সূচনা

সবজান্তা এর ছবি
লিখেছেন সবজান্তা (তারিখ: সোম, ২১/০১/২০১৩ - ১২:৩৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

কিছুক্ষণ আগেই ঘোষিত হলো বাচ্চু রাজাকারের মৃত্যুদণ্ড।

গত একচল্লিশ বছর ধরে যে তীব্র বোঝা আমরা জাতি হিসেবে বয়ে চলেছি, আজ তা খুব সামান্য হলেও লাঘব হলো। বাচ্চু রাজাকার পলাতক, তদুপরি আপীলে সুযোগ আছে- তবুও এ রায় নতুন দিনের সূচনা। যে অপরাধবোধ এই সুদীর্ঘ সময় আমাদের তাড়া করে বেড়িয়েছে, যে বিচার একসময় অসম্ভব বলেই বোধ হতো, আজ তা বাস্তব হলো।

এই সরকারের অসংখ্য বিচ্যুতি, দুঃশাসন, অনিয়মের পরও তার প্রতি কৃতজ্ঞতা থাকলো এই কঠিন কাজটা শুরু করার জন্য। কাজটা যে খুব সহজ ছিলো না তা সহজেই অনুমেয়। নানাভাবে বিচারকে ব্যাহত করার চেষ্টা, আন্তর্জাতিক হস্তক্ষেপ ইত্যাদির পরও বিচার কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা থাকলো সরকারের পাশাপাশি ট্রাইব্যুনাল, ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইম স্ট্র্যাটেজিক ফোরামসহ সবার প্রতি যারা একে সম্ভবপর করেছেন।

জাতি হিসেবে পূর্বপুরুষের রক্তের প্রতি অকৃতজ্ঞতার যেই দাগ আমদের গায়ে ছিলো, আজ একটু হলেও তা মোচন হলো।

জয় বাংলা।


মন্তব্য

ব্যাঙের ছাতা এর ছবি

জয় বাংলা

মুস্তাফিজ এর ছবি

জয় বাংলা।

...........................
Every Picture Tells a Story

ফাহিম হাসান এর ছবি

জয় বাংলা ইয়েস বাঘ মামা, ইয়েস!!!

স্যাম এর ছবি

জয় বাংলা!!

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

জয় বাংলা!!!

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

অতিথি লেখক এর ছবি

রায় শোনার পর থেকে কী যে অদ্ভুত অনুভূতি হচ্ছে বলে বোঝাতে পারবো না। অন্তত একটা পাথর নামলো বুকের ওপর থেকে। আরো অনেকগুলো বাকি।

দৈত্যকূলে প্রহ্লাদ
doittokule.prollad@জিমেইল.com

টিউলিপ এর ছবি

আনন্দে ঘুম আসছে না আমার। দেঁতো হাসি

___________________

রাতের বাসা হয় নি বাঁধা দিনের কাজে ত্রুটি
বিনা কাজের সেবার মাঝে পাই নে আমি ছুটি

মেঘা এর ছবি

জয় বাংলা!

--------------------------------------------------------
আমি আকাশ থেকে টুপটাপ ঝরে পরা
আলোর আধুলি কুড়াচ্ছি,
নুড়ি-পাথরের স্বপ্নে বিভোর নদীতে
পা-ডোবানো কিশোরের বিকেলকে সাক্ষী রেখে
একগুচ্ছ লাল কলাবতী ফুল নিয়ে দৌড়ে যাচ্ছি

মেঘা এর ছবি

জয় বাংলা!! আজকে অসাধারণ ভাল দিন দেঁতো হাসি

--------------------------------------------------------
আমি আকাশ থেকে টুপটাপ ঝরে পরা
আলোর আধুলি কুড়াচ্ছি,
নুড়ি-পাথরের স্বপ্নে বিভোর নদীতে
পা-ডোবানো কিশোরের বিকেলকে সাক্ষী রেখে
একগুচ্ছ লাল কলাবতী ফুল নিয়ে দৌড়ে যাচ্ছি

কড়িকাঠুরে এর ছবি

জয় বাংলা...

আকতার আহমেদ এর ছবি

জয় বাংলা।

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

এই সময়টা আসতেই হতো!

সাফিনাজ আরজু এর ছবি

জয় বাংলা !! দেঁতো হাসি ইয়েস বাঘ মামা, ইয়েস!!!

__________________________________
----আমার মুক্তি আলোয় আলোয় এই আকাশে---

কল্পনা আক্তার এর ছবি

আহ কি আনন্দ আজ আকাশে বাতাসে!


........................................................................................................
সব মানুষ নিজের জন্য বাঁচেনা

পুতুল এর ছবি

অনেষ্টলী বলছি; বাংলার মাটিতে রাজাকারদের বিচার কোন দিন সম্ভব হবে বলে আমি বিশ্বাস করিনি। আমি আমার জাতির কাছে কৃতজ্ঞ। তোমরা অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালে। জয় বাংলা।

**********************
ছায়াবাজি পুতুলরূপে বানাইয়া মানুষ
যেমনি নাচাও তেমনি নাচি, পুতুলের কী দোষ!
!কাশ বনের বাঘ!

আনু-আল হক এর ছবি

আজকে সারাটা দিন এই খবরটা পাবার জন্য বসে আছি। শুধু কি এই একটা দিন, সেই ২০০৮ সাল থেকে; শুধু ২০০৮ বলছি কেন, যতদিন থেকে যুদ্ধাপরাধ এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিষয়টা জেনেছি, ততদিন থেকেই। ভরসা ছিলো না জানি, বিশেষত বিএনপি যতদিন ক্ষমতায় ছিলো, কিন্তু একবারের জন্যও আশাহত হয়ে হাল ছেড়ে দেইনি। পৃথিবীর মহাপরাক্রমশালী শোষকদের কেউ কোনোদির পার পেয়ে যায়নি: হিটলার শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যা (?) করেছে (বা চলে যেতে হয়েছে), পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী রাষ্ট্রপ্রধান বুশ শেষ পর্যন্ত ইরাকের (অ)সাধারণ এক সাংবাদিকের জুতা খেয়েছেন, আমাদের বড় গণতন্ত্র তারেক জিয়া শেষ পর্যন্ত মিরপুরের এক চোরের সঙ্গে হাজতে সহবাস করেছেন...

যাহোক, একটা ঘটনা শেয়ার করতে ইচ্ছে হচ্ছে: আমরা তখন ফার্স্ট ইয়ারে পড়ি। বাংলাদেশ-পাকিস্তান খেলা; সবাই টিভি রুমে গিয়া খেলা দেখুম। এক বড় ভাই চিল্লায়া কইলো সে পাকিস্তান সাপোর্ট করতেসে। মুহূর্তের মধ্যে আমাদের ব্যাচের একটা ছেলে গিয়া থাপড় মারসে, এবং শুদ্ধ করে ...চোদ বইলা গাইল দিসে। পুরা তুলকালাম, এবং বড় ভাইরা তো আমাদের সহপাঠীরে পারলে তখনই মাইরা ফালায়। চড়-থাপ্পড় কিছুটা খাইসেও। পরে, সবার সামনে বিচার করতে গেলে ও কাঁদতে কাঁদদে বললো, "আমার ফুপিকে পাকিস্তানী কুত্তারবাচ্চারা রেইপ করসে। কাঁদতে কাঁদতে সে ফুপির চোখ প্রায় অন্ধ হইয়া গেলো। আমি বুঝতে পারি ওই বেদনা। আর যেইগুলা পাকিস্তান সাপোর্ট করে সেগুলা হয়তো নিজেরাই রেইপ করসে, বা তাগোর সাপোর্টার। আর নাইলে তাগো বংশধর।" আর বেশি কিছু কইতে পারে নাই। কিন্তু পুরা হলের পরিবেশ পাল্টাইয়া গেলো। ওরে বাইরে নিয়ে গেলো বড় ভাইরা।

আমার নিজের পরিবারের মধ্যেও মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ থাকার কারণে আমি বুঝতে পারি বেদনার ভার কত ভারী। মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করা সেইসব বীরদের অনেকেই হয়তো আজ জীবনসংগ্রামে পর্যূদস্ত, কিন্তু এই বিচারের মধ্য দিয়ে লাখো শহীদের, লাখো বীরাঙ্গনার, লাখো মুক্তিযোদ্ধার বুকের ছাতিটা আজ কত বড় হলো, সেটি মাপবার কোনো মাপকাঠি কি আছে?

দুঃখ হইলো যেইটারে শোয়ানো হইলো সেইটাই পলাতক। ওরে খুঁইজা বাইর করা হোক, আর ততদিনে বাকিডিরেও শোয়ানোর এন্তেজাম করা হোক।

সাবেকা সুলতানা এর ছবি

আর যেইগুলা পাকিস্তান সাপোর্ট করে সেগুলা হয়তো নিজেরাই রেইপ করসে, বা তাগোর সাপোর্টার। আর নাইলে তাগো বংশধর।

রাহী এর ছবি

হাসি

Tanvir Rabbani এর ছবি

জয় বাংলা

মাহবুব ময়ূখ রিশাদ এর ছবি

জাতি হিসেবে পূর্বপুরুষের রক্তের প্রতি অকৃতজ্ঞতার যেই দাগ আমদের গায়ে ছিলো, আজ একটু হলেও তা মোচন হলো।

জয় বাংলা

------------
'আমার হবে না, আমি বুঝে গেছি, আমি সত্যি মূর্খ, আকাঠ !

ধুসর জলছবি এর ছবি

জয় বাংলা। হাসি

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

জাতি হিসেবে পূর্বপুরুষের রক্তের প্রতি অকৃতজ্ঞতার যেই দাগ আমদের গায়ে ছিলো, আজ একটু হলেও তা মোচন হলো।

আমার হালকা আশঙ্কা ছিলো, রায়ে মৃত্যদণ্ড না দিয়া আবার যাবজ্জীবনের ফ্যাকড়া না করে। বাই এনি চান্স সরকার পরিবর্তিত হলেই এগুলা গায়ে হাওয়া লাগাইয়া বের হয়ে যাবে। বাকিগুলারে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব ঝুলাইয়া দেয়া হোক।

তবে যুদ্ধাপরাধী নির্মূলে এদেরকে বাংলাদেশের রাজনীতিতে নিষিদ্ধের ধারা (৭২ এর সংবিধান) ফিরিয়ে আনা জরুরি। আইনের প্রতি মহা শ্রদ্ধাশীল সুশীল শ্রেণী তাইলে এদের সাফাই গাওয়ার ক্ষেত্রে একটু বিপাকে পড়ে যাবে।

জয় বাংলা!

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

জয় বাংলা

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

জয় বাংলা!


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

বাচ্চু রাজাকারকে গ্রেফতারের সময় যে নাটকটা করা হয়েছিল সেটা নিয়ে তদন্ত হওয়া দরকার। পুলিশ যাকে খুঁজছে, মিডিয়া যাকে নিয়ে প্রাইম নিউজ করছে সেই লোকটা সীমান্ত পার হয়ে পালিয়ে যায় কী করে? কারা কারা তাকে পালাতে সাহায্য করেছে সেটাও বের করতে হবে।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

আলী হায়দার এর ছবি

আনন্দে চোখ দুটো ভিজে গ্যাছে। অপরাধ কখনও তামাদি হয়না। সেটাই আরেকবার প্রমানিত হল। সবে শুরু জেতে হবে অনেকটা পথ।

সৌরভ কবীর এর ছবি

যে দেশে স্বাধীনতার মাত্র নয় বছরের মাথায় ১৯৮০ সালে একজন রাজাকার (শর্ষিনার পীর) স্বাধীনতা পদক পেয়েছিলো সেই দেশেই স্বাধীনতার ৪২ বছর পরে আজ একজন রাজাকারের ফাঁসির রায় হলো। এটি একটা অসাধারণ ঘটনা। আজ একটা অসাধারণ দিন।

__________________
জানি নিসর্গ এক নিপুণ জেলে
কখনো গোধূলির হাওয়া, নিস্তরঙ্গ জ্যোৎস্নার ফাঁদ পেতে রাখে

হিমু এর ছবি
স্যাম এর ছবি

গুরু গুরু গুরু গুরু

সাফিনাজ আরজু এর ছবি

গুরু গুরু গুরু গুরু
চোখে পানি এসে গেল।

__________________________________
----আমার মুক্তি আলোয় আলোয় এই আকাশে---

সায়ন এর ছবি

গুরু গুরু গুরু গুরু

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

দীর্ঘকাল পরে আজ আবার বিজয়ের আনন্দ অনুভব করছি।
আর আপনার ও আপনার প্রজন্মের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

সাবেকা সুলতানা এর ছবি

আনন্দে চোখে পানি এসে গেল ।

ক'বছর আগেও সন্দিহান ছিলাম এই দিন সত্যি সত্যি আসবে । যে করেই হোক পলাতক অবস্থা থেকে বাচ্চু রাজাকারকে খুঁজে বের করা হোক।

মনি শামিম এর ছবি

জয় বাংলা।

-মনি শামিম

শাফায়েত এর ছবি

খুবই আনন্দের সংবাদ তাতে কোনো সন্দেহ নেই কিন্তু এই লোককে বিদেশ থেকে নিয়ে আসা যাবে কি? বাকি রাজাকারগুলা যাতে দেশ ছেড়ে ভাগতে না পারে সেইটা নিশ্চিত করা দরকার।

রিক্তা এর ছবি

জয় বাংলা

--------------------------------
হে প্রগাঢ় পিতামহী, আজো চমৎকার?
আমিও তোমার মত বুড়ো হব – বুড়ি চাঁদটারে আমি করে দেব বেনোজলে পার
আমরা দুজনে মিলে শূন্য করে চলে যাব জীবনের প্রচুর ভাঁড়ার ।

সুবর্ণা  এর ছবি

জয় বাংলা !!!!! মনে মনে কল্পনা করছি লাখো শহীদের আত্মা আজ কি শান্তিটাই না পাবে হাসি ,আর যারা জীবিত আছেন তারা কি তৃপ্তিতে সস্তির নিশ্বাস ফেলছেন হাসি

সু-পাখি

নিরন্তর ধারা এর ছবি

জয় বাংলা

অনেক আনন্দিত। তবে এ আনন্দ পূর্ণতা পাবে যখন এই রায়ের বাস্তবায়ন হবে।

অমি_বন্যা এর ছবি

হাততালি

অনিকেত এর ছবি

জয় বাংলা .........!!!

তাসনীম এর ছবি

জয় বাংলা!!!

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

দ্যা বিগিনিং অভ দ্যা এন্ড। দেঁতো হাসি

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

এভাবেই আমাদের দেনা শুধতে হবে। মুর্শেদ যথার্থই বলেছে-

দ্যা বিগিনিং অভ দ্যা এন্ড।

এই রায়ের বাস্তবায়নের অপেক্ষায় রইলাম। সরকারের কাছে কামনা এই অপেক্ষা যেনো দীর্ঘ না হয়।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

অরফিয়াস এর ছবি

জয় বাংলা !!

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

সাইদ এর ছবি

রাতঃস্মরণীয় ভাই,
কিছু মনে করবেন না। আপনি কি আপনার বাবার ব্যাপারটা একটু জানাবেন?? উনি রাজাকারের পক্ষে সাক্ষি দিলেন কেন একজন মুক্তিযোদ্ধা হবার পর?

ভাল থাকবেন

অরফিয়াস এর ছবি

অ্যাঁ

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

মনে করার কিছু নেই সাইদ ভাই, আমি তাকে ফোন করেছিলাম শুধু এই বিষয়টা জানার জন্যে কিন্তু তিনি আমার প্রশ্নের উত্তর দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছে। আমি ও আমার ভাইয়েরা ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে কটুবাক্য বর্ষণ করেছিলাম, তিনি কোনও প্রত্যুত্তর দেয়নি। যদি কখোনো পিছনের সত্যি ঘটনা জানতে পারি, তা আপনারাও জানবেন এটুকু প্রতিজ্ঞা করছি।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

অরফিয়াস এর ছবি

চলুক মন খারাপ

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

সাইদ এর ছবি

চলুক
ধন্যবাদ।

কুমার এর ছবি

জয় বাংলা

ইয়াছিন আলম এর ছবি

জয় বাংলা !

রাইসুল এর ছবি

সরকার তার মেয়াদে আপীল প্রক্রিয়া শেষ করতে পারে কিনা কে জানে। ভয় হয় রাষ্ট্রপতিকে ব্যবহার করে বিএনপি জামাত জোট কোন নোংরা খেলা না খেলে। সবকিছু ছাপিয়ে এখনকার অনুভূতি,
"আহা কি আনন্দ আকাশে বাতাসে......."

ঘুমকুমার এর ছবি

জয় বাংলা ঘেঁয়াও...

বেচারাথেরিয়াম এর ছবি

জয় বাংলা ধইরা ঠুয়া দিয়া দিমু...

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।