ডাক

সাফি এর ছবি
লিখেছেন সাফি (তারিখ: বুধ, ১৯/০৩/২০১৪ - ১১:৪৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

"সামিয়া"

আম্মুর ডাকশুনে বিছানায় নড়েচড়ে ওঠে সামিয়া। বিছানার পাশে রাখা ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখে রাত ঠিক বারোটা বাজে। খাটের পাশে রাখা টেবিল ল্যাম্পটা জ্বালিয়ে, পানির গ্লাসটা হাতে নিয়ে একটা চুমুক দিতেই আবার আম্মুর ডাক শুনতে পায়-

"সামিয়া"

তবে এবার একটু চাপা গলায়। নীচতলা থেকে ডাকছে আম্মু। এত রাতে কী মনে করে ডাকাডাকি করছে, ভেবে পায়না। নিজের মনে গজগজ করতে করতে বিছানা থেকে নামতে যেয়ে, হোঁচট খায় সামিয়া। নতুন বাসায় এখনও পুরোপুরি অভ্যস্ত হয়ে উঠেনি। মাত্র তিনদিন হয় ওরা এই বাসায় উঠলো।

ওদের নতুন বাসাটা একটু অদ্ভূত। শহরের একেবারের শেষ প্রান্তে দোতলা বাসা। বাসার ঠিক মাঝখানে সিঁড়ি। সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠলেই সামনে বাথরুম, আর দুই পাশে দুই রুম। আর নীচতলাটা জুড়ে বসার ঘর আর রান্না ঘর। রান্না ঘরের পেছনে একটা ছোট্ট উঠান, আর তার ওপাশে গভীর বন। তবে গভীর হলেও এখন পর্যন্ত কোন বন্য প্রাণী বা পাখির দেখা তো দূরের কথা, কারোর ডাক ও শুনেনি। শুধু শুনশান নীরবতা। রাত্রে বেলায় তো আরোই কোন আওয়াজ আসেনা, শহরের গাড়ি ব্যস্ততার আওয়াজ ও থাকেনা। ভয় লাগার মত পরিবেশ। তবে সামিয়ার ভালই লাগে, সে নিজেও চুপ্চাপ আর এরকম শান্ত পরিবেশ ই ওর পছন্দ।

উপরের এক রুমে সামিয়া শোয়, আরেক রুমে আব্বু আম্মু। আজকে অবশ্য আব্বু বাসায় নেই। অফিসের কাজে অন্য পাশের শহরে গেছে। এত রাতে আম্মুর হঠাৎ রান্নাঘরে কী দরকার হলো আর তার জন্য সামিয়াকে ঘুম থেকেই বা কেন উঠিয়ে নিচে ডাকছে ভাবতে ভাবতে নিজের ঘরের দরজা খুলে সামিয়া। সিঁড়ির দিকে আগাতেই, আস্তে করে আম্মুর ঘরের দরজা খুলে যায়। আম্মু বের হয়ে আসে, রক্তশূণ্য ফ্যাকাসে চেহারা। মনে হচ্ছে কোন কারণে তীব্র ভয় পেয়েছে। আম্মু এক আঙুল ঠোঁটে চেপে সামিয়াকে চুপ করতে বলে আস্তে করে সামিয়ার কাছে এসে ওর হাত ধরে, ওকে নিজের ঘরে নিয়ে এসেই দরজা লাগিয়ে দেয়। আর ঠিক তখনই তৃতীয় বারের মতন নীচতলা থেকে চাপা গলায় আম্মুর ডাক ভেসে আসে-

"সামিয়া"

[অনুপ্রেরণা]


মন্তব্য

গান্ধর্বী এর ছবি

ভূতুড়ে ডাক ইয়ে, মানে...

আরেকটু লিখতে পারতেন, এখন পরের পর্ব না হলেই নয়!
হবে তো? চিন্তিত

------------------------------------------

'আমি এখন উদয় এবং অস্তের মাঝামাঝি এক দিগন্তে।
হাতে রুপোলী ডট পেন
বুকে লেবুপাতার বাগান।' (পূর্ণেন্দু পত্রী)

সাফি এর ছবি

হ্যা পরের পর্ব লিখছি। এখানে থামালাম, একটু জমে যেন সেকারণে।

মেঘলা মানুষ এর ছবি
সাফি এর ছবি

বাংলায় লেখো বাপু!

মেঘলা মানুষ এর ছবি

ভয়ে গলা থেকে আওয়াজ বের হচ্ছিল না। আর, ভয় পেয়ে দৌড়ে পালানোর ভাষা একটাই। দেঁতো হাসি

মরুদ্যান এর ছবি

পরের পর্ব তাড়াতাড়ি ছাড়

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

সাফি এর ছবি

হ, লেখা শেষ করি আগে।

অতিথি লেখক এর ছবি

পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম
মজা পাইছি, সাথে এক চিমটি ভয়!!

সুবোধ অবোধ

সাফি এর ছবি

ভয় পাইলেই ভয়। খাইছে

তারেক অণু এর ছবি

লিখছেন দেখে ভাল লাগল দেঁতো হাসি , যদিও হড়ড়ড় পড়ি না, লেখা জারি থাকুক

সাফি এর ছবি

হাদুম্পাদুম যাই হোক, আমি লেখি তয় শম্বুক গতিতে - এই আর কি।

অতিথি লেখক এর ছবি

অসম্পূর্ণ সুন্দর হাসি

মাসুদ সজীব

সাফি এর ছবি

ধন্যবাদ মাসুদ সজীব।

অতিথি লেখক এর ছবি

ভাল শুরু। লেখাটা নিয়ে শুরুতেই আগ্রহ তৈরি করাতে পেরেছেন।

লেখা চালিয়ে যান। পরের পর্ব চাই!

---শেহজাদ আমান

সাফি এর ছবি

হ্যা আসবে। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

বন্দনা এর ছবি

জটিল হইছে।

সাফি এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

হূমমম --- দুই কথার গল্পটাকে এট সুন্দর করে সাজালেন!! পরের পর্বের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি।

____________________________

সাফি এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

সাফিনাজ আরজু এর ছবি

হরর ভালু পাই! জটিল হইছে ...... পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

__________________________________
----আমার মুক্তি আলোয় আলোয় এই আকাশে---

সাফি এর ছবি

থ্যাঙ্ক্স দেঁতো হাসি

নীড় সন্ধানী এর ছবি

এত ছোট্ট দিলেন!! পেটের কোনাকানাও ভরলো না। ইয়ে, মানে...
জলদি পরের পর্ব দেন। আর এটা যে সিরিজ ট্যাগে বা কোথাও লাগিয়ে দেন।

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

সাফি এর ছবি

সিরিজ করার কথা ছিলনা, তবে পোস্ট করার পরেই ধারাবাহিক করার একটা আইডিয়া মাথায় আসছে। আপাতত ঐটা নিয়েই আগাচ্ছি।

এক লহমা এর ছবি

হাততালি
ভাব সম্প্রসারণ-টা অতি চমৎকার হয়েছে! দেঁতো হাসি
পরের পর্বের প্রতীক্ষায় রইলাম

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

সাফি এর ছবি

আসিবে শীঘ্রই।

আশালতা এর ছবি

পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

----------------
স্বপ্ন হোক শক্তি

সাফি এর ছবি

কোপাও মামা...

রোমেল চৌধুরী এর ছবি

ডরাইলেই ডর!

------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
আমি এক গভীরভাবে অচল মানুষ
হয়তো এই নবীন শতাব্দীতে
নক্ষত্রের নিচে।

সাফি এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

কল্যাণ এর ছবি

হড়ড়ড় ভাল্লাগে। শুরুটা দারুণ হল। পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

সাফি এর ছবি

ধনেপাতা। দেঁতো হাসি

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

সাফি এর ছবি

আসিতেছে....

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

দিনের বেলায় পড়লাম জন্য ভয় লাগেনি, কিন্তু ভালো লেগেছে গল্পটা। হাসি

সাফি এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ অপ্র।

আয়নামতি এর ছবি

গতকাল যখন আপনার এই গপটা পড়ি তখন ঘড়িতে রাত সাড়ে বারোটা।
পড়া শেষে মনে হলু, ঘোড়ার ডিম! ভয়ের তো কিস্সু নেই এতে দেঁতো হাসি
ঘুমাতে ঘুমাতে প্রায় দুটো হলো যখন, তখন মনে হলু নাম ধরে কেউ ডাকে ইয়ে, মানে...
জ্বী না! এট্টুও ভয় পাইনি, একদমই না চোখ টিপি দেখি পরের পর্বে ভয় দেখাতে পারেন কিনা চিন্তিত

অতিথি লেখক এর ছবি

সাফি, যে ভয় দিলেন ভাই তবে কি আমি প্রেতাত্মা-১ এবং প্রেতাত্মা।(২) লেখা ছেড়ে দেবো? খাইছে এই সুযোগে একটু বিজ্ঞাপণ দিয়ে দিলাম ভাই দেঁতো হাসি

অনেক সুন্দর এবং স্বকীয় হয়েছে। পরের পর্বের আশায় থাকলাম।

Shah Waez (শাহ্‌ ওয়ায়েজ।)
Facebook

..............................................................................................
ভাবনা আমার শিমুল ডালে লালচে আগুন জ্বালে, মহুয়ার বনে মাতাল হাওয়া খেলে।
এক মুঠো রোদ আকাশ ভরা তারা, ভিজে মাটিতে জলের নকশা করা,
মনকে শুধু পাগল করে ফেলে।

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

শুরু করলাম

অতিথি লেখক এর ছবি

তারপর কী হলো বোকা তুষার

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।