গভীর রাতের ব্লগর ব্লগর

মরুদ্যান এর ছবি
লিখেছেন মরুদ্যান [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ০৬/০৮/২০১৪ - ১:০৮পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

৫ রাত হল টানা শিফট করছি রাতে। ১২ ঘন্টার শিফট, সন্ধ্যা ৭ টা থেকে সকাল ৭ টা। আজকে শেষ রাত, তার পর তিনদিন কাজ নাই। অবাক ব্যাপার হলেও পুরা বিল্ডিংয়ে আমি একা কাজ করছি। কিছু হয়ে গেলে দেখার কেউ নাই। খরচা কমানোর যুগে এরকমটাই হয়তো স্বাভাবিক। কর্মী আউটসোর্সিং করতে করতে এখন তিরিশ জনের মত বাকি আছি। তাই 'স্বাস্হ্য ও নিরাপত্তা নীতি'র সাথে ঠিক না গেলেও একজন দিয়ে রাতে কাজ চালানোটা এরা বৈধ করে ফেলেছে। আমাদেরও কিছু করার নাই, চাকরি আছে এই বেশি।

নিজে দেশ ছেড়ে বিদেশে পড়ে আছি। তাই দেশপ্রেম বা জাতীয়তাবাদ নিয়ে মানুষকে তেমন কিছু বলতে চাইনা আজকাল। বললেই এক পর্যায়ে এই খোঁচাটাই দেয়। শাহবাগের সময় থেকে এসব নিয়ে বহু ক্যাঁচাল হয়েছে, অনেকের সাথে কথা বলাও বন্ধ হয়ে গেছে। মাঝে মধ্যে মনে পড়লে চাপা দীর্ঘশ্বাস ছাড়ি, কিন্তু কিছু ব্যাপারে বোধহয় আপোষ না করাই ভাল।

চারপাশে এত এত সমস্যা, কি রেখে কি নিয়ে ভাবব? এর চরম প্রতিফলন টাই আমরা আসলে দেখি ফেসবুকে। বড় সমস্যা গুলা নিয়ে গড়ে তিন দিনের বেশি কোন হৈ চৈ হয়না। আর এভাবেই ফাঁক গলে বেঁচে যায় সমস্যা, বছর ঘুরে আবার হয়তো আসে, যেহেতু সমাধান হয় না, আমাদেরও গা সওয়া হয়ে যায়। এমন অবস্হা যে ব্যতিক্রম দেখলে মনে হয় হায় হায় এত ভাল অবস্হা কেন? হুয়াই নো প্রবলেম? দুইটা উদাহরণ দেই, এক বন্ধু রোজার মাসে বলল এবার নাকি রেশনপাতির দাম আগের বারের তুলনায় এত বাড়েনি, সে যে খুব খুশি তা না, বরং সংশয়ে ভুগছে যে কেন? অন্য কোন সমস্যা নাকি? আরেক বন্ধু বলছিল যে লঞ্চ ডুবার খবর আসার আগ পর্যন্ত নাকি তার মনে হচ্ছিল এই ঈদে কি যেন নাই নাই। সে দু:খ থেকেই কথা টা বলেছে, কিন্তু আসলেই কি একটা ঈদ আমরা পেতে পারিনা যেখানে এরকম কিছু হবেনা? ৭ দিনে মোটমাট ৫০০ এর মত মৃত্যু!! কিন্তু কারো কোন ভাবান্তর নাই। চামড়া টা মোটা হতে হতে গন্ডার পেরিয়ে এখন গডজিলা পর্যায়ে চলে গেছে।

সচলের এক বড় ভাইকে সেদিন বলছিলাম যে আজকাল কারো সাথে ক্যাঁচালে যেতে ভাল লাগেনা। ভাইয়া বলল, ক্যাঁচাল না করে সবাইকে বলতে 'আপনি ঠিক বলছেন'। এখনো পর্যন্ত শুরু করিনাই, কিন্তু মনে হয় করতে হবে। লোকজনকে বুঝাতে গেলে যে পরিমাণ সময় আর শক্তি খরচ হয় সে সময়ে আমি অনেক কিছু করে ফেলতে পারি। কিছু না করলেও অলস ভাবে শুয়ে বসে থাকাটা লাভজনক, শক্তি সঞ্চয় হয় :)।

এই মুহূর্তে যে কারণে অস্বস্তিতে আছি সেটা বলি। খুবই কাছের আত্মীয়ের ছেলের প্রথম জন্মদিন হবে। আজকাল জন্মদিনে আবার থিম থাকে, সেটা নিয়ে সমস্যা নাই। কিন্তু কোন এক অদ্ভুত কারণে থিম টা হচ্ছে 'ইংরেজ রাজকুমার'। দুনিয়াতে এত কিছু থাকতে বাচ্চাটাকে ইংরেজ রাজকুমার কেন সাজাতে হবে ঠিক বুঝলাম না। তারপর পরিকল্পনা দেখে মনে হল অনুষ্ঠান ভরে থাকবে ইংল্যাণ্ডের পতাকা, লন্ডন ব্রিজ, বিগ বেন এসবের ছবি টবি দিয়ে। পরে যেতে হবে সাদা নীল লাল রঙের কাপড়। বাচ্চার সাথে ইংল্যান্ডের কোন দিক দিয়েই কোন সম্পর্ক নাই। বাবা মা একসময় বছরখানেক পড়াশুনার জন্য ওইখানে ছিল, তাও অনেক আগে। ইচ্ছা ছিল একটু বিরক্তি প্রকাশ করব ফেসবুকে ঘটা করে করা ইভেন্টের নিচে, কিন্তু বড় ভাইয়ের উপদেশ মনে পড়ে গেল, তাই কিছু বলিনাই। জন্মদিনের সাথে রাজনীতি না হয় নাই মিশালাম।

জাতিগত দৈন্যতার কলঙ্ক বাংলাদেশিদের কপাল থেকে সহজে মুছবার নয়। বিদেশে আমিও থাকি, বিদেশি গান শুনি, বিদেশি চলচ্চিত্র দেখি, মাঝে মধ্যে একটু করে বউয়ের পাশে বসে হিন্দি সিনেমা-সিরিয়ালও দেখে ফেলি, অস্বীকার করব না। কিন্তু দিন শেষে এরকম হীনমন্যতা দেখলে মনটা খারাপ হয়। এর চেয়ে 'বাংলাদেশের রাজকুমার' (তারেক চুরা) নিয়ে থিম করলেও ভাল হত, ভাল হোক খারাপ হোক, বাংলাদেশি তো।

জানিনা সেই দিন আসবে কিনা, তবু দোয়া করি এই বাচ্চাটা বড় হয়ে একদিন এর জন্য লজ্জা পাবে, আর আমার যে কথাগুলা বলা উচিৎ ছিল, সেই কথাগুলা সে তার বাবা মা কে বলবে। জন্মদিনে এই শুভকামনাই হোক তার জন্য আমার পক্ষ থেকে উপহার।


মন্তব্য

হিমু এর ছবি

পরের জন্মদিন গুপী গাইন বাঘা বাইন থিমে করতে বইলো। যেমন, কেউ আসবে গুপী সেজে, কেউ বাঘা সেজে, কেউ হীরক রাজা সেজে, কেউ উদয়ন পণ্ডিত সেজে। আর বাড্ডে বয় গান শুরু করলে সবাইকে থেমে যেতে হবে, নড়াচড়া চলবে না।

মরুদ্যান এর ছবি

চলুক আমার বাচ্চার জন্য এটা জমায়া রাখলাম।

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

জন্মদিন করা তো বেদাত, এই লাইনে কথাবার্তা চালাইতে পারেন। এই বেপারে হাদীসের দরকার হইলে ইনবক্স কইরেন, আপাতত একটা দেই, 'কুল্লু বিদায়াতেন দলালা, ওয়া কুল্লা দলালাতিন ফি নার' অর্থাৎ, 'সকল বিদাত গোমরাহীর দিকে নিয়ে যায়, আর সকল গোমরাহী নিয়ে যায় জাহান্নামের দিকে। যে লোক পোলারে ইংল্যান্ডের রাজপুত্র বানায়, তার ঈই লাইনে এট্টু চিপা দিলে ব্যপারটা জমবে বলে মনে হচ্ছে।

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

মরুদ্যান এর ছবি

চিপা চুপা দেওনের কাম নাই। সবাই ঠিক বলে, তুমিও ঠিক, তারাও ঠিক, আমিও ঠিক চোখ টিপি

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

তুলিরেখা এর ছবি

বিদাত কী? গোমরাহী কী? চিন্তিত

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

মরুদ্যান এর ছবি

যার দাত নাই হেতে মনে হয় বেদাত।

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

তুলিরেখা এর ছবি

হাসি
আর গোমরাহী মনে হয় গোমড়ামুখ। চিন্তিত

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

মরুদ্যান এর ছবি

হইতারে। যেহেতু বেদাত তাই মনডা বেজার। এই জন্যই বলসে

বেদাত নিয়ে যায় গোমরাহীর দিকে

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

বিদাত, গোম্রাহী এগুলা হইল শরীয়তী পরিভাষা, লোকজনকে ভয় দেখানোর জন্য হুজুররা বেবহার করে, আসলেই ডিটেইলস জানতে আগ্রহী হলে বলতে পারি দেঁতো হাসি

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

মন মাঝি এর ছবি

অনেকটা 'মেলেচ্ছ / যবন' -টাইপের কথা তাই না? হাসি

****************************************

সত্যপীর এর ছবি

এই সুযোগ কাজে লাগায়া চকচকে পাঞ্জাবি লুঙ্গি পইরা পার্টিতে হাজির হইতে পারেন। কইবেন আপনে দুইশ বছর আগের নেটিভ ইন্ডিয়ান মার্চেন্ট লাল বাহাদুর ঢনঢনিয়া সাজছেন। টেকনিক্যালি আটকাইতে পারব না।

বাকীরা যখন টাইট প্যান্ট পইরা ভাত পুলাউ খাইয়া (ভাত পুলাউই তো? নাকি শেপার্ডস পাই টাইপের হাবিজাবি দিব?) হাঁসফাঁস করব তখন আপনে ঢিলা লুঙ্গি পইরা বিজয়ীর হাসি হাসবেন।

..................................................................
#Banshibir.

মরুদ্যান এর ছবি

এই রাজা রানী রাজপুত্তুর ঢাকা শহরে, আমি সুদূর পরবাসে (বাঁইচা গেসি)

যে কেলাবে নেমন্তন্ন সেখানে এসব ঢনঢনিয়া পোশাকে প্রবেশ নিষেধ। শুধু বিরিটিশ কুট-প্যান্টালুন চলবে।

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

অতিথি লেখক এর ছবি

মন খারাপ

মাসুদ সজীব

মরুদ্যান এর ছবি

হাসি

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

এক লহমা এর ছবি

চলুক
"জানিনা সেই দিন আসবে কিনা, তবু দোয়া করি এই বাচ্চাটা বড় হয়ে একদিন এর জন্য লজ্জা পাবে, আর আমার যে কথাগুলা বলা উচিৎ ছিল, সেই কথাগুলা সে তার বাবা মা কে বলবে। জন্মদিনে এই শুভকামনাই হোক তার জন্য আমার পক্ষ থেকে উপহার।" - আপনার সাথে সাথে আমিও এই দোয়া করি।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

মরুদ্যান এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

ইয়াসির আরাফাত এর ছবি

নিতান্তই অঃটঃ আপনি নোকিয়াতে কাজ করেন নাকি?

মরুদ্যান এর ছবি

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

ইয়াসির আরাফাত এর ছবি

আপনে তো দেখা যায় কঠিন জিনিস। সিডনীতে মোটামুটি সবাইকে ছেঁটে ফেলতেসে শুনছি, এই পাগলা ঘোড়ার ওপর সওয়ার হয়ে থাকা এলেমের ব্যাপার। গুরু গুরু

আবারও অঃটঃ আপনের ক্যামেরাবাজির পোস্টগুলার আমি একজন ভক্ত পাঠক। দেখা কইরা কিছু চা সিগারেট খাওয়াই চলেন.........

মরুদ্যান এর ছবি

মোটেও কঠিন জিনিস না। চিপা চুপা দিয়া বাঁইচা আসি। চা খাইতে কোন অসুবিধা নাই দেঁতো হাসি আপনি কি সিডনি?

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

ইয়াসির আরাফাত এর ছবি

খোমাখাতায় তার প্রেরিত

অতিথি লেখক এর ছবি

কী আর কইতাম! জন্মদিনের থিম জিনিসটা আগে শুনি নাই। তাও ইংরেজ রাজকুমারকে দিয়া থিম নিয়া জানলাম। এইটাই পাওনা আছিলো ওঁয়া ওঁয়া ওঁয়া ওঁয়া

এখন বইসা বইসা থিম বানামু। হিমু ভাইয়েরটা পছন্দ হইছে। উত্তম জাঝা!

---------------------
আশফাক(অধম)

মরুদ্যান এর ছবি

চোখ টিপি

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

মিজাজাটা এমুন খারাপ লাগতাসে না মিয়া - ঐ ইংরেজ রাজা আর রাণিরে (রাজকুমারের বাপ মায়ে তো রাজা রাণিই হইবো, নাকি?) মুড়ো ঝাড়ু দিয়া পিটাইতে পারলে সুখ পাইতাম!!

____________________________

মরুদ্যান এর ছবি

আপনার আন্দাজ ১০০% ঠিক। নিজেদের নামের আগে অলরেডি রাজা রাণী লাগানো শেষ। দেঁতো হাসি

আর পিটাপিটি করবেন কেন? কিপ কুল ব্রো চোখ টিপি

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

ভাই, আপনিতো বিদেশে, আমাকে প্রক্সি হিসাবে পাঠান, লর্ড ক্লাইভ সেজে গিয়ে...

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

হো হো হো

____________________________

মরুদ্যান এর ছবি

চলুক

-----------------------------------------------------------------------------------------------------------------
যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে তবে একলা চল রে

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।