হলদে পাখি

তাহসিন রেজা এর ছবি
লিখেছেন তাহসিন রেজা [অতিথি] (তারিখ: সোম, ১২/০৫/২০১৪ - ৭:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

একদা একজন রাজা বন্দী ছিলেন সুউচ্চ মিনার ওয়ালা এক বন্দীনিবাসে। সেই বন্দীনিবাসে নেই কোন দরজা নেই কোন প্রবেশপথ! শুধু একটি জানালা। বন্দীনিবাসে নেই কোন প্রহরী, নেই কোন লাঠিয়াল কি বরকন্দাজ! রাজা সারাদিন দুখী দুখী মুখ করে বসে থাকেন ওই জানালা দিয়ে তাকিয়ে। একা একা বসে থাকতে থাকতে রাজা ঘুমিয়ে পড়েন মাঝে মাঝে। আর তখনই একটা হলদে পাখি এসে ডাকাডাকি শুরু করে দেয়। রাজা ঘুম থেকে উঠে দেখেন হলদে পাখিটা মুখে করে নিয়ে এসেছে একটা খাবারের পুটলি। রাজা ওই খাবার খেয়ে আবার জানালা দিয়ে তাকিয়ে থাকেন দূরে। আবার তার তন্দ্রা এসে যায়। আবার পাখিটা এসে ডাকাডাকি শুরু করে দেয়। রাজার ঘুম ভেঙে যায়।

রাজা মনে করতে পারেননা কেমন করে তিনি এখানে বন্দী হলেন! কোন অভিশাপে রাজা রাজ্যহারা হলেন সেকথা মনে পড়েনা রাজার। রাজা ভাবেন, হয়ত অন্য কোন রাজা তাকে এখানে বন্দী করে রেখেছে, হয়ত কোন দুষ্টু জাদুকর তাকে রাজ্যহারা করে এখানে আটকে করে রেখেছে! রাজার কিচ্ছু মনে পড়েনা!

তবে রাজা ভাবতে পছন্দ করেন যে তিনি একসময় মহাপরাক্রমশালী এক রাজ্যের রাজাধিরাজ ছিলেন। তিনি ভাবতে পছন্দ করেন তাঁর একটা খুব শক্তিশালী সেনাদল ছিল। রাজা আরও ভাবেন নিশ্চয় তাঁর একটা বেশ বড়সড় হেরেম ছিল, তিনি চাইলেই অপূর্ব সুন্দরী উপপত্নীরা তাঁর পদসেবায় ব্যাস্ত হয়ে পড়ত।

রাজা ভাবেন তাঁর সিংহাসনটা নিশ্চয় খুব জাঁকজমকের ছিল। রাজার খুব ইচ্ছে হয় সিংহাসনে বসতে! একটা সিংহাসন অবশ্য আছে এই বন্দীশালায়। সবুজ রঙের মালাকাইটের তৈরি একটা সিংহাসন বন্দিশালার ঠিক মাঝে বসানো আছে। তবে রাজা ওটাতে বসতে একদম পছন্দ করেননা, কেমন যেন অস্বস্তি বোধ করেন তিনি।

রাজা ভাবেন তিনি নিশ্চয় অনেক যুদ্ধ বিগ্রহ করেছেন! কারণ তাঁর হাতে পায়ে পিঠে অনেক ক্ষত চিহ্ন। কিন্তু এই সব ক্ষতচিহ্ন কোন স্মৃতির দরজা খুলে দেয় না, রাজার স্মৃতি অনেকটা এই বন্দীশালার মত। নেই কোন প্রবেশপথ!

রাজার মনে অনেক অনেক প্রশ্ন খেলা করে। কেন তিনি এখানে? কিভাবে তিনি এখানে?
মুক্তি কি নেই?
মুক্তি কি নেই?

রাজার খুব জানতে ইচ্ছে করে তাঁর প্রিয় জন্মভূমি কেমন আছে! কেমন আছে তাঁর প্রজারা! কেমন আছে তাঁর সেনাদল! কেমন আছে তাঁর পত্নী উপপত্নীরা!!

রাজার চোখে জল চলে আসে, রাজা আকুল হয়ে ডাকতে থাকেন হলদে পাখিটাকে............
“ও পাখিরে...............
একটি কথা শুধাই আমি তোমারে,
বল কোথায় আমার দেশ
আমার এই বন্দীদশার নেই কি কোন শেষ?”

এই সময় বাতাসের শনশন শব্দ শোনা যায়। হলদে পাখিটা জানালা দিয়ে এসে হাজির হয় বন্দী রাজার সামনে।

-“বলো রাজা, তুমি কি জানতে চাও?” হলদে পাখি তীক্ষ্ণ সুরে জানতে চায়।

-“আমার দেশটা কি সবুজ বনানীতে ঘেরা নাকি মরুভূমির মত শুকনো?” রাজা ব্যস্তবাগীশ হয়ে জানতে চান।

পাখিটা কিছুক্ষণ চিন্তাভাবনা করে, তারপর ছোট্ট অথচ চওড়া চঞ্চু নাড়িয়ে উত্তর দেয়-“ তোমার দেশ যেমন ছিল তেমনটাই আছে, রাজা”।
রাজা এই উত্তরে তেমন একটা খুশি হতে পারেননা।

একটু মনঃক্ষুণ্ণ হয়ে রাজা আবার জিজ্ঞেস করেন-“ আমার দেশটা কি শান্তিতে আছে, নাকি যুদ্ধ বিগ্রহ চলছে?”

-“ আপেলে পোকা ধরেছে রাজা, তবে আপেলটা এখনো পচে যায়নি” হলদে পাখি নির্বিকার সুরে উত্তর দেয়।

রাজা এবার একটু রেগেই যান। প্রতিদিন একই উত্তর কাঁহাতক ভালো লাগে!

রেগে গিয়ে তাই রাজা পাখিটার দিকে তেড়ে গেলেন মারমুখী ভঙ্গিতে। পাখিটা ফুড়ুৎ করে উড়ে গেল অন্যদিকে।

-“ আর একটা প্রশ্ন রাজা, তোমার আর একটা প্রশ্নের উত্তর দেব!” হলদে পাখি তীক্ষ্ণ কণ্ঠে বলল।

রাজা হতাশ হয়ে অবসন্ন ভঙ্গিতে বসে পড়লেন মালাকাইটের সিংহাসনে।

দুর্বল কণ্ঠে রাজা জানতে চান-“ আমি কে বলোতো, হলদে পাখি? আমি কি আসলেই রাজা? দয়া করে বলো আমি কে?”

পাখি উত্তর দেবার আগেই রাজার কেমন যেন একটা অদ্ভুত অনুভূতি হয়। রাজার মনে হয় কিছু একটা ভেঙে যাচ্ছে! রাজার পুরো শরীর কেমন যেন দুমড়ে মুচড়ে যায়। আর সেই বন্দীনিবাসের ইট পাথর গুলোও ভেঙে পড়তে থাকে। মালাকাইটের সিংহাসনের নীচে ফাটল দেখা যায়। রাজা আর মালাকাইটের সিংহাসন সেই ফাটলের মধ্যে কোথায় জানি হারিয়ে যায়।

হলদে পাখি নীচে উড়ে গিয়ে দেখে সেখানে রাজাও নেই আর সেই সিংহাসনও নেই। শুধু পড়ে আছে রাজার একগাছি চুল।

হলদে পাখি রাজার সেই একগাছি চুল ঠোঁটে করে নিয়ে উড়ে যেতে থাকে দূরে। নতুন নীড়ের সন্ধানে, যেখানে সে ডিম পাড়বে নতুন করে।

হলদে পাখি ভাবতে থাকে এই বার ডিম ফুটে যে রাজা বের হবে সে নিশ্চয় আরেকটু ভালো রাজা হবে, এতো কৌতূহলী আর ছিঁচকাঁদুনে হবেনা!


Original:The Tower Bird(Jane Yolen)
ঈষৎ পরিবর্তিত


মন্তব্য

অতিথি লেখক এর ছবি

চমৎকার গল্প!!! শেষের চমকটা একদম পারফেক্ট। খুব ভালো লেগেছে। আরো লিখুন রেজা ভাই।

নবনীতা

তাহসিন রেজা এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ নবনীতা। হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

মেঘলা মানুষ এর ছবি

পড়তে তো বেশ লাগছিল। যদিও যা বুঝেছি ঠিক বুঝেছি কিনা নিশ্চিত না।

হুমায়ূন আহমেদের 'অয়োময়' এর শেষ ডায়লগটাও ছিল রাজা আর পাখি নিয়ে। এলাচি বেগমের দীঘিতে অনেক পাখি আসত, অন্যদিকে রাজত্বও হাতবদল হত। সংলাপটা ছিল, "রাজা যায়, রাজা আসে, কিন্তু পাখিদের তাতে কিছু যায় আসে না"

শুভেচ্ছা হাসি

দীনহিন এর ছবি

সংলাপটা ছিল, "রাজা যায়, রাজা আসে, কিন্তু পাখিদের তাতে কিছু যায় আসে না"

সংলাপের কথাটা ভুল, মেঘলা, নইলে একজন খারাপ রাজার আমলে পাখিকূলও নির্বংশ হতে পারে, যেমন, রাজা কি পারে না বনের পর বন উজাড় করতে? শিকারের ছলে বা সুরম্য প্রাসাদ বানানোর মতলবে? হাসি

.............................
তুমি কষে ধর হাল
আমি তুলে বাঁধি পাল

তাহসিন রেজা এর ছবি

ঠিক, একদম ঠিক! আপনার এই কথাতেই মনে পড়ে গেল সুন্দরবনের পাখিরা ভালো নেই মন খারাপ

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

মেঘলা মানুষ এর ছবি

আগেকার দিনে মানুষ বন-জঙ্গল কেটেছে, কিন্তু তারপরও পাখিদের বাস করার মত অনেক বনই ছিল। এখনকার মত পরিবেশের বারোটা বাজানো তখনকার মানুষের সাধ‌্যি ছিল না। আর, রাজা শিকার করে কটাই বা পাখি মারবে? তারচেয়ে বেশি অতিথি পাখি একসময় বিক্রি হয়েছে বাজারে।

রাজা হয়ত সুরম্য প্রাসাদ বানানোর মতলবে, ১০০ গাছে কাটবে; আমরা আজকাল তারচেয়ে বেশি কাটছি বাড়ি বানানোর জন্য, আসবাব বানানোর জন্য।

আমরা আজ সকলেই একেকটা রাজা হয়ে বসেছি।

শুভেচ্ছা হাসি

তাহসিন রেজা এর ছবি

মন খারাপ

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

তাহসিন রেজা এর ছবি

শুভেচ্ছা মেঘলা মানুষ। হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

সুবোধ অবোধ এর ছবি

চিন্তিত
বুঝিনাই ঠিক মত। তবে পড়তে ভাল্লাগছে।

তাহসিন রেজা এর ছবি

বোঝেন্নাই চিন্তিত সেকী??
যাইহোক, শুভেচ্ছা সুবোধদা হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

দীনহিন এর ছবি

অপূর্ব অনুবাদ!

.............................
তুমি কষে ধর হাল
আমি তুলে বাঁধি পাল

তাহসিন রেজা এর ছবি

ধন্যবাদ এবং অনেক শুভকামনা, দীনহিন ভাই হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

তুলিরেখা এর ছবি

খুব ভালো লাগলো।

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

তাহসিন রেজা এর ছবি

থ্যাঙ্কু তুলি দিদি হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

চার্বাক সুমন এর ছবি

রূপকথা উপকথা পড়তে ভালই লাগে। সব আমরা বুঝি না কিন্তু তার অনেক কিছুই ভাল লাগে। চার্বাক সুমন

তাহসিন রেজা এর ছবি

ধন্যবাদ চার্বাক সুমন।

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

অতিথি লেখক এর ছবি

খুব ভালো লাগলো পড়ে!
শরিফুল_93

তাহসিন রেজা এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

অনুবাদ সুন্দর হয়েছে।

মালাকাইটের সিংহাসন? কোন বিশেষ কারণ আছে নাকি যা ধরতে পারিনি?

____________________________

তাহসিন রেজা এর ছবি

নাহ! তেমন কোন কারণ আছে বলে মনে হয়নি আমারো হাসি

ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা। হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

অতিথি লেখক এর ছবি

গল্পটা একদম অন্যরকম। Surrealistic. গল্পটা যখন পড়ছি তখন মনে হচ্ছিল দালির আঁকা কোন ছবির দিকে তাকিয়ে আছি। নিশাচর জীব।

তাহসিন রেজা এর ছবি

ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা।

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

এক লহমা এর ছবি

ঝরঝরে অনুবাদ পড়ে মূল গল্পটা পড়তে ইচ্ছে হয়েছিল। ভেবেছিলাম সেটা পড়ে নিয়ে তারপর মন্তব্য করব। সময়ের অভাবে মূলের খোঁজ আটকে গিয়েছিল। আজকে ইন্টারনেটে খুঁজতে নেমে ব্যর্থ চেষ্টার শেষে জানিয়ে যাই, গল্প বলাটা ভাল লেগেছে, তবে গল্পটা যে বিশেষ উপভোগ করেছি সেটা বলতে পারছি না। চিন্তিত হাসি

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

তাহসিন রেজা এর ছবি

ইন্টারনেটে মনে হয় গল্পটা নেই। আইজাক আসিমভের সম্পাদনায় একটা ফ্য়্ন্টাসি গল্পের সংকলনে গল্পটা আছে।

ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা। হাসি

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

অতিথি লেখক এর ছবি

পড়ে খুবই ভালো লাগলো। ধন্যবাদ সুন্দর অনুবাদ উপহার দেওয়ার জন্য। সাখাওয়াৎ

তাহসিন রেজা এর ছবি

ধন্যবাদ

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

অতিথি লেখক এর ছবি

প্রথম দিকে পড়তে বিরক্তি লাগলেও শেষের দিকে এসে টাশকি খাইছি। শেষের দুইটা লাইনই পুরো গল্পের সারমর্ম বুঝা যায়।

-রায়হান শামীম

তাহসিন রেজা এর ছবি

ধন্যবাদ রায়হান শামীম ।

------------------------------------------------------------------------------------------------------------
“We sit in the mud, my friend, and reach for the stars.”

অলীক জানালা _________

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।