আপনার সন্তান কি “Global Developmentel Delay “ নিয়ে জন্মেছে ?- সময় থাকতে সতর্কতা অবলম্বন করুন।

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: সোম, ১৩/০৭/২০১৫ - ১০:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

জন্মগ্রহনের পর থেকে একটি শিশুর পূর্ণবয়স্ক হয়ে বেড়ে ওঠা একটি সম্পূর্ণ এবং সুবিন্যস্ত পদ্ধতির মধ্য দিয়ে হয়ে থাকে। তারপর শিশুটি সময়ের সাথে সাথে বয়স অনুযায়ী আলাদা ভাবে প্রয়োজনীয় এক একটি জিনিস শিখতে থাকে এবং নির্দিষ্ট একটা সময় পরে সবগুলি একত্রিত হয়ে একটি পরিপূর্ণ ব্যক্তি সত্ত্বার বিকাশ ঘটে। এগুলিকে বই এর ভাষায় “Individual Skill” বলা হয়, যেমনঃ কথা বলতে শেখা, হাঁটতে শেখা, খেলাধুলা, নিজের মত করে চিন্তা করতে শেখা,সামাজিক ভাবে সবার সাথে মিশতে ও চলতে শেখা ইত্যাদি। সংক্ষেপে এইসব কিছুকে একসাথে একটা শিশুর “Normal Development” বলা হয় এবং এর সাথে শারীরিক ও মানসিক উভয় ধরনের “Development” জড়িত । সুতরাং একটি নির্দিষ্ট বয়সে শিশুর যে বিষয়টি শেখা এবং করা উচিৎ তা যদি সে না করে তখন তাকে “Global Development Delay” বলে। অর্থাৎ এই শিশুটি তার বয়সোচিত বিকাশ হতে তার সমবয়সিদের থেকে শারীরিক বা মানসিক অথবা উভয় ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে। এটি একটি অত্যন্ত জটিল বিষয় তাই বর্তমানে বিশ্বব্যাপী এ সম্পর্কিত হাজার হাজার গবেষণা হয়ে ছলেছে,অসংখ্য বই লেখা হচ্ছে আর তত্ত্ব দাড় করানর চেষ্টা চলছে, যার কোনটিই একশত ভাগ সঠিক হিসাবে ই সেভাবে ধরে নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা কারণ প্রতিটা শিশুর শারিরিক এবং মানসিক গঠন ভিন্ন ।ফলে ,তাদের সমস্যার মাত্রাও ভিন্ন।
বিশেষ করে বাংলাদেশে এ নির্দিষ্ট বিষয়টিতে জন সচেতনতা এত কম যে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটি অপরীক্ষিত থেকে যায় ফলে সময়ের সাথে সমস্যা জটিলতর হতে থাকে। আবার সমস্যা যদিও ধরা পড়ে সেক্ষেত্রে সঠিক চিকিৎসা পধ্যতি ও দিক নির্দেশনার যথেষ্ট অভাবও রয়ে গেছে বলে প্রতিয়মান হয়।
“Global Developmentel Delay “ নিয়ে জন্ম গ্রহণ করা শিশুদের বাবা মায়ের ভিতরে যে তিনটি সমস্যা মূলত দেখা যায় সেগুলি হলঃ
-বাবা মায়েরা অনেক দিন পর্যন্ত বুঝতেই পারেন না যে তাদের সন্তানটি সমস্যা নিয়ে জন্মেছে।
-অনেক বাবা মাদের দেখা যায় ,তারা কিছুটা অনুমান করতে পারেন যে তাদের শিশুটি ঠিক স্বাভাবিক নয় কিন্তু তারা সেটি মানসিক ভাবে মেনে নিতে চান না, ফলে সমস্যা আরও বাড়তে থাকে এবং এমন এক পর্যায়ে যেয়ে পৌঁছায় যে তখন আর চিকিৎসা করেও শিশুটির স্বাভাবিক বিকাশ তরান্বিত করা সম্ভব হয়না।
- সামাজিক লজ্জার ভয়ে শিশুটিকে অন্তরালে রাখা হয়।
একজন শিশু জন্মগ্রহেনর পর থেকে তার শারীরিক ও মানসিক সঠিক বিকাশের কিছু মাপকাঠি রয়েছে। নিচে একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা দেওয়া হল যেটা দেখে শিশুর নির্দিষ্ট বয়স অনুযায়ী কি কি শিখে ফেলা উচিৎ সে সম্পর্কে একটা ধারণা পাওয়া যাবে।
১)জন্মের প্রথম এক বছরঃ
- এ বয়সের একটি শিশু কোন অবলম্বন ছাড়া নিজে বসতে পারবে ।
- আধো আধো উচ্চারন সহ বেশ কিছু সংখ্যক অর্থবহ শব্দ বলতে পারবে।
- শিশু তার চারপাশের মানুষের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করবে এবং বিশেষ ধরনের শব্দ ব্যবহার করবে যা হয়ত তার নিজের তৈরি করা অথবা অন্যের কাছে শেখা।
- হাত থেকে প্রিয় খেলনাটা পড়ে গেলে সেটা খুঁজবে ।
- খুব সুনির্দিষ্ট ভাবে আপনজনদের এবং আগন্তুকের ভিতরে পার্থক্য করতে পারবে।
-সহজ ও সাধারন খেলাগুলোতে অন্যদের সাথে মিলে খেলতে পারবে ,যেমনঃ লুকোচুরি খেলা।
(চলবে)

মুখবন্ধঃ আমি ডাক্তার ,মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ কিম্বা “Global Developmental Delay” বিষয়ে কোন গবেষক নই। এই লেখার বিষয়বস্তু আমার নিজস্ব অভিজ্ঞতা লব্ধ এবং বিভিন্ন সময় পড়া বিভিন্ন গবেষণা পত্র থেকে সংগৃহীত ।
প্রয়জনে রেফারেন্স দেওয়া যাবে।

Emerald

ছবি: 
24/08/2007 - 2:03পূর্বাহ্ন

মন্তব্য

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

বিষয়টি তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ। এবিষয়ে আরো বিস্তারিত এবং গভীর লেখা পড়তে চাই। বাংলায় অটিজম বা ডেভলপমেন্টাল ডিলে নিয়ে আলোচনা খুব কম।

হাসিব এর ছবি

বা শব্দটা এবং দিয়ে প্রতিস্থাপন করা উচিৎ? অটিজম শব্দটা একটু ব্যাপক অর্থে ব্যবহৃত হয় জানতাম।

হাসিব এর ছবি

এগুলোর বাংলা ব্যবহার করা উচিৎ।

  • Global Developmentel Delay
  • Normal Development

সত্যপীর এর ছবি

চমৎকার। নিয়মিত লিখুন এ বিষয়ে।

..................................................................
#Banshibir.

অতিথি লেখক এর ছবি

ধন্যবাদ লইজ্জা লাগে উৎসাহ দেওয়ার জন্য।

মেঘলা মানুষ এর ছবি

লেখা চলুক, এবিষয়ে লেখা পড়া হয় নি; বাংলায় তো নয়ই।
শুভেচ্ছা হাসি

অফ টপিক:
আপনি একটি ছবি দিয়েছেন। এটা যদি আপনার আঁকা না হয় তাহলে উৎস উল্লেখ করা ভালো। আপনার লেখা যেমন অন্য কোথাও কেউ কপি-পেস্ট করে দিলে উৎস উল্লেখ করা জরুরী, তেমনটা ছবি/আলোকচিত্রের জন্যও প্রযোজ্য।

স্পর্শ এর ছবি

গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কিন্তু শুরু না হতেই শেষ হয়ে গেল। আরো বিশদে বড় আকারে লিখবেন পরবর্তী পর্বে আশাকরি।


ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...

অতিথি লেখক এর ছবি

"ডেভেলপমেন্ট ডিলে" এর পরবর্তী জটিলতা অটিজম। বিস্তারিত পরে লেখার ইচ্ছা আছে।

Emerald

অতিথি লেখক এর ছবি

শব্দগুলি খুব সুনির্দিষ্ট “মেডিকেল টার্ম” বলে মনে হয়েছে আমার কাছে।বাংলা অনুবাদ করলে সঠিক আবেদন থাকবে কিনা বুঝতে পারছি না।সবাই যদি পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করেন সেক্ষেত্রে বদলে দেওয়া যেতে পারে।

অতিথি লেখক এর ছবি

ছবিটা গুগল ইমেজ থেকে নেওয়া।সরিয়ে নেওয়াই ভাল হবে।আমি এডিট করতে পারছি না। মোডারেটর যদি করে দেন ভাল হয়।

Emerald

অতিথি লেখক এর ছবি

লেখার এগারতম লাইন এ একটা বাড়তি ই পড়ে গেছে দুই শব্দের মাঝখানে, মোডারেটর যদি একটু মুছে দেন “ই” টা ,উপকৃত হব।

Emerald

অতিথি লেখক এর ছবি

বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করছি ,ধন্যবাদ।

Emerald

সো এর ছবি

চলুক
Developmental বানানটা ঠিক করে দিন সবখানে।

অতিথি লেখক এর ছবি

সুন্দর লেখা কিন্তু খুবই সংক্ষিপ্ত। পরেরবার আরও বিস্তারিত লিখবেন আশা করি। সেই সাথে অটিজম, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু এবং এই বিষয়টি একই কি না, এক না হলে এদের পার্থক্য ও সম্পর্ক ইত্যাদি তুলে ধরবেন আশা করছি।

দেবদ্যুতি

এক লহমা এর ছবি

আরও কিছুটা এই পর্বেই আশা করেছিলাম। পরের পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।

অ ট ঃ ছবি সংক্রান্ত মেঘলা মানুষ-এর বক্তব্যটি আমার-ও

--------------------------------------------------------

এক লহমা / আস্ত জীবন, / এক আঁচলে / ঢাকল ভুবন।
এক ফোঁটা জল / উথাল-পাতাল, / একটি চুমায় / অনন্ত কাল।।

এক লহমার... টুকিটাকি

কল্যাণ এর ছবি

১। দরকারি বিষয়, পরের পর্বের জন্যে বসলাম পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

২। পর্বটা ছোট হয়ে গেছে, আর কেমন যেন ঠাশ করে শেষ হয়ে গেল।

৩। লেখায় যে তথ্যগুলো দিচ্ছেন, সেগুলোর রেফারেন্স শেষে দিয়ে দিলে ভাল হত।

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

সাফি এর ছবি

চলুক
এ বিষয়ে আমার নিজের কিছু পড়াশোনা করা আছে, আলোচনা শুরু হলে অংশ নেওয়ার চেষ্টা করবো।

মাহবুব লীলেন এর ছবি

লেখাটা খুবই দরকারি; পরের পর্বের অপেক্ষা

অতিথি লেখক এর ছবি

সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। লেখার শিরনামেই বানান ভুল,খুবি বিব্রত বোধ করছি ,দুঃখিত। অ্যাডমিন কে অনুরোধ করছি ঠিক করে দেওয়ার জন্য। লেখাটা আসলে ঠাশ করে শেষ করে দিতে চাইনি, দেখছিলাম যে বিষয়টা সবাই পছন্দ করে কিনা।

Emerald

কল্যাণ এর ছবি

ব্লগ লেখার উত্তেজনায় ঘটনা ঘটে গেছে আরকি চোখ টিপি

ব্যাপার হল আপনি যখন কারো মন্তব্যের উত্তর দিচ্ছেন তখন সেই মন্তব্যের নিচে জবাব লিঙ্কে ক্লিক করে তারপর উত্তর দিন; এতে মন্তব্যগুলো থ্রেডের মত হবে তাতে ফলো করতে সুবিধা।

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

অতিথি লেখক এর ছবি

খুবই উপকারি তথ্য,ধন্যবাদ।
উত্তেজনার চেয়ে টেনশন বেশি কাজ করছিল ,জীবনের প্রথম লেখা (আসলে লেখাংশ) কিনা ।

Emerald

কল্যাণ এর ছবি

চলুক

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

অতিথি লেখক এর ছবি

আপনিও কিছু লিখুন সাফি ভাই। আপনি লিখলে আরও বেশি ভাল হবে নিশ্চয়।

Emerald

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

গুরুত্বপূর্ন বিষয়। লিখতে থাকুন। পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

অতিথি লেখক এর ছবি

চেষ্টা করছি ,ধন্যবাদ।

Emerald

নৈষাদ এর ছবি

খুবই গুরুত্বপূর্ন একটা বিষয় নিয়ে লিখা শুরু করেছেন। যতটুকু পারা যায় সহজ ভাষায় কিন্তু কম্প্রিহেনসিভ একটা সিরিজ করুন। দেশে অনেকেই এই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে কিংবা যাচ্ছে। আপেক্ষা করছি পরবর্তী পর্ব গুলির জন্য।

অতিথি লেখক এর ছবি

হ্যাঁ ঠিক বলেছেন,এরকম করলে মনে হয় ভাল হবে,ধন্যবাদ।

Emerald

নজমুল আলবাব এর ছবি

চমৎকার। এই বিষয়গুলো বেশি বেশি আলোচনায় আসা দরকার। লিখুন আরো।

অতিথি লেখক এর ছবি

চেষ্টা করছি , অনেক ধন্যবাদ।

Emerald

রানা মেহের এর ছবি

ভাইরে, এটা কি লেখা না লেখার ভূমিকা? মন খারাপ

আপনি বিস্তারিত লিখুন, লেখা বড় হয়ে গেল কিনা এইসব টেনশন নেবেন না।

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

অতিথি লেখক এর ছবি

ভূমিকার এক তৃতীয়াংশ ইয়ে, মানে...

প্রোফেসর হিজিবিজবিজ এর ছবি

এই ধরণের বিষয়গুলোতে বাংলায় লেখালেখি আরো দরকার। লিখতে থাকুন এমারেল্ড। আপনার লেখা নামের মতই দ্যুতি ছড়াক।

____________________________

অতিথি লেখক এর ছবি

গুরুজনদের উপদেশ মতো আবার শুরু থেকে ঠিকঠাক করে লিখছি মন খারাপ

কল্যাণ এর ছবি

পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।