ঘরে মেঘ না চাইতেই ডাস্টবিনে বৃষ্টি

সুমন_সাস্ট এর ছবি
লিখেছেন সুমন_সাস্ট [অতিথি] (তারিখ: মঙ্গল, ১৭/১২/২০১৩ - ৪:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

"খুব জ্বলে, তাই না?"

এবারতো আমরা শুধু চাই শান্তিমতো নিজের ঘরের ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার করতে। ওগুলাকে ডাস্টবিনে নিয়ে মাটি চাপা দিয়ে রেখে আসতে পারলে অনেক আরাম লাগতো; কিন্তু ঐদিকে খুব দূর্গন্ধ, একটু দুরেও, ঘরেও অনেক কাজ; তাই আবর্জনাগুলো ঘরেই মাটি চাপা দিচ্ছি। এতেও ডাস্টবিনের পিত্তি জ্বলছে; চোখের পানিতে সমগ্র ডাস্টবিনজুড়ে বৃষ্টিপাত শুরু হয়ে গেছে!

চেয়েছিলাম শুধু ঘরে মেঘ, এখন দেখছি ডাস্টবিনে ঝড়, তুফান, বৃষ্টি; খুব ঈদ ঈদ লাগছে ডাস্টবিনের খবরগুলো পড়ে:

ডাস্টবিন নিউজ, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৩
মানবতাবিরোধী নোংরামীতে জড়িত থাকা ছোট এক গামলা আবর্জনাকে মাটি চাপা দেয়ায় প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে ডাস্টবিনের সবচেয়ে নোংরা আবর্জনার স্থুপ। একইসঙ্গে ডাস্টবিনের পক্ষ থেকে ঘরে হুঁশিয়ারি বার্তা পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছে স্থুপটি। শুক্রবার একটি টিভি এ সংক্রান্ত খবর প্রচার করে।

এ ব্যপারে এক বিবৃতিতে নোংরা আবর্জনা স্থুপের প্রধান মুনা ছাগুর হাড্ডি, ঘরের মাটিতে চাপা দেয়া আবর্জনাকে তাদের ‘সহচর’ আখ্যায়িত করে, এই ঘটনাকে শোচনীয় বলে মন্তব্য করেন। একইসঙ্গে তিনি আবর্জনার গামলাটাকে শহীদ আখ্যা দিয়ে, এটা আন্তর্জাতিক ঝাড়ুদার দিয়ে আবর্জনা পরিস্কার করার নামে প্রহসন বলেও মন্তব্য করেন।

এদিকে আবর্জনার স্থুপটি তাদের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে এর প্রতিবাদে হারু-বাহিনীকে লজ্জা-শরমের মাথা খেয়ে আবার ঘরে আক্রমণ করার আহ্বান জানিয়েছে। এছাড়া সাবেক ডাস্টবিনপতির ছেলে ও বর্তমান এমপি ইছাগুড়া তার টুইটার অ্যাক্যাউন্টে আবর্জনাটিকে ডাস্টবিনের বীর হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

ডাস্টবিন নিউজ, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৩
ঘরের বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল এবং পত্র-পত্রিকায় আবর্জনা পরিস্কারের পরের ছবি-ভিডিও প্রকাশ/প্রচারিত না হলেও ডাস্টবিনের সবচেয়ে নোংরা আবর্জনার স্থুপটি তাদের অফিশিয়াল ফেইসবুক পেইজে তা প্রকাশ করেছে। ২ মিনিট ১৮ সেকেন্ডের ঐ ভিডিওতে আবর্জনার ভ্যান, মাতম এবং গামলা ভর্তি আবর্জনাটা প্রদর্শিত হয়েছে। ভিডিওটি ইতিমধ্যে ৩৫০০ শেয়ার হয়েছে এবং অনেক ডাস্টবিনের আবর্জনা সেখানে মন্তব্য করছে। ভিডিওটি ফেইসবুকে থাকায় ঘরের অনেক আবর্জনাও তা শেয়ার দিচ্ছে। এতে আকাশে বাতাসে ময়লা-আবর্জনা উড়ার মাধ্যমে সহিংসতা তৈরী হতে পারে বলে অনেকে মনে করছেন।

ডাস্টবিন নিউজ, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৩
ডাস্টবিনের স্ব-ডাস্ট্র-মন্ত্রী নিসার তেলের ডিব্বা মাটি চাপা পড়া আবর্জনাটাকে অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করে মিডিয়াতে তাঁর বিবৃতিতে বলেন, ডাস্টবিন এক বন্ধু হারালো, সমগ্র ডাস্টবিনের ময়লা-আবর্জনা এই ঘটনায় হতাশ হয়ে পড়েছে।

স্ব-ডাস্ট্র-মন্ত্রী আরো বলেন, এতো পুরোনো আবর্জনা পরিস্কার করা নিয়ে ঘরে এখন ঝাড়ু দেয়ার নামে যা হচ্ছে তা কষ্টদায়ক। ১৯৭১ সালে সম্মিলিত ডাস্টবিন গড়ে তোলার পক্ষে, ঘরের আবর্জনা হিসাবে ভুমিকা রাখা কোন মতেই অপরাধ হতে পারেনা। এই ঝাড়ু দেয়ার মাধ্যমে কিন্তু ডাস্টবিনের পুরোনো ঘা’য়ে আবার আঘাত দেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন মিডিয়াতে এই আবর্জনা পরিস্কার করার পরে অনেকেই বলছেন ১৯৭১ সালের আবর্জনার গামলা এবং ঝাড়ুর আওতায় আনা এই আবর্জনার গামলা এক গামলা না। ডাস্টবিনের স্ব-ডাস্ট্র-মন্ত্রী নিসার তেলের ডিব্বার এই বিবৃতির পর পরিষ্কার হয়ে গেল ঘরের আবর্জনাগুলো ১৯৭১ সালের ঘর বানানোর যুদ্ধে ডাস্টবিনের পক্ষ অবলম্বন করেছিলেন এবং তাদের প্রত্যেককে ডাস্টবিনের সাধারণ আবর্জনা এবং নেতা আবর্জনারা এখনও আপন ও বন্ধু ভাবেন।

ডাস্টবিন নিউজ, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৩
"নিজেরাই নিজেদের ডাস্টবিন পরিস্কার করবো", আবর্জনা জগতের নব্য নেতা হিসাবে কিছুদিন আগে এমন কথা বলে নিজেকে অন্যরকম আবর্জনা হিসাবে প্রকাশ করার চেষ্টা করছিলেন এক সময়ের খেলোয়ার-আবর্জনা দলের কিংবদন্তী নেতা হিসাবে দায়িত্ব পালন করা গলা ছিলা মুরগীর রান। তিনি ইদানিং নিয়মিতভাবে রাজনীতির সাথে খেলা মেশাচ্ছেন। আজকে আবর্জনার গামলাকে পরিস্কার (নির্দোষ) দাবি করে তিনি আবারো প্রমাণ করলেন, "লেন্জা সোজা হবার জিনিস নয়; Once a আবর্জনা, Always a আবর্জনা"।

হে ডাস্টবিনের আবর্জনাসকল, কি চাও তোমরা?

১. আমরা ময়লা-আবর্জনা কোলে নিয়ে বসে থাকব?
- তাতো হবে না। ৪২ বছর আমার ঘর ময়লা থেকেছে, আর না।

২. বন্যেরা বনে সুন্দর, আবর্জনারা ডাস্টবিনে; ডাস্টবিনের আবর্জনা ডাস্টবিনে পাঠিয়ে দেই না কেন?
- একটা সময় পর্যন্ত এটাতেও আমাদের খুব আপত্তি ছিল না। ঝাড়ু দেয়া শুরু করার আগে স্থায়ীভাবে নিয়ে গেলে আমরা খুশীই হইতাম। কিন্তু এখন যে একটু দেরী হয়ে গেছে আন্কেল! পারলে, যে আবর্জনার গামলাটা চামে ডাস্টবিনে চলে গেছে, তাকে বল সাহস থাকলে একটু ঘরে এসে ঘুরে যেতে।

৩. আমরা ডাস্টবিনে এসে পরিস্কার করে পশ্চিম ঘর বানাবো?
- করতে পারলে খুব আরাম লাগতো। কিন্তু এত আবর্জনা ঘাটানোর মুড আসছে না যে! তাও নাহয় নিজের ঘরটা পরিস্কার করা শেষ করার পরে ভেবে দেখব।

আরেকটা কথা - ট্রেইলার দেখেই চোখের সব পানি শেষ করে ফেললে হবে?? সিনেমাতো পুরাটাই বাকী।


নিউজ এবং ছবি ক্রেডিট: ইন্টারনেট এবং গুগল কিওয়ার্ডস 'কাদের মোল্লা পাকিস্তান, Pakistan Map Dog Naman Kapoor'


মন্তব্য

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

এহেহে... আমার লেখা গুলা সবাই আগেই লিখে ফেলে ক্যান??
টাইপিং স্পীদ বাড়াতে হবে ওঁয়া ওঁয়া

কোলাকুলি উত্তম জাঝা!

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

সুমন_সাস্ট এর ছবি

সরি মন খারাপ । পাকিস্তানকে গালিগালাজ করার আবেগটা বেশীক্ষণ ধরে রাখতে পারলাম না; যা মাথায় এসেছে ধুমধাম লিখে পোষ্ট দিয়ে দিয়েছি।

--
মাগো তুমি রেখো জেনে, এই আমরাই দেব এনে,
আঁধারের বাধা ভেঙে রাঙা ভোর, রোদ্দুর মাখা দিন।

http://www.youtube.com/watch?v=8OB_uPY4i4M

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

আরে সরি ক্যান? ইয়ে, মানে... উত্তম জাঝা! আরো লিখুন... আমিও লিখছিলাম, এইসময় দেখি আপনার পোস্ট... তাতে কি... লিখে তো ফেলেছি শয়তানী হাসি এই নিয়ে শতসহস্র লেখা আসুক মিজান, পিষে ফ্যালো

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

সুমন_সাস্ট এর ছবি

এই নিয়ে শতসহস্র লেখা আসুক মিজান, পিষে ফ্যালো

--
মাগো তুমি রেখো জেনে, এই আমরাই দেব এনে,
আঁধারের বাধা ভেঙে রাঙা ভোর, রোদ্দুর মাখা দিন।

http://www.youtube.com/watch?v=8OB_uPY4i4M

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

" ট্রেইলার দেখেই চোখের সব পানি শেষ করে ফেললে হবে?? সিনেমাতো পুরাটাই বাকী।"

চোখের পানি তো ঝরছে এখন ফাকিস্তানের পা চাটা বাকী কুকুরগুলোর। ফাঁসিতে ঝুলে মরার চিন্তায় ওদের নাওয়া খাওয়া ঘুম হারাম হয়ে গেছে!

____________________________

সুমন_সাস্ট এর ছবি

তা আবার বলতে। চাল্লু

--
মাগো তুমি রেখো জেনে, এই আমরাই দেব এনে,
আঁধারের বাধা ভেঙে রাঙা ভোর, রোদ্দুর মাখা দিন।

http://www.youtube.com/watch?v=8OB_uPY4i4M

এক লহমা এর ছবি

চলুক
আপনার লেখা আসতে থাকুক অবিরল।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

আয়নামতি এর ছবি

ভাগারের গলাপচাদের কাজই গন্ধ ছড়ানো
ওরা জ্বলে পুড়ে মরলেই আমাদের কী যায় আসে।
চমৎকার একটা গান শেয়ারের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।
চমকের গান এমনিতেই ভালা পাই। লিখুন আরো।

অতিথি লেখক এর ছবি

জ্বালা অনেক ধরনের হয়। কিছু জ্বালা হয়তো এমনি এমনিই এক সময় মন থেকে হারিয়ে যায়। কিন্তু কিছু জ্বালা সারা জীবন তাড়া করে ফেরে। মাটে-ঘাটে, জলে-জঙ্গলে, দুবা-নালায় কি চুবানিটাই না খেয়েছে। ৪২ বছর কেন ৩৪২ বছরেও এই জ্বালা কি জুড়ায় ? পাকিরা তো আর এমনি এমনি নাক গলাতে আসে না। কত সাধনা, কত বিনিয়োগ কিন্তু কিছুতেই কিছু যখন হচ্ছেনা তখন কান্না ছাড়া কীইবা আর করার থাকে ? - জেগে উঠার দিন

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA