পাখির পৃথিবী- ৫, কোন পাখির শ্রবণশক্তি সবচেয়ে শক্তিশালী ?

তারেক অণু এর ছবি
লিখেছেন তারেক অণু (তারিখ: বুধ, ১৮/০৪/২০১২ - ৬:১৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

নিশাচর পেঁচারা তাদের বড় বড় চোখ, প্রায় ২৭০ ডিগ্রী ঘাড় ঘোরাবার অকল্পনীয় ক্ষমতা এবং অদ্ভুতাকৃতির মুখের জন্য হাজার হাজার বছর ধরে নানা দেশের লোককথায় চিরস্থায়ী আসন করে নিলেও প্রচলিত বিশ্বাসের মত তাদের অন্ধকারে দেখবার ক্ষমতা কিন্তু মোটেই মানুষের চেয়ে বেশী নয়।

তাদের সবচেয়ে বড় শারীরিক সক্ষমতা আসলে অতি নিখুঁত শ্রবণশক্তি! উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় আমাদের চিরচেনা লক্ষী পেঁচার ( Tyto alba) কথা, তারা ঘুটঘুটে আঁধারেও দৃষ্টিশক্তির বিন্দুমাত্র সাহায্য না নিয়ে শতভাগ সাফল্য নিয়ে অতি দ্রুতগামী শিকার ধরতে সক্ষম। গবেষণাগারে চোখ বেঁধে রেখেও তার এই বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা গেছে।

IMG_0217

দুটি ভিন্ন ধরনের বৈশিষ্ট্য লক্ষী পেঁচাকে এই অসাধারণ ক্ষমতা প্রদান করেছে, যার একটি এর মুখমণ্ডলের দিকে তাকালেই স্পষ্ট বোঝা যায়- প্রায় হৃৎপিন্ডাকৃতির মুখাবয়ব। তার কান দুইটি মুখমণ্ডলের সীমানার ঠিক বাহিরে এমন উচ্চতায় অবস্থিত যা উচ্চমাত্রার কম্পনতরঙ্গ অনেক বেশী হারে অনুভবে সক্ষম।

Untitled-1owl copy

সেই সাথে যে ভিন্নধর্মী বৈশিষ্ট্যের অধিকারী আমাদের এই অতি উপকারী লক্ষী পেঁচা তা হল, এর কান দুটি অতি বৃহদাকৃতির হবার সাথে সাথে বাম কানটি আবার ডান কানের চেয়ে সামান্য উঁচুতে অবস্থিত! এই ব্যতিক্রমী অদ্ভুত বৈশিষ্ট্যই তার শ্রবণ শক্তিকে ভিন্ন শক্তিশালী মাত্রায় উপনীত করেছে।

Copy of DSCN9750 copy

যে কোন পরিবেশেই শোনার ক্ষমতাটা অনেকাংশে নির্ভর করে এক কান থেকে অন্য কানে শব্দ যেতে যে অতি সামান্য সময়টুকু লাগে তার গাণিতিক বিশ্লেষণের উপরে। মানুষের কান এই ক্ষেত্রে দুই পাশ থেকে সমস্ত শব্দ নিখুঁত ভাবে গ্রহণ করতে পারে কিন্তু একই সাথে উপর-নিচ অর্থাৎ ভার্টিক্যাল ভাবে পারে না। কিন্তু লক্ষী পেঁচা অকল্পনীয় শ্রবণক্ষমতা আসলে ত্রিমাত্রিক ভাবে কাজ করে , যা যে কোন পরিবেশে এমনকি আলোর অনুপস্থিতিতেও কোন সমস্যার উদ্রেক করে না ।

(তথ্যসূত্র- Extreme Birds
পোস্টে ব্যবহৃত অসাধারণ চিত্রকর্মগুলো বহু বছর যাবৎ খুলনা নিবাসী অস্ট্রেলিয়ান বন্ধু চিরতরুণ ম্যালকম আর্নল্ডের সৃষ্টি। তার অনুমতিক্রমে সচলে দেয়া হল। )

পাখির পৃথিবী- ১

পাখির পৃথিবী- ২

পাখির পৃথিবী- ৩

পাখির পৃথিবী- ৪

পালকাবৃত বন্ধুদের নিয়ে লেখা এই সিরিজটি সেইসব মানুষদের জন্য, এই গ্রহের প্রতিটি বুনো পাখির পালকে আমি যাদের প্রতিচ্ছবি দেখতে পাই--

ডেভিড অ্যাটেনবোরো
জেরাল্ড ডারেল
কনরাড লোরেঞ্জ
ইনাম আল হক
সালিম আলী
জেমস অডুবন
রজার টোরে পিটারসন


মন্তব্য

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

আর কি না আমি এতোদিন জানতাম এরা অন্ধকারেও দেখতে পায়!
ডান কান বাম কান পড়তে গিয়ে অন্তরা চৌধুরীর গান মনে পড়ে গেলো

জ্ঞান বাড়লো পোস্ট পড়ে, ধন্যবাদ

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

তারেক অণু এর ছবি

তাইতো জানতাম আগে ! এখন দেখি ভুল !
আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

আশালতা এর ছবি

আমিতো দেখি নজরুল ভাইয়ের থেকেও বেশি জ্ঞানী ছিলাম। অনেকদিন পর্যন্ত আমার ধারণা ছিল পেঁচা তিনশো ষাট ডিগ্রিই বনবন করে মাথা ঘোরাতে পারে ! ইয়ে, মানে...

আচ্ছা এরা কি তাহলে দিনের আলোয় দেখতে পায় ?

----------------
স্বপ্ন হোক শক্তি

তারেক অণু এর ছবি

অবশ্যই, আমার- আপনার মতই !

তারেক অণু এর ছবি

আর দিদিভাই, ৩৬০ ডিগ্রী ঘাড় ঘুরালে বা প্যাঁচালে মাথায় রক্ত যাবে কি করে, রক্তনালী গিট্টূ লেগে যাবে না খাইছে

স্যাম এর ছবি

চলুক

তারেক অণু এর ছবি
প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

ওহে পর্যটক, তিষ্ঠ ক্ষণকাল!
নতুন কিছু জানা হলো। (ঝগরা-ঝাটির মাঝে সময় পেলেন কিভাবে!)

তারেক অণু এর ছবি

ঝগড়া-ঝাটি কোথায় আবার !

সত্যপীর এর ছবি

শেষের ছবিটা জোস।

আপনে এই সিরিজে কিপ্টার মতন লিখেন ক্যান?

..................................................................
#Banshibir.

তারেক অণু এর ছবি

কি করুম , খুব কম জানি . মন খারাপ

ইমা  এর ছবি

আমি আর আমার বান্ধবী তো সেদিন ও এই বিষয়ে সেকি তর্ক খাইছে লেখাটা পরে ভুল ধারণাটা পাল্টে গেল। ধন্যবাদ।

তারেক অণু এর ছবি

কি নিয়ে তর্ক !

ইমা  এর ছবি

এই যে পেচার দৃষ্টিশক্তি নিয়ে। খাইছে

তারেক অণু এর ছবি

কে জিতল!

ইমা  এর ছবি

আপনার লেখা পড়ে বুঝলাম দুজনই হেরেছি কারণ দুজনেরই ধারণা এবং ব্যাখা ভুল ছিল। হাসি

তারেক অণু এর ছবি

যাক, পেঁচা নিয়ে আলোচনা চলছিল জেনে ভাল লাগল।

কাজি মামুন এর ছবি

অসাধারণ, অণু ভাই! চলুক

তারেক অণু এর ছবি

পেঁচা আসলেই অসাধারণ !

তাপস শর্মা এর ছবি

পেঁচা কয় পেচানি খাসা তোর চক্ষুখানি খাইছে

তারেক অণু এর ছবি

কি ভাষা! খাসা !

আনোয়ার এর ছবি

উত্তম জাঝা!

তারেক অণু এর ছবি
কল্যাণ এর ছবি

দারুণ চলুক

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

তারেক অণু এর ছবি

আপনের লেখা কই! নাম কিন্তু ফাঁকিবাজের তালিকায় উঠছে!

কল্যাণ এর ছবি

এহহ কইলেই হইল? আমিতো দেখি না খাইছে তাছাড়া গীতাতে কোথাও বলা নাই যে আমি ফাঁকিবাজ, রবীন্দ্রনাথও কিছু বলে যায় নাই আমার বিষয়ে। আর আসল কথা হইল এই যে মন্তব্যগুলা এইগুলা কি এলিয়েনরা করতেছে? খালি খালি ভয় দেখাও মিয়াঁ!!!

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

তারেক অণু এর ছবি
সত্যপীর এর ছবি

গীতায় না থাকলেও জীবনানন্দের সাতটি তারার তিমিরে পরিষ্কার বলা আছে সূর্য একটি তারা। সুতরাং কল্যাণ ফাঁকিবাজ। তারেকাণুর সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্পে সাধারন বিজ্ঞানীরা যখন আবেগাপ্লুত হচ্ছেন, তখনই মডুমামারা ফাঁকিবাজের লিস্ট খুলে কি প্রমান করতে চায়? সবই শঙ্করাচার্যের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। আপনি কি জানেন ষড়যন্ত্র আসলে কিসের যন্ত্র? এইটা ডাইনোসরেরা জেনে যেতে পারেনি তাই তারা আজ কোথায়? তাই বলি সাবধান। কল্যাণের লিখা চাই। কারন মনুসংহিতার সপ্তম অধ্যায় অনুযায়ী, ফাঁকিবাজি ভালো নয়।

..................................................................
#Banshibir.

তারেক অণু এর ছবি

ফাঁকিবাজি ভালো নয়--- গড়াগড়ি দিয়া হাসি , ফাটায়ে দিছেন ভাই ! দেঁতো হাসি

শারেক শহিদ এর ছবি

বাদুড় শব্দ করে তার প্রতিধ্বনির ওপর ভর করে নিঁখুতভাবে বস্তুর অবস্থান বের করতে পারে । বাদুড়ের ওই ক্ষমতা আর লক্ষীপেঁচার অত্যাশ্চর্য শ্রবণশক্তির কোন তুলনা জানেন নাকি ভাইয়া ??

তারেক অণু এর ছবি

না তো, পুরো ভিন্ন ব্যাপার!

দুর্দান্ত এর ছবি

লেজেন্ড অব দা গারডিয়ান্স দেখেছেন? সুযোগ পেলে থ্রিডিতে দেখুন। আমোদ পাবেন।

তারেক অণু এর ছবি

চেষ্টা করব অবশ্যই, ধন্যবাদ।

ভালো মানুষ এর ছবি

ভাল লাগলো খুব ভাইয়া লেখাটা

তারেক অণু এর ছবি
নীড় সন্ধানী এর ছবি

মনে পড়ে গেল বছর দশেক আগে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় একটা লক্ষী পেঁচার দুর্গতি দেখে ইনাম ভাইকে মেইল করেছিলাম পরামর্শ চেয়ে। তারপর চিড়িয়াখানা কর্তারে জ্ঞানী উপদেশ দিয়ে আসছিলাম খাইছে

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

তারেক অণু এর ছবি

হ, আমাদের সমস্যা, যা দেখি চিড়িয়া হিসেবে খাঁচায় রাখতেই হয় ! রেগে টং

কালো কাক এর ছবি

চলুক পপকর্ন লইয়া গ্যালারীতে বইলাম

আপনার এই সিরিজের শিরোনাম দেখলে বাসে সাধারণ জ্ঞান পুস্তিকা বিক্রেতাদের কথা মনে হয়। 'এই বইটি পড়লে জানতে পারবেন কোন দেশে ছয় মাস দিন, ছয় মাস রাত। আরো জানতে পারবেন কোন পাখি শীতকালে এক দেশে থাকে, গরমকালে অন্যদেশে' খাইছে

তারেক অণু এর ছবি

দেঁতো হাসি
মাত্র ২ টাকা, ২ টাকা, ২ টাকা- এই বইতেই আছে, শুরু হয়ে গেল ----

মন মাঝি এর ছবি

চলুক

****************************************

তারেক অণু এর ছবি
উচ্ছলা এর ছবি
তারেক অণু এর ছবি

(বাংলায়)

উচ্ছলা এর ছবি

লেখাটা খুব মিষ্টি। ছবিগুলোও সুন্দর।
উচ্ছলা খুশি হয়ে তোমাকে 'টু থাম্ব্স আপ' দিয়েছে।

তারেক অণু এর ছবি

উচ্ছলার জন্য পুরো রোদেলা উইকএন্ড থাকল !

উচ্ছলা এর ছবি

তোমার প্রতিটি দিন উইকেন্ডের মত ফূর্‍তিময়, রঙধনুর মত ঐশ্বর্‍য্যময় হোক।
❤ ❤

তারেক অণু এর ছবি

সেই আশাতেই আছি! বরফ গলেনি এখনো মন খারাপ বসন্ত পুরোপুরি না আসলে মুশকিল!

nakim Ahmed এর ছবি

আহ, ছোটোবেলায় একবার সাদা পেচা দেইখা যেই দৌড়ানিটা দিছিলাম, এখনও মনে আছে।।।।।।
আসলে ছোটো বেলা বাঘের বাচ্চা ছিলামতো খাইছে
যাই হোক পুরানো স্মৃতি মনে করিয়ে দেয়ার জন্য তালগাছটা আপনাকে দিলাম টা আপনাকে দিলাম।।।

তারেক অণু এর ছবি

সাদা, তাহলে এই পেচাই ছিল !

গরিব মানুষ এর ছবি

স্নো আওলের শ্রবণ শক্তি মনে হয় অন্যান্য সব পাখির চেয়ে বেশি, এমনকি তা অনেক দূরে বরফের নীচে কোন কিছুর নড়াচড়া করা কোন ইঁদুরকেও শনাক্ত করতে পারে, এবং পেঁচার যে থালার মতো মুখের গঠন তা আসলে অনেক শব্দ থেকে প্রে'র নড়াচড়াকে আলাদা করে।

তারেক অণু এর ছবি

তুষার পেঁচার ব্যাপারে লেখা দেখলাম না, আপনার কাছে রেফারেন্স থাকলে উল্লেখ করেন,

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।