টাইম লাইনঃ বাংলাদেশের পাকিস্থান সফর নিয়ে কে কী বলছেন (হালনাগাদকৃত)

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী (তারিখ: মঙ্গল, ১৭/০৪/২০১২ - ৭:১২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

পাকিস্থানের অস্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে সে দেশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে যাওয়ার ব্যাপারে বিভিন্ন দেশ এবং ব্যক্তিকে অতীতে অস্বস্তি প্রকাশ করতে শোনা গিয়েছিল। তবে ২০০৯ সনে শ্রীলঙ্কার জাতীয় ক্রিকেট দলের বাসে অস্ত্রধারীরা হামলা চালানোর পর থেকে পাকিস্থানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সম্পূর্ণ রূপে বন্ধ রয়েছে। মাঝে মাঝে কয়েকটি দেশ বিভিন্ন নিরপেক্ষ ভেন্যুতে পাকিস্থানের সাথে খেললেও পকিস্থানে গিয়ে না খেলার সীদ্ধান্তে অটল থেকেছে পুরো আন্তর্জাতিক গোষ্ঠি।

২০১০ সনে পাকিস্থানে যখন ভয়াবহ বন্যা হয় তখন মানবতার কথা বিবেচনা করেও কেউ ফান্ড তুলতে পকিস্থানে খেলতে যায় নি। তখন পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড একটা সংবাদ দিয়েছিল যে নিউজিল্যান্ড একটা ম্যাচ খেলার জন্যে পাকিস্থানে যাবে। কিন্তু নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড সাথে সাথে জানায়,

New Zealand Cricket chief executive Justin Vaughan confirmed New Zealand had contacted the PCB to suggest cricket could play a part in fundraising for flood victims, but said it remained opposed to touring Pakistan for security reasons.

AP, Wellington, August 23, 2010 [১]

এ রকম পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি মোস্তফা কামাল, যিনি লোটাস কামাল নামে অধিক পরিচিত, গত বছরের ডিসেম্বরে জানান যে বাংলাদেশ দল পাকিস্থান সফর করতে পারে। এ বিষয়ে তিনি ক্রিকইনফোকে বলেন,

My board today agreed to form a security committee to visit Pakistan in January 2012 to review their security measures so as to ensure proper security arrangements are in place prior to arrival of Bangladesh team in Pakistan. My board further agreed that Bangladesh cricket team will visit Pakistan in April 2012 as per ICC's Future Tours Programme. I hope this way, slowly and gradually, international cricket will come back to Pakistan.

Cricinfo, 17 December 2011 [২]

তবে এটা আর গোপন থাকে নি কেন তিনি এই সফরের বিষয়ে এত আগ্রহী। চার দিন পরই ২১ ডিসেম্বর বিসিবি অফিসিয়ালি লোটাস কামালকে আইসিসির সহসভাপতি পদের জন্যে বাংলাদেশ থেকে মনোনিত করে [৩] এবং পাকিস্থান সেটাকে সমর্থনও জানায়। লোটাস কামাল এ বিষয়ে তার মতামত অফিশিয়াল নোমিনেশনের আগেই এভাবে প্রকাশ করেন,

It is a matter of pride and a privilege to receive the PCB's support on my nomination. I will try to live up to the expectations of not only the people of Bangladesh but for Pakistan as well, and also the entire cricketing fraternity.

Cricinfo, 17 December 2011 [২]

পরিস্থিতি যখন এভাবে গড়াচ্ছিল, তখন বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটার এবং ক্রিকেটারস ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশনস অব বাংলাদেশের সভাপতি নাইমুর রহমান দুর্জয় এক সাক্ষাৎকারে তার আশংকার কথা তুলে ধরেন। তিনি জানুয়ারি শুরুর দিকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন,

The situation is not normal there and no other team is going to Pakistan. They themselves play their home games in places like Dubai and Abu Dhabi. The BCB are going to send the investigation team and we hope to be a part of it. If not, we will wait for the report.... I personally believe it is not safe. The worried players haven't approached us formally, but when they do, we will take the matter to the cricket board.

Cricinfo, 10 January 2012 [৪]

যদিও এ পর্যায়ে বাংলাদেশ সফর নির্ভর করছিল বিসিবির সিকিউরিটি ইন্সপেকশনের উপর, কিন্তু তার আগেই পাকিস্থান ধারণা করে বসে বাংলাদেশ তাদের দেশে যাবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্টের সাথে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ডের হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্কই হয়তো পিসিবি চেয়ারম্যান জাকা আশরাফকে সেই নিশ্চয়তা দিচ্ছিল। তিনি জানুয়ারি মাসে জানান,

This England series could be our last series to be held at an offshore venue. We are keen to host international teams just like other member boards are doing. We are already engaged with the Bangladesh board and I am sure their tour to Pakistan in April will break the ice.

Cricinfo, 25 January 2012[৫]

এরপর মার্চের প্রথম সপ্তাহে বিসিবির পক্ষে স্বয়ং লোটাস কামাল যান পাকিস্থান সফরে নিরাপত্তা অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে। সেখানে মাঠ ও মাঠের বাহিরের পরিস্থিতি দেখে তিনি জানান,

After seeing all the security arrangements all of us agree and are satisfied that the security infrastructure is in place. Now it is my responsibility to convince my government to allow the tour and also request the ICC to approve the tour. Since the ICC governs and regulates the game we have to take this issue to them and must bring it to their notice that we want to send a team.

Cricinfo, 4 March 2012 [৬]

কিন্তু এরকম পরিস্থিতিতে সবচেয়ে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় নিরপেক্ষ আম্পায়ার। বাংলাদেশ দলকে না হয় লোটাস কামালের মাধ্যমে পাকিস্থান নেয়া গেল, কিন্তু ভিন্ন দেশের আম্মায়াররা প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কেন ক্রিকেট খেলা পরিচালনা করতে যাবেন? ফলে তিন দিন পরই দুবাইতে হওয়া আইসিসির মিটিং এর মাধ্যমে বেরিয়ে এলো এক আজব নিয়ম। এখন থেকে অনিরাপদ ভেন্যুতে নিরপেক্ষ আম্পায়ারের প্রয়োজন নেই। অর্থাৎ পাকিস্থান তাদেরই সব আম্পায়ার দিয়ে বাংলাদেশের সাথে সিরিজ পরিচালনা করতে পারবে। এ বিষয়ে ক্রিকইনফোর সহকারী সম্পাদক নাগরাজ গোল্লাপুডি লিখেছেন,

The ICC has introduced a "special dispensation" to be made only in "exceptional circumstances" in order to ensure that bilateral series take place even if the ruling body has determined it "unsafe" to appoint its officials for such series. This would allow such series to be manned by "non-neutral match officials"... The dispensation, announced at the end of the ICC's Chief Executive Committee (CEC)'s two-day meeting in Dubai, will have special significance for the proposed tour of Pakistan by Bangladesh, the planning for which is at an advanced stage.

Cricinfo, 7 March 2012 [৭]

এপ্রিলের শুরুতে পাকিস্থানের দ্যা ডন পত্রিকায় কলামিস্ট সাদ শাফকাত একটা কলাম লেখেন। সেখানে এই সফর নিয়ে তিনি তার আস্বস্তির কথা অকপটে তুলে ধরেন। তিনি রিপোর্টটা শুরুই করেন এভাবে,

To begin with, we must ask ourselves, what’s the rush? Our cricket administrators seem to have forgotten the significance and scale of what really happened in March 2009, when fanatic militants terrorised the visiting Sri Lankan cricket team in Lahore, triggering the indefinite suspension of international cricket in Pakistan. It was the darkest and saddest of days, not just in Pakistan cricket, but indeed in cricket as a global sport whose international history stretches back nearly a century-and-a-half.

The Dawn, 1 April 2012 [৮] (আগ্রহী পাঠক পুরো কলামটা উল্লেখিত লিঙ্ক থেকে পড়ে দেখতে পারেন)

যাইহোক, এত কিছুর পরও মধ্য এপ্রিলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ঘোষণা দেয় তারা পাকিস্থান সফর করবে। যদিও প্রথমে পরিকল্পনা ছিল তিনটা একদিনের ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ, কিন্তু বিসিবি সেটাকে ছোট করে একটা একদিনের ম্যাচ এবং একটা টি-টুয়েন্টি ম্যাচের সিরিজে পরিণত করে [৯]।

এ সংবাদে পাকিস্থানে যেন আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। তাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিনা রাব্বানী বলেছেন,

PCB's efforts have finally borne fruit and Bangladesh team's visit will help bring international cricket back to Pakistan and will motivate more teams to come to our country

Cricinfo, 15 April 2012 [১০]

পাকিস্থানি ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি বিষয়টাকে এভাবে দেখছেন,

It's a major breakthrough and I am excited to see Bangladesh touring Pakistan. It is a much-needed development. Not only will it revive international cricket here, the people in the country will also be entertained.

Cricinfo, 15 April 2012 [১০]

পাকিস্থানি অফস্পিনার সাঈদ আজমল বলেছেন,

Playing our home series in Pakistan is always helpful. Though we have been playing in similar conditions in UAE, there are so many factors involved that give you the advantage. The news about Bangladesh touring Pakistan is good for players and the country.

Cricinfo, 15 April 2012 [১০]

এখানে একটা বিষয় স্পষ্ট, পাকিস্থানের সবাই তাদের স্বার্থেই এই সফর চাচ্ছে। তাদের কথাতেই সেটা পরিষ্কার। কিন্তু এই সফর বাংলাদেশের জন্যে কতটা ভয়ঙ্কর হতে পারে সেটা হিমু ভাইয়ের দেয়া এই পোস্টে [১১] পরিষ্কার দেখানো হয়েছে। এছাড়া বাংলানিউজ২৪-এর একটা সংবাদেও জানা গিয়েছে তারা সাত জন জাতীয় দলের ক্রিকেটারের সাথে কথা বলেছেন যাঁরা এই সফর করতে ইচ্ছুক নন। নির্ভরযোগ্য একজন ক্রিকেটার, যাঁর নাম বাংলানিউজ২৪ প্রকাশ করে নি, বলেছেন,

আমি পাকিস্তানে যাবো এখানে আমার বৃদ্ধ বাবা-মা থাকবেন, তারা কি পরিমাণ টেনশনে থাকবেন একবার কি বিসিবি তা ভাবে দেখেছে? আমার কিছু নাও হতে পারে কিন্তু ভয় পেয়ে যদি স্ট্রোক করে আমার বাবা তখন সে দায় কে নেবে। আমরা ক্রিকেট খেলি বলে আমাদেরকে নিয়ে যা তা করবেন তারা।

বাংলানিউজ২৪, ১৫ এপ্রিল ২০১২ [১২]

এ উক্তির মধ্য দিয়েই বেরিয়ে আসে আমাদের ক্রিকেটারদের বর্তমান মানসিক অবস্থা। অথচ লোটাস কামাল এখনও বাংলাদেশের পাকিস্থান সফরের ব্যাপারে অনড়। তিনি অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এবং সহ-অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে বলেছেন যাতে তারা অন্য খেলোয়াড়দের পাকিস্থান যাওয়ার ব্যাপারে বোঝায়। এছাড়াও তিনি তাদের বলেছেন,

পাকিস্তান মুখ ফিরিয়ে নিলে আমাদের ক্ষতি হবে। তারা খেলোয়াড় না দিলে আমরা বিপিএল করতে পারবো না। আমাদের ক্রিকেট আজ এখানে এসেছে পাকিস্তানের সঙ্গে খেলে! তোমরা সবাইকে বোঝাতে চেষ্টা করো।

বাংলানিউজ২৪, ১৫ এপ্রিল ২০১২ [১২]

একই রিপোর্টে প্রকাশ, এ বিষয়ে নাইমুর রহমান দুর্জয় বলেছেন,

খেলোয়াড়রা আমাদেরকে বলেছে তারা পাকিস্তান যেতে চায় না। আমরা বিসিবিকে অনুরোধ করেছি পাকিস্তানে না যাওয়ার জন্য। অন্য কোন দেশ যেখানে পাকিস্তান সফর করছে না সেখানে আমরা কেন যাবো। বাংলাদেশ দল পাকিস্তানে গেলে কার লাভ হবে। আমার মনে হয় বিষয়টিতে সরকার হস্তক্ষেপ করলে মঙ্গল হবে। প্রয়োজনে সরকারের পক্ষ থেকে ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাদা করে কথা বলুক। জীবনের চেয়ে তো ক্রিকেট বেশি হতে পারে না। আমরা আশা করবো ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট এবং সরকার গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি দেখবে। যাতে করে ক্রিকেটারদেরকে পাকিস্তানে যেতে না হয়। এখন আমাদের দল একটা ভালো অবস্থায় এসেছে, পাকিস্তান সফর করতে গিয়ে শেষে না সব খোয়াতে হয়।

বাংলানিউজ২৪, ১৫ এপ্রিল ২০১২ [১২]

দুর্জয় ১৬ তারিখ বিবিসি রেডিওকে দেয়া সাক্ষৎকারে বলেছেন তিনি ব্যক্তিগত যোগাযোগে জানতে পেরেছেন বর্তমান ক্রিকেটাররা পাকিস্তান যাওয়ার ব্যাপারে দ্বিধা-দ্বন্দে আছে, কিন্তু ‘হয়ত’ বিসিসির বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে দেখে কিছু বলছে না। (বিবিসি রেডিও, ১৬ এপ্রিল ২০১২)

বাংলাদেশের পাকিস্থান সফর নিয়ে বাংলাদেশের কোচের বক্তব্যও প্রমাণ করে তিনি যেতে চান না। এ বিষয়ে তিনি বলেছেন,

পাকিস্তান সফর হবেই এমন কোনো সিদ্ধান্ত এখনও আমার জানা নেই। সিদ্ধান্ত জানার পর নিজের করণীয় ঠিক করবো।

বিডিনিউজ২৪, ১৬ এপ্রিল ২০১২ [১৩]

এভাবে পাকিস্থান সফরের বিরোধীতা করে যখন বর্তমান ও প্রাক্তন ক্রিকেটার এবং সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে, তখন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তাদের দায় এড়ানোর চেষ্টা করতে শুরু করেছে। তারা এখন বলছেন এ বিষয়টি আইসিসির হাতে চলে গিয়েছে। ১৬ এপ্রিল এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন সিরাজ বলেন,

এই সফর এখন আইসিসির হাতে চলে গেছে। আইসিসির বৈঠক শেষে বিসিবি ও পিসিবির সভাপতি সংবাদ সম্মেলনে সিরিজের তারিখ ঘোষণা করেছেন।

বিডিনিউজ২৪, ১৬ এপ্রিল ২০১২[১৪]

এদিকে ১৭ তারিখ খবর২৪-এর সংবাদে জানা গিয়েছে যে ক্রিকেট বোর্ড খেলোয়াড়দের সাথে দুমুখো সাপের মত ব্যবহার করতে শুরু করেছে। একদিকে এনায়েত হোসেন সিরাজ বলছেন,

প্রত্যেক ক্রিকেটারেরেই নিজের সিদ্ধান্ত নেবার অধিকার রয়েছে। তারা পাকিস্তানে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। এক্ষেত্রে তাদের আমরা জোর করে পাকিস্তানে পাঠাবো না।

খবর২৪, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৫]

আবার অন্য দিকে লোটাস কামাল হুমকি দিচ্ছেন যারা পাকিস্থান যাবে না তাদের বোর্ডের সাথে করা কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দেয়া হবে [১৫]। অনেকটা যেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা এখন বিসিবির খেলার পুতুল। হয় মৃত্যুর মুখোমুখি হও, নয়তো ক্যারিয়ারের বারোটা বাজাও!

এত কিছুর পরও বিস্ময়কর ভাবে লোটাস কামাল এখনও সমর্থন পাচ্ছেন দেশের উঁচু স্তরের কিছু মানুষের কাছ থেকে। এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন,

ক্রিকেটের সঙ্গে রাজনীতি মিশে যাওয়াটা দুঃখজনক। তবে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা যদি পাকিস্তান দেয় তাহলে সফরে যাওয়া যেতে পারে। এটি পাকিস্তানের জনগণের মধ্যে বাংলাদেশ নিয়ে ইতিবাচক মনোভাব তৈরিতে সহায়ক হবে। তবে ১৯৭১-কে ঘিরে দুই দেশের মধ্যে যে জটিলতা তা কতটা কাটবে- এ নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।

কালের কণ্ঠ, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৬]

একই প্রসঙ্গে কালের কণ্ঠকে মেজর জেনারেল (অব.) এ এন এম মুনীরুজ্জামান বলেছেন,

নিরাপত্তার বিষয়টি সার্বিকভাবে বিশ্লেষণ করা প্রয়োজন। যখন শ্রীলঙ্কায় গৃহযুদ্ধ চলছিল, তখনো সেখানে ম্যাচ বা খেলাধুলা বন্ধ করা হয়নি। ভারতে মাওবাদী গেরিলা দ্বারা প্রায়ই বিভিন্ন অঞ্চল আক্রান্ত হচ্ছে। এমনকি তারা নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে দিনের পর দিন যুদ্ধ করে সদস্যদের আটক পর্যন্ত করে রেখেছে। কাশ্মীর ও অন্যান্য অঞ্চলে সশস্ত্র সংগ্রাম চলছে। সে পরিপ্রেক্ষিতে কিন্তু আমরা কখনো বলতে দেখিনি যে সে দেশে খেলা বন্ধ করে দেওয়া উচিত। যে দেশের নিরাপত্তা অভ্যন্তরীণভাবে বিভিন্ন স্থানে ব্যাহত হচ্ছে, সে দেশ যদি খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারে তাহলে তাদের সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। দক্ষিণ এশিয়ার কোনো দল প্রথমবারের মতো যদি প্রমাণ করতে পারে যে সেখানে খেলা যেতে পারে, তাহলে বর্তমান পরিবেশ ধীরে ধীরে পাল্টে যেতে পারে।

কালের কণ্ঠ, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৬]

এখানে একটা বিষয় উল্লেখ করা প্রয়োজন, শ্রীলঙ্কার গৃহযুদ্ধের কারণে ১৯৯৬ সনের বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ শ্রীলঙ্কায় ম্যাচ খেলতে যায় নি। এতে তাদের দুই পয়েন্ট করে ছেড়ে দিতে হয়েছিল কিন্তু তবুও তারা না খেলার ব্যাপারে অটল ছিল। মেজর জেনারেল সাহেবের ক্রিকেট-স্মৃতি সম্ভবত ১৯৯৬ পর্যন্ত বিস্তৃত নয়।

যাইহোক, এই হচ্ছে মোটামোটি আজ (১৭ এপ্রিল ২০১২) পর্যন্ত মিডিয়াতে আসা টাইম লাইনের চিত্র। উপরে উল্লেখিত বক্তব্যগুলো ছাড়াও ব্যাপক আলোচনা এবং সমালোচনা চলছে বাংলাদেশের পাকিস্থান সফর নিয়ে বিভিন্ন ব্লগে এবং ফোরামে। মতামত আসছে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশিত কলামে। যেগুলোকে গুরুত্বপূর্ণ মনে হবে, সেগুলো আমি চেষ্টা করবো নিয়মিত এই পোস্টে যুক্ত করতে।

১৭ এপ্রিল ২০১২
গ্লাসগো, যুক্তরাজ্য।

হালনাগাদ (১৯ এপ্রিল ২০১২)

১৭ এপ্রিল এবং এর পর বাংলাদেশ দলের পাকিস্থান সফর নিয়ে আলোচনা এবং সমালোচনা আরো বেড়েছে। ঐ দিনই বিভিন্ন সংবাদপত্র মারফত আমরা জাতীয় দলের অধিনায়ক এবং সহঅধিনায়কের পরিবারের উদ্বিগ্ন মানুষদের কথা জানতে পারি। কালের কণ্ঠ মুশফিকুর রহিমের বাবা মাহবুব হামিদের সাথে কথা বললে তিনি বলেন,

পাকিস্তানে মসজিদের মধ্যেও বোমা হামলা হচ্ছে। সেখানে কিভাবে আমাদের ছেলেকে পাঠাব? সে যদি দলের একজন সাধারণ খেলোয়াড় হতো, তাহলে বলতাম সরে দাঁড়াতে। কিন্তু সে তো এখন আর 'ব্যক্তি' মুশফিক নেই, সে এখন দলের অধিনায়ক। তাকে কী করে পিছু হটে আসতে বলি! তবে আমি মানসিকভাবে খুব দুশ্চিন্তায় আছি।

তিনি সাথে আরো যোগ করেন,

অস্ট্রেলিয়া তো পাকিস্তানে আসছে না। তাদের ক্রিকেটারদের জীবনের দাম আছে, আর আমাদের ছেলেদের কি জীবনের কোনো দাম নেই?' একজন শঙ্কিত বাবা হিসেবেই বোর্ড সভাপতি বাংলাদেশে ফিরলে তার সঙ্গে পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে কথা বলতে চান মাহবুব হামিদ, 'কখন যে কী হয়ে যায়? আর আমি শুধু আল্লাহর কাছে এই দোয়াই করি, যদি শেষ পর্যন্ত যেতেই হয় তাহলে আল্লাহ যেন তাদের সবাইকে সহি-সালামতে ফিরিয়ে আনেন।

কালের কণ্ঠ, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৭]

তবে সহ-অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহর ভাই এমদাদউল্লাহকে কিছুটা কম উদ্বিগ্ন মনে হলো। তিনি জানালেন,

জাতীয় দলের ক্রিকেটার যখন, তখন তো বোর্ডের নির্দেশ মানতেই হবে। সভাপতি সাহেব নিজে গিয়ে নিরাপত্তার ব্যবস্থা দেখে এসেছেন, আর জাতীয় দল যখন যাচ্ছে তখন তো নিরাপত্তার অনেক ব্যবস্থাই নেওয়া হবে। আমি বলব, দল সেখানে পাঠানোর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে নিরাপত্তার বিষয়গুলো যেন আবারও খুঁটিয়ে দেখা হয়। বিপদ-আপদ তো যেকোনো জায়গাতেই আসতে পারে। তবে দেশটা যখন পাকিস্তান, ঝুঁকিটা অনেক বেশি। তার পরেও বোর্ড যদি পাঠায়, তাহলে তাকে পাকিস্তান যেতে দিতে কোনো আপত্তি নেই। অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা এমন অন্য কোথাও গেলে কোনো চিন্তাই থাকত না, কিন্তু জায়গাটা পাকিস্তান, তাই একটু দুশ্চিন্তা থাকবেই- এই যা!

কালের কণ্ঠ, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৭]

একই দিন বাংলানিউজ২৪ কে লোটাস কামাল মোবাইল ফোনে একটা সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে তিনি রীতিমত দম্ভের চূড়ান্ত দেখিয়ে ছেড়েছেন। কিছু দিন আগেও এই লোটাস কামাল বলেছিলেন তিনি সরকারকে পাকিস্থানের নিরাপত্তা প্রস্তুতি সম্পর্কে জানিয়েছেন। এখন সরকার অনুমোদন দিলে পকিস্থান সফর হবে। অথচ সেই লোটাস কামাল এখন সুর পাল্টে ফেলেছেন। তাকে যখন জিজ্ঞেস করা হয় সরকার থেকে অনুমোদন পাওয়া গিয়েছে কিনা, তখন তিনি উত্তরে বলেন,

সরকারের অনুমোদন আমি নিজেই। সরকার দায়িত্ব দিয়েছে আমাকে ক্রিকেট চালাবার জন্য। আমরা যেটা ভালো মনে করবো সেটাই সরকার। দেশের জনগণকে নিয়েই সরকার। আমরা ক্রিকেটের স্বার্থে এই উদ্যোগ নিয়েছি। আজকে যদি পাকিস্তানে না যাই, পাকিস্তান যদি তাদের সমস্ত খেলোয়াড়ের অনুমোদন আটকে দেয়, তাহলে কি হবে? আইসিসির গত সভায় আইন করা হয়েছে, কোন বিদেশি খেলোয়াড় নিজের দেশের ক্রিকেট বোর্ডের ছাড়পত্র ছাড়া খেলতে পারবে না। এখন পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা না খেললে বিপিএল বন্ধ হয়ে যাবে। ঘরোয়া ক্রিকেটও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ভারতের খেলোয়াড়রা এখানে আসবে না। ভারতের খেলোয়াড়দের নূন্যতম মূল্য এক কোটি টাকা। পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা এখনো রিক্সায় করে এসে খেলে যায়। আমরা আবাহনী মোহামেডান থেকে টাকা দেই অন্য দলগুলো থেকে তাও পায় না। শোয়েব মালিক কবে থেকে আসা শুরু করেছে বাংলাদেশে, যখন সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে তখন থেকে।

বাংলানিউজ২৪, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৮]

লোটাস কামাল আইসিসির যে পদ পাবার জন্যে এত কিছু করছেন সে বিষয়ে বাংলানিউজ জিজ্ঞেস করেছিল যে পদ পেলে কি তেমন কোন কাজের সুযোগ আছে কিনা। তখন তিনি জবাব দেন,

বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ডে সভাপতির কাজ আছে কিন্তু আইসিসিতে কোন কাজ নেই। আইসিসির সহ-সভাপতি এবং সভাপতির ভোটাধিকার নেই। তাদের কাজটা কি? জিল্লুর রহমন সাহেব যেরকম, এটাও সেরকম। আইসিসি অনেক বড় হয়ে গেছে বলে চেয়ারম্যান দরকার। চেয়ারম্যানকে বেতন দেওয়া হবে। আমাকে ১০ কোটি টাকা বেতন দিলেও তো আমি চেয়ারম্যান হবো না। অত সময় আমার হাতে নেই। আমি নিশ্চয়ই আইসিসি থেকে বেতন নিবো না। যিনি চেয়ারম্যান হবেন তিনি বেতন পাবেন। তাকেও বোর্ড নির্বাচিত করবে। যিনি চেয়ারম্যান হবেন তিনি বর্তমান বোর্ডের বা সাবেক বোর্ড সদস্য হতে হবেন।

বাংলানিউজ২৪, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৮]

এদিকে পাকিস্থান সফর নিয়ে খোদ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালকরাও অসন্তুষ্ট। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পরিচালক বাংলানিউজ২৪-কে বলেছেন,

পাকিস্তানে সফর চূড়ান্ত করার আগে সভাপতি মহোদয়ের উচিৎ ছিলো বোর্ডের মতামত নেওয়া। বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিক আলোচনা করা। তিনি তা করেননি। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)’র সঙ্গে যে যৌথ বিবৃতি তিনি দিয়েছেন তা তার একার সিদ্ধান্ত।

বাংলানিউজ২৪, ১৭ এপ্রিল ২০১২ [১৯]

এদিকে ১৮ এপ্রিল ক্রিকইনফো এক প্রতিবেদনে জানায় যে বাংলাদেশ সফরের প্রস্তুতিতে ঘাটতি রয়েছে পাকিস্থানে। এ বিষয়ে পাঞ্জাবের মূখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ জানিয়েছেন,

Bangladesh are our brothers and I welcome them to come and play here in Pakistan. But the federal [government] is not coordinating with us.

Cricinfo, ১৮ এপ্রিল ২০১২ [২০]

অন্যদিকে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ডের প্রতিনিধি জানাচ্ছেন,

We had dispatched them the letter for the plan (on April 16) that they are yet to respond to, but we will send the plan to the ICC shortly. The ICC actually was asking us to hand them the plan during the [board] meeting but we didn't carry it. It's our mistake that it is delayed for some reason but it will be sorted out soon.

Cricinfo, ১৮ এপ্রিল ২০১২ [২০]

অর্থাৎ পুরো বিষয়টাই এখন চিঠি চালাচালির মধ্যে পড়েছে। এ রকম অবস্থায় তথাকথিত যে নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি পাকিস্থান দিয়েছে, সেটা তারা রাখতে পারবে এমন নিশ্চয়তা কে দেবে? আইসিসি আগেই একটু ঘুরিয়ে নিশ্চিত করেছে নিরপেক্ষ আম্পায়ার তারা দেবে না। যে টেনস্পোর্টস মিডিয়া কভার করার কথা ছিল তারাও এখন পিছিয়ে যেতে শুরু করেছে [২০]। বাংলাদেশের কোচ পদত্যাগ করলেও ৩০ জুন পর্যন্ত বাংলাদেশের সাথে থাকবেন বলেছেন কিন্তু পাকিস্থান জাবেন সে কথা বলেন নি। ভারতও পাকিস্থানে গিয়ে খেলবে না। তাই উল্টা পাকিস্থান চেষ্টা চালাচ্ছে ভারতে গিয়ে 'হোম সিরিজ' খেলতে [২১]।

অবস্থা যখন এরকম যে কেউ পাকিস্থান যেতে চায় না, তখন লোটাস কামালের স্বর্থ উদ্ধারের জন্যে বলির পাঠা হতে হবে আমাদের সাকিব-তামিমদের? নাহ, অতটা খারাপ অবস্থায় বাংলাদেশ নেই। এদেশে এখনও আইনের শাসন রয়েছে। তারই দৃষ্টান্তর হয়ে থাকবে ১৯ এপ্রিল হাইকোর্টের পাকিস্তান সফরে উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কামাল হোসাইন মিয়াজী ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রধান খন্দকার দিদার-উস-সালামের একটি রিট আবেদনে বিচারপতি ফরিদ আহাম্মদ ও শেখ হাসান আরিফের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয়। বাংলাদেশ দলকে পাকিস্তানে পাঠানোর বিষয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না- তার কারণও জানাতে বলেছে আদালত। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব, ন্যাশনাল স্পোর্টস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতিকে চার সপ্তাহের মধ্যে এর জবাব দিতে হবে [২২]।

এ বিষয়ে রিটকারীদের আইনজীবী ব্যারিস্টার হাসান এম এস আজিম হাসান বিডিনিউজ২৪-কে বলেন,

বাংলাদেশ দলের এই সফরের জন্য ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে নিরাপত্তা পরিকল্পনার প্রতিবেদন চাইলেও গতরাত পর্যন্ত তারা তা দিতে পারেনি। এ পরিস্থিতিতে আমরা সেই দেশে যেতে পারি না। আমাদের সাকিব তামিমদের একবার হারালে আমরা আর ফেরত পাব না।

বিডিনিউজ২৪, ১৯ এপ্রিল ২০১২ [২২]

একই দিন ক্রিকেটারদের আন্তর্জাতিক সংস্থা The Federation of International Cricketers Association এর প্রধান এবং সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার টিম মে কোন রকম রাক-ঢাক না রেখে সরাসরি লেটাস কামাল (মোস্তফা কামাল) কে দায়ী করে এক বিবৃতি দেন। মে বলেন,

This decision of whether Bangladesh should tour Pakistan needed to be a concise and transparent process. Unfortunately all we have witnessed is seemingly a complete lack of any process and a series of indecisive and contradictory comments, particularly coming from the Bangladesh Cricket Board (BCB) president Mustafa Kamal. The actions and words of Mr Kamal certainly give the impression of confirming rumors that there has been a deal reached between Pakistan Cricket Board and Mr Kamal, that PCB will nominate Mr Kamal for the position of ICC Vice President if Bangladesh agrees to tour Pakistan. The BCB president has a massive conflict of interest. The matter should not be decided by Mr Kamal alone, it should be a decision of the entire BCB board, after all the directors of the Board will be exposed to a significant potential liability if issues arise during the tour.

বিডিনিউজ২৪, ১৯ এপ্রিল ২০১২ [২৩]

সব শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বাধ্য হয় তাদের অবস্থান থেকে সরে আসতে এবং তারা পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ডকে জানিয়ে দেয় বাংলাদেশ দলের পক্ষে পূর্বে ঠিক করা সময়ে সফর করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে ক্রিকইনফো রিপোর্টে বলেছে,

Bangladesh has informed the PCB that its team won't able to tour Pakistan as scheduled. The decision, communicated to the PCB by the BCB's acting CEO Nizamuddin Chowdhury, follows an order on Thursday afternoon by the Dhaka High Court suspending the tour for four weeks.

Cricinfo, ১৯ এপ্রিল ২০১২ [২৪]

তথ্যসূত্রঃ
[১] http://www.cricwaves.com/cricket/news/7718/New-Zealand-denies-offer-to-tour-Pakistan.html
[২] http://www.espncricinfo.com/bangladesh/content/story/545811.html
[৩] http://www.espncricinfo.com/bangladesh/content/story/546499.html
[৪] http://www.espncricinfo.com/bangladesh/content/story/548724.html
[৫] http://www.espncricinfo.com/pakistan/content/story/550930.html
[৬] http://www.espncricinfo.com/pakistan/content/story/556199.html
[৭] http://www.espncricinfo.com/ci-icc/content/current/story/556553.html
[৮] http://dawn.com/2012/04/01/reverse-swing-hasty-decisions/
[৯] http://www.prothom-alo.com/detail/date/2012-04-14/news/240411
[১০] http://www.espncricinfo.com/pakistan-v-bangladesh-2012/content/story/561334.html
[১১] http://www.sachalayatan.com/himu/44152
[১২] http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=ddebdaa53863a0bb16669f5dbfad4f25&nttl=20120415095346104249
[১৩] http://cricket.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=26&id=191449
[১৪] http://cricket.bdnews24.com/bangla/details.php?id=191464&cid=26
[১৫] http://www.khobor24.com/?p=38323
[১৬] http://www.kalerkantho.com/?view=details&type=gold&data=Sports&pub_no=855&cat_id=1&menu_id=14&news_type_id=1&index=4
[১৭] http://www.kalerkantho.com/index.php?view=details&type=gold&data=Hotel&pub_no=856&cat_id=1&menu_id=18&news_type_id=1&index=1&archiev=yes&arch_date=18-04-2012
[১৮] http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=99960e4d35d6a7ff650a7478dfc6455c&nttl=17042012104779
[১৯] http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=63f1504b5e6674499d3e05abd4ba606e&nttl=20120417082615104749
[২০] http://www.espncricinfo.com/pakistan-v-bangladesh-2012/content/current/story/561710.html
[২১] http://www.prothom-alo.com/detail/date/2012-04-19/news/251397
[২২] http://cricket.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=26&id=191747&?us=c18motl3v6q0hfjvi2f521i745
[২৩] http://cricket.bdnews24.com/details.php?cid=26&id=222776&%3Fus=fjjrhv1vk201n35fbtavs9e250
[২৪] http://www.espncricinfo.com/pakistan-v-bangladesh-2012/content/story/561795.html


মন্তব্য

ধুসর গোধূলি এর ছবি

শ্রীলঙ্কার গৃহযুদ্ধের কথা যে মেজর জেনারেল সাহেব উল্লেখ করলেন, সেখানে তিনি তো এমন কোনো উদাহরণ উল্লেখ করলেন না যেখানে শ্রীলঙ্কার এলটিটিই'রা সফররত কোনো দলের উপর রকেট লাঞ্চার এবং আধুনিক সব যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে আক্রমন করেছে!

কিন্তু, পাকিস্তানে খেলতে যাওয়া দলের উপর এইরকম আক্রমন হয়েছে। এইটাই পাকিস্তানে খেলা বন্ধ করার কারণ আর শ্রীলঙ্কায় খেলা চালিয়ে যাওয়ার কারণ। এইটা মাথামোটা অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল সাহেব বুঝবেন বলে মনেহয় না।

হাঁটুতে মগজ থাকলে কেউ সাধারণ সমীকরণও বুঝে না। যেমন বুঝছে না লোটাস কামাল। তার কাছে নিজের নামের শেষে 'আইসিসি'র সহসভাপতি' খেতাবটা দেখতে পেলেই সে খুশী। এই খেতাব দিয়ে সে হাইকোর্টের একজন গাঞ্জাখোরের বালটাও টেনে ছিঁড়তে পারবে না, সেই ক্ষমতা তাকে দেয়া হবে না, এইটা বোধ'য় এখনো সে বুঝতে পারছে না।

সে এইটাও বুঝতে পারছে না, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সাথে দহরমমহরম সম্পর্ক করতে গিয়ে বাকি বোর্ডগুলোকে সে ক্ষেপিয়ে তুলছে। বিসিবি'র বেশ ভালো একটা অবস্থান ছিলো আইসিসি'তে, অন্তত এতোদিন পর্যন্ত। কিন্তু, সেই অবস্থান নড়বড়ে করে ফেলেছে সে। কূটনৈতিকতায় চরমভাবে ব্যর্থ এক ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চায় নিজেকে পরিণত করেছে সে আইসিসি'তে। আর তার এই ছাগলামির মাশুল দিতে হবে বিসিবি'কে, আজ থেকে বহুদিন পর্যন্ত।

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

শ্রীলঙ্কার উদাহরণটায় আরেকটা বিষয় গুরুত্বপূর্ণ, তামিল টাইগাররা বিদেশীদের উপর আক্রমন করবে না বলে সব সময় বক্তব্য দিয়েছে। এমন কি ১৯৯৬ সনের বিশ্বকাপের সময়ও তারা সেটা জানিয়ে ছিল। তাদের সে কথা তারা পরে রেখেছেও। কিন্তু পাকিস্থানের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। এখানে যারা আক্রমন করছে তারা বাস্তবিক অর্থেই অন্ধ, ধর্মান্ধ। এরা স্বাধীনতার জন্যে যুদ্ধ করছে না। এরা ক্ষমতার জন্যে যুদ্ধ করছে। আর তাদের আক্রমনে পাকিস্থান আক্ষরিক অর্থেই এখন একটা ফেইলড স্টেট। যে দেশ নিজের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, ক্ষমতায় থাকা মন্ত্রীদেরই নিরাপত্তা দিতে পারে না, তারা কী করে বাংলাদেশ দলকে নিরাপত্তা দেবে? এ বিষয়ে জেনারেল সাহেবের মন্তব্য জানতে ইচ্ছে করছে।

দিগন্ত এর ছবি

পাকিস্তানের ক্ষেত্রে বক্তব্য কাজের হবে না, কারণ নিরাপত্তারক্ষীদের মধ্যেই ব্রেনওয়াশড লোকজনে ঢুকে আছে। শ্রীলঙ্কার ক্ষেত্রে অবস্থাটা অতটা খারাপ ছিল না।


পথের দেবতা প্রসন্ন হাসিয়া বলেন, মূর্খ বালক, পথ তো আমার শেষ হয়নি তোমাদের গ্রামের বাঁশের বনে । পথ আমার চলে গেছে সামনে, সামনে, শুধুই সামনে...।

তারেক অণু এর ছবি
কল্যাণ এর ছবি

যেইখানে পরিস্কার দেখা যাচ্ছে যে বেঘোরে খুন হয়ে যাওয়ার বেশ ভাল সম্ভাবনা সেইখানে কোন স্তরের বলদ হইলে মানুষ যায় সেইটা আমার মাথায় ঢুক্তেছে না। নিশ্চয় এটা আমার মোটা মাথার ব্যার্থতা। ওঁয়া ওঁয়া

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

চরম উদাস এর ছবি

চলুক
চমৎকার কাজ হইছে একটা। এই জাতীয় ফাতরামিগুলার একটা রেকর্ড থাকা উচিৎ।

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

গোবরে পদ্মফুলের কথা শুনেছি, কিন্তু পদ্মফুলের মাথায় যে গোবর থাকে সেটা জানতাম না।

চরম উদাস এর ছবি

হো হো হো
জটিল বলছেন

স্যাম এর ছবি

হো হো হো

সৌরভ কবীর  এর ছবি

হো হো হো

হিমু এর ছবি

নিয়াজ যে লিঙ্কটি খুঁজে পাচ্ছিলেন না, সেটি দিলাম।

বিসিবি সভাপতি আ হ ম মোস্তফা কামাল ঢাকায় একটি গোলটেবিল বৈঠক শেষ করে অধিনায়ক এবং সহ-অধিনায়ককে বোঝাতে চেষ্টা করেন পাকিস্তানে যাওয়া কেন গুরুত্বপূর্ণ। বার বারই বলছিলেন, ‘পাকিস্তান মুখ ফিরিয়ে নিলে আমাদের ক্ষতি হবে। তারা খেলোয়াড় না দিলে আমরা বিপিএল করতে পারবো না। আমাদের ক্রিকেট আজ এখানে এসেছে পাকিস্তানের সঙ্গে খেলে! তোমরা সবাইকে বোঝাতে চেষ্টা করো।’

http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=ddebdaa53863a0bb16669f5dbfad4f25&nttl=20120415095346104249

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

লিঙ্কটার জন্যে অনেক ধন্যবাদ হিমু ভাই। আমি এই লিঙ্কের তথ্য নিয়ে লেখাটাকে আপডেট করে দিয়েছি।

তানভীর এর ছবি

চলুক

তাপস শর্মা এর ছবি
মন মাঝি এর ছবি

বাংলাদেশের পাকিস্থান সফর নিয়ে বাংলাদেশের কোচের বক্তব্যও প্রমাণ করে তিনি যেতে চান না। এ বিষয়ে তিনি বলেছেন,

"পাকিস্তান সফর হবেই এমন কোনো সিদ্ধান্ত এখনও আমার জানা নেই। সিদ্ধান্ত জানার পর নিজের করণীয় ঠিক করবো।"

কোচ নিজের করণীয় ঠিক করে ফেলেছেন - তিনি পদত্যাগ করেছেন।

****************************************

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

পদত্যাগ করেও নিস্তার নেই। কোচকে জুন পর্যন্ত থাকতে হবে। কারণ তাকে তিন মাসের নোটিশ দিতে হবে বিসিবিকে। আর সেই তিন মাসের সময়কালের মধ্যেই এই পাকিস্থান সফর পড়েছে। বেচারা পুরোই বেকায়দায় পড়েছে।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

উঁহু, তার প্রাথমিক মেয়াদকাল ছিলো এক বছরের। পহেলা জুলাই থেকে শুরু করে স্টুয়ার্ট ল'এর মেয়াদ সাধারণভাবেই জুনের ৩০ তারিখে শেষ হয়ে যাওয়ার কথা কোনো নোটিশের বাধকতা না রেখেই যদি না উভয়পক্ষই সেটা নবায়ন করে। বিসিবি চাইলেও নিজের কাজের মেয়াদ বাড়াতে স্টুয়ার্ট ল নেতিবাচক অবস্থান নিয়েছেন। কেনো নিয়েছেন, সেটা খুবই স্পষ্ট। যে বোর্ড শাসন করে লোটাস কামালের মতো এক স্ট্যান্ডার্ড সাইজের রামছাগল, সেই বোর্ডে কোচ হিসেবে স্টুয়ার্ট ল'এর মতো কাউকে মানায় না। এইটা সিম্পল হিসাব।

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

কিন্তু স্টুয়ার্ট ল এই রিপোর্টে[১] বলেছেন,

আমি ৩০ জুন পর্যন্ত আছি। কারণ, বিসিবির সঙ্গে চুক্তিতে বলা আছে দায়িত্ব ছাড়তে হলে ৩ মাস আগে জানাতে হবে।

এছাড়া অস্ট্রেলিয়াতে ল ৩০ জুনের পর যোগ দেবে [২]।

[১] http://cricket.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=26&id=191449
[২] http://cricket.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=26&id=191577

রিসালাত বারী এর ছবি
নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

সংযুক্ত করে দিচ্ছি। নিউজ দুটোর জন্যে ধন্যবাদ।

নুরুজ্জামান মিলন এর ছবি

ইমতিয়াজ আহমেদ, এ এন এম মুনীরুজ্জামানের মত কিছু তথাকথিক বুদ্ধিজীবির(যারা স্বাধীনতার ৪১ বছর পরেও পাকিস্তানের দালালী করতে পিছপা হয় না) কারনেই বাংলাদেশ এখনো এত পিছিয়ে আছে।

দিগন্ত এর ছবি

আজকের ক্রিকইনফোর খবর অনুসারে -
১) পঞ্জাব সরকার নিরাপত্তা সংক্রান্ত পরিকল্পনা দিতে গড়িমসি করছে। পরিকল্পনা পেলে তা দেওয়া হবে আই-সি-সিকে, তারা আবার সেটা নিরপেক্ষ কোনও সংস্থাকে দিয়ে যাচাই করাবে। তার পরে সন্তুষ্ট হলে তারা ম্যাচ অফিসিয়াল পাঠাবে (কেউ যেতে রাজী হলে)। না হলেও বাংলাদেশ টিম যাবে।
২) টেন স্পোর্টস ম্যাচ কভার করতে খুব একটা আগ্রহী নয়।
সূত্র এখানে। -
http://www.espncricinfo.com/pakistan-v-bangladesh-2012/content/current/story/561710.html


পথের দেবতা প্রসন্ন হাসিয়া বলেন, মূর্খ বালক, পথ তো আমার শেষ হয়নি তোমাদের গ্রামের বাঁশের বনে । পথ আমার চলে গেছে সামনে, সামনে, শুধুই সামনে...।

দিগন্ত এর ছবি

আজকের ক্রিকইনফোর খবর অনুসারে -
১) পঞ্জাব সরকার নিরাপত্তা সংক্রান্ত পরিকল্পনা দিতে গড়িমসি করছে। পরিকল্পনা পেলে তা দেওয়া হবে আই-সি-সিকে, তারা আবার সেটা নিরপেক্ষ কোনও সংস্থাকে দিয়ে যাচাই করাবে। তার পরে সন্তুষ্ট হলে তারা ম্যাচ অফিসিয়াল পাঠাবে (কেউ যেতে রাজী হলে)। না হলেও বাংলাদেশ টিম যাবে।
২) টেন স্পোর্টস ম্যাচ কভার করতে খুব একটা আগ্রহী নয়।
সূত্র এখানে। -


পথের দেবতা প্রসন্ন হাসিয়া বলেন, মূর্খ বালক, পথ তো আমার শেষ হয়নি তোমাদের গ্রামের বাঁশের বনে । পথ আমার চলে গেছে সামনে, সামনে, শুধুই সামনে...।

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

ধন্যবাদ দিগন্ত ভাই। আমি আপডেট করে নিয়েছি।

হিমু এর ছবি
নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

তথ্য হিসেবে সংযুক্ত করে দিয়েছি।

শারেক শহিদ এর ছবি

তামশার একটা সীমা থাকা উচিত । কিন্তু মনে হচ্ছে এই বিষয়টা নিয়ে সীমাহীন তামশা হচ্ছে । দেশের সব মানুষকে কি এরা আইনগত-ভ্রাতঃ মনে করে ??

আকতার আহমেদ এর ছবি
স্যাম এর ছবি

চলুক

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

আপডেট করে নিয়েছি।

আকতার আহমেদ এর ছবি
নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

আপডেট করে নিয়েছি। বিসিবি পিসিবিকে জানিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ আগের শিডিউলে যেতে পারছে না। সেটাও যুক্ত করলাম।

চরম উদাস এর ছবি

কামের কাম হইছে। এইবার এরে বিসিবি থেকে বাইর করার পালা।

স্যাম এর ছবি

ভাল্লাগছে! ভীষন ভাল্লাগছে!!! অভিনন্দন সবাইকে----

আবছায়া এর ছবি

দুই আইনজীবিকে সহস্র শ্রদ্ধা।।

প্রীতম  এর ছবি

ভাইয়া, আপনাকে একটা মেইল করেছি। প্লিজ উত্তর দেবেন।

হিমু এর ছবি
জিম জুবাবির এর ছবি

শেশ মেশ আদালতে গেল কাহিনী! সাবাস কামাইল্লা!!! এখন এই কাহিনির কথা সবাই ভুইল্লাও গেছেগা!

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA