কীর্তিনাশা এর ব্লগ

একটি অনুগল্প : বায়োকেমিস্ট রাশেদের আশ্চর্য আবিস্কার

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বুধ, ১৪/০১/২০০৯ - ৪:০৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বায়োকেমিস্ট রাশেদ সাহেব তার নিজস্ব গবেষনাগারে বসে কি সব নাড়াচাড়া করছিলেন। হঠাৎ সেখানে ঝড়ের বেগে তার গৃহ ভৃত্য নুরুর আগমন। সে একটানা হেসেই যাচ্ছে - হা হা হা, হো হো হো। রাশেদ সাহেব ভ্রু কুঁচকে জিজ্ঞেস করলেন - কি রে অমন ফ্যাক ফ্যাক করে হাসছিস কেন? লাফিং গ্যাস ঢুকেছে নাকি পেটে?

নুরু তার হাসির ফাকেই বলতে লাগলো - সার রাস্তার মোড়ের মাঠে মতিগো গরুডার পিঠে একটা কুত্তা উঠছে। তারপর চাইর পায় ...


একটি আজাইরা অনুগল্প : ছেলে নাকি মেয়ে ?

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: মঙ্গল, ১৩/০১/২০০৯ - ৪:০৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গর্ভবতী স্ত্রী আর তার স্বামীর মধ্যে কথপোকথন -

স্ত্রী : আচ্ছা তুমি ছেলে চাও নাকি মেয়ে ?

স্বামী : আমার সেরকম কোন চয়েস নেই। যেকোনটাতেই খুশি। তবে মেয়ে হলে একটু বেশি খুশি। তুমি?

স্ত্রী : আমি ছেলে চাই, ছেলে।

স্বামি : কেন?

স্ত্রী : কারন তা না হলে তোমার পরিবারের লোকজন সারাক্ষন কানের কাছে ঘ্যানর ঘ্যানর করবে - বংশের বাত্তি নাই, বংশের বাত্তি নাই বলে।

স্বামী : কি যে বলো না! সেই যুগ কি এখনও আছে ন...


নারিকেল জিঞ্জিরা ও নাফ নদীর কয়েক ঝলক

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: রবি, ১১/০১/২০০৯ - ৪:৪৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সৈকতে সূর্যাস্ত

(আরো ছবি সংযুক্ত আছে লেখার শেষে)

ঘুরে এলাম নারিকেল জিঞ্জিরা (সেইন্ট মার্টিন) দ্বীপ। দু'টো দিন কেমন স্বপ্নীল সময় কাটিয়ে এলাম। সাগর যে আকাশের চেয়েও নীল হয় তা বুঝলাম এই দ্বীপে এসে।

দ্বীপের সৌন্দর্য সম্পর্কে কিছু বলতে চাই না। সে কথা যে সব ছবি জুড়ে দিয়েছি তারাই বলবে। আরও বলবে অসাধারন সুন্দর নাফ নদীর কথা।

আমি কেবল আমার আসে পাশে ঘটে যা...


একটি অনুগল্প : মোবাইল প্রেম

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: সোম, ২২/১২/২০০৮ - ১:৫৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চারটা বাজতে পনের মিনিট বাকি। রমনা পার্কের ভেতরে দাঁড়িয়ে রুহুল এই শীতেও দর দর করে ঘামছে। তার সামনে হিমেল দাঁড়িয়ে আছে। সে রুহুলকে নিবিড় ভাবে পর্যবেক্ষণ করে বলল - 'দোস্ত সব ঠিক আছে। দেখতে তোকে পুরা শাহরুখের মতো লাগছে। এখন যা সব কিছু নিয়ে বটমূলে গিয়ে দাঁড়া।’ রুহুল পকেট থেকে একটা টিস্যু বের করে মুখ মুছলো। তারপর বলল - 'দাঁড়া আর পাঁচ মিনিট পরে যাই। এখনও তো পনের মিনিট বাকি আছে।’ একটু থেমে ...


একটি অনুগল্প : এক পলাতকের আত্মকথন

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১২/২০০৮ - ৫:১৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

জন্ম আমার অছ্যুৎ পরিবারে। যাদের দেখে অন্য সবার শরীর ঘৃনায় রি রি করে ওঠে। রাগে ফুঁসে উঠে তারা। হাতের কাছে যা পায় তাই নিয়ে তেড়ে মারতে আসে । আমাদের সারাক্ষণ তাই ব্যাতিব্যাস্ত থাকতে হয় নিজেদের লুকিয়ে রাখতে। বাঁচার তাগিদে যে যেখানে পারি গলি ঘুঁপচিতে ঘাপটি মেরে পড়ে থাকি। আঁধারে, ছায়ায় সবার চোখ এড়িয়ে চলাফেরা করি। পালিয়ে বেড়াই এখান থেকে ওখানে। এভাবেও হয়তো বেঁচে থাকা যায়। তবে একটাই বি...


চাঁদ, পেঁচা এবং কিছু না

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বুধ, ১৭/১২/২০০৮ - ১:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গতকাল যখন আড্ডা শেষে বাসায় ফিরছিলাম তখন রাত প্রায় এগারোটা। আকাশের দিকে তাকিয়ে দেখি চাঁদটা কেমন আধভাঙা হয়ে আছে আর মরা জোছনায় ভেজাতে চেষ্টা করছে ঢাকা নগরীকে। চাঁদটাকে দেখে কেমন যেন লাগলো। মনে পড়ে গেল বহুদিন আগের এক পূর্নিমা রাতের কথা।

সে রাতে বিস্তির্ন খোলা এক ধানেক্ষেতের মাঝ দিয়ে চলে যাওয়া এক রাস্তার কালভার্টের ওপর দাঁড়িয়ে ছিলাম একদম একা। জোছনার প্লাবনে ভেসে যাচ্ছিল চারপাশ...


আমার খুব কাছের এক সচলের জন্মদিন আজ

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: সোম, ১৫/১২/২০০৮ - ১২:২৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

যার কথা বলছি তার এক অঙ্গে অনেক রূপ । একাধারে সে একজন জাঁদরেল কর্পোরেট এক্সিকিউটিভ, কবি, ভ্রমন পিয়াসি পরিব্রাজক, প্রাক্তন সাংবাদিক, সংগঠক ইত্যাদি ইত্যাদি। ও হ্যা তিনি সচলায়তনের একজন সম্মানিত সচলও বটেন । যদিও সচল থেকে বর্তমানে স্বেচ্ছা নির্বাসনে আছেন ।

তবে বর্তমানে তার সব পরিচয় ছাপিয়ে এক্সিকিউটিভ পরিচয়টাই মুখ্য হয়ে উঠেছে। রাত নেই দিন নেই অনিঃশেষে সে নিজেকে বিলিয়ে দিচ্ছে একট...


একটি অনুগল্প : অদ্ভুত বিচার

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: রবি, ১৪/১২/২০০৮ - ৩:৫০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গ্রামের স্কুলের মাঠে শালিসের মজলিশ বসেছে। বিচারক স্থানীয় এলাকার চেয়ারম্যান। আর আসামি সিরাজ মাঝির ষোড়শি মেয়ে জমিলা। তার অপরাধ - সে গ্রামের মসজিদের সম্মানিত ইমামের একুশ বর্ষিয় ছেলেকে ফুঁসলিয়ে-ফাঁসলিয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলেছে। তারপর তাকে নিয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যেতে চেয়েছে। কিন্তু ইমামের সাঙ্গ-পাঙ্গরা গ্রাম ছাড়বার আগেই খুঁজে তাদের ধরে ফেলেছে। এখন ইমামের ছেলের জায়গা হয়েছে ইমামে...


চারখানা কৌতুক : বড়দের জন্য

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: মঙ্গল, ০২/১২/২০০৮ - ১০:৪৬পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

দেঁতো হাসি

চারটি ইনসিওরেন্স কোম্পানির মধ্যে তুমুল প্রতিযোগিতা চলছে। প্রথমটা তাদের স্লোগান ঠিক করলো - "Coverage from the cradle to the grave."

দ্বিতীয়টি ঠিক এক কাঠি এগিয়ে বলল - "Coverage from the womb to the tomb."

তৃতীয়টি আরেক কাঠি সরেস, বলল - “Coverage from the sperm to the worm."

চতুর্থ কোম্পানিটি অনেক ভাবলো। ভেবে ভেবে কিছু না পেয়ে এক সময় ক্ষান্ত দিতে চাইলো। কিন্তু শেষ মুহুর্তে তারা একটা স্লোগান পেয়ে গেল - "Coverage from the erection to the resurrection."

দেঁতো হাসি (দে...


একটি অনুগল্প : ভূঁতের নাম ম্যান্দামারা

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বিষ্যুদ, ২৭/১১/২০০৮ - ৪:৩৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শরিফের চোখ দিয়ে অঝোর ধারায় অশ্রু ঝরছে। কিছুতেই সে কান্না থামাতে পাড়ছে না। এত বড় দুঃখ সে এ জীবনে আর পায়নি। আজ ফুলির বিয়ে। যে ফুলির সাথে তার পাঁচ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। যে ফুলি দু’দিন আগেও শরিফের গলা জড়িয়ে বলেছে - তোমারে ছাড়া বাঁচবো না। সেই ফুলি দুবাই ফেরৎ পাত্র পেয়ে প্রেমের মুখে ঝাঁটা দিয়ে বিয়ে করতে বসে গেছে। এ দুঃখ শরিফ রাখবে কৈ। সে তাই ঠিক করেছে এ জীবন আর রাখবে না। আত্মহত্যা করব...