কিছু-মিছু - ১

এক লহমা এর ছবি
লিখেছেন এক লহমা [অতিথি] (তারিখ: রবি, ২৪/০৫/২০১৫ - ৩:০৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

নির্দিষ্ট করে কোন কিছু নয়। কিছু একটা নিয়ে - যা হঠাৎ করে জলের অতল থেকে উঠে এসে ঘাই মেরে গেল অথবা নিরন্তর কুট কুট করে কামড়ে যাচ্ছে । সেই খুচরো হাসি-কান্নাগুলো ভাগ করে নেওয়া। প্রধান স্রোতের খবরদারী কি খবর্দারী করা মাধ্যমে হলে বলতাম ভাগ করে দেওয়া। সেখানকার মহাজনেরা দিয়েই খুশী। নিতে হলে তারা লেখার কি অর্থ পড়ুয়া করল তার থেকে লেখার অর্থ প্রকাশক কি করল সেটা যে অর্থ সকল অনর্থের মূল বলে প্রচারিত সেই অর্থে নিতে পছন্দ করেন। ব্লগের লেখা সেই মিনারবাসীর নয়, সাগরতীরের, মিলাবে-মিলিবে, যাবে না ফিরে।

কিছু-মিছু। কিছু একটা নিয়ে এগোতে এগোতেই মনে হয় - ধূস! হাবিজাবি, ফালতু সব, মিছামিছি টানাহ্যাঁচড়া। যা কিছু, সবই মিছু। ঐ একরকম। কিছু-মিছু। বাংলাব্লগের দুনিয়ায় আমি হাজির হয়েছিলাম গণজাগরণ মঞ্চের উত্তাল দিনগুলির সময়ে। মনে হচ্ছিল কিছু একটা হতে যাচ্ছে। কতকগুলি পিশাচকে শেষ পর্যন্ত হিসাব-নিকাশের আওতায় নিয়ে আসার লড়াই ত বটেই, কিন্তু সেখানেই থামা নয়, আরও বড় কিছু। মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনার পুনরুত্থানের দিন সমাগত। একগুছ সাহসী মানুষ জোট বেঁধেছে। তাদের সাথে হাত মিলিয়েছে নানান মূলধারার শক্তিগুলিও। আমি এক তুচ্ছ মানুষ। এ আন্দোলনে আমার থাকা না থাকায় কারো কিছু যায় আসে না। তবে আমার নিজের আসে-যায়। সেই কোন যুগের ‘বাংলা’ এই কথাটায় রোমাঞ্চময় শিহরণের অনুভূতিটা ফিরে আসে, আর, স্বপ্নভঙ্গের কিছু বেদনারা চলে না গেলেও দূরে হটে। সে কিছুরা মিছু হতে শুরু করল মাত্র কয়টা মাসের ভিতরেই। আন্দোলন ঘোলা জলে মার খেয়ে গেল। আসলে, এই বোধ হয় আমাদের জীবনকাহিনী, কিছু-মিছু নিয়ে মেখে-মুখে যা হোক করে দিনগুলো পার করে দেওয়ার বারোমাস্যা।

তবু, কারো কারো অসহ্য হয়ে ওঠে কিছু-মিছুর দিন। শাস্তি নামে তাদের উপর। এরকম এক মানুষের হাতের পাঞ্জা কেটে নেয়া হয়েছিল, এক দেশে, তার এগিয়ে চলাকে থামানোর কাজে নিশ্চিত হবার জন্য। পাঞ্জা না কি থাবা? সেই থাবার নীচে এখন মাথা নামিয়ে নিয়েছে কর্তক-এর চালিকা শক্তি, তার বাণিজ্য-দুনিয়া। কেন তাকে নিয়ে বাণিজ্যকরণ সফল হয়? যাকে মারা হল তাকেই বুকে-পিঠে নিয়ে চক্রযানের সওয়ার হতে ভালোবাসল হন্তারক-এর উত্তরপ্রজন্ম! আর, সওয়ার কি সে শুধু দ্বিচক্রযানেরই হবে? সময়ের নয়? সে নিহতের হাতের রাইফেল গিয়েছে অনেককাল। তার ডায়েরী অমর। হাত বড় শক্তিশালী, একবার যদি সে অক্ষরের সাথে দোস্তি করে নেয়। কলম বলো কলম, কী বোর্ড বলো কী বোর্ড। সাপলুডু কি ক্ল গেম, যা খুশী খেলুক, একবার তার হাত থেকে অক্ষরেরা নেমে এসে সার বেঁধে দাঁড়িয়ে গেলে, একবার কুচকাওয়াজ করে নিলে, তারা কালজয়ী, ঘৃণায় বলো ঘৃণায়, প্রেমে বলো প্রেমে। চাপাতিরা ত নামবেই, ছিন্ন করবে হাত, হাতের চালক মাথাকে। কিন্তু ঐ হাতের থেকে নেমে আসা অক্ষরেরা খুঁজে নেবে নূতন মাথা, আরও অনেক মাথা। সে মাথারা হাতে তুলে নেবে কলম বলো কলম, কী বোর্ড বলো কী বোর্ড। সৃষ্টি করবে আরও তীব্র, আরও বিপুল অক্ষরের সমারোহ, যুক্তির পর যুক্তির আলোয় তারা হেঁটে যাবে অন্ধকাররের মধ্য দিয়ে, আলোর দিকে। লাগাতার বীভৎস আক্রমণ চালিয়ে গেলেও কিছুতেই সমস্ত কিছুরা মিছু হয়ে যাবে না, যায় না। আঙ্গুল কেটে নিলে, হাত কেটে নিলে, মুণ্ডু কেটে ঘিলু বার করে দিলেও না।

ইতিহাসের খাতায় এই সময়টা চিহ্নিত হয়ে থাকবে একটা ক্রান্তিকাল হয়ে। নাম দেগে দেওয়া একদল এগিয়ে থাকা চেতনার মানুষ আর তাদের সহযোগী অগ্রপথিকেরা। যারা চেয়েছিল মানুষ মানুষ হয়ে উঠুক। একজন একজন করে তারা খুন হচ্ছে আর ভবিষ্যতের পাল্লা আরও একটু একটু করে হেলে পড়ছে তাদেরই দিকে। এ ক্রান্তিকালে যারা পিছনের যুগটাকেই টেনে হিঁচড়ে আগামীর মাথায় চাপিয়ে দেয়, তারা ক্ষমতার কুমীর-ডাঙ্গার উঠানে যে যেখানেই খেলুক, নিতান্ত অসম্মানের, কুমীরের পেটে যাওয়ার নিয়তিটাই ইতিহাস তাদের জন্য বরাদ্দ করে রেখে দেবে। কোন না-ছুঁই-পানিই তাদের সময়ান্তে মনে রাখবে না, রাখে না।


মন্তব্য

অতিথি লেখক এর ছবি

একবার তার হাত থেকে অক্ষরেরা নেমে এসে সার বেঁধে দাঁড়িয়ে গেলে, একবার কুচকাওয়াজ করে নিলে, তারা কালজয়ী, ঘৃণায় বলো ঘৃণায়, প্রেমে বলো প্রেমে। চাপাতিরা ত নামবেই, ছিন্ন করবে হাত, হাতের চালক মাথাকে। কিন্তু ঐ হাতের থেকে নেমে আসা অক্ষরেরা খুঁজে নেবে নূতন মাথা, আরও অনেক মাথা। সে মাথারা হাতে তুলে নেবে কলম বলো কলম, কী বোর্ড বলো কী বোর্ড। সৃষ্টি করবে আরও তীব্র, আরও বিপুল অক্ষরের সমারোহ, যুক্তির পর যুক্তির আলোয় তারা হেঁটে যাবে অন্ধকাররের মধ্য দিয়ে, আলোর দিকে।

চলুক

চারপাশ দেখে দেখে জীবনাটাকেই আজকাল মিছু মিছু মনে হয় মন খারাপ

দেবদ্যুতি

এক লহমা এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-
জীবন নিয়ে চিন্তা করা মানুষদের অনেকের কাছেই বিভিন্ন সময়ে জীবনকে মিছু মিছু মনে হয়েছে। কেউ কেউ একে একেবারে 'অলীক' অভিধা দিয়ে অন্যের জীবন দুর্বিষহ করে তুলে নিজের জীবনটা রসিয়ে ভোগ করার পথ বার করে নিয়েছেন। আবার কেউ কেউ কোন রকম জটিল দেখার পদ্ধতি ছাড়া জীবনকে যেরকম দেখা যাচ্ছে তাকে সে রকম ভাবেই গ্রহণ করে তাকে উন্নত করার চেষ্টায় নিজের জীবনটা উৎসর্গও করে দিয়ে গেছেন।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

অতিথি লেখক এর ছবি

এখন তো আরও বেশি মিছু মিছু লাগছে সবকিছু মন খারাপ । মাঝেমাঝে মনে হয়-দূর, আমি বুঝি একটা মানুষই নই

দেবদ্যুতি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

ফাঁকিবাজী লেখা। এটা কি ঠিক হলো বস্‌!


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

মন মাঝি এর ছবি

ফাঁকিবাজি কেন হবে, উনার ইস্টাইল্টাই এ্যামন! আমার তো দারুন লাগে। হাসি

****************************************

এক লহমা এর ছবি

হাসি আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

এক লহমা এর ছবি

ফাঁকি বলে যখন মনে হচ্ছে আপনার, সেটা চিন্তার। আমার পরিকল্পনার ত্রুটি হয়েছে অবশ্যই, তবে, ইচ্ছে করে ফাঁকি দিইনি। ভাবতে হবে আরও।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

আমার উক্তিটার একটু ব্যাখ্যা দরকার আছে বলে মনে হচ্ছে। পাবলিক প্লেসে পাল্পসমৃদ্ধ বা হাইলি কনসেন্ট্রেটেড জ্যুস দেবার পরিবর্তে ডাইল্যুটেড জ্যুস দেয়াটা অধিক ফলদায়ক। ব্যাখ্যাকর উদাহরণগুলো সাইড ডিশ বা বাড়তি সংযোজন নয়, বরং জ্যুসটাকে সহজপাচ্য করে। আপনি বিপুল অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মানুষ। তাই যে কোন বিষয় ব্যাখ্যার্থে উদাহরণের বিরাট ভাণ্ডার আপনার ঝোলাতে আছে। নাদানদের বোঝার জন্য উদাহরণের ঐ শেয়ারিংটা জরুরী। আপনি যে ইচ্ছে করে ফাঁকি দেননি সেটা বুঝি। উপরে মনমাঝি আপনার স্টাইলের ব্যাপারে যা বলেছেন সে ব্যাপারেও দ্বিমত করি না। তবে পাঠক হিসেবে আপনার কাছে আমাদের আশার কথাটা জানাতেই পারি, তাই না?


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

এক লহমা এর ছবি

আপনার কথাটা আমি বুঝেছি। সেই নিয়ে ভাবনা-চিন্তায়ও আছি। বস্তুতঃ এই সিরিজটা সেই কারণেই আমার জন্য খানিকটা জটীল। সামলাতে পারলে যা করতে চাই, করতে পারব। দেখা যাক আগামী কিস্তিগুলোয় কিরকম করে উঠতে পারি।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

নীড় সন্ধানী এর ছবি

আমার মনে হয়েছে আপনি যা বলতে চেয়েছিলেন সবটা বলেন নি। ঠিক না? হাসি

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

মন মাঝি এর ছবি

এ ক্রান্তিকালে যারা পিছনের যুগটাকেই টেনে হিঁচড়ে আগামীর মাথায় চাপিয়ে দেয়, তারা ক্ষমতার কুমীর-ডাঙ্গার উঠানে যে যেখানেই খেলুক, নিতান্ত অসম্মানের, কুমীরের পেটে যাওয়ার নিয়তিটাই ইতিহাস তাদের জন্য বরাদ্দ করে রেখে দেবে। কোন না-ছুঁই-পানিই তাদের সময়ান্তে মনে রাখবে না, রাখে না।

আর কি চান আপনি? আমার তো মনে হয় এক লহমাদা যা বলার তার সবই বলে দিয়েছেন এক লহমায়। খোল-করতাল বাজিয়ে নর্তন-কুর্দন করে খুল্লম-খুল্লা ভাষায় বলেননি এই আরকি। দেঁতো হাসি

****************************************

এক লহমা এর ছবি

কোলাকুলি হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

উপরে আমার ব্যাখ্যাটা দেখুন। আমার মনে হয় নীড়দা' একই রকমের অবস্থান থেকে তাঁর মন্তব্যটা করেছেন।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

মন মাঝি এর ছবি

আপনার বক্তব্য আমি বুঝেছি। নীড় সন্ধানীরটাও মনে হয় বুঝেছি। বেসিকালি দ্বিমতও নেই। কিম্বা অন্যভাবে বললে, সামান্য একটুখানি আছে। যেটুকু আছে, সেটা নেহাতই ব্যক্তিগত রুচির ভিন্নতা হয়তো, সিরিয়াস কিছু না।

আমার কথা হচ্ছে, সব লেখাকে সব সময়ই কেন নিছক সহজপাচ্য ইউটিলিটারিয়ান বেবি ফুড হতে হবে? 'ডাইল্যুটেড জ্যুসের' যেমন প্রয়োজন আছে, 'কনসেন্ট্রেটেড জ্যুসেরও' তেমনি প্রয়োজন আছে। যার যেমন রুচি ও মানসিক ঝোঁক, তার জন্য তেমন লেখার (লেখক ও পাঠক উভয়ের দিক থেকেই) চয়েস থাকাটাই তো কাম্য। সব লেখা ঔষধ বা ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট হয়ে গেলে তো ভারি মুশকিল! হাসি

বৈচিত্র্যময় লেখায় সচলায়তন হয়ে উঠুক না লেখালেখি-পড়াপড়ির এক ক্যালাইডোস্কোপ!

****************************************

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

আপনার মন্তব্যের দ্বিতীয় অনুচ্ছেদের সাথে আমারও দ্বিমত নেই। সবকিছু ইউলিটারিয়ান হতে হবে না। আমার অবস্থান হচ্ছে বহুজনের সম্পৃক্ততা আছে বা থাকা প্রয়োজন এমন বিষয়ে লেখা ইউলিটারিয়ান হলে ভালো। আবার বিশেষায়িত বিষয়গুলো নিয়ে লেখা 'জোলো' হলে পড়ে আরাম নেই। আর স্টাইলের ক্ষেত্রে একজন লেখক নিজের ভেতরে যে ডায়ালেকটিক প্রসেসের মধ্য দিয়ে গিয়ে একটা স্টাইল গড়ে তোলেন সেটা পাঠকের কথায় রাতারাতি পালটে ফেলার কোন যুক্তি নেই। তবে পাঠক লেখকের কাছে যে আবদারগুলো রাখেন তার কোন কোনটা লেখকের ভেতরকার ঐ ডায়ালেকটিক প্রসেসের সহায়কও হয় বটে।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

এক লহমা এর ছবি

"হবে হবে হবে হবে- গান হবে, ঢোল হবে, সুর হবে, তাল হবে, লয় হবে- লোকে শুনে ভ্যাবাচ্যাকা থির হয়ে থেমে যাবে থেমে যাবে থেমে যাবে থেমে যাবে... "

অ ভূতের রাজা, এইবার তুমার দ্যাখা না পেলেই যে নয় বাপ! ওঁয়া ওঁয়া

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

এক লহমা এর ছবি

পুরোপুরি-ই সহমত।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

এহ্‌হে! একই শব্দ দুই দুই বার ভুল বানানে লিখেছি! ইউটিলিটারিয়ানের 'টি' বাদ দিয়ে গেছি। 'টি' বাদ দিলে তো 'টিল'টাই বাদ পড়ে যায়। তাহলে ইউ-টিল-ইট-ই (তোমরা চাষ করিয়াই খাও) আর হবে কী করে!


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

এক লহমা এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি হো হো হো

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

হো হো হো

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

এক লহমা এর ছবি

যা বলতে চাই তার সবটা বলা সব সময় সঙ্গত বলে মনে হয় না। অনধিকার চর্চা এড়িয়ে যেটুকু বলা হল না, পাঠকের কাছে সেটাই লেখাটাকে অসম্পূর্ণ করে তুলতে পারে। হয়ত সেটাই ঘটেছে। এ লেখা নিয়ে নানা রকম দ্বিধায় ছিলাম, আছি। এই লেখাটা জমা দেবার অনেক ঘণ্টা বাদেও সম্পাদনা করেছি। সাধারণতঃ আমার যে লেখাগুলি সচলে প্রকাশিত হয় তারা আরও তাড়াতাড়িই প্রকাশিত হয়। একটা সময় ধরেও নিয়েছিলাম লেখাটি বের হবে না। হয়ত পরের কোন লেখায় এই লেখাটা লেখার কথাও তুলে আনব! হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

বাংলাব্লগের দুনিয়ায় আমি হাজির হয়েছিলাম গণজাগরণ মঞ্চের উত্তাল দিনগুলির সময়ে। মনে হচ্ছিল কিছু একটা হতে যাচ্ছে। কতকগুলি পিশাচকে শেষ পর্যন্ত হিসাব-নিকাশের আওতায় নিয়ে আসার লড়াই ত বটেই, কিন্তু সেখানেই থামা নয়, আরও বড় কিছু। মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনার পুনরুত্থানের দিন সমাগত। একগুছ সাহসী মানুষ জোট বেঁধেছে। তাদের সাথে হাত মিলিয়েছে নানান মূলধারার শক্তিগুলিও। আমি এক তুচ্ছ মানুষ। এ আন্দোলনে আমার থাকা না থাকায় কারো কিছু যায় আসে না। তবে আমার নিজের আসে-যায়।

আহা, আরও অনেকের কথা একলাই বলে দিলেন বোধহয় হাসি

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

এক লহমা এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- তাই? হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

তানিম এহসান এর ছবি

এই কথাটাই বলতে চেয়েছিলাম। লিখা চলুক!

এক লহমা এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ, তানিম। চেষ্টা জারি আছে।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

মাসুদ সজীব এর ছবি

সচলে আগমন টা প্রায় সম-সাময়িক বলেই আপনার প্রতি আলাদা একটা টান আছে, এরচেয়েও বেশি আছে আপনার লেখার প্রতি আকর্ষন। লেখাটাতে অনেক কিছু বলতে গিয়েও হয়তো থেমে গেছেন, আটকে গেছেন। এখন এই ভীষন অন্ধকারে সেটাই স্বাভাবিক। তারপরও যেটুকু এসেছে সেটাই না বলা কথাগুলো বলে দিচ্ছে, আমার বুঝতে কষ্ট হয়নি। হাসি

-------------------------------------------
আমার কোন অতীত নেই, আমার কোন ভবিষ্যত নেই, আমি জন্ম হতেই বর্তমান।
আমি অতীত হবো মৃত্যুতে, আমি ভবিষ্যত হবো আমার রক্তকোষের দ্বি-বিভাজনে।

এক লহমা এর ছবি

প্রিয় সজীব, আপনার লেখার আমি অনুরাগী পড়ুয়া। আমরা যারা কাছাকাছি সময়ে সচলায়তনে এসেছি বা বেশী করে সক্রিয় হয়েছি, এই বাড়িটির প্রতি ভালো লাগা, ভালোবাসার পাশাপাশি নিজেদের পরস্পরের লেখার প্রতি অনুরাগের একটা মায়াবী টানও তাদের মধ্যে কাজ করে বোধ হয় (সততঃ সংশয়ী আমি খুব কম কিছুতেই নিঃসংশয়ী থাকি)।

শুধু অন্ধকার সময় বলেই নয়, আমার নিজস্ব সীমাবদ্ধতাও আছে বৈকি। তা সত্ত্বেও লেখাটার যতটুকু আপনাকে ছুঁতে পেরেছে ততটুকুই লেখাটা সফল হয়েছে। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

আয়নামতি এর ছবি

............................................................................................................
স্কুলের বন্ধুরা যাকে 'চানচো' নামে ডাকতো সেই চুরুটওয়ালার বিখ্যাত ডায়রির কথা বলেছো না?
নাকি ভুল বুঝলেম। বুঝতে হবে দিদির মাথায় মগজ কম কিছুমিছু বেশি আছে, কাজেই.....
এই লেখাটা অন্য সব লেখার মত লাগেনি অন্যরকম ভালো পেলেম রে দাদাই চলুক
তোমার সেই গপটা মাঝ পথে থামিয়ে দিয়ে যে বসে আছো তো বসেই আছো! শেষ করবে কবে হে???
ভালো থেকো কিন্তু!

এক লহমা এর ছবি

ডায়রিওয়ালাঃ রতনে রতন চেনে, চানচো চেনে কচু। একটু উল্টে নিতে হবে, কচুতে চেনে চানচো খাইছে ঠাট্টা রাখি। তোমার চেনাচেনিতে অবশ্যই কোন ভুল নেই।

অন্যরকম ভালোঃ আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-, 'কিছুমিছু' সিরিজে অন্যরকম লেখার-ই ইচ্ছে।

তোমার সেই গপটা মাঝ পথে থামিয়েঃ কোন গপটা-র কথা? চিন্তিত

ভালো থাকাঃ ধাতে নেই। মন খারাপ

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

আয়নামতি এর ছবি

কচু কিন্তু খাইতে খ্রাপ না। বাতের জন্য নাকি খুব ভালো, ওখরাও।

লিখো, লিখো কিছু মিছুর পিছু ধরলাম আগ্রহভরে হাসি

আরে বাপ সেই যে সেই ইইইই গপটা। মনে নেই? হেহেহে মিতুলের কথা বলি হে।

ধাতে নেই মানে স্বভাবে নেই? অভ্যাসে নেই? তোমার? বললেই বিশ্বাস করছি না। তুমি মানুষটাই ভালো, নতুন করে ভালো হওয়ার তো দর্কাও নেই। ওটা ভদ্রতা করে বলে দেঁতো হাসি

এক লহমা এর ছবি

কচু পরম উপাদেয়!

মিতুলের গল্পে ফেরবার আগে ক্যালিডোস্কোপ সিরিজ-টা শেষ করে নেয়ার ইচ্ছে আছে। এবারেরটা হলেই ১২ পর্ব হয়ে যাবে। জাদু-আয়নার নটেগাছটিও তখন মুড়িয়ে দেয়া যাবে। হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

আয়নামতি এর ছবি

ক্যালিডোস্কোপ শেষ করে দিবে! মন খারাপ
-------
দাদাই তুমি নবনীতা দেবসেনের কবিতা পড়েছো? পড়তে আগ্রহী? জলদি কও তো...

এক লহমা এর ছবি

কবিতা পড়েছি, গল্প পড়েছি, নাটক পড়েছি। তসলিমা সম্পর্কে হাবিজাবি বলেছেন বলে তসলিমার অভিযোগ - তাও পড়েছি। হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

আয়নামতি এর ছবি

খাইছে এতো সব তো জানিনা বাপু! তাহলে.... ইয়ে, মানে...

এক লহমা এর ছবি

ঘ্যাচাং

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA