ভোদাইচরিতমানস ০৭

মুখফোড় এর ছবি
লিখেছেন মুখফোড় (তারিখ: সোম, ১৫/১১/২০১০ - ৬:০৮পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সতীনাথ ভাদুড়ীর ঢোঁড়াই চরিত মানসের কোন খণ্ডের সাথে এই কাহিনীর কোন মিল নাই। কাজেই খোঁচ ধরিয়া সময় বরবাদ করিবেন না। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য লিখিত কিঞ্চিৎ অশালীন পোস্ট, শিশুরা দূরে গিয়া খেলো।

ভোদাই একগাল হাসিয়া কহিল, "ঐ পাতলা পাতলা পুস্তকগুলি ম্যাডামের হইতেই পারে না!"

আমি গলা খাঁকরাইয়া কহিলাম, "তা বটে!"

ভোদাই কহিল, "উহা কোনো বিদেশী অপশক্তির কর্ম।"

আমি সায় দিলাম, "হইতেই পারে!"

ভোদাই কহিল, "কিয়ৎকাল পূর্বে চীনদেশের রাষ্ট্রপতি দেশে সফরে আসিয়াছিলেন কি আসেন নাই?"

আমি ভাবিয়া উত্তর করিলাম, "আসিয়াছিলেন।"

ভোদাই কহিল, "পুস্তকগুলিও চীনদেশে ছাপা।"

আমি কহিলাম, "তো?"

ভোদাই কহিল, "আমার ধারণা সেই পগেয়া পাজি রাষ্ট্রপতি হতভাগাটিই বগলে বোন্দা বান্ধিয়া এইসব দুষ্ট মেগাজিন আনিয়াছে!"

আমি কহিলাম, "ম্যাডামের তোরঙ্গে দুষ্ট মেগাজিন স্থাপন করিয়া চীনদেশের রাষ্ট্রপতির কী লাভ?"

ভোদাই অট্টহাস্য মারিয়া কহিল, "তুমি তো দেখি বিপণনশাস্ত্র সম্পর্কে পুরাই অজ্ঞ! গোটা জাতি টেলিভিশনে দেখিয়াছে এই দৃশ্য। স্বয়ং ম্যাডামকে এই মেগাজিনের অনুরাগী পাঠিকা সাজাইয়া বিজ্ঞাপন মারিলে কাটতি কীরূপে বাড়িবে ভাবিয়া দেখ! চৈনিক বণিকেরা বড়ই ধুরন্ধর! বাণিজ্য সম্প্রসারণের ব্যাপারে তাহারা উদ্যোগী। তাই সন্দেহ করিতেছি তাহারাই দুষ্ট চর লাগাইয়া ম্যাডামের খালি তোরঙ্গে এইসব পুস্তক গুঁজিয়া দিয়াছে!"

আমি কহিলাম, "তাহলে তোরঙ্গে কী ছিলো?"

ভোদাই কহিল, "পবিত্র গ্রন্থ, আবার কী? ম্যাডাম উহা হাতে হাতে লইয়া গিয়াছেন। আর পিছনে পড়িয়া থাকা শূন্যস্থানটি হতভাগারা এইসব আজেবাজে জিনিস দ্বারা পূর্ণ করিয়াছে ম্যাডামের বদনাম করিবার জন্য! এক লোষ্ট্রে দুই পক্ষী!"

আমি কহিলাম, "তাই বলিয়া চীনা রাষ্ট্রপতি ... ?"

ভোদাই চটিয়া কহিল, "কেন রে বাপু? চীনদেশের রাষ্ট্রপতি কি অথর্ব নাকি? সে জ্যাকি চ্যানের দেশের লোক, আর বগলে করিয়া এক বোন্দা পাতলা পুস্তক আনিতে পারিবে না?"

আমি মিনমিন করিয়া কহিলাম, "তা বটে!"

ভোদাই গদগদ কণ্ঠে কহিল, "পুস্তকগুলির প্রচ্ছদ বড় চিত্তাকর্ষক! দেখিলেই চিত্ত চুলবুল করে। তোমার ভাবীর কথা চিন্তা করিয়া এক কপি কিনিব ভাবিতেছি। আজকাল লেখাপড়া না করিলে সহজে কিছু হয় না।"


মন্তব্য

ধুসর গোধূলি এর ছবি

এই তাইলে গঠনা? চিন্তিত
কিন্তু, শান্তিকুঠির অভ্যন্তরে যে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত আলমিরা ছিলো, তাহার ভিতরে যে বৈদেশিক দামী পানীয় পাওয়া গেলো, উহার মাজেজা কী?



বিএসএফ—
ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কর্মকাণ্ড । বিএসএফ ক্রনিক্যালস ব্লগ

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ওরে কেউ আমারে ধর, মুখা বোমা মারিয়াছে! গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তুলিরেখা এর ছবি

মুখফোড়ের লেখাগুলি একেকটা উ:।
হাসি

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

অতিথি লেখক এর ছবি

উনি ম্যাডাম বলে কি মানুষ না? উনার ইচ্ছা হইতেই পারে এইগুলা পড়ার অসুবিধা কোথায়?

মাহফুজ খান

সাইফ তাহসিন এর ছবি

আরে ভাই দোয়া কর যে 'যৌবন আমার লাল টমেটু' গানের সেই মিউজিক ভিডিওটা পাওন যায় নাই যেখানে ম্যাডাম নিজেই নেচেছিলেন চোখ টিপি

খায়েশ তো হইবেই চোখ টিপি
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

আশরাফ [অতিথি] এর ছবি

গুপ্তদা'র নোটবই তাহলে পাওয়া গিয়েছে ! ফালুদা আর গুপ্তদা সহযোগে মহারাণীর ভোজ তাহলে বেশ উমদাই হতো।

শান্ত [অতিথি] এর ছবি

তা চৈনিক রাষ্ট্রপতি কিভাবে জানিলেন যে একজন বাড়ি ছাড়িতে না ছাড়িতে আরেকজন বিজ্ঞাপণ দেওয়ার জন্য ঝাপাঁইয়া পড়িবেন । এইরকম কুৎসিত আচরন চৈনিক দেশে দূর্লভ হওয়ার কথা বৈকি !

শান্ত [অতিথি] এর ছবি

তা চৈনিক রাষ্ট্রপতি কিভাবে জানিলেন যে একজন বাড়ি ছাড়িতে না ছাড়িতে আরেকজন বিজ্ঞাপণ দেওয়ার জন্য ঝাপাঁইয়া পড়িবেন । এইরকম কুৎসিত আচরন চৈনিক দেশে দূর্লভ হওয়ার কথা বৈকি !

রাগিব এর ছবি

সরকারের এটা একটা বাজে রকমের চাল হয়েছে। আমার ধারণা দেশের অধিকাংশ মানুষই এই "পুস্তক"কে সাজানো বলেই ধরে নিচ্ছে। ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারে সুন্দর করে সাজানো থাকা দেখে মনে হয়, ডিবি/র্যাবের লোকজনকে "নকল এভিডেন্স বিতরণ পদ্ধতি" সম্পর্কে ট্রেনিং নিতে পাঠানো দরকার। এতো কাচা কাজ করে দলীয় লোকজনের কাছেও পার পাওয়া যাবে কি না সন্দেহ।

----------------
গণক মিস্তিরি
মায়ানগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | টুইটার

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

অতিথি লেখক এর ছবি

আমি রাগিব ভাইয়ের সাথে সম্পূর্ন একমত। এটা সাজানো নাটক বলেই মনে হচ্ছে।

পাগল মন

পৃথিবী [অতিথি] এর ছবি

পানীয়ের বোতলটা বিশ্বাস করা যায়, কিন্তু পুস্তকগুলা একদমই হাস্যকর। মানুষ এত ছাগল হয় কেমনে!

দুর্দান্ত এর ছবি

সম্পূর্ণ সহমত!

অতিথি লেখক এর ছবি

রাগিব ভাইয়ের সাথে একমত। এগুলো খুবই শস্তা ট্রিক। তার থেকেও বড় কথা এই চর্চা রাজনীতির জন্যে কোনওমতেই শুভ নয়। খুলনার সাবেক মেয়র সাহেবের বাড়ি তল্লাসি করে বাংলা মদ পাওয়া গিয়েছিলো! দিজ অল আর ফানি।

রসময়গুপ্ত পড়া বা মদ্যপান করা একান্তই ব্যাক্তিগত ব্যাপার। গুজব সব নেত্রীর নামেই বাজারে চালু আছে কিন্তু এগুলোকে নিয়ে বাড়াবাড়ি করা সমিচীন বলে আমার মনে হয় না। একটা অসুস্থ প্রতিযোগিতা। এগুলো আগামিতে রাজনৈতিক কালচারে রূপান্তরিত হলে তার ফল খুবই ভয়াবহ।

রাতঃস্মরণীয়

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

মুখপোড়া মুখা...

_________________________________________

সেরিওজা

সৈয়দ আখতারুজ্জামান এর ছবি

ভোদাই তো দেখছি আসলে ভোদাই না! জাতে মাতাল তালে ঠিক।

নাজনীন খলিল এর ছবি

হুমমম---------

সৈকত আরেফিন [অতিথি] এর ছবি

চীনা রাষ্ট্রপতির বাণিজ্য বুদ্ধির তারিফ করিতে হয়; তবে আমাদের এটাও ভুলিলে চলিবেনা, গুলশান কার্যালয়ে ম্যাডাম যেভাবে টিস্যু ভিজাইলেন সেই অভিনয়ের তারিফ না করিলে আল্লাহও ক্ষমা করিবেন না।

অতিথি লেখক এর ছবি

টিস্যু কি সত্যি সত্যিই ভিজিয়াছিল???

--- থাবা বাবা!

নাশতারান এর ছবি

দুষ্ট ম্যাগাজিনের আইডিয়া আর এক্সিকিউশান খুবই কাঁচা বুদ্ধির পরিচায়ক। এই ওজনের ঘিলু নিয়ে দেশ চালায় বলেই আমাদের এই দশা! মন খারাপ

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

দুর্দান্ত এর ছবি

সাইফ তাহসিন এর ছবি

বুড়া আঙ্গুল

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

আমার ছোট একটা অবজার্ভেশন আছে। বাসা চেইঞ্জের সময় ঈদসংখ্যা, বিচিত্রা বা প্লেবয়টাইপ ম্যাগাজিনগুলোর ওপর অনেক কম মায়া থাকে। এগুলোকে বোঝা মনে হয়। আর খালেদা ওইদিনই বাড়ি ছাড়ার জন্য প্রস্তুত ছিলো না - এটা সত্যি হলে তার বেডরুমে পাতলা পাতলা পুস্তকগুলি থাকার সম্ভাবনাই বেশি। দরকারী বাক্স-পেটরাই আগে স্থানান্তর হওয়ার দাবীদার।

আর এসব ম্যাগাজিন থাকা অত্যন্ত স্বাভাবিক বিষয়। কারো ঘুমানোর আগে পড়াশুনার অভ্যাস থাকতেই পারে আর পড়াশুনার বিষয় হিসেবে পাতলা পুস্তিকা খুব খারাপ না।

বাথরুমের ফ্রিজে পানীয় থাকলেও সমস্যা কোথায় বুঝলাম না। পান করা খারাপ কিছু না, মাতাল হয়ে অন্যের জন্য ঝামেলা করলে সেটা খারাপ। খালেদার মতো হাই সামরিক সোসাইটির কারো জন্য এটা নিয়মিত অভ্যাস হওয়াই স্বাভাবিক। চরিত্র নষ্ট বা ভালো হওয়ার সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই।

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

সাইফ তাহসিন এর ছবি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

আহসান হাবিব শিমুল এর ছবি

তাহা হইলে ভোদাই কি বলিতে চাহিলো!
ম্যাডাম জিয়া আসলে পর্ণের রেগুলার কাষ্টোমার এবং যিনি বা যাহারা উহা অবিশ্বাস করিতেছেন তাহারা আসলে ষড়যন্ত্রের তত্ত্বকে মানিয়া লইয়াছেন।

হুমায়ুন আজাদ একবার বলেছিলেন বাঙ্গালী পুরুষের মতো কামুক প্রাণী আর দ্বীতিয়টি নেই।উনি সম্ভবত আরেকটি কথা বলেন নাই "বাঙ্গালী পুরুষের মতো পার্ভার্টেড জন্তু আর দ্বিতীয়টি নাই"।

এইজন্যই সেন্টু না রেন্টু বই লিখে বলে বেড়ায় "শেখ হাসিনা ফেন্সিডিল খায়", এরশাদের আসল কুকুর্তি ছাপিয়ে বড় হয়ে দেখা দেয় তার রংগ-রসের কেচ্ছা কাহিনী।

ভদ্রমহিলার কান্নাকাটি দেখে যারপর নাই বিরক্ত হয়েছিলাম।একটা সামান্য বাড়ির জন্য দুই দু'বারের প্রধানমন্ত্রী এমন করে চোখ মোছে দেখে খানিকটা লজ্জাও পেয়েছি।এদেরকেই ভোট দিয়ে আমার ভাই-বেরাদর, বন্ধুবান্ধবরা ক্ষমতায় বসায়।

তবে "সারপ্রাইজ" যে রাতের জন্য বরাদ্দ ছিলো বিটিভি'র খবরে, তা দেখে আমি লা'জবাব।
জিঘাংসা কত ভয়াবহ হলে লোকে এমন কাজ করতে পারে!কংগোর প্রেসিডেন্ট প্যাট্রিক লুমুম্বাকে বিদ্রোহীরা এসিডে পুড়িয়ে মেরে ছিলো। এই জিঘাংসা'তো তার চেয়েও ভয়ংকর মনে হচ্ছে।
৬৫ না ৬৭ বছরের মহিলা, ঠিকভাবে হাঁটতে পারেনা, তাঁর এতোই ইয়ে যে পর্ণোপত্রিকা না পড়লে ঘুম আসেনা!

ভালোই নানীর বয়সঈ যেসব মহিলা আছে, তাঁদের ড্রয়ারে, আলমিরা, ঘরের কোনাকাঞ্চি'তে খোঁজ লাগাতে হবে যদি বাই চান্স মিলে যায়।তাইলে আর ট্যাকা খরচ করে নীলখেতে গিয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে কিনতে হবেনা।

এই খবরে সত্যি আমার নাক-চোখ খুলে গেলো!

আহসান হাবিব পলাশ এর ছবি

আপনার নানীর সাথে এই নানীর পার্থক্ক তো দেখবেন। আপনার নানী ৬৫ বছর বয়সে ভুতের মত সাইজা ময়দানে ময়দানে গলা ফাটাইয়া বকতৃতা দেয় না। আপনার নানী ষ্টিম বাথ আর ঝাকুঝিতে গোসল করে রিলেক্স করে না। আপনার নানী পাচ বছর পর পর দেশ শাসনও করে না। তাই সব নানীকে আপনার নানী না ভাবাই ভাল।

উনি বিদেশী পতৃকা পড়লে সমস্যা কোথায়? উনার ফৃজে মদের বোতল থাকলেও সমস্যা কোথায়? রাজনিতি পরিশ্রমের কাজ। এত পরিশ্রমের পর একটু মদ পান করলে আর একটু পতৃকা পড়লে যদি উনার মাথা ঠানডা থাকে, আপনি আমি আপততি করার কে?

সাইফ তাহসিন এর ছবি

শিমুল পলাশে দেখি গুতাগুতি লাগছে চোখ টিপি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

কামরুজ্জামান চৌধুরী এর ছবি

এই ঘটনায় কিছু বুদ্ধিজীবির লাভ হয়েছে। তারা পুর্ন উদ্যমে টক শো এবং ব্লগ লেখা শুরু করেছে। মনের ভাব বেশিক্ষন চেপে রাখা যায় না। আসল চরিত্র প্রকাশ পেয়ে যায়। খালেদা জিয়ার দাবড়ানি খাওয়া আর চটি বইয়ের প্রেম এদের বেশ আনন্দ দিয়েছে। এরা তো আতলামী করার জন্য ইস্যু খোজে।

আহসান হাবিব শিমুল এর ছবি

রাজনিতি পরিশ্রমের কাজ। এত পরিশ্রমের পর একটু মদ পান করলে আর একটু পতৃকা পড়লে যদি উনার মাথা ঠানডা থাকে, আপনি আমি আপততি করার কে?

পলাশ সাহেব, রাজনীতিক'রা মাথা ঠান্ডা রাখার জন্য আর কি কি করে!তার একটা লিষ্টি দেন দেখি।আপনি তো ভাই, রাজনীতিবিদ'দের অন্দরমহলের অনেক খবরাখবর রাখেন।আমাদের আর কিছু জানান! আমরা জেনে আপনার রাজনীতি জ্ঞানের তারিফ করতে থাকি।

মতিউর সেন্টু মতো "আমি আমার ফাঁসি চাই" টাইপ বইও লিখতে পারেন।

তাইলে কি দাঁড়াইলো, বাংলাদেশের রাজনীতির মুখ্য দুই মহিলা'র একজন মদ্যপানে আসক্ত, আরেকজন ফেন্সিডিলে আসক্ত।একজনের রাতে ঘুম হয়না পর্ণো না পড়লে।অন্যজনে মেয়ে ছবিওয়ালা পর্ণ ম্যাগাজিন পড়ে নাকি ছেলের ছবিওয়ালা নাকি ভিডিও ই দেখে, সেটা কয়েকবছর পড়ে যদি ক্ষমতার পালাবদল ঘটে তাইলেও জানা যাবে।

নানীর প্রজন্মের একজন ভুতের মতো সাইজা বক্তৃতা দেয়,আরেকজন বেঁফাস কথাবার্তা বলে;আর আমরা তাদের দুই প্রজন্ম পরে জন্মনিয়েও অঘোরে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসাই।সারাদিন দুই মহিলা গালাগালি দিয়েও একটা অল্টারনেটিভ দাড় করানোর মত হ্যাডমও গত ২০ বছরেও আমরা'র হয়নাই।দিনশেষে এই দুজনই আমাদের জাতীয় রিপ্রেজেন্টেটিভ।

এদের গায়ে থুথু দিলে সেই থুথু নিজেদের গায়েও যেয়েও যে পড়ে যে হুশ
ব্লগীয় শিক্ষিতদের উদয় হোক।

আহসান হাবিব পলাশ এর ছবি

শিমুল সাহেব, আপনি তো দেখি খুব ভাল জানেন কে কি পড়ে কি পড়ে না, পারলে আপনি একটা লিষ্ট দেন দেখি।

দুই নানীর বিকল্প বাইর করতে পারেন নাই দেইখা তাদের সমালোচনা করা যাবে না, আকাম কুকাম সব চাইপা যাইতে হবে, এইটাই কি বলছেন ভাই? ছাতা নিয়া খাড়াইয়া থাকেন দুই নানীর সামনে, যাতে কোন থুতু তাদের গায়ে না পড়ে। খালেদা জিয়া ষ্টিম বাথ নিলে তো আমার আরাম লাগে না, সে পতৃকা পড়লে আমার গায়ে থুতু আসবে কেন?

আর আপনার শিক্ষার দৌড় ভাইসাহেব চামচামি পর্যন্ত। ঐটা লইয়া থাকেন, নানীদের বিকল্প আসমান ফাইটা বাইর হবে। দুই দিনের যোগী ভাতরে কইতে আইছেন অন্ন।

আহসান হাবিব শিমুল এর ছবি

দুই নানীর বিকল্প বাইর করতে পারেন নাই দেইখা তাদের সমালোচনা করা যাবে না, আকাম কুকাম সব চাইপা যাইতে হবে, এইটাই কি বলছেন ভাই?

আকাম-কুকাম চাইপা যাইতে হবে এইটা কইনাই।তবে আকাম-কুকামের ফিরিস্তি যদি হয় কে ফেন্সিডিল খায়, কে পর্ণো দেখে, কে কড়া করে লিপস্টিক মাখে, সেইটাতে আমার ঘোরতর আপত্তি আছে।

আপনি এইসব বিষয়ে বিস্তর "আরাম" পাইলেও পাইতে পারেন, আমার ঘেন্না লাগে।

একবার এক সাংবাদিক মাহফুজ আনাম'কে আইস্যা কইলো, সে এরশাদ'কে নিয়ে ফিচার লিখতে চায়।বিচারের বিষয়বস্তু হবে "এরশাদের নারী বিষয়ক কেচ্ছাকাহিনী"

তখন মাহফুজ আনাম জবাব দিয়েছিলো এরশাদ রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে এতো ক্ষয়-ক্ষতি দূর্নীতির জন্ম দিয়েছেন, ফিচার লিখতে হলে সেইসব নিয়ে লিখেন!

আপনাকে আমার ঐ সাংবাদিক টাইপ মনে হচ্ছে।কিচ্ছু মনে করবেন না।

আমার শিক্ষার দৌড় কতদূর সেইটা আমার ভালোই জানা আছে।কিন্তু আপনার শিক্ষার দৌড় কতটুকু সেইটা আপনি ভাল করে জানুন।কাজে দিবে!

নানীদের বিকল্প আসমান ফাইটা বাইর হবো না।ঠিক আছে।কিন্তু আপনি ট্যাবলয়েডে(হালের ব্লগে) তাদের কেচ্ছা কাহিনী, আপনার ভাষায় "সমালোচনা" ছাপতে থাকুন, বাইর হবো।

হ...আমি দুইদিনের যোগী.....।.আপ্নে তো অনেক পুরান যোগী!

ভগবান রক্ষে করুন! আপনার মতো পুরান যোগী হওয়ার কোন খায়েশ আমার নাই!

এইবার আমি "চামচা" হৈলাম, পরেরবার কি কইবেন সেটা কমেন্টের শুরুতেই কইয়া দিয়েন।নিজের "উপাধি" আগেভাগে জানাই ভালো, খামোখা অপেক্ষায় রাইখেন না।

আহসান হাবিব পলাশ এর ছবি

হ হাগন্তির শরম নাই দেখন্তির গুনা।

খালেদার আকামকুকাম নিয়া আপনি কোনো কিছু লিখলে দেন পইড়া দেখি আপনে কত বড় মহাফুজ আনাম আইছেন।

চামচাদের দৌড় তো চামচামি পর্যন্তই। আপনে পরেরবারও চামচাই থাকবেন। শাক দিয়া মেডামের পতৃকা ঢাকতে থাকেন।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।