স্বাগত নতুন বছর

তুলিরেখা এর ছবি
লিখেছেন তুলিরেখা (তারিখ: সোম, ০৩/০১/২০১১ - ১:৪৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

অন্ধকার আকাশকে চমকে দিয়ে মুঠো মুঠো সোনালী ফুলের মতন তুবড়ি আর তুবড়ি। কতগুলো মস্ত মস্ত রঙীন ফানুস ভাসতে ভাসতে যাচ্ছে। বর্ষবরণ ২০১১। বছর আর দশক দুই ই শেষ হয়ে এলো। আজই শেষ রাত। কাল পহেলা জানুয়ারীর ভোর নতুন সালে।

নিজেকে পুরানো মনে হয়। কত স্মৃতি জমে গেছে মনে! এই না সেদিন ১৯৯৯ ছিলো? এই না সেই ওয়াইটুকে প্রবলেম নিয়ে লোকের কী কাঁপাকাঁপি? নাকি যেই না সালের ঘরে ০০ হয়ে যাবে অমনি দুনিয়ার তাবৎ কম্পুটার আর তার মধ্যে জমা সব ইনফো যাবে কোলাপস করে আর ব্যাঙ্কের টাকা সব নেই হয়ে যাবে! লোকে টাকাকড়ি সব তুলে নিয়ে যে দেশে কম্পু নাই সেই দেশে যাবার প্ল্যান করতে থাকলো।

সেই ০০ এলো, চলেও গেল। এক্সপান্ডিং ইউনিভার্সের মতন কম্পু জগৎ প্রসারিত হতে থাকলো। একে একে আন্তর্জালের আওতায় প্রায় সবাই এসে পড়লো। গুগল উইকি আরো কত কী এসে গেল। অর্কুট এলো, মুখবই এসে গেল। এসে গেল কত ব্লগ আর সেখানে কত কথা কত কথা। নানা অলীক জগতে কত তর্কবিতর্ক। এ কী কল বানাইলো কোম্পানি!

এত দ্রুত চলে সময়, এত দ্রুত বদলায় দুনিয়া! মাথা ঘোরার মতন গতি। একমাত্র সান্ত্বনা এর বাইরে স্থির হয়ে আছে শৈশব, ধ্রুবতারার মতন। শৈশবের সেইসব বন্ধুরা, যাদের সাথে বড়বেলায় আর কোনোদিন দেখা হলো না, সময় যাদের আর কোনোদিন ধূসর করতে পারলো না। তারা অমলীন শিশুমুখ নিয়ে বিশুদ্ধ বিস্ময়ে চেয়ে আছে নতুন পৃথিবীর দিকে, সে পৃথিবী কোনোদিন পুরানো হবে না।

সেই তাদের সবাইকে আর এখনকার বড়বেলার সব বন্ধুদের শুভেচ্ছা, শুভেচ্ছা আর শুভেচ্ছা।

ঠিক ঠিকানা জমিয়ে রাখি চিঠির খামে
হাতছানি দেয় নীল অরণ্য নদীর বামে-
হাতের মুঠোয় কীসের চাবি অল্প ঘামে?
ভাসভাসন্ত মেঘের রাখাল কোথায় থামে?
রিমঝিমঝিম ঝম্‌ঝমাঝম্‌-
কোথায় ঝেঁপে বৃষ্টি নামে?

স্বপ্ন এসে তুললো ডেকে মধ্যযামে
রাতপথেরা পথের শেষেই থমকে থামে-
আঁধার ঘরে ঘুমায় রাজা খুব আরামে,
ঘরের চাবি হাতের মুঠায় ভিজছে ঘামে।
রিমিকঝিমিক ঝম্‌ঝমাঝম্‌-
কোথায় ঝেঁপে বৃষ্টি নামে?

উড়ছে ফানুস পুড়ছে বাজি ডাইনে বামে
ফুলকিওড়া বর্ষবরণ কী ধূমধামে!
নতুন ক্যালেন্ডারের পাতার নীল বোতামে
আলতো ছোঁয়ায় ইচ্ছে লুকাই তোমার নামে।
পাতায় পাতায় রিনিকঝিনিক
নতুন ভোরে সূর্যরঙের বৃষ্টি নামে।


মন্তব্য

অনিকেত এর ছবি

নতুন বছরের শুরুতেই একটা অসামান্য লেখা!!!

এত দ্রুত চলে সময়, এত দ্রুত বদলায় দুনিয়া! মাথা ঘোরার মতন গতি। একমাত্র সান্ত্বনা এর বাইরে স্থির হয়ে আছে শৈশব, ধ্রুবতারার মতন। শৈশবের সেইসব বন্ধুরা, যাদের সাথে বড়বেলায় আর কোনোদিন দেখা হলো না, সময় যাদের আর কোনোদিন ধূসর করতে পারলো না। তারা অমলীন শিশুমুখ নিয়ে বিশুদ্ধ বিস্ময়ে চেয়ে আছে নতুন পৃথিবীর দিকে, সে পৃথিবী কোনোদিন পুরানো হবে না।

এমন হৃৎস্পর্শী উচ্চারণ কেবল আপনার কলম ছুঁয়েই আসে!

অনেক অনেক ভাল থাকুন, সারাটা বছর আপনার জন্যে বসন্তোৎসব হোক, সৃষ্টিশীলতায় ছাড়িয়ে যান সকল সীমারেখা

শুভেচ্ছা নিরন্তর

তুলিরেখা এর ছবি

বা: বা:, সারা বছর বসন্তোৎসব? চমৎকার! মাঝে মাঝে গ্রীষ্মও আসুক, ভালো ভালো হিমসাগর আম খাওয়া যাবে। ঘন মেঘে বিদ্যুৎ চমকিয়ে ঝরঝরধারে আসুক মহারাণী বর্ষা, ভালো ইলিশ মিলবে। আর শরৎ হেমন্ত না হলে কাশ শিউলি নতুন জামা মালা চুড়ি কানকলি টিপ ক্লিপ আলো বাজি মাইকে গান কোথায় পাবো? শীত তো আসতেই হবে, পাটিসাপ্টা, চন্দ্রপুলি, কণকচূড় ধানের খই নলেন গুড় দিয়ে জয়নগরের মোয়া আহা নইলে মিলবে কীকরে? হাসি

অনেক ধন্যবাদ অনিকেত।

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

অতিথি লেখক এর ছবি

অনিকেতদা ই সব বলে দিয়েছেন, আমি আর নতুন কিছু বলার মত পাচ্ছি না।

নতুন বছর ভরে উঠুক আপনার এমন হৃদয়গ্রাহী লেখায় শুধু এই কামনায় জানাচ্ছি শুভ নববর্ষ

-অতীত

তুলিরেখা এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ অতিথি অতীত।
-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

কৌস্তুভ এর ছবি

বাহ, মন ভালো হয়ে যায় এসব পড়লে। আপনারও মনমেজাজ ভালো থাকুক নতুন বছরে।

তুলিরেখা এর ছবি

ধন্যবাদ কৌস্তুভ। আপনারও মন ভালো থাকুক, সবসময়। হাসি

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

ফাহিম হাসান এর ছবি

দারুণ। কবিতাটা সুর দিয়ে গান করা যায় না?

তুলিরেখা এর ছবি

ধন্যবাদ ফাহিম।

অবশ্যই সুর দিলে গান করা যায়। আমি নিতান্ত অ-সুর, গান শুনি শুধু, নিজে পারি না। স্বরলিপি দেখলে মঙ্গলগ্রহের ভাষা মনে হয়। হাসি

আপনারা কেউ সুর দিয়ে গেয়ে ফেলুন অ্যাপ্রোপ্রিয়েট বাজনার সাথে। হাসি

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।