বড় দিনের বিগ-জ্ঞান

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: সোম, ২৫/১২/২০১৭ - ৫:৪২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বৈজ্ঞানিক লেখা বা সাইন্টিফিক আর্টিকেলের কথা বললেই যেটা প্রথমে মাথায় আসে তা হলো বেশ ভাব গাম্ভীর্যপুর্ণ, কাঠখোট্টা ভাষায় লেখা, সমীকরন, পরিসংখ্যান, তথ্য উপাত্ত, এক্সপেরিমেন্টের ফলাফলে ভর্তি এক গাদা কথা । রস কস প্রায় থাকে না বললেই চলে । ভুমিকা, সমস্যার বর্ননা, গবেষনা প্রনালী বর্ননা, ফলাফল, আলোচনা এই সব । বিশ্বের সব নামী দামি গবেষনা সাময়িকিতেই একই অবস্থা । তবে প্রতি বছর বড় দিন বা ক্রিসমাসে আসলেই এর একটা ব্যতিক্রম দেখা যায় । ‘ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নাল’ বিশ্বের সবচেয়ে পুরাতন গবেষনা সাময়িকি গুলোর একটি । প্রতি বছর এই সাময়িকির বড় দিন সংখ্যা হাজির হয় মজার মজার কিছু গবেষনার খবর নিয়ে । তেমনই কিছু মজার গবেষনার খবর দিতেই এই লেখা ।

“ জেমস বন্ড একজন পাঁড় মাতাল এবং বিপজ্জনক ”

২০১৩ সালে নটিংহ্যাম এবং ডার্বি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই গবেষক জেমস বন্ডের ১৪ টি বই পড়ে, বন্ডের ভদকা মার্টিনি পানের পরিমানের উপর ভিত্তি করে দাবী করে জেমস বন্ড একজন মদ্যপ মাতাল !! হ্যা, ০০৭ , লাইসেন্স টু কিল জেমস বন্ডের কথাই বলছেন দুই লেখক । ১৯৫৩ থেকে ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত জেমস বন্ডের ১৪ বই পর্যালোচনা করে তারা আবিষ্কার করেন বন্ড প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১লিটারের (৯২ ইউনিট) মদ খেয়ে চলেছে । এই হারে মদ খাওয়া চালাতে থাকলে অল্প বয়সেই পটল তোলার সম্ভবনা আছে । তাছাড়া মাতাল অবস্থায় জেমস বন্ড প্রায় গাড়ি চালায়, গোলাগুলি করে যা জনসাধারনের জন্যও বেশ বিপজ্জনক । লেখকদ্বয় দাবী করেন, “আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী, জুয়াড়ীদের সাথে নিয়মিত কাজ করলে সামাজিক চাপের কারনে মদ খাওয়া বেড়ে যেতেই পারে, আমরা এসব বুঝি । তবে জেমস বন্ডের উচিৎ অতি দ্রুত তার মদ খাওয়ার অভ্যাসের ব্যপারে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করা । ”

ছবির সুত্র ঃ উপরের আর্টিকেলের এক নামার ফিগার থেকে নেয়া ।

“ সিরি এবং গুগল এসিসট্যান্টের সাথে বিছানায় ঃ যৌন স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেশের তুলনা ”
স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন উপদেশের জন্য অনলাইন সার্চই এখন অনেক মানুষের প্রথম ভরসা । যৌন স্বাস্থ্যের বিষয়টা যেহেতু আরো স্পর্ষকাতর তাই অনেকেই কোয়ালিফাইড কারো পরামর্শ না নিয়ে কেবল অনলাইনে খোঁজ করেন । মোবাইল ডিভাইসে আন্তর্জালে কিছু খোজ করার জন্য অনেকেই এখন ভয়েস অপারেটেড সার্চ ব্যবহার করেন । সবচেয়ে পরিচিত দুই নাম গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ( ‘ ওকে গুগল ’) , আর সিরি ( ‘ হেই সিরি’ ) । নারী বা পুরুষ যে ফ্লেভারেই চান না কেন আসে এই দুই পারসোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট । নিউজিল্যান্ডের যৌন স্বাস্থ্যের দুই চিকিৎসক তাই এই দুই পারসোনাল অ্যাসিস্ট্যান্ট নিয়ে বিছানায় যান ( দুজনে আলাদা ভাবে ) দুই এসিস্ট্যান্টের মাঝে কে ভালো তা যাচাই করতে । খারাপ কিছু ভাইবেন না । যৌন স্বাস্থ্য বিষয় উপদেশের ক্ষেত্রে কোন সার্চ ইঞ্জিন ভালো তা যাচাই করতে । ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের ডাটাব্যাংক থেকে বাছাই করা ৫০ টি প্রশ্ন করা হয় দুই অ্যাসিসটেন্টকে । পরে উত্তর মিলিয়ে দেখা হয় পিসিতে গুগল সার্চের উত্তরের সাথে । অধিকাংশ ক্ষেত্রেই গুগল অ্যাসিস্টেন্ট সিরির চেয়ে ভালো পারফরমেন্স দেখায় ।

২/১ প্রশ্নের নমুনা, উত্তর এবং তুলনা তুলে দিলাম নিজের টেবিলে । পুরো প্রশ্নের লিঙ্ক এখানে । আপনার মনের গোপন প্রশ্নের উত্তর মিলে গেলে তো ভালোই । আর না পাওয়া গেলে, বের করুন আপনার ফোন । বলে ফেলুন , “ওকে গুগল / হেই সিরি ” ।

কিছু ক্ষেত্রে বিদ্রুপাত্মক, স্যাটায়ারিক আর্টিকেলও ( বিজ্ঞানের মতিকন্ঠ ) পাবলিশ করা হয় । যেমন ২০০৬ ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালেরই ‘এপ্রিল ফুল’ ইস্যুতে রে ম্যনিহান নামে এক গবেষক দাবী করেন তারা “মোটিভেশনাল ডেফিসিয়েন্সি ডিসঅর্ডার ” নামে একটি অসুখ আবিষ্কার করেছে এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রায় ২০% লোক এই রোগে ভোগে । মানুষের সাধারন অলসতা,কাজ করার অনীহাকে বিদ্রুপ করাই ছিল লেখার উদ্দেশ্য । তবে বেশ কিছু পত্রপত্রিকার দায়িত্বশীল সাংবাদিকরা এইটাকে আসল বিগ-জ্ঞান বলে ধরে নিয়ে রিপোর্ট ছাপিয়ে দেয় ।

কেবল যে ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালই এমন মজার আর্টিকেল প্রকাশ করে তা কিন্তু না । আরো অনেক সাময়িকিই এমন মজার মজার হালকা চালের গবেষনা প্রকাশ করে । স্যাটায়ার আর্টিকেল গুলো বাদ দিলে এই গবেষনাগুলোর বেশিরভাগই তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে । মন গড়া গল্প নয় । কেবল গবেষনার বিষয়বস্তু হালকা চালের এই যা ।

নিচে আরো কিছু মজার গবেষনার ছোট্ট তালিকা দিয়ে গেলাম ।

বিশ্বের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সচল পরিবারের সকলকে ইংরেজী নতুন বছর এবং বড়দিনের শুভেচ্ছা রইলো ।
চিত্ত থাক ভয়শুন্য , উচ্চ থাক শির ।

মজার বিজ্ঞান ঃ
১ । জাদুবিদ্যার উৎপত্তি - জেনেটিক এবং এপিজেনেটিক্স প্রভাবের পর্যালোচনা ।
২ । Sniffing out significant “Pee values”: genome wide association study of asparagus anosmia
৩। রোগমুক্তিতে দুয়ার প্রভাব

স্মিথসোনিয়ানের তালিকা

মামুনুর রশীদ [ ভবঘুরে শুয়োপোকা ]
========================
mamun babu ২০০১ at gmail.com
হাজার মানুষের ভিড়ে আমি মানুষেরেই খুজে ফিরি


মন্তব্য

আব্দুল্লাহ এ.এম. এর ছবি

রোগমুক্তিতে দুয়ার প্রভাব

, আমাদে দেশে রোগমুক্তিতে তো বটেই, এ ছাড়াও ব্যাবসা-বানিজ্য, এমনকি যাত্রা-ভ্রমনেও দোয়ার অত্যাশ্চর্য উপকার আছে।

এক লহমা এর ছবি

এক-ই সাথে মজার এবং জ্ঞানের - ব্লগরব্লগর বেশ জমাটি হয়েছে। হাততালি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA