কর্ণজয় এর ব্লগ

নকৃড় বাবৃর ফকড়া জীবন ০১/০৩

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: শনি, ১৬/০৬/২০০৭ - ৫:০৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চন্দ্রাবতী দেবীর ছিল রাগপ্রধান মেজাজ। তা সত্ত্বেও যখন তার চতুবর্গীয় (মদ্য- মাংসাদি চারটি বিষয়ে সিদ্ধকর্ম) স্বামী এপাড়া ওপাড়ায় নিমকি লুসিদের সাথে গোপন সিন্ডিকেটের সিটিং সাটিয়ে গ্লাক্সো বেবী সেজে দাম্পত্য জীবনের সাড়ে তেইশটি বছর দিব্যি কাটিয়ে দিতে পারলেন তখন ভদ্রলোকের ইয়ার বন্ধুরা মানতে বাধ্য হলেন ভদ্রমহিলার মনটি বেজায় সরলা। কিন্তু দাম্পত্য মানেই সাড়ে তেইশটি বছর নয়। কত অনা


একটি নাটক অথবা উপন্যাসের খসড়া : ০৯

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: শনি, ১৬/০৬/২০০৭ - ১:১৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তরণী মাঝি সমুদ্রকে অভিসম্পাৎ দিয়ে ঘোষনা করে দরিয়ার জল আর কোনদিন স্পর্শ করবে না। সমুদ্রকে দেখে নেবে এই ঘোষনা দিয়ে সে কোথায় চলে যায় সতের বর্ষ আর সে খবর কেউ জানতে পারে নি। তের বছর পর সে যখন আবার ফিরে আসে তখন আর কেউ তাকে চিনে নিতে পারে না। সকলেই তার মধ্যে হারানো তরণীকে খুজে কিন্তু মধ্য বয়সে পা দেয়া তরণী মাঝির চেহারায় উদ্ধত কিশোরের প্রতিবাদী আভাষটা কোন এক দুর অতীতের স্মৃতি মনে হয়। তার


একটি নাটক অথবা উপন্যাসের খসড়া : ০৮

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: মঙ্গল, ১২/০৬/২০০৭ - ১১:৫৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
পুরো দ্বীপাঞ্চলে একটি মাত্র কবিরাজ তরণী মাঝি। মাঝি তো এখানে সবাই, দরিয়া হলো মাতা। জন্ম থেকেই সাগরের লোনা পানি পাড়ি দিতে শিখে যায় বেড়ে ওঠার মতো করেই। তরনী মাঝির বাবা মনো মাঝির নৌকা একবার দরিয়ার বুকে ডুবে গেলে টানা সতেরদিন খাদ্য পানিহীনভাবে ভাসতে ভাসতে প্রায় অচৈতন্যভাবে কুলে এসে ভিড়েছিল। মৃত্যু সাগর পাড়ি দেয়া মানুষের কাছে নতুন নয় বরং দরিয়ায় মৃত্যুবরনকে একধরনের দেবতার অনুগ্রহ

একটি নাটক অথবা উপন্যাসের খসড়া :০৭

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: রবি, ১০/০৬/২০০৭ - ৪:১১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
পিতেম ভাল করে লোকটাকে দেখার চেষ্টা করে। এ রকম একটা অবয়ব কোথায় জানি সে দেখেছে কিন্তু ঠিক মনে রাখতে পারে না। লোকটা সারান বিড় বিড় করে কি জানি বলছে দরিয়ার শব্দ আর দূরত্বের কারনে পিতেমের কানে সেগুলো পৌছায় না। পিতেম কোন কিছু আশা না করেই লোকটার জন্য অপো করে। বালিতে কি লোকটার পা ফেলতে অসুবিধা হচ্ছে নাকি পায়ে কোন সমস্যা আছে বোঝা যায় না ।

একটি নাটক অথবা উপন্যাসের খসড়া : ০৬

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: শনি, ০৯/০৬/২০০৭ - ১:০২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
সে যখন সমুদ্রের লোনা পানিতে পা ডুবিয়ে তীরে এসে নামলো তখন আকাশ নীল হতে শুরু করেছে। মাটিতে দাড়িয়েই সে চারদিকে তাকায়। দ্বীপটাকে সমুদ্রেরই একটা অংশ মনে হয়, বালিয়ারীতে ঢেউ খেলতে খেলতে গোটা কয়েক নারকেল গাছের ঝোপে গিয়ে শান্ত হয়ে বসেছে। এখনও সবকিছু স্পষ্ট নয় কেবল আবছা আবছা আলোয় ঘুমন্ত গ্রামটাকে বড্ড বেশি শান্তু দেখায়। বেশ কিছু দিন এখানে থাকা যাবে আপনমনে খুশি হয়ে ওঠে লোকটা।

একটি নাটক অথবা উপন্যাসের খসড়া : ১-৫

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: বিষ্যুদ, ০৭/০৬/২০০৭ - ১০:৩৪পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
সামহোয়্যার ইন ব্লগে এই সিরিজটি লিখছিলাম। এখন থেকে এখানেই এটি লিখব বলে পুরানো লেখাগুলো একসাথে পাঠালাম... ১ সমুদ্র এখানে শান্ত - সন্ধ্যার পশ্চিম আকাশ ওইখানে শেষ রঙের চাদর গুটিয়ে নেয়। দিকচক্রবালে সমুদ্রের ফেনিল ঊর্মিমালা যেখানে শান্ত আকাশের সাথে মিলিয়াছে আকাশের সবটুকু নীল সেখানে তখনও অন্ধকারে ঘুচে নাই -

ডায়ালগ - এক আবিস্কারের জিনিষ - ০১

কর্ণজয় এর ছবি
লিখেছেন কর্ণজয় (তারিখ: মঙ্গল, ০৫/০৬/২০০৭ - ৯:২৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
যা ডায়ালগ না ! ...আমাদের ছোটবেলায় কোন ছবি দেখে এসে তৃপ্ত বড়ভাইদের মুখে প্রায়ই শুনতাম এ কথাটি।