আজ সারাদিন

তানিম এহসান এর ছবি
লিখেছেন তানিম এহসান [অতিথি] (তারিখ: সোম, ১০/১০/২০১১ - ৮:০৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আজ দখিনের জানলা খুলেই দেখা গেলো
জোর বাতাসের পেখম ছুঁয়ে যাচ্ছে উড়ে
একটা চিরল গাছের পাতা সহজ সরল;

আজ দখিনের জানলা খুলেই মনে হলো
আজ সারাদিন বায়স্কোপের বাক্স খুলে
আসবে যাবে নিত্যনতুন ‘কি চমৎকার দেখা গেলো’!

আজ দখিনের জানলা খুলেই জেনে গেলাম
সূত্রধরের সুতো যত ধীরে ধীরে যাচ্ছে ভেসে
হরেক রঙের আটপৌরে এক রঙের ডানায়;

আজ দখিনের আকাশ এবং মেঘের সাথে
সকালবেলা ভাব-বিনিময় হতে হতে
চোখের ভেতর জন্ম নিলো নতুন আকাশ;

তীর্থ তোমার ডাহুক গাড়ী ছাড়লো বলে
ইষ্টিশনের বড় বাবু সবুজ বাতির ছররা ভুলে
দোলায় যে তার তে-রঙা পাল সমুদ্দুরের;

আজ সকালে নবনীতা চোখ মেলেনি ঘুমিয়ে ছিলো
ঘুমের ঘোরে তন্তু বুড়ীর চরকা কাটা ঠাস বুননের
শাড়ীর আঁচল জড়িয়ে গায়ে মুচকি হেসে;

আজ সকালে ঘর ছেড়ে তাই পথে নেমে
আজ সারাদিন তোমার কাছে পত্র লেখার
দিব্যি ভুলে পত্র লিখি পাকুড় গাছের পাতায় পাতায়!

-------- খুলনা, ১০. ১০. ২০১১


মন্তব্য

কল্যাণF এর ছবি

তানিম ভাই খুব ভাল লেগেছে পড়ে। দারুন হয়েছে। যদিও আমার কবিতার জ্ঞান শূন্য, তবে পড়তে পড়তে

হরেক রঙের আটপৌরে এক রঙের ডানায়

পৌছে কোথায় যেন আটকে গেলাম। "এক" শব্দটা বাদ দিয়ে পড়লে অবশ্য আর আটকানো ভাবটা থাকে না। অথবা আটপৌরে আর এক মিলিয়ে আটপৌরেক পড়া যায়? এরকম হচ্ছে কেন? কিছু মিস করছি? স্বল্পজ্ঞানে বেশি বড় কথা বলে ফেলেছি, মাথা চুল্কানোর ইমো দিয়ে পালাই।

উচ্ছলা এর ছবি

শেষ লাইনটায় এসে মনে পড়ল, এরকম এক 'পত্র' পেয়েছিলাম সেই বিশ বছর আগে। কাঁঠাল পাতার পত্রে লেখা ছিল, "উচ্ছলা+উজ্জল" দেঁতো হাসি

আপনি কেমন আছেন? এত সুন্দর করে লেখেন কেম্নে?

কল্যাণF এর ছবি

আপনার জবাবটা ? খাইছে দেঁতো হাসি খিক খিক খিক

রিশাদ_ময়ূখ এর ছবি

ভালো লেগেছে, যদিও নামহীন সিরিজের মতো ছুঁতে পারল না
চলুক

আশালতা এর ছবি

চোখের ভিতর জন্ম নিলো নতুন আকাশ

আহা !

----------------
স্বপ্ন হোক শক্তি

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

আজ দখিনের জানলা খুলেই দেখা গেলো
জোর বাতাসের পেখম ছুঁয়ে যাচ্ছে উড়ে
একটা চিরল গাছের পাতা সহজ সরল;

চলুক


_____________________
Give Her Freedom!

সৈয়দ আফসার এর ছবি

চলুক

__________♣♣♣_________
না-দেখা দৃশ্যের ভেতর সবই সুন্দর!

বন্দনা এর ছবি

তানিম ভাই এমন বৃষ্টির দিনে আপনার অসাধারন কবিতা বেশ লাগছে।

তাপস শর্মা এর ছবি

ভাইজান আমি কবিতার ভাষায় কথা বলতে চাইনা, শুধু চাই আপনার কবিতা অনন্তকালের বেদনার হাহাকারে "হরেক রঙের আটপৌরে এক রঙের ডানায়" ভর করে উড়ে যাক তেপান্তরের ঠিকানায়; গভীরে আরও গভীরে, অন্তহীন হাসি

তানিম এহসান এর ছবি

তাপস ভাই, কতদিন আকাশ দেখেননা, ফুলের কাছে যান না, শোনেন না নদীর ঢেউ কিংবা কিষাণের কথা! আপনার সিদ্ধান্ত আমাকে মুগ্ধ করেছে, আমিও জীবনে চারবার চাকরী ছেড়েছি, চাকরী ভালো লাগেনা, তবু আছি।

আপনিতো ফিরে গেছেন আপনার গ্রামে, আমিও গিয়েছিলাম, তারপর আবার ফিরে আসা। আমি খুব করে চাইবো আপনি প্রথম ধাক্কাগুলো পার করে দিয়ে থেকে যাবেন - দেখবেন সময়ের সাথে সাথে সব ঠিক হয়ে যাবে। মঙ্গলকামনায় হাসি

তানিম এহসান এর ছবি

০১
ভাই কল্যান, আমার মনে হয় পাঠকের যেভাবে পড়তে সহজ সেভাবেই পড়ে নিলে হয়। ধন্যবাদ আপনাকে খুটিয়ে পড়ার জন্য।

০২
“বাহাস বিমুখ বাট মটিভেটর” খাইছে উচ্ছলা আপু, দৌড়ের উপর আছি। ভালো থাকবেন।

০২.১ আবারো ভাই কল্যাণ, আশা করি জবাব পেয়েছেন। হা-হা কিংবা হো-হো করে হাসুন, শ্বাস নিতে সুবিধে
হবে, এই খিকখিক হাসি কাশির সমতুল্য হয়ে যায় মাঝে মাঝে দেঁতো হাসি

০৩
রিশাদ_ময়ূখ! নামহীন সিরিজ এর পক্ষে পতাকা তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ হাসি

০৪
আশালতা আপু, ধন্যবাদ আপনাকে।

০৫
ওহে কবি মৃত্যুময়, তোমার হওক জয়!

০৬
ধন্যবাদ আফসার ভাই।

০৭
বন্দনা আপু আপনাকে ধন্যবাদ

আমাদের আয়নামতি আপার কথা মনে করে আজকে সবার জন্য (গুড়) রেখে গেলাম। তিনি আমাদের প্রায়শই গণহারে গুড় বিলি করতেন। মানুষটা বহুদিন উধাও ম্যাঁও

কল্যাণF এর ছবি

তানিম ভাই আমি এক কবিতা মুখ্যু লোক, কবিতা বিষয়ে আমার কিছু বলা মানে ধৃষ্টতা। তাও সাহস করে বলে ফেলেছি কারণ দেখতেতো আর পাচ্ছেন না, তাছাড়া ঝাড়ি ঝুড়ি দিলেও কেউ টের পাবে না যে আসলে ঝাড়িটা কে খাইল হেহ হেহ।

আপার জবাব এখনো পাই নাই, এইটা মনে হয় প্রাইভেট, বেশি চাপাচাপি করলে শেষে ব্লগিয় অদৃশ্য মাইর খাওয়ার সম্ভাবনা আছে, তাই সময় থাকতে আস্তে কইরা চাইপা যাই খাইছে

গুড় খাওয়ানোর জন্য এক ঝুড়ি আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- লন ভাই।

তানিম এহসান এর ছবি

এতো চাপেন ক্যা পোকে-মন ভাই? খাইছে

কল্যাণ এর ছবি

ই কি ভৌতিক কান্ডমান্ড!!

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

তানিম এহসান এর ছবি

আপনে মিয়া ভুত! ভাবছিলাম আপনেরে এই পোস্টের লিংক পাঠায়ে পোক করবো চোখ টিপি, তার আগেই আপনি আইসা হাজির! কিন্তু কথায় আছে না, ডরাইলেই ডর।

কল্যাণ এর ছবি

কিন্তু হান্দায় দিলে কিয়ের ডর?

আপনারে পোক দিতে গেলাম কিন্তু দেখি লাস্ট পোক পেন্ডিং। কি যে করেন আপনি সারাদিন!

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

মৌনকুহর এর ছবি

ভালো লাগলো।

-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-
ফেসবুক -.-.-.-.-.- ব্যক্তিগত ব্লগ

আসমা খান, অটোয়া। এর ছবি

ভালো লাগলো।

তানিম এহসান এর ছবি

মৌনকুহর এর মৌনব্রত ভাঙলো তবে, শুভ প্রত্যাগমন হাসি

আসমা আপু, আপনাকেও ধন্যবাদ হাসি

ব্যাপক দৌড়াদৌড়ির মধ্যে আছি, আলাদাভাবে প্রতিমন্তব্য করতে পারলামনা, কবে থেকে পারবো তাও জানিনা।

সবাইকে আবারো শুভেচ্ছা আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।