ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ব্লগ

অধরা ছিটমহল বিনিময়

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: বুধ, ২১/০৯/২০১১ - ৪:৪৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify]২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ৬-৭ তারিখে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং-এর বাংলাদেশ সফরকালে উভয় দেশের মধ্যে যে সব দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সীমান্ত চুক্তি। এই চুক্তিতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ১৬২টি ছিটমহল হস্তান্তরের কথা রয়েছে। আমরা জানি, বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ভারতের ১০৪টি এবং ভারতের অভ্যন্তরে বাংলাদেশের ৯০টি ছিটমহল আছে। তাছাড়া ছিটের ভেতর ছিট বা চন্দ্রছিট আছে ভ


পাণ্ডবের চীন দর্শন-১৩

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: বুধ, ১৭/০৮/২০১১ - ১:৩৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সাদা সাপ, কালসাপ

যারা উপকথা পড়তে ভালোবাসেন বা এই ব্যাপারে কিঞ্চিত খোঁজ-খবর রাখেন তারা চীনা উপকথার সাদা সাপের গল্পটা জানেন। আমি গল্পটার পুনরাবৃত্তি করতে চাইনা। সেই গল্পের ঘটনা চীনের কোথায় ঘটেছিলো সেটা নিয়ে নানা মত আছে। এক পক্ষের মতে ঘটনা মিঙ শাসনামলে ঝেজিয়াঙ প্রদেশের রাজধানী হাঙচৌ-এর শী হু বা পশ্চিম হ্রদ এলাকার লেইফেঙ মন্দিরে ঘটেছিলো। আরেক পক্ষের মতে ঘটনা চিঙ শাসনামলে জিয়াঙসু প্রদেশের ঝেনজিয়াঙ শহরের কাছের জিনশান মন্দিরে ঘটেছিলো। পশ্চিম হ্রদ আর তার আশেপাশের সব মন্দির, খোদাই চিত্র সম্বলিত গুহা, স্তুপ দেখার সুযোগ হয়েছিলো ২০০১ সালে। আর জিনশান মন্দিরে যাবার সুযোগ আসে ২০১১ সালে। শ্বেত সর্পিনীর দুই তীর্থ দেখতে আমার দশ বছর লেগে গেলেও এই দশ বছরে গণচীনের এখানে সেখানে ভালোবাসা আর ত্যাগের মহিমায় পূর্ণ সাদা সাপের দেখা পেয়েছি বিস্তর। দুঃখজনক হলেও সত্য, তার সাথে কালসাপের দেখাও পেয়েছি অনেক।


গল্প প্রচেষ্টা-১৩

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: রবি, ১৭/০৭/২০১১ - ৬:২০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রতি বুধবারে কেশবপুরের হাটে


বুলগেরিয়ার গল্প-০৫

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: বিষ্যুদ, ৩০/০৬/২০১১ - ৩:৪২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১. লেখক


ইতিহাস পুনর্পাঠ (১ - ৮)

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: মঙ্গল, ১৪/০৬/২০১১ - ২:১১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১.

নাজাফি বংশের প্রতিষ্ঠাতা গাদ্দার-ই-আবরার নওয়াব মীর জাফর আলী খানকে বাংলার মানুষ “মীরজাফর” নামে চেনেন। এ’দেশে কাউকে “মীরজাফর” বলা হলে তাকে আসলে কী বলা হলো তার আর কোনো ব্যাখ্যা দেবার দরকার হয় না। নাজাফি বংশের শেষ নওয়াবের নাম মনসুর আলী খান। মনসুর আলী খানের ছেলে সাইয়্যেদ মুহাম্মাদ ফতেহ্‌ আলী মির্জা’র বড় ছেলের নাম ইস্কান্দার আলী মির্জা - সংক্ষেপে ইস্কান্দার মির্জা। মুর্শিদাবাদে জন্মানো এই নবাবপুত্তুর ছিলেন পাকিস্তানের সর্বশেষ বড়লাট (গভর্নর জেনারেল) আর প্রথম প্রেসিডেন্ট। পাকিস্তানে প্রথম সামরিক শাসন জারীর কৃতিত্বও এই হুজুরের। সামরিক শাসন জারীর বিশ দিনের মাথায় উনাকে ক্ষমতা আর দেশ দুইটাই ছাড়তে হয়। গাদ্দারদের প্রথম পুরুষ যেমন চতুর্দশ পুরুষও তেমনই তার নিজের দেশ-জাতির বারোটা বাজিয়ে গেছে, কিন্তু বেশি দিন ক্ষমতা ভোগ করতে পারেনি।


ইউপিন - একটি প্রস্তাব

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: বিষ্যুদ, ০৯/০৬/২০১১ - ১২:০৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাংলাদেশে প্রতি বছর জুন মাসের শুরুর দিকে জাতীয় বাজেট ঘোষিত হয়। বাজেট বক্তৃতায় মাননীয় অর্থমন্ত্রী আগামী এক বছরে দেশ কোন খাত থেকে কতো টাকায় আয় করবে আর সেই আয় কোথায় কী হিসাবে ব্যয় করা হবে সেটা আমাদেরকে জানান। সাথে সাথে গত বছরের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা কী ছিল এবং সেটা কতটুকু আদায় হয়েছে সে’কথাও আমাদেরকে জানান।


মসনবী থেকে

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: সোম, ৩০/০৫/২০১১ - ৫:০২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১.
[justify]এক পথিক আশ্রয়ের জন্য তার এক বন্ধুর বাড়ির দরোজায় আঘাত করলো। ভেতর থেকে বন্ধু জিজ্ঞেস করলো,
- কে? পরিচিত কেউ?
- আমি।
- চলে যাও, তোমার আসার জন্য এটা ঠিক সময় না। আমার ঘরে তোমার মতো অসংস্কৃত লোকের জায়গা নেই।


পকেট কাটার অর্থনীতি-৬

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: মঙ্গল, ২৪/০৫/২০১১ - ৫:০০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১০. কালো টাকা - সাদা টাকা

কয়েকটি চরিত্র কল্পনা করা যাক। এরা বাস্তবের কেউ না হলেও এমন মানুষদের গল্প আমরা প্রায়ই শুনতে পাই। এগুলোর সত্যতা কখনো প্রমাণ করা যায় না। কখনো-সখনো আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এমন কাউকে গ্রেফতার করলেও তাদের অপরাধ মোটামুটি অপ্রমাণিত থেকে যায়, ফলে তাদের উল্লেখযোগ্য কোনো শাস্তিও হয় না।


গল্প প্রচেষ্টা-১২

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: মঙ্গল, ১৭/০৫/২০১১ - ৪:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

করমণ্ডল এক্সপ্রেস


প্রকাশিত হলো “টিপাইমুখ বাঁধ ও বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট” ই-বুক

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: শনি, ১৪/০৫/২০১১ - ১০:১৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

টিপাইমুখ বাঁধ বিষয়টি কী সেটি বাংলাদেশে কারো অজানা নয়। এটি আমাদের জন্য কেনো গুরুত্বপূর্ণ সেটিও অল্প-বিস্তর আমরা জানি। এটা নিয়ে সচলায়তনসহ বিভিন্ন মিডিয়ায়, বিভিন্ন পর্যায়ে একসময় বহু আলোচনা হয়েছে। কিন্তু গত দুই বছরে টিপাইমুখ বাঁধ ইস্যুটি একটু একটু করে আমাদের আলোচনার বাইরে চলে গেছে। এটা নিয়ে বাংলাদেশের সরকার বা সরকারের বাইরে কারো কোনো উদ্যোগ আর চোখে পড়েনা। অথচ বিষয়টির গুরুত্ব বিন্দুমাত্র কমে তো নাই-ই, বরং এটি বাস্তবায়ণে ভারত সরকারের কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় তার গুরুত্ব আরো বেড়ে গেছে।