আয়্যূটি সমাবর্তন ও একটি দুঃসাহসিক বাবাকাহিনী

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ০৬/১১/২০০৯ - ১১:০৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আব্বু-ম্মু, এক আত্মা হলেও মানুষ তো দুইজন। একজনকে তো আরেকজনের চে' কম ভালবাসিনা। তাই দু'জনের একজন অডিটোরিয়াম-এ প্রবশাধিকার পাবে আরেকজন পাবে না, কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিলাম না। কার্ড নেবার সময় জিজ্ঞেস করছিলাম, উপযুক্ত কোন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করলে আরেকটা কার্ড পাবো? জানলাম এমন কোনো পক্ষের কথা কারও জানা নাই। হতাশ হলাম। ওদিকে সৃষ্টিকর্তা বোধহয় স্মিতহাস্যে মজা দেখছিলেন, আর বলেছিলেন দাঁড়াও বাছা, সিস্টেম করছি।

হঠাৎ কোনো এক দূর-বন্ধুর আগমন। উদ্দেশ্য জুতা চাই। আয়্যুটি-তে এর জামা, ওর প্যান্ট, তার টাই এইগুলা কোনো ঘটনা না [সতর্কীকরণঃ আন্ডু্র ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়]। তো কথায় কথায় জানতে পারলাম তার বাবা মা আসতে পারবে না। অমনি ধরে বসলাম, তোর কার্ড দিবি আমারে , জুতা নিয়ে ভাবিস না, তোরে "জুতা দান" করব।

সমাবর্তনের দিন ভোরে বাসা থেকে আয়্যুটি যাবার পথে বারবার আব্বুকে পড়াতে পড়াতে নিয়ে গেলাম, শোনো তোমার নাম হল অমুক উদ্দীন, তোমার ঠিকানা হল অমুক, তুমি সুদূর রাজশাহী থেকে ছেলের গ্রাজুয়েট হওয়া স্বচক্ষে দেখতে এসছো। সে খালি হাসে। আমি তাকে বুঝাতেই পারলাম না যে নিরাপত্তারক্ষী এসেসেফ-এর কাছে ধরা পড়লে বেইজ্জতি ব্যাপার। তার একটাই কথা, আরে তুমি চলো তো, কিস্যু হবে না।

যখন অডিটোরিয়াম-এ ঢোকার সময় হল, আমার তখন হাত-পা ঠান্ডা। এসেসেফ গুলা সিনা টান করে দাঁড়িয়ে। আব্বুকে গিয়ে বললাম, কী মিঃ অমুকুদ্দিন, রেডী?
- হ্যা। (হাসিহাসি মুখ)
- মনে আছে সব?
উত্তরে শুধু হাসিটা আরও চওড়া হল।
- বেস্ট অফ লাক! ইয়ে, মানে...

হল রুমে পাশাপাশি দু'টো চেয়ারে বসে আব্বু-ম্মু; একজন গভীর মনোযোগে ম্যাগাজিনের পাতা উল্টাচ্ছে, আরেকজন স্বভাবসুলভ ইতি-উতি তাকাচ্ছে। আমি একফাঁকে খুব দ্রুত গিয়ে বললাম, কঙ্গ্রাচুলেশন্স। তারা দুজনেই আনন্দিত। আব্বুকে বললাম, কি জিজ্ঞেস করসে? আব্বু আবারো হাসে। ভণিতা দেখে আম্মু বিরক্ত হয়ে বলল, আরে কিচ্ছু জিজ্ঞেস করে নাই। শোন তোর ছবি দেখলাম, স্টেইজে গান করছিস। আমি অবাক, তাই নাকি? রেশনুভাই ছিল উপস্থাপক। ওনাকে দেখায় বললাম, ঐ যে রেজওয়ান ভাই, আমার সুপারভাইজার। এত ভাল উপস্থাপনা করছিলেন যে তার শিষ্য হিসাবে পরিচয় দিতে পেরে বেশ বর্গ হচ্ছিল।

নিজের বসার জায়গায় ফেরার সময় উপরওয়ালাকে থেঙ্কু দিলাম মনে করে। বললাম, ঘটনাটা সহজে ঘটাইবার জন্য ধন্যবাদ। আমাকে বলে, বাবাকে নিয়ে এত্ত টেনশনের কি আছে? মনে রাখবা, তুমি বাপের ব্যাটা হইলে সেও ব্যাটার বাপ! এইবার আমি আব্বুর মত হাসলাম। বললাম, সব-ই তোমার ইচ্ছা।

এখনও ফোনে কথা বলার সময় আব্বুর সেই হাসি শুনি। দেখা আর হয়না। খুব দেখতে ইচ্ছা করলে চোখ বন্ধ করি... খুব সুন্দর হাসে আমার বাবা!


মন্তব্য

mehedi hasan [অতিথি] এর ছবি

অসাধারন লেখা।

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

শুক্রিয়া। হাসি

**না এর ছবি

হ্যাঁ...আসলেই আঙ্কেলের হাসি সুন্দর! আসল কথা হচ্ছে, সব বাবার হাসি ই সুন্দর! আব্বুকে মনে পড়ে গেলো ! তুই তো তাও দেশে এসে হাসি দেখতে পাবি...কিংবা দূরালাপনি তে হাসির সুর শুনতে পারছিস...আমার পক্ষে
কোনটাই আর সম্ভব নয়!!

যাই হোক, লেখা ভালো হয়েছে, তবে আরেকটু বড় হলে ভালো হতো, এমনিতে চাপা মারার সময় তো কম কথা বলিস না!!

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

মন খারাপ

বড় ছাপা মারব, টেনশনাইশ না খাইছে

রায়হান আবীর এর ছবি

অনেকক্ষণ ধরে চিন্তা কর্তেছি আপনি কিডা? আনন্দ ভাই না!!


পুচ্ছে বেঁধেছি গুচ্ছ রজনীগন্ধা

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

এই না হলে...!! খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

লেখাটা অনিচ্ছাকৃতভাবে বেনামে পোস্ট হল বলে দুঃখিত।

পুনশ্চঃ
বছর পেরিয়ে গেল, তবু আমার সেই জুতোজোড়া এখনও ফেরৎ পাই নি। ওই বন্ধুটাকে সামনে পেলে ইচ্ছা মত খোঁচানো যাবে। খাইছে

রাহিন হায়দার [অতিথি] এর ছবি

@রায়হানঃ ঠিকই ধরেছিস।

নাম উল্লেখ করা উচিৎ ছিল। লেখা চমৎকার হয়েছে। আর এত ব্যস্ততার মধ্যে ব্লগ লেখা বোধহয় তোর দ্বারাই সম্ভব।

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

ধন্যি তোর জন্যি।

সাফি এর ছবি

পুরা ব্যচ ধইরা সচল হইলেননি আপনেরা? খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

আর বলিস না। পুলাপাইনের পুতিভার শেষ নাই খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

এহহে! আমি ভীষণরকম লজ্জিত। আই ইউ টির জুনিয়র সাফি ভেবেছিলাম। সরি ভাইয়া। কিছু মনে করবেন না।

অতিথি লেখক এর ছবি

আরে আনন্দ ভাই যে...
বাহ বাহ। লেখা তো জবরদস্ত হইছে। আমি শুধু আম্মারে নিতে পারছিলাম...আব্বা বাইরে পায়চারী করছে। মন খারাপ
আরো লেখা চাই। আম্রিকার ললনাদের গল্প শুনতে চাই। দেঁতো হাসি
/
ভণ্ড_মানব

অ্যাহেম...আমার লেখাটাও একটু পইড়া দেখেন। খাইছে
http://www.sachalayatan.com/guest_writer/28467

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

শানে নযূলঃ এই লেখাটা আসলে তোর পোস্টের কমেন্ট বক্সেই লেখা। তোর লেখাটা পড়ে কমেন্ট করতে গেলাম গতকাল রাতে। লিখতে লিখতে দেখি আর থামায় রাখা গেল না। আজকে মিডটার্ম (অনুঘটক) ছিল কিনা!

তুই দিশি ললনাদের লালিত্য নিয়ে একটা লিখে ফেল। তোরে কমেন্টাইতে গিয়ে আম্রিকা-লীলা বাইর হইলেও হইতে পারে খাইছে

রেশনুভা এর ছবি

শেষটা একেবারে হৃদয় ছোঁয়া। সাধারণত ছেলেদের মায়ের সাথে সম্পর্ক অনেক কাছের হয় তুলনামূলক ভাবে। আমার ক্ষেত্রে উলটো।
তুমি কী বলতে পারো আনন্দ, যাঁদের বাবা থেকেও নেই ওদের জীবনটা কেমন হয়? ওরা অনেক ভালো থাকুক।
"আয়্যূটি" চোখে লাগছে।
আমার গ্রুপের পোলাপাইন দেখি সব ব্লগার ... Cool Man ... দেঁতো হাসি

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

আব্বু-ম্মুর সাথে আমার সম্পর্ক বন্ধুর মত। এখনও দুজনের একজন রোজ ঘুম থেকে ডেকে দেয়! আমার মনের অনেক বড় সহায় ওরা। ভালু একটা সিস্টেমে ইন্সটল্ড হয়েছি বলতে পারেন খাইছে

হুমম, আপনি বলার পর থেকে আমারও কেমন চোখে লাগতে শুরু করেছে।

পাইপলাইনে আরও পুলাপাইন আছে। সচলের লাল দেয়ালে সময় ভালু কাটবে মনে হয়। হাসি

সাদা-কালোর ছবি এর ছবি

লেখা পড়ে খুবই ভালো লাগলো....কিন্তু মন্তব্য লিখতে যে ব্যাপক ধৈর্য্য ও অধ্যবসায়ের পরিচয় দিতে হচ্ছে তা আদতে আমার চারিত্রিক বৈশিষ্ট নয়.......তবুও অনুভূতি না জানিয়ে থাকতে পারলাম না.....

"চেহারা বই" এ থাকা সত্বেও কখনো হয়তো বলা হয়ে ওঠেনি...এই সুযোগে বলে নেই...."ভালো আছেন তো?"

বাপ্পি...MCE '06

সাদা-কালোর ছবি এর ছবি

লেখা পড়ে খুবই ভালো লাগলো....কিন্তু মন্তব্য লিখতে যে ব্যাপক ধৈর্য্য ও অধ্যবসায়ের পরিচয় দিতে হচ্ছে তা আদতে আমার চারিত্রিক বৈশিষ্ট নয়.......তবুও অনুভূতি না জানিয়ে থাকতে পারলাম না.....

"চেহারা বই" এ থাকা সত্বেও কখনো হয়তো বলা হয়ে ওঠেনি...এই সুযোগে বলে নেই...."ভালো আছেন তো?"

বাপ্পি...MCE '06

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

তোকে অন্তর থেকে ধন্যবাদ ।
তোর কমেন্ট দেখার পর এখন একটু বেশিই ভাল আছি। হাসি

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- আইইউটি'র পোলাপান তো কয়দিন পরে সচলায়তনে স্বাধীনতা দাবী করবো মনে হৈতেছে। যেই হারে ব্যাচ ধইরা আসা শুরু করছে। আরও কয়টা ছুপাইয়া আছে কে জানে! 'জাগো বাহে কোন্ডে সবাই' শ্লোগান কোন সময় জানি কানে আসে, সেই ভয়ে আছি!
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

ধূগোদা,

ছুপা রুস্তমরা এল বলে। ফুলমাল্য রেডী করেন। কাতার লম্বাই হবে মনে হয়। আপ্নারে খুউবই ভালু পাই। দেঁতো হাসি

দুষ্ট বালিকা এর ছবি

ধুগো, হ! সচলের বুয়েটি-সিলেটী-আবাগীর সাথে আরেকটা নাম যুক্ত হলো বলে! খাইছে

----------------------------
ইহাসনে শুষ্যতু মে শরীরং
ত্বগস্থিমাংসং প্রলয়ঞ্চ যাতু।
অপ্রাপ্য বোধিং বহুকল্পদুর্লভাং
নৈবাসনাৎ কায়মেতৎ চলিষ্যতি।।

- ললিতবিস্তর

**************************************************
“মসজিদ ভাঙলে আল্লার কিছু যায় আসে না, মন্দির ভাঙলে ভগবানের কিছু যায়-আসে না; যায়-আসে শুধু ধর্মান্ধদের। ওরাই মসজিদ ভাঙে, মন্দির ভাঙে।

মসজিদ তোলা আর ভাঙার নাম রাজনীতি, মন্দির ভাঙা আর তোলার নাম রাজনীতি।

প্রবাসিনী এর ছবি

'জাগো বাহে কোন্ডে সবাই'

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

________________________________________________

হইয়া আমি দেশান্তরী, দেশ-বিদেশে ভিড়াই তরী রে

________________________________________________

হইয়া আমি দেশান্তরী, দেশ-বিদেশে ভিড়াই তরী রে

নিয়াজ মোরশেদ এর ছবি

মজা লাগসে.....!!
মাগার গল্প টা পুরা এক বচ্ছর বাসি বানায়ে শুনানোর কারণ টা কি হইতে পারে ভাবতেসি.....খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

নিজ্যুঃ এইটাই সিস্টেম। এক বচ্ছর পর তুইও ব্যাফারটা ধরতে ফারবি। খাইছে

শাহেনশাহ সিমন এর ছবি

কনভোকেশন আসলেই মজার জিনিস। ইউনি আমাদের একদিনের বাদশা বানায় দেয়, ভালোই লাগে চোখ টিপি

এত ভাল উপস্থাপনা করছিলেন যে তার শিষ্য হিসাবে পরিচয় দিতে পেরে বেশ বর্গ হচ্ছিল।

খিয়াল কৈরা...
_________________
ঝাউবনে লুকোনো যায় না

_________________
ঝাউবনে লুকোনো যায় না

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

ধন্যবাদ।
পাঠকের জন্য খিয়াল-এর পরীক্ষা ছিল ঐটা। আপসুস, আপনি একাই পাশ করেছেন খাইছে

রাহিন হায়দার [অতিথি] এর ছবি

"আয়্যূটি" চোখে লাগছে।

মার্কিন প্রভাব কিনা! খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

য়্যূ নো...! বেটা খ্রাপ!! খাইছে

অতিথি লেখক এর ছবি

মোটেও খ্রাপ না!! রেগে টং

উইড্র ইওর কমেন্ট ! না হলে ... খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

তথাস্তু। তাও রাজি হয়ে যান আফা। দেঁতো হাসি

দুষ্ট বালিকা এর ছবি

আনন্দ, ভালো লাগলো লেখাটা পড়ে! সময় পেলে হাত পা সবকিছু খুলে আরও লিখো কিন্তু!

আর একটা কথা, মানুষজনের মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদটাও দিস্না ক্যানরে ব্যাটা! :|

----------------------------
ইহাসনে শুষ্যতু মে শরীরং
ত্বগস্থিমাংসং প্রলয়ঞ্চ যাতু।
অপ্রাপ্য বোধিং বহুকল্পদুর্লভাং
নৈবাসনাৎ কায়মেতৎ চলিষ্যতি।।

- ললিতবিস্তর

**************************************************
“মসজিদ ভাঙলে আল্লার কিছু যায় আসে না, মন্দির ভাঙলে ভগবানের কিছু যায়-আসে না; যায়-আসে শুধু ধর্মান্ধদের। ওরাই মসজিদ ভাঙে, মন্দির ভাঙে।

মসজিদ তোলা আর ভাঙার নাম রাজনীতি, মন্দির ভাঙা আর তোলার নাম রাজনীতি।

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

ইয়ে মানে সবকিছুই খোলাটা একটু বেশি হয়ে যাবে না? ইয়ে, মানে...

এরা সব আমার কাছের মানুষজন। এদের সাথে ফর্মালাৎ ন চলিষ্যতি। হাসি

No Name এর ছবি

লেখা সু্নদর হইসে.....btw কার পাস নিসিলি?...রিয়ন এর নাকি?

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

থেংকু মামা! দেঁতো হাসি

ক্যান, রিওন কি guest_writer অ্যাকাউন্টের মালিক নাকি? ইয়ে, মানে... হৈলেও অবশ্য খুব একটা অবাক হবনা।

btw তুই ইনভিসিবল ক্যান ? খাইছে

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

হো হো হো কিন্তু এত ছোট লেখা কেন? টেনে লম্বা করেন মিয়া।

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

ভাই নতুন তো, তাই আগে অ্যাড দিয়ে শুরু করলাম। ভবিষ্যতে মুভি বানানোর ইচ্ছা আছে। দুয়া রাইখেন। হাসি

No Name এর ছবি

তুই তো না চিনাই আমারে মামা বামায় ফেললি....খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

তুই সম্ভবত আখতার। পুলাদের সাথে লুকুচুরি খ্যালতে ভালু পাইনা। এন ডি সি, আই ইউ টি আর কত? এলা খ্যান্ত দেও মামা। ইয়ে, মানে...

No Name এর ছবি

হা হা....আখতার এতটা বদ না নিশ্চয়ই.. btw তোর এই লেখাটা সচলে পড়া আমার প্রথম পড়া....আর মন্তব্য ও যে প্রথম তা আর বলা নিশ্চয়ই লাগবে না...খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

আখতারের তো লেখালেখি নিয়ে একটু আগ্রহ ছিল; আর No Name মার্কা বিয়াফক এন্টারটেইনিং জ়োকসও সে মারতে পারত। তাই ঢিলটা মারসিলাম আরকি। ঢিলাটা লাগে নাই। তাই বলে তুই অরে সবার সামনে বদ না কইতে পারস না। খাইছে

ওয়েল কাম টু সচল।

No Name এর ছবি

মজা পাইতেসি..দেঁতো হাসি
তুই এখনো চিনতে পারস নাই....খাইছে

আনন্দ [অতিথি] এর ছবি

দোস্ত তুই থাম। আমি একটু ঘুইড়া আসি...

No Name এর ছবি

আর পাস মানে auditorium এ entry র পাস এর কথা কইসি not password!!!

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA