সিঁড়ি (পঞ্চম বর্ষ সংখ্যা - ২০০৭)

গীতিকবি এর ছবি
লিখেছেন গীতিকবি (তারিখ: মঙ্গল, ১৮/১২/২০০৭ - ১২:০৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সিঁড়ি পঞ্চম বর্ষ ২০০৭ প্রচ্ছদসিঁড়ি পঞ্চম বর্ষ ২০০৭ প্রচ্ছদ

গত ২০০৩ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্য থেকে বাংলাদেশ থিয়েটার অব অ্যারিজোনা (বিটিএ) এর উদ্যোগে নিয়মিতভাবে প্রকাশিত হয়ে আসছে বার্ষিক সাহিত্য পত্রিকা "সিঁড়ি"। সিঁড়ি একটি ভিন্নধর্মী সাহিত্য পত্রিকা। সিঁড়ির উদ্দেশ্য প্রবাসে বাংলার প্রসারে অবদান রাখা। এখানে দেশের ও প্রবাসের সুপ্রতিষ্ঠিত লেখক-লেখিকার পাশাপাশি সৌখিন এমনকি সম্পূর্ণ নবীন লেখকদের লেখা সমান মর্যাদায় ছাপা হয়। এখানে লেখকরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী যেকোন বিষয়ে লিখতে পারেন। এখানে থাকে প্রবন্ধ, গল্প, স্মৃতিকথা, ভ্রমণকাহিনী, ছড়া, কবিতা, ধাঁধাঁ, কৌতুক এবং ছোটদের জন্য লেখা। এছাড়াও প্রবাসের ভিন্ন সংস্কৃতিতে বেড়ে ওঠা দ্বিতীয় প্রজন্মের মধ্যে বাংলাকে ছড়িয়ে দেবার প্রত্যয়ে প্রবাসের বিভিন্ন স্থানে গড়ে ওঠা বাংলা স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের নিজেদের বাংলা লেখা বিশেষ মর্যাদায় সিঁড়িতে প্রকাশিত হয়। বাংলাদেশ থিয়েটার অব অ্যারিজোনা (বিটিএ) পরিচালিত অ্যারিজোনার শিকড় বাংলা স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের লেখা সিঁড়ির প্রথম সংখ্যা থেকেই প্রকাশিত হয়ে আসছে। সিঁড়ির চতুর্থ সংখ্যা থেকে প্রবাসের অন্যান্য বাংলা স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের বাংলা লেখা সিঁড়িতে সন্নিবেশিত হয়েছে। এবারের সিঁড়ির লেখকরা লিখেছেন সুদূর বাংলাদেশ, জাপান, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানী, যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে।

"সিঁড়ি" বাংলাদেশ থিয়েটার অব অ্যারিজোনা (বিটিএ) এর একটি সম্পূর্ণ অলাভজনক উদ্যোগ। সিঁড়ির প্রতিটি কপি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পাঠকের হাতে পৌঁছে দেয়া হয়। শর্ত একটাই - পত্রিকাটি পড়তে হবে এবং ভালোলাগা-মন্দলাগাগুলো আমাদের জানাতে হবে। সিঁড়ির মুদ্রণ হয়ে থাকে বাংলাদেশ থেকে। মুদ্রণের পর ডাকযোগে বাংলাদেশ হতে পাঠানো হয়। আর মুদ্রণ এবং ডাকের খরচ আসে সিঁড়িতে প্রকাশিত যত্‌সামান্য বিজ্ঞাপনের মাধমে। সকল বিজ্ঞাপনদাতাদের সিঁড়ির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

সিঁড়ির পঞ্চম সংখ্যাটি সচলায়তনে প্রকাশ এবং সংরক্ষণ করতে পেরে ভাল লাগছে। এজন্য সচলায়তনকে ধন্যবাদ। সিঁড়ির এই সংখ্যাটিতে সচলায়তনের বেশ কিছু সদস্যের লেখা সন্নিবেশিত হয়েছে।

আমার সাথে সিঁড়ির এবারের সংখ্যাটির সম্পাদনার দায়িত্বে ছিলেন এস এম মাহবুব মুর্শেদ, যিনি সচলায়তনের একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি এবং কাজী আরিফ ইকবাল পিকলু। সিঁড়িতে প্রকাশিত সকল লেখক লেখিকাকে ধন্যবাদ এবং সেই সাথে পরবর্তী সিঁড়িতে লেখার আমন্ত্রন রইল।

আশা করি সিঁড়ির লেখাসমূহ আপনারা পড়বেন এবং আপনাদের ভালো লাগা মন্দ লাগাগুলো আমাদের জানাবেন। মুদ্রণের ত্রুটি-বিচ্যুতির জন্য আগেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। (বাংলায় কিছু কিছু যুক্তাক্ষর পিডিএফ কনভার্সনে সমস্যা হয় - পত্রিকার হার্ডকপিতে যেগুলো দেখা যাবে না)

শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
নির্বাহী সম্পাদক, সিঁড়ি

প্রচ্ছদ
ফর্মা ০১ (পৃষ্টা ১-৮)
ফর্মা ০২ (পৃষ্টা ৯-১৬)
ফর্মা ০৩ (পৃষ্টা ১৭-২৪)
ফর্মা ০৪ (পৃষ্টা ২৫-৩২)
ফর্মা ০৫ (পৃষ্টা ৩৩-৩৮)
মাঝের রঙ্গীন পাতা (পৃষ্টা ৩৯-৪২)
ফর্মা ০৬ (পৃষ্টা ৪৩-৪৮)
ফর্মা ০৭ (পৃষ্টা ৪৯-৫৬)
ফর্মা ০৮ (পৃষ্টা ৫৭-৬৪)
ফর্মা ০৯ (পৃষ্টা ৬৫-৭২)
ফর্মা ১০ (পৃষ্টা ৭৩-৮০)
--------------------------------------------

পুরো পত্রিকাটি একটি ফাইলে (২৪ মেগাবাইট)

বাংলা দেখত না পেলে এই ফন্টটি ডাউনলোড করে Control Panel > Fonts এ ইনস্টল করে নিন। এখান থেকেও ফন্টটি ডাউনলোড করতে পারেন।


মন্তব্য

পুতুল এর ছবি

ঈর্ষণীয় আয়োজন। বাংলা ভাষার জন্য আপনারা আমাদের মত বুলি আওরিয়েই শুধু দায়ীত্ব শেষ করেননি। প্রবাসের জীবন কমবেশী সবার একই রকম। তার মধেও আপনারা পেরেছেন আমরা পারিনি। অভিনন্দন। এবং কাজটি শুধু করার জন্যই করেননি। অনেক যত্ন এবং ভালবাসা নিয়ে করেছেন। মুগ্ধ হলাম।

**********************
ছায়াবাজি পুতুলরূপে বানাইয়া মানুষ
যেমনি নাচাও তেমনি নাচি, পুতুলের কী দোষ!
!কাশ বনের বাঘ!

মৃন্ময় আহমেদ এর ছবি

আর নয় অকারণ দুঃখ দুঃখ খেলা
এবার হাসিমুখ নিশিদিন সারাবেলা

'

=========================================
নিজেকেই নিজে চিনি না, পরকে চেনার মিছে বাহানা

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

প্রচ্ছদ জুড়ে দিলাম। আপলোড করার জন্য ধন্যবাদ।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

আমি এটাকে সচলায়তনে "সংরক্ষণ" করা না বলে সচলায়তনে "প্রকাশ" বলতে চাই। প্রিন্ট ম্যাগাজিন সবার কাছে পৌছানো যায়নি বলেই সচলায়তনে "প্রকাশ" করেছি আমরা। শুধুমাত্র "সংরক্ষণ"ই এর উদ্দেশ্য ছিল না।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

সচলায়তনের যাদের লেখা আছে:

এম এ মুকিত - ফর্মা ১ - পৃষ্ঠা ৩
রাগিব হাসান - ফর্মা ১ - পৃষ্ঠা ৫
অমিত আহমেদ - ফর্মা ২ - পৃষ্ঠা ১২
জুবায়ের মাহবুব - ফর্মা ২ - পৃষ্ঠা ১৫
সুমন রহমান - ফর্মা ৩/৪ - পৃষ্ঠা ২৪
মুহম্মদ জুবায়ের - ফর্মা ৪ - পৃষ্ঠা ২৭
এস এম মাহবুব মুর্শেদ - ফর্মা ৭ - পৃষ্ঠা ৫১
শেখ ফেরদৌস শামস - ফর্মা ৭ - পৃষ্ঠা ৫২
লুৎফর রহমান রিটন - ফর্মা ৭ - পৃষ্ঠা ৫৫
আনোয়ার সাদাত শিমুল - ফর্মা ৮ - পৃষ্ঠা ৫৭
মাহবুব আজাদ - ফর্মা ৮ - পৃষ্ঠা ৫৮

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

খানিকক্ষণের জন্য লটকে দিলাম। কারো আপত্তি থাকলে অবশ্যই জানাবেন।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

স্টিকি ছুটিয়ে দিলাম।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

অমিত আহমেদ এর ছবি

খুব সুন্দর হয়েছে পত্রিকাটা।
মনটা ভাল হয় বিদেশে এমন কাজ দেখলে।
জড়িত সবাইকে সাধুবাদ।


ওয়েবসাইট | ফেসবুক | ইমেইল

সংসারে এক সন্ন্যাসী এর ছবি

বিদেশে বসে এতো যত্ন নিয়ে, এতো ব্যাপক কলেবরে অবাণিজ্যিক লক্ষ্যে প্রকাশিত পত্রিকার প্রাপ্য প্রশংসাই শুধু।

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
টাকা দিয়ে যা কেনা যায় না, তার পেছনেই সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করতে হয় কেনু, কেনু, কেনু? চিন্তিত

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

প্রচ্ছদটা দারুণ!
'সিঁড়ি' পড়তে কোন ফন্ট ইনস্টল করা লাগবে? আমার পিসিতে ফন্টগুলো হিজিবিজি দেখাচ্ছে।

গীতিকবি এর ছবি

SutonnyMJ ব্যবহার করা হয়েছে কম্পোজে।

____________________________
শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
"আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।"

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

সুতন্বীএমজে ইনস্টল করা আছে। এরপরেও পড়া যায় না মন খারাপ

গীতিকবি এর ছবি

কেন পড়া যাচ্ছে না ঠিক বুঝছি না। সুমন (মাহবুব মুর্শেদ), তোমার কি কোন সাজেশন আছে?

____________________________
শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
"আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।"

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

কারনটা ঠিক বুঝতে পারছি না।

ওই ফন্টটা ডিলিট করে আমি যেটা ই-মেইলে পাঠাবো সেটা ব্যবহার করে দেখো। অথবা অন্য পিডিএফ রিডার ব্যবহার করে দেখতে পারো। আমি এডোব রিডার ৮.০ ব্যবহার করছিলাম। গোস্ট বলে একটা আছে। তাছাড়া অন্যান্য বিভিন্ন কোম্পানীর রিডার আছে। ট্রাই করে দেখো।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

namhin gotrohin এর ছবি

সুতন্বী ফন্টে পিডিএফ সাপোর্ট করে না। রিংকি ট্রাই করা যেতে পারে।

মাহবুব লীলেন এর ছবি

বাংলাদেশে কোথায় পাওয়া যাবে ম্যাগাজিনটি?

গীতিকবি এর ছবি

যেহেতু সিঁড়ি সম্পূর্ণ একটি অলাভজনক পত্রিকা - পুরোটাই বিজ্ঞাপননির্ভর, সেজন্য ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও আমরা অনেক কপি প্রিন্ট করতে পারি না। সেজন্যই এবার সচলায়তনে প্রকাশ করা হল যেন বৃহত্‌ পাঠকগোষ্ঠী পড়তে পারেন। তারপরেও যদি কেউ ম্যাগাজিনের হার্ডকপির জন্য আগ্রহী হন, আপনার ঠিকানা আমাদের জানালে আমরা চেষ্টা করব আপনার জন্য একটি কপি পাঠাতে।
ধন্যবাদ।

____________________________
শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
"আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।"

শেখ জলিল এর ছবি

প্রচ্ছদ পছন্দ হয়েছে। ডাউনলোড করে রাখলাম। ধীরে ধীরে পড়বো।

যতবার তাকে পাই মৃত্যুর শীতল ঢেউ এসে থামে বুকে
আমার জীবন নিয়ে সে থাকে আনন্দ ও স্পর্শের সুখে!

গীতিকবি এর ছবি

প্রচ্ছদটি নেয়া হয়েছে অ্যারিজোনার শিকড় বাংলা স্কুলের ছয় বছর বয়সের একজন ছাত্রের আঁকা ছবি নিয়ে। ছবিটি আঁকা হয়েছিল শিকড়ের ক্লাসে - সবার ছবির বিষয় ছিল "আমার স্বপ্ন"। অন্যান্যদের ছবিগুলো মাঝের পাতায় আছে। প্রতিটি ছবির পেছনে শিকড়ের শিশু কিশোররা এক একটি গল্প বলার চেষ্টা করেছে।

____________________________
শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
"আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।"

হিমু এর ছবি

পুরো পত্রিকাটার সাইজ এতো বিশাল কেন? একে কি আরো রয়েসয়ে-আকারে আনা যায় না?


হাঁটুপানির জলদস্যু

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

কোর্য়াক এক্সপ্রেসে কম্পোজ করে প্রিন্টযোগ্য ভার্সনে নিয়ে আসা হয়েছে এটাকে। প্রতিটা ফাইল ৮ পাতা - প্রায় ২ মেগা করে। একসাথে জোড়া দিয়ে ২৪ হয়েছে। কোয়ালিটি কমিয়ে হয়ত ২৪ থেকে ১৫ মেগা করা যাবে কিন্তু বসে বসে ওইকাজ করবে কে? :-|

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

শিশুদের বিভাগটা চোখ বুলালাম।
আমি ভীষণ ইম্প্রেসড।
আলাদা একটা পোস্ট বোধ হয় দিতেই হবে।

জ্বিনের বাদশা এর ছবি

চমৎকার! ,,, প্রচ্ছদটা তো ফাটাফাটি ,,, পড়ার অনেক জিনিস পাওয়া গেল হাসি
========================
যার ঘড়ি সে তৈয়ার করে,ঘড়ির ভিতর লুকাইছে

========================
যার ঘড়ি সে তৈয়ার করে,ঘড়ির ভিতর লুকাইছে

গীতিকবি এর ছবি

সিঁড়িতে শিশু সাহিত্যের উপর জনাব আনোয়ার সাদাত শিমুলের লেখা রিভিউ র লিঙ্কটা এখানে দেওয়া হল।
http://www.sachalayatan.com/ashimul/11118

____________________________
শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর
"আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি।"

বিপ্রতীপ এর ছবি

এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই...

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
খুঁজে যাই শেকড়ের সন্ধান…

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA