শাহ আব্দুল করিম

মাহবুব লীলেন এর ছবি
লিখেছেন মাহবুব লীলেন (তারিখ: মঙ্গল, ১৫/০৯/২০০৯ - ২:৫৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ইসকুলের বই থেকে সমাজবিজ্ঞান খুলে নিয়ে বিশ্বমানচিত্র বিছিয়ে দিলেন ধানকাটা মাঠে
কাদামাখা দীর্ঘ দেহটা নিয়ে ভূগোলের পিঠে উঠে দাঁড়িয়ে দুই গোলার্ধের দিকে বিনীত হাত জোড় করে বললেন
- ছিল বাসনা সুখী হইতাম

বিশ্বভূগোলে যত পাঠ আর পাঠ্য সব ঘেঁটে আমরা একে একে বলতে থাকি পথ- পথ্য আর উপায়
সম্মান
অর্থ
রাজনীতি
ক্ষমতা
তিনি মাথা নাড়েন ডানে আর বামে
অন্য কিছু তার চাই

সভ্যতার নামে ছিনিয়ে নেয়া শৈশবের দিন তার চাই
মানচিত্রে চাই স্নিগ্ধ আর সবুজের মতো রং

কিন্তু হত্যাপ্রযুক্তি আর চুরিবিজ্ঞান ছাড়া কোনো রং আমাদের নেই তাকে রাঙানোর মতো
আমাদের গ্রন্থাগারে গুরুবস্তুহীন বস্তুবাদের রাক্ষস লোভ

অতি আগ্রহে আমরা তাকে এইসবের মাহাত্ম্য বর্ণনা করি

তিনি নেমে আসেন
পৃথিবীকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে মানচিত্রের মাঝ বরাবর হাঁটতে হাঁটতে
পৌঁছে যান তার সরলার কাছে

ততক্ষণে আমরা ব্যস্ত হয়ে পড়ি তার সুরের বাণিজ্যিক মূল নির্ধারণে
২০০৬.০২.০৩


লেখাটা ২০০৮ এর বই খেরোখাতায় সংকলিত


দুর্ঘটনাক্রমে সুযোগ হয়েছিল কিছুটা সময় তার আশেপাশে ঘোরার
আর ঘুরতে ঘুরতেই তাকে জড়িয়ে ফেলি আমার আমার অনেকগুলো লেখায়

তিনি তার কিছুই জানতেন না
জানতেন না তার উপর একটা ডকুর স্ক্রিপ্ট তৈরি করছি আমি
আর জানবেনও না ওটার আর করা হবে না আমার

তিনি কিছু না জানলেও তার আশেপাশে ঘুরঘুর করে তার মুখ থেকে অনেক কথাই জানা হয়ে গিয়েছিল আমার
জানা হয়েছিল- মরার পর তিনি তার স্ত্রী সরলার পাশে সমাহিত হতে চান....

শাহ আবদুল করিম সমাহিত হয়ে গেছেন সরলার কাছে
আর তিনি বলবেন না- ছিল বাসনা সুখী হইতাম...

এখন শুধু আমরা ঠিক করব তাকে নিয়ে নিজেদের কতটা মহিমান্বিত করতে পারি নিজেরা। আমি নিজে করেছি বহুবার। লালনের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়েছি তার নাম ভাঙিয়ে...


সাঁইজি কি আছেন? লালন সাঁই?

শাহ্ আব্দুল করিমের গিরামেরতিন আলাম; গোলাম হোসেন মুঁই
আতুড়ে মরিছে জননী; নমঃশূদ্র পিতা পলায়েছে আকালের ডরে
আদব-লেহাজ শিখি নাই সাঁই; সম্বাদ বাহকের করি কাম নালায়েক মনিষ্যি এক
তিনারই কিছু সওয়াল কান্ধে নিয়া আপনের চরণে করি আভূমি আলেক

.....................
বেয়াদপি নিয়েন না গুরু; প্রশ্নগুলান আমার
ঊর্ধ্বরতির সাধনা জানি না তাই শাহ্ আব্দুল করিমের নাম ভাঙায়া এই ছেউড়িয়ার বাজারে
করি গেনু বাক্যি বেসাত

খেলাফত২০০৪/বাজারিবাটু-২০০৫

তার নাম আরও ভাঙাব নিশ্চিত। কারণ ভাঙানোর মতো নামের বড়োই অভাব আমাদের...


গ্রুপ ছবিতে আমাদের মহিমান্বিত করো হে বাউলগ্রুপ ছবিতে আমাদের মহিমান্বিত করো হে বাউল


মন্তব্য

আরিফ জেবতিক এর ছবি

হ !

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

বাউলেরে শ্রদ্ধা...
---------------------------------------------------------------------------
- আমি ভালোবাসি মেঘ। যে মেঘেরা উড়ে যায় এই ওখানে- ওই সেখানে।সত্যি, কী বিস্ময়কর ওই মেঘদল !!!

রেজুয়ান মারুফ এর ছবি

'তার নাম আরও ভাঙাব নিশ্চিত। কারণ ভাঙানোর মতো নামের বড়োই অভাব আমাদের...'

কাল রাতে ঘুম আসছিলোনা । আমার আইফোনে করিমের কয়েকটি গান আছে, এই গান সেই গান করে করে শেষে অনেকক্ষণ ধরে তার রচিত গান শুনলাম। শেষে কী ভেবে ল্যাপটপ কোলে নিয়ে কিছু একটা লিখে পোস্ট করলাম। আজ সকালে তোর লেখায় 'করিম শাহ' নামটা দেখে মনে পড়লো - আমার এক আত্মীয় মালজোড়া গান করতেন , তার বাড়িতে আমির উদ্দিন, রুহী ঠাকুর,করিম শাহ, সফিকুন নূর, সহ মালজোড়া গানের বিখ্যাত সব গায়করা আসতেন। কতদিন তাদের বেহালা, ঢোল - মন্দিরার আওয়াজ আর কলকির ধোঁয়ায় বিরক্ত হয়েছি! গড়েয়ার হাওরে মালজোড়ার আসরে গান গেয়ে গেছেন অন্যান্যদের সাথে করিম শাহ। মধ্যরাতে গলাভাঙা মাইকের বেসুরো সুর আমার ঘরের জানালায় হুমড়ি খেয়ে পড়েছে, আমি পাশ ফিরে শুয়ে ঘুমিয়ে গেছি....... এই করিম শাহ'ই যে শাহ আব্দুল করিম তখন বুঝিনি!

------------------------------------------------------
আমার জীবন থেকে আধেক সময় যায় যে হয়ে চুরি
অবুঝ আমি তবু হাতের মুঠোয় কাব্য নিয়ে ঘুরি।

আমার জীবন থেকে আধেক সময় যায় যে হয়ে চুরি
অবুঝ আমি তবু হাতের মুঠোয় কব্য নিয়ে ঘুরি।

অনিন্দ্য রহমান এর ছবি

কী অদ্ভুত একটা সময়, কী অদ্ভুত একটা দেশ ছিল ... এখন সেসময়, সেদেশ কিছুই তো নাই ...
কবি দিলওয়ারকে নিয়ে পোস্ট দেয়ার কথাটা উঠেছে অন্য পোস্টে। দেখেছেন হয়ত। একটু দেখবেন। আমি সত্যিই জানতে চাই।


রাষ্ট্রায়াত্ত শিল্পের পূর্ণ বিকাশ ঘটুক

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

তার নাম আরও ভাঙাব নিশ্চিত। কারণ ভাঙানোর মতো নামের বড়োই অভাব আমাদের...


______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

রানা মেহের এর ছবি

লেখাটা অনেক ভালো লাগলো লীলেন ভাই
-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

নিঘাত তিথি এর ছবি

শ্রদ্ধা
----------------------------------------------------
আমার এই পথ চাওয়াতেই আনন্দ

----------------------------------------------------
আমার এই পথ চাওয়াতেই আনন্দ

অনিন্দিতা এর ছবি

আপনার কবিতা দুটো আগেই পড়েছিলাম।
আবারো পড়লাম।
ভাল লাগল।

নুরুজ্জামান মানিক এর ছবি

শ্রদ্ধা

নুরুজ্জামান মানিক
*******************************************
বলে এক আর করে আর এক যারা
তারাই প্রচণ্ড বাঁচা বেঁচে আছে দাপটে হরষে
এই প্রতারক কালে (মুজিব মেহদী)

নুরুজ্জামান মানিক
*******************************************
বলে এক আর করে আর এক যারা
তারাই প্রচণ্ড বাঁচা বেঁচে আছে দাপটে হরষে
এই প্রতারক কালে (মুজিব মেহদী)

সাইফুল আকবর খান এর ছবি

আপনার এই ধরনের লেখাগুলোর পরে বিশেষত, কিছুই বলার পাই না। অক্ষম, অযোগ্য, অপারগ।
.................................
..............................................
......................
.........
.

___________
স্বাক্ষর?!
মাঝেসাঝে বুঝতে পাই- আমি
নিরক্ষর!

___________
সবকিছু নিয়ে এখন সত্যিই বেশ ত্রিধা'য় আছি

তুলিরেখা এর ছবি

এইসব লেখা পড়ে অভিভূত হয়ে থাকি।
-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।