০১৩ - ৪:০৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চশমাপড়া 'সিংঘ'টি, তার বেজায়রকম রাগ,
মেজাজখানি খিঁচড়ে গেলেই ডাইরিতে দেন দাগ,
নখ কেটেছেন, তাইতে কলম, ঝড় বয়ে যায় হাতে,
সকাল সকাল, ভরদুপুরে কিংবা গভীর রাতে!

'সিংঘ'টি বেশ গান শুনিয়ে, কানের ফুটোয় গুঁজে,
গান ভেজে যান গুনগুনিয়ে চক্ষুদুটি বুজে!
সিনেমাখোর গভীর রাতে আয়েশ করে শুয়ে,
দিব্যি গেলেন চলচ্ছবি আর বাকিসব থুয়ে!

ইচ্ছে হলে 'সিংঘ' গিয়ে চুলোয় আগুন জ্বালেন,
নখর দিয়ে ডেকচি ধরে তাইতে পানি ঢালেন,
দুগ্ধ মেশান আর চা/কফি, শুধান এসে কাছে,
"চিনির কিছু কম হল? না এক্কেরে ঠিক আছে!"

ইঁদুর-সাদা-দন্তরাজি কেশর ঘাড়ের 'পরে,
চৌকোনো এক ফ্রেন্চি না হয় দাড়িতে মুখ ভরে,
কম্পুটারে খেলার জগত বল ধরে আর ছুটে,
চকচকা হয় চোখের মনি, মিচকা হাসি ঠোঁটে!

ডিগ্রীধারি 'সিংঘ'খানির যখন লাগে খিদে,
কিংবা যখন ঠোকর লাগে আড়াল করা হৃদে,
যখন ভারি আলসি লাগে আর ডেকে যায় ঘুম,
একলা তখন বই চিবোন আর লেখার পড়ে ধুম!

গালভরা সব কথার ফাঁকে থাবায় তা দেন মোচে,
দুইখানি ভ্রু'র সব ব্যবধান রাগতে গেলেই ঘোচে,
তাই সচেতন 'সিংঘ'মশায় কেবল হেসেই যান,
হাসির রেখা গাল পেরিয়ে প্রায় ছুঁয়ে যায় কান!

'সিংঘ'মশাই পঁচিশ পার আর ছাব্বিশে লাফ দিয়ে,
থাকুন সদা সিংঘ হয়ে রাজত্বখান নিয়ে!!

[জনৈক শহুরে 'সিংঘ' সম্প্রতি পঁচিশ পেরিয়ে ছাব্বিশ ছুঁয়েছেন। তাঁর জন্য এবং তাঁর স্বজাতি অন্যান্য 'সিংঘ' বা 'সিংঘীর জন্যও এ সুযোগে অফুরন্ত শুভকামনা! :)]


মন্তব্য

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

নাম না জানা সিংহপুরুষকে হেপি বাড্ডে হাসি (কেক্কুক কোনে? চিন্তিত )

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

মর্ম এর ছবি

এই কে আছিস, 'সিংঘ'টারে এইখানে আন ডেকে-
সাক্ষীমশাই দেখ বসে ঐ, কোক ঢেলে দিস কেক-এ! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

সিংহ ভায়া থাকুক বসে মর্ম ভায়ার খাঁচায়,
কার এতটা সাহস বলুন? বাঘ-সিঙ্ঘি নাচায়!
তারচে' বরং দেখুন গিয়ে- সিংহ ভায়া কি চায়,
কোকটা হলেই চলবে আমার, কেক তো খাবে চাচায়। হাসি

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

মর্ম এর ছবি

চাচার কি আর কেক মানাবে? হয়ত বয়স হল-
ডায়বেটিস-এর আনাগোনা, নয়ত বয়স ষোল-
তার পাতে নিন ঝাল পেটিস আর সিঙ্গারাও থাক-
কেক সে বরং আপনারই হোক, কোক ও সাথেই থাক!

সিংঘমশাই কোথায় গেছেন পাচ্ছি না কো খুঁজে,
এলেই তিনি সমস্তটা দিব্যি নেবেন বুঝে-
কার পাতে কেক কার তরে কোক তিনিই বলুন এসে-
সার্কাসে আজ রাজত্ব তাঁর, 'রিং-মাস্টার' বেশে! হাসি

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

পেটিস টা নয় আমিই খেলাম, সিঙ্গারাটা চাচা
(বলে দিলেন কানে কানে প্রাণটা আগে বাঁচা)
আমিও বলি ওগো চাচা ভয় কেন পাও আগে
মর্ম ভায়া থাকলে পরে ধরবে না তো বাঘে

মৃগয়াতে গেছেন বুঝি সিংহ হেলে দুলে
আসুন তবে, বসছি হেথা চেয়ার কিংবা টুলে
এর মাঝেতে যাই যদি'বা ঘুমের কোলে ঢুলে
নিজ গুনে আজ মাপ করে দিন টান না দিয়ে চুলে

ফিরবে যখন রাত করে আজ পেছন দুয়ার খুলে
এই কথাটা তখন যেন যাবেন না কো ভুলে
সিংহ মশায় ফিরলে পরে হাত বাড়িয়ে ফুলে
জানিয়ে দেবেন "শুভেচ্ছা" তার কোকের মাঝে গুলে হাসি

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

মর্ম এর ছবি

রাজরাজাদের মেজাজখানি, জানেন তো, বেশ চড়া,
বজ্র করে আনাগোনা, মেঘ-রোদে-জল ভরা;
তা তিনি যেই এলেন ফিরে "সত্যানন্দ বসে",
খবর দিলুম; "এলুম সবে জগতখানি চষে!
বসাও খানিক- তাঁর সাথে বেশ গপ্পো হবে আজ!-
এই না বলে সিংঘমশাই- মাথায় ফেলে বাজ-
তার গুহাতে গা এলিয়ে ঘুম দিয়েছেন বুঝি-
এখন তারে ক্যামনে ডাকি! পাই না উপায় খুঁজি!

লাজ শরমের মাথা খেয়ে, সাক্ষীমশাই, বলি-
"একটু আরো লাগবে সময়, যুগটা তো ঘোর কলি-
আপনি বরং লেবেনচুষও আর গোটাকয় নিন-
চাইতো, মানে ইচ্ছে হলে, আপনিও ঘুম দিন!

বদ রাজাটার সময় হলে আপনি দেব ডেকে-
রাগ হলে তা দিয়েন বলে খানিক রেখে ঢেকে!
রাজার মেজাজ, জানেন -ই তো, সামলে চলা দায়-
আল্লা মালুম! এত্ত মেজাজ কোত্থেকে যে পায়!"

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

সুযোগ পেলে, কেউ কি আরও কথার সুযোগ ছাড়ি?
এমন ভাবে চললে পরে, থামবে নাকো গাড়ি!
আসুন এবার ব্রেকটা টানি- ছড়ার সাথে আড়ি,
(নিজের পরে, আমার কিন্তু, ভরসাটা- নয় ভারী। খাইছে )

তারচে' চলুন চাঁদ খুজিগে- দূর আকাশের গায়।
সাইদী যেথায় চুপটি করে, মিটমিটিয়ে চায়,
চাঁদটাকে আজ ফেলব ধুয়ে, জোরসে বল সবে,
ঈদের পরে কলঙ্ক আর মানব না কো "তবে"। হাসি

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

অতিথি লেখক এর ছবি

সিংঘ-কে জম্মদিন জানাই।
কবিতা ভাল হইছে।
- একলহমা।

মর্ম এর ছবি

সিংঘ রে, তোর জন্মদিনে একলহমার আশা
এই দেখে নিস, আর বলে দিস, লাগছে ভারি খাশা! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

"সিনেমাখোর গভীর রাতে আয়েশ করে শুয়ে,
দিব্যি গেলেন চলচ্ছবি আর বাকিসব থুয়ে!"
-পড়তে গেলে চলচ্ছবিটা তাল কেটে দিচ্ছে, আমি ছন্দে কোথাও ভুল করছি না তো?

চমৎকার ছড়া হয়েছে। "সিংঘ" মশাই এর জন্য শুভকামনা - "থাকুন সদা সিংঘ হয়ে রাজত্বখান নিয়ে!!"

লেখায় চলুক

____________________________

মর্ম এর ছবি

'চলচ্ছবি'র দোষ দেখিনে, 'সিনেমাখোর' ব্যাটাই
লাগাচ্ছে ঘোট, দেখছি যত, পড়ছে চোখে সেটাই!
সেইখানেতে একটা বুঝি মাত্রা গেছে হারা,
ছন্দ তাতেই কাটছে বোধয়, অমনি ছড়ার ধারা! ইয়ে, মানে...

ও প্রফেসর লেখা -গুড়- হয়েছে বুঝে নিন; সিংঘ নে তাঁর আশীষ,
বার্তাখানি মাথায় করেই রাজ্য ঘুরে আসিস! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

তানিম এহসান এর ছবি

চলুক

সিংঘ'মশাই পঁচিশ পার আর ছাব্বিশে লাফ দিয়ে,
থাকুন সদা সিংঘ হয়ে রাজত্বখান নিয়ে!!
‘সিংঘ’ মশাই, শুভ জন্মদিন, শুভকামনা।

মর্ম এর ছবি

ও সিংঘ দেখ, তানিম ভায়াও এই এয়েছেন আজি,
রাজত্বে তোর আপত্তি নেই, তোর খুশিতেই রাজি!
ন্যাজ বাঁকিয়ে ঘাড় নেড়ে তোর মুকুটখানা পড়ে,
জন্মদিনে সময় নিয়ে যাস রে সালাম করে! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

এস এম নিয়াজ মাওলা এর ছবি

হাততালি

-নিয়াজ

মর্ম এর ছবি

ও সিংঘ তোর খুশির চোটে নিয়াজ দিলেন তালি,
হতচ্ছাড়া, আন গে কতক 'হাউ-ডু-য়ু-ডু'র ডালি!! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

অতিথি লেখক এর ছবি

অসাধারণ!

-এস এম নিয়াজ মাওলা

অতিথি লেখক এর ছবি

চলুক , শুভ জন্মদিন
ইসরাত

মর্ম এর ছবি

রাগলি বুঝি? সিংঘ বেকুব! কাঁচকলা নয়, ওরে-
ইশরাতও আজ শুভেচ্ছাদের যাচ্ছে দিয়ে তোরে! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

আয়নামতি এর ছবি

বাহ! সুন্দর হয়েছে মর্ম। সিংঘের জন্য জন্মদিনের অনেক শুভেচ্ছা হাসি

মর্ম এর ছবি

ও সিংঘ, আয় জলদি করে, এই এসেছেন আয়না,
'বাড্ডে' ক'বেন- এসেই তিনি, এই ধরেছেন বায়না,
এমনি দূরে থাকলে কী হয়?! কেউ তো তোরে পায় না!
সেই দুঃখেই দ্যাখ এসে- কেউ 'বাড্ডে-টু-ইউ' গায় না! খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

তারেক অণু এর ছবি

সিংঘ-কে জম্মদিন জানাই।

মর্ম এর ছবি

বাংলার বতুতার, জয় গাই জয়-
এমনি বতুতা আর কয়খানি হয়-
ইউরোপ আফ্রিকা মহাদেশ ঘুরে
আম্রিকা এশিয়ার কোটাটুকু পুরে-
এই তিনি এয়েচেন সিংঘের কাছে-
কেদারায় বসা রে! হুইখানে আছে!

ঐ ব্যাটা সিংঘ, আসবি নে তুই?
এক্ষণে আয় দেখি- রেডি-এক-দুই- রেগে টং

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

অতিথি লেখক এর ছবি

আবারো এলাম।
কবিতা আর তার সাথে সব কটা প্রতিমন্তব্যে আরো আরো কবিতা, তার উত্তরে আবারো কবিতা, আবারো-আবারো-আবারও -এমন আর দেখি নাই - দাআআআআআআআআরুণ! হাততালি হাততালি
- একলহমা

মর্ম এর ছবি

এই সচলের হাজার হাজার পাতায়
এমনি কত আনন্দরা আছে,
কত্তজনের কত্ত মজার আচার-
এই শেখা তো সেই ওদেরি কাছে!

সচল আবার জমবে আগের মত,
আড্ডা হবে আজিব নতুনতর-
এই তো আশা, খুব কি হল বড়!? ইয়ে, মানে...

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

তিথীডোর এর ছবি

মন্তব্য- প্রতিমন্তব্যগুলো মজা লাগল পড়তে। হাসি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

মর্ম এর ছবি

এমনি করে সবাই যখন বেশ তো ভাল বলছে-
তাইতে করেই কথার পিঠে দিব্যি কথা চলছে-
কার ব্লগে এই এমনি করে কথার চালাচালি
দেখেছিলেম, সেই কথাটি, ভাবছি খালি খালি- ইয়ে, মানে...

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

রোমেল চৌধুরী এর ছবি

বাহ, জম্পেশ। লেখা-মন্তব্য-প্রতিমন্তব্য সবমিলিয়ে আরেকখানা সুকুমারের ছড়ার বই বৈকি? দারুন লাগলো।

------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
আমি এক গভীরভাবে অচল মানুষ
হয়তো এই নবীন শতাব্দীতে
নক্ষত্রের নিচে।

মর্ম এর ছবি

রোমেল ভাইও পা ফেলেছেন এসে?
বড্ড খুশির ব্যাপার হল দেখি-
শব্দ দেখি পাই না খুঁজে কোথা,
প্রশংসাতেই ভাসল নাকি? সেকী!? খাইছে

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

কল্যাণ এর ছবি

গুরু গুরু

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।