অরিত্রির মৃত্যু কিছু জিজ্ঞাসার জন্ম দেয়

মাহবুবুল হক এর ছবি
লিখেছেন মাহবুবুল হক (তারিখ: বিষ্যুদ, ০৬/১২/২০১৮ - ১০:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

যারা শিক্ষক হয়েছেন তাদের একাংশ পুলিশ বা আমলা হতে চেয়েছিলেন, এমনকি অনেকে এখনও তা মনে করে দীর্ঘশ্বাস ফেলেন ।শিক্ষক হওয়ার পরও যাদের মাথা থেকে ক্ষমতাচর্চার আশা বা সেই মানসিকতার মোক্ষ ঘটেনি তারা শিক্ষকতা পেশাকে নানাভাবে জোতদার-জমিদারির স্তরে নামিয়ে এনেছেন ।মনের গোপন গহীনে মাতুব্বরি বা মোড়লপনার সাধ তারা পুষে রাখেন যত্নে ।সুযোগ পেলেই সেই সাধ দাঁত-নখ বের করে সামনের নিরীহ প্রাণীকে আক্রমণ করে বসে ।আবশ্যকভাবে সেই নিরীহ প্রাণীটি অনেকক্ষেত্রেই হয় তার ছাত্র বা ছাত্রী । ভিখারুন্নেছা নুন স্কুলের ছাত্রী অরিত্রি বা তার বাবা যাদের আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন তারা এই দলে পড়েন তা আমি বলতে চাই না ।তবে সেই পুলিশি মানসিকতার শিক্ষক যে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে আছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এ কথা হলফ করে বলা যায় ।শাসন-ত্রাসন-পীড়ন-দলন-তুচ্ছতাচ্ছিল্যই এই মানসিকতার চালক হয়ে থাকে ।রাষ্ট্র বা আইনি ক্ষমতা প্রয়োগ বা নাড়াচাড়া করেন এমন কর্তাব্যক্তির স্ত্রী-কন্যা-ভাবি বা ঘনিষ্ঠ কেউ শিক্ষক হলেও বাংলাদেশের বাস্তবতায় এরকমই ঘটে ।সেক্ষেত্রে ক্ষমতার প্রয়োগ নাকি আরও ভয়াবহ হয় ।শোনা কথা ।যাচাই করিনি ।প্রয়োজন মনে করি না ।কারণ সামন্ত রাজার মতো ক্ষমতা দেখানো এবং উপভোগ করাই এখানে রীতি, ক্ষমতাকে নিপুণভাবে খাপবন্দি রাখার শিক্ষা এখানে দেওয়াই হয় না ।না সমাজ, না পরিবার কেউ তা দেয় ।আমি বুঝতে পারি না শিক্ষক তার শিক্ষার্থীর কাছে দুর্বিনীত-অভব্য ও অশালীন হন কীভাবে? জরিপ করা খুবই দরকার যে, যারা স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন তাদের কত ভাগ কেবল শিক্ষকতাই করতে চেয়েছেন ? সেই চাওয়ার লক্ষ্য কি শুধুই সহজে স্বল্পায়াসে করা যায় এমন চাকুরি? নাকি বেকারত্ব ঘোচানো ? শিক্ষকতা করার মানসিক প্রস্তুতি কতজন নিয়েছেন ? শিক্ষার্থী-শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা শ্রেণিকক্ষে পাঠদান পদ্ধতি সম্পর্কে ধারণা নিয়ে পড়াচ্ছেন কি তারা? এই শিক্ষক কি মনে করেন সিলেবাস অনুযায়ী পাঠ্যপুস্তক পড়ানোর মধ্যেই এই পেশার মাহাত্ম্য নিহিত? নাকি শিক্ষার্থীর জীবন গঠনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখা এবং তাকে একজন প্রকৃত মানুষ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য করার মধ্যেই প্রকৃত সাফল্য খোঁজা উচিত? শিক্ষকতাকে তিনি সেবামূলক পেশা নাকি পেশামূলক সেবা হিসেবে দেখছেন ? সবকিছু ছাপিয়ে আরেকটি জিজ্ঞাসা, রাষ্ট্র কি আদৌ শিক্ষককে সেই আদর্শিক অবস্থানে দেখতে চায় যেখান থেকে প্রজন্মের প্রেরণার উৎস সৃষ্টি হবে? এসব বিষয় রাষ্ট্র ও সমাজে পরিস্কার হওয়াটা খুব দরকার ।তা না হলে শিক্ষকের অবয়ব নিয়ে প্রশ্ন ফাঁসকারী, নকল সরবরাহকারী, শিক্ষা ব্যবসায়ী, ধর্ষক, নিপীড়ক আমাদের সন্তানদের চারপাশে ঘুরঘুর করতেই থাকবে ।


মন্তব্য

আয়নামতি এর ছবি

ভিখারুন্নেছা নুন স্কুলের ছাত্রী অরিত্রি বা তার বাবা যাদের আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন তারা এই দলে পড়েন তা আমি বলতে চাই না ।

'তারা' তবে কোন দলে পড়েন! চিন্তিত

এক লহমা এর ছবি

যিনি যেই পেশাতেই থাকুন - মানবিকতা থাকবে না এটা ভাবতে অদ্ভুত লাগে।

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

মেঘলা মানুষ এর ছবি

আমাদের সব শিক্ষক খারাপ সেটঅ বলা যায় না, আবার সবাই ভালো সেটাও বলা যায় না। ছেলেবেলায় স্কুলে ১ মাস পড়াতে আসতেন বিএড ক্লাসের প্র্যাকটিক্যাল অংশে থাকা হবু শিক্ষকরা। তাদের মাঝে কেউ কেউ এত ভালো ছিলেন যে, আমি পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র হয়েও বুঝতে পারতাম -ইনি পাশ করার পর চমৎকার শিক্ষক/শিক্ষিকা হবেন।

দুই একজন অবশ্য পড়া উপস্থাপন করতে পারতেন না, বোঝা যেত পড়ানোতে আগ্রহ কেবল চাকরি করার জন্য। কেউ কেউ আমাদের আগে থেকে বলে রাখতেন যেদিন তাদের পরীক্ষকরা এসে কোণায় বসে তাদের পড়ানো পর্যবেক্ষণ করবেন সেদিন যেন আমরা "বাড়ির কাজ" জমা দেই (যে কোন বিষয়ের খাতা নিয়ে ক্লাস ক্যাপ্টেন টেবিলের উপর রাখতো -অনেকটা মুভির প্রপ এর মত)। আর, কাকে প্রশ্ন করবেন, কি উত্তর হবে সেটা আগে থেকে ঠিক করে রাখতেন এই শ্রেণীর শিক্ষকরা।

আবার, আমরা সবাইই অনুপ্রেরণাদায়ী শিক্ষক পেয়েছি। তাদের disappoint না করার জন্য পড়াশোনা করেছি, যেন তারা না বলে বসেন, "তুমি এত কম নম্বর পেয়েছ ক্যান?" আবার, অনেকের মারধোর এর কারণ বুঝতে পারতাম না, আতঙ্ক ছড়ানো ছাড়া কোন কাজে আসেনাই তাদের বেতের বাড়ি।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA