ছবি সমাচার

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি
লিখেছেন এস এম মাহবুব মুর্শেদ (তারিখ: শুক্র, ২৭/০৭/২০০৭ - ৬:৫৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বহুত ডিজাইন-টিজাইন করে, থার্ড ক্লাশ কোয়ালিটিগুলোকে সেন্টু মেরে, নিজের ঢোল নিজে পেটাতে পেটাতে ফাটানোর উপক্রম করে একখানা পার্সোনাল ওয়েবসাইট তৈরি করলাম। হোম পেইজে বসালাম টাই-টুই পরা এক্সিকিউটিভ টাইপের একটা ছবি। পরদিন পার্টি দিয়ে ওয়েবপেইজের উদ্বোধন করলাম আর বন্ধুদের আমন্ত্রণ জানালাম মন্তব্য করতে। রাতে কমেন্টস চেক করতে গিয়ে দেখি, আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধুটি লিখেছে, 'ঐ গাধা, হোম পেইজে চাকরীর দরখাস্তের ছবি বসিয়েছিস কেনো? বুদ্ধু , একটা ক্যাজুয়াল ছবি দে।' ক্যাজুয়াল ছবি খুজঁতে খুজঁতে একখানা নিরীহ-নিপাট ভদ্র গোছের ছবি খুব পছন্দ হলো। এবার নিশ্চয় কারো আপত্তি থাকবে না। পরের দিন দেখি, কমেন্ট লিস্টে লেখা- 'এই বেকুব, তোর ছবি দেখে মনে হচ্ছে এইমাত্র ভূমিষ্ঠ হয়েছিস, এখনি ওয়াঁ ওয়াঁ শুরু করবি। হারানো বিজ্ঞপ্তির জন্যও পারফেক্ট ছবিখানা, একদম আলভোলা। '

মেজাজ প্রচন্ড বিগড়ে গেলো। এবার কমেন্টের হাত থেকে বাচঁতে প্রিয় দুই বন্ধুর মাঝখানে কোলগেট হাসি মাখা ছবি আপলোড করলাম। ছবিতে যেহেতু আমি একা না, সো কেউ আপত্তি করবে না। সকাল হতে না হতেই দুই বন্ধুর ফোন। দোস্ত প্লিজ ছবিটা চেইঞ্জ কর। সবাই তো আমাদের এলটন জনের শিষ্য মনে করছে রে। হোম পেইজে গ্রুপ ছবি!

হেভি শকড্ হলাম। সবশেষে অনেক খুঁজে প্রিয় বান্ধবীর সাথে তোলা একখান ছবি এড করলাম। না এবার সকাল হতে হয়নি। ভোর রাতেই ফোন। ওপাশ থেকে বাজখাঁই গলার ধমক, 'ঐ হালা, তোর তো সাহস কম না! আমার লগে বিলা করস! আমার পিয়ারীর লগে ছবি তুইল্যা ওয়েবে দিছস্! পাঁচ মিনিট টাইম দিলাম। ছবি পাল্টা। নইলে ট্যাংরি ভাইঙ্গা হাতে ধরাইয়া দিমু কইলাম।' পাঁচ মিনিট কি! পাঁচ সেকেন্ডেই ছবি রিমুভ করলাম। আর নতুন কোন ছবি সিলেক্ট করার সাহসই পেলাম না!

পরদিন জরুরী সভা ডেকে বন্ধুদের দায়িত্ব দিলাম গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ভোটের মাধ্যমে আমার একখানা ছবি নির্বাচন করার। বন্ধুরা সানন্দে রাজি হলো। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে মানিব্যাগ খালি করে তাদের রিফ্রেশমেন্টের ব্যবস্থা করে আমি মহানন্দে বাসার দিকে পা বাড়ালাম। বন্ধুরা আশ্বস্ত করলো রাত আট'টার সময় ফলাফল আপলোড করা হবে। বাসায় এসে শান্তিতে দু'চোখ বুজলাম। ঘুম ভাঙ্গতেই দেখি রাত এগারটা। তড়াক করে লাফ দিয়ে উঠলাম। ওয়েব পেইজ ওপেন করলাম। এ কি! আমি স্বপ্ন দেখছি না তো! গায়ে চিমটি কেটে দেখলাম। না, জেগেই তো আছি। ভালো করে চোখ কচলে আবার মনিটরে তাকালাম। দেখি আগের মতো আমার দিকে চোখ পিটপিট করে তাকিয়ে আছে একটি রামছাগল। আমি যেন ব্যাকগ্রাউন্ডে তার ম্যা ম্যা ডাক শুনতে পেলাম। কমেন্টস বাটনে ক্লিক করলাম। সেখানে লেখা ---- "নির্দলীয়, নিরপেক্ষ ব্যক্তির তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কোন ছবিই একক সংখ্যা গরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারেনি। তাই আপাতত সর্বসাধারণের সম্মতিক্রমে সবদিক দিয়ে তোমার জন্য মানানসই ও উপযুক্ত ছবিটি নির্বাচন করা হয়েছে। সেই সাথে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে আজকের মতো আবার পুনঃ নির্বাচন অনুষ্ঠান করার আহ্বান জানানো হলো। আশা করি বৃহত্তর গণতন্ত্রের স্বার্থে তুমি এ রায় মাথা পেতে নেবে।"

মাথা পেতে নেবো কি! আমার ধড়ে তো তখন মাথাই নেই। রাগে, দুঃখে, ক্ষোভে তখনি ওয়েবসাইটটি চিরতরের জন্য আনসাবস্ক্রাইব করলাম। ভীষণ ইচ্ছে করছিলো নিজেকেও আনসাবস্ক্রাইব করে দিই পৃথিবী থেকে।


মন্তব্য

হিমু এর ছবি
ঝরাপাতা এর ছবি

শুক্রিয়া!শুক্রিয়া!!শুক্রিয়া!!!


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

হা হা হা ..... তা ওয়েব সাইটের ঠিকানাটাও দেন, একটু ঘুরে আসতাম আরকি। ওহ্ আনসাবস্ক্রাইব করেছেন তো!

ঝরাপাতা এর ছবি

হ্যাঁ ভাই, কষ্টের কথা আর কি বলবো বলেন?

কষ্টের কথা কি বলিবো কষ্ট কাহাকে বলে,
কষ্ট হইলো তুষের আগুন আন্ধার রাইতে জ্বলে।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

শামীম এর ছবি

আহারে .. .. .. .. খাইছে
________________________________
সমস্যা জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ; পালিয়ে লাভ নাই।

________________________________
সমস্যা জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ; পালিয়ে লাভ নাই।

ঝরাপাতা এর ছবি

বেচারা !!!


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

ঝরাপাতা এর ছবি


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

ঝরাপাতা এর ছবি

-


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

ঝরাপাতা এর ছবি

!


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

তারেক এর ছবি

ব্যাপক! ঐ ছবির কপিরাইট ঠিকঠাক আছে তো? নাইলে কিন্তু ড়্যাবে ধরবে। চোখ টিপি
_________________________________
ভরসা থাকুক টেলিগ্রাফের তারে বসা ফিঙের ল্যাজে

_________________________________
ভরসা থাকুক টেলিগ্রাফের তারে বসা ফিঙের ল্যাজে

ঝরাপাতা এর ছবি

ডর দেহান ক্যান ভাইজান। সামনে দেশে যাইতেছি। র্যাবে ধরলে আপনার খবর আছে কইলাম।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

হাসান মোরশেদ এর ছবি

আনস্ক্রাইব করাটা কিন্তু গনতন্ত্রের জন্য মংগলময় হলোনা ।

-----------------------------------
'পড়ে রইলাম বিধির বামে,ভুল হলো মোর মুল সাধনে'

-------------------------------------
জীবনযাপনে আজ যতো ক্লান্তি থাক,
বেঁচে থাকা শ্লাঘনীয় তবু ।।

ঝরাপাতা এর ছবি

হ গুরু, জলপাই মামুগো মতন কাম হইয়া গেছে।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

অমিত এর ছবি

গুল্লি !!!
______ ____________________
suspended animation...

ঝরাপাতা এর ছবি

মেশিনগানের নাকি?


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

অমিত এর ছবি

না, কিবোর্ডের
______ ____________________
suspended animation...

ঝরাপাতা এর ছবি

তাইলে ঠিকাছে।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

মজা হইছে। দেঁতো হাসি

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

ঝরাপাতা এর ছবি

আপনাদের মজাতে না হয় আমার কষ্টের দাগ মুছি @অলৌকিক এন্ড মা.মু.


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

দ্রোহী এর ছবি

হা হা হা
URL টা দেন তো! দেখি!!! (যদি গোপনে আবার সাবস্ক্রাইব করে থাকেন!)


কি মাঝি? ডরাইলা?

ঝরাপাতা এর ছবি

না বস, ঈমানে কই দ্বিতীয়বার সে সুযোগ দেওনের মতো বোকা আমি না কিন্তু, হুমম।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

ইশতিয়াক রউফ এর ছবি

পৃথিবী বড় আজব জায়গা। প্রকৃত ছাগলেরা লজ্জা পায় না, ঘটনাক্রমে ছাগলরা লজ্জায় ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেয়!

ঝরাপাতা এর ছবি

সেটাইতো আফসোস ইশতি ভাই।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

ঝরা পাতা কি রম্যের ব্র্যান্ডিং করছেন?
আগে কোথাও পড়েছিলাম কি!
_________________________
'আজকে না হয় ভালোবাসো, আর কোন দিন নয়'

ঝরাপাতা এর ছবি

আগে সামহয়্যারে পড়েছেন মনে হয়। বস, একসময় উন্মাদে লেখালেখি করতাম তো, ওখানে শুধু রম্যই চলতো। তবে এই লেখাটা দেশ ছাড়ার পরে লিখেছি। অন্য কোথাও দেইনি সামহয়্যার ছাড়া।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

কারুবাসনা এর ছবি

ভালো।
সেই কার্টুনটা লাগায়ে দেন, নিজের বৈলা। কাছে না থাকলে জামাল ভাস্কররে জিগান।


----------------------
বিড়ালে ইঁদুরে হলে মিল, মুদির কিন্তু মুশকিল ।


----------------------
বিড়ালে ইঁদুরে হলে মিল, মুদির কিন্তু মুশকিল ।

ঝরাপাতা এর ছবি

ওহে দাদা, আপনি আমাকে এতো সম্মানিত করছেন কেন? আপনার এবং বুবুর কাছ থেকে তুমি সম্বোধনটা শুনতে চাই, নইলে কেমন পর পর মনে হয়। তাই পরের বার কিন্তু মনে করে . . . .


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

অমিত আহমেদ এর ছবি
মেহদী হাসান খান এর ছবি

হা হা হা হা হা
সেইরকম!!!

ঝরাপাতা এর ছবি

কৃতজ্ঞতা ডাবল অ্যা, মেহেদী ভাই।


রোদ্দুরেই শুধু জন্মাবে বিদ্রোহ, যুক্তিতে নির্মিত হবে সমকাল।


বিকিয়ে যাওয়া মানুষ তুমি, আসল মানুষ চিনে নাও
আসল মানুষ ধরবে সে হাত, যদি হাত বাড়িয়ে দাও।

দিগন্ত এর ছবি

অসাধারণ অভ্র!!


পথের দেবতা প্রসন্ন হাসিয়া বলেন, মূর্খ বালক, পথ তো আমার শেষ হয়নি তোমাদের গ্রামের বাঁশের বনে । পথ আমার চলে গেছে সামনে, সামনে, শুধুই সামনে...।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।