২০০১ সালের দুর্গাপূজা

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: বুধ, ২১/১০/২০১৫ - ৫:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

দুর্গাপূজা বাঙ্গালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব।

২০০১ সালেও দুর্গাপূজা এসেছিল এই জনপদে। সেবার মহালয়া ছিল অক্টোবরের ১৭ তারিখ, সোমবার। ২২ তারিখ ষষ্ঠী পূজার মাধ্যমে পূজা শুরু আর ২৬ অক্টোবর শুক্রবারে বিসর্জনের মাধ্যমে পূজা শেষ।

সেই বছরে ‘যা দেবী সর্বভূতেষু মাতৃরুপেন সংস্থিতা, নমস্তসৈ নমস্তসৈ নমস্তসৈ নমো: নমো:’ এই মন্ত্রে বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায় মাতৃরুপী শক্তির দেবীকে আহ্বান জানাতে প্রস্তুত ছিল।

প্রস্তুত ছিল!! কিন্তু আহ্বান আদৌ জানিয়েছিল কিনা তা জানা যায় নাই। কারণ সেই বছরের অক্টোবরের এক তারিখ অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন ঘটে। বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয় এবং শুরু করে তাণ্ডব।

২০০১ সালের সেই দিনগুলো আমাদের একাত্তরের স্মৃতিকে জাগ্রত করে। এই বছর আবার এসেছে দুর্গাপূজা। চলুন দেখে আসি সংবাদপত্রের পাতায় ২০০১ সালের দুর্গাপূজার কথা। প্রসঙ্গত বলে রাখি, এখানে বাড়িঘরে হামলা, ধর্ষণ, লুটপাটের ঘটনাগুলোকে স্কিপ করেছি। তুলে ধরতে চেয়েছি দুর্গাপূজা নিয়ে ঘটনাগুলো। কিন্তু মাঝে মাঝে অন্য ঘটনাগুলোও এক দুইটা ঢুকে পড়েছে।

তাহলে শুরু করা যাকঃ

৩ অক্টোবর, ২০০১: পাইকগাছায় তিনটি মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক প্রথম আলো।
৩ অক্টোবর, ২০০১: খুলনায় জামায়াতের মিছিল থেকে মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাংচুর, দৈনিক মুক্তকণ্ঠ।
৪ অক্টোবর, ২০০১: নারায়ণগঞ্জে হিন্দু ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে হামলা, গুলি বর্ষণ, দৈনিক ভোরের কাগজ।
৪ অক্টোবর, ২০০১: উখিয়ায় সংখ্যালঘু পাড়ায় হামলা, দৈনিক ভোরের কাগজ।
৫ অক্টোবর, ২০০১: খুললার গ্রামে মূর্তি ভাঙা এবং নির্মাতাকে লাঞ্ছনার অভিযোগ, দৈনিক ইত্তেফাক।
৬ অক্টোবর, ২০০১: বাউফলে আটটি দুর্গা প্রতিমা ভেঙ্গেছে দুর্বৃত্তরা, দৈনিক ভোরের কাগজ।
৭ অক্টোবর, ২০০১: সাইদির এলাকা এখনও বিপজ্জনক জনপদ, আগুন দেওয়া হচ্ছে সংখ্যালঘুর বাড়িতে, দৈনিক জনকণ্ঠ।
৮ অক্টোবর, ২০০১: এবার দুর্গাপূজা হবে কি?, দৈনিক জনকণ্ঠ।
৮ অক্টোবর, ২০০১: নারায়ণগঞ্জে দুটি মন্দিরে মুখোশধারীদের গুলি, দৈনিক যুগান্তর।
৮ অক্টোবর, ২০০১: বিএনপির শুদ্ধি অভিযানে বরিশালে দুই উপজেলার সংখ্যালঘুরা এলাকা ছেড়েছে, মন্দির ভাঙচুর, বাড়িতে আগুন লুটপাট, তরুণীদের অনেকেই স্কুল-কলেজে যাওয়া ছেড়ে দিয়েছে, দৈনিক জনকণ্ঠ।

১০ অক্টোবর, ২০০১: অব্যাহত হামলার মুখে উত্তরের অনেক জেলা থেকে সংখ্যালঘু দেশত্যাগ করছে, দৈনিক প্রথম আলো।
১০ অক্টোবর, ২০০১: ডেটলাইন কুমিল্লা, আতংকিত জনপদে পালিয়ে বেড়াচ্ছে অনেক সংখ্যালঘু পরিবার, দৈনিক আজকের কাগজ।
১০ অক্টোবর, ২০০১: গৌরনদী-আগৈলঝরার চিত্রঃ ধানের শীষে ভোট দিয়েও সংখ্যালঘুরা নির্যাতিত হচ্ছে, দৈনিক যুগান্তর। ( হিন্দুদের উপর নির্যাতন রাজনৈতিক বিএনপির সেই দাবি ভিত্তিহীন করে দেয় এই সংবাদ)
১০ অক্টোবর, ২০০১: ইউরোপিয়ান কমিশন দলের আহ্বান, সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিরুদ্ধে জোরালো ব্যবস্থা নিন, দৈনিক বাংলাদেশ অবজারভার।
১১ অক্টোবর, ২০০১: কালিয়াকৌরে সংখ্যালঘুরা এলাকা ছাড়া, দৈনিক মাতৃভূমি।


১১ অক্টোবর, ২০০১: হিংস্র শ্বাপদের জনপদঃ বাগেরহাটের সংখ্যালঘুদের গ্রামগুলো জ্বলছে প্রতিহিংসার আগুনে, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১১ অক্টোবর, ২০০১: বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু ও আওয়ামী লীগ কর্মীদের বাড়িতে হামলা, লুট, মন্দির প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১১ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা, লুটপাট, প্রতিমা ভাঙচুর, অপহরণ, ফরিদপুরের নগরকান্দা- ভাঙ্গা, বরগুনার পাথরঘাটা-আমতলী আতঙ্কের জনপদ, দৈনিক প্রথম আলো।
১২ অক্টোবর, ২০০১: কাঁঠালিয়া পূজামণ্ডপ এলাকা ভাঙচুর, দৈনিক ভোরের কাগজ।
১২ অক্টোবর, ২০০১: রাজশাহীতে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা অব্যাহত, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১২ অক্টোবর, ২০০১: আতঙ্কিত সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগঃ সাতক্ষীরা সীমান্তে নারী শিশু সহ ৯৯ জন বিডিআরের হাতে আটক, দৈনিক প্রথম আলো।
১৩ অক্টোবর, ২০০১: সারাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা অব্যাহত, দৈনিক আজকের কাগজ।
১৪ অক্টোবর, ২০০১: পশ্চিমবঙ্গে জমির দাম বেড়েছে দেড়গুণ, সাত পুরুষের ভিটা ছেড়ে সীমান্ত পাড়ি দিচ্ছে সংখ্যালঘুরা, দৈনিক আজকের কাগজ।

১৪ অক্টোবর, ২০০১: নির্বাচনী সহিংসতাঃ দক্ষিণ- পশ্চিমাঞ্চলে সংখ্যালঘুদের পূজা হবে স্লান নিরানন্দ পরিবেশে, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৪ অক্টোবর, ২০০১: হিন্দু সম্প্রদায় এবার দুর্গাপূজায় উৎসব করবে না, দৈনিক মুক্তকণ্ঠ।
১৪ অক্টোবর, ২০০১: সিরাজগঞ্জের অধিকাংশ মন্দিরে এবার দুর্গাপূজা হবে না, দৈনিক সংবাদ।
১৪ অক্টোবর, ২০০১: জয়পুরহাটে মন্দির ভাঙচুর, দৈনিক সংবাদ।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: চেনা মানুষই তাদের সর্বনাশ করলো, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: ক্রমশ অশান্ত হয়ে উঠছে নীলফামারী, পূজা উদযাপন অনিশ্চিত, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের উপর হামলা চলছেই, পিরোজপুরের গ্রামে মন্দির ভাঙচুর, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: মতলব ও শাহরাস্তিতে প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক প্রথম আলো।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: বেগমগঞ্জে শঙ্কিত সংখ্যালঘুরা, সাদামাটাভাবে আপ্লিত হবে দুর্গাপূজা, দৈনিক আজকের কাগজ।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: খিলগাঁও এ মন্দির জ্বালিয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা, দৈনিক যুগান্তর।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের উপর হামলা থামিতেছে না, মন্দির ভাঙচুর, বরগুনায় আশ্রয়ের আশায়, নাজিরপুরের গ্রামে মন্দির দোকান ভাঙচুর, দৈনিক ইত্তেফাক।

১৫ অক্টোবর, ২০০১: পিরোজপুর এবং চাঁদপুরে পূজামণ্ডপে হামলা, দৈনিক ডেইলি স্টার।
১৫ অক্টোবর, ২০০১: রাজশাহীর বুজরুক কোলায় এখনও আতংক, দুর্গাপূজা বয়কট করবে এলাকাবাসী, দৈনিক প্রথম আলো।
১৬ অক্টোবর, ২০০১: নরসিংদীতে পূজামণ্ডপে হামলা, দৈনিক ইত্তেফাক।
১৬ অক্টোবর, ২০০১: সন্ত্রাসীরা ময়মনসিংহ ও পিরোজপুরে প্রতিমা ভাঙচুর করেছে, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৬ অক্টোবর, ২০০১: ঈশ্বরদীতে মন্দিরে হামলা, ৯ টি প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক ভোরের কাগজ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: নবাবগঞ্জে তিনটি দুর্গা প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: ঈশ্বরগঞ্জে সংখ্যালঘুরা দুর্গাপূজা নিয়ে আতংকগ্রস্ত, দৈনিক মুক্তকণ্ঠ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: হিংস্র শ্বাপদের জনপদঃ বাগেরহাটের গ্রামগুলোতে এবার উৎসবের আমেজ নেই, পূজার প্রস্তুতিও নেই, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: জামালপুর, রংপুর, নাটোরে প্রতিমা ভাঙচুর, মন্দিরে হামলা, দৈনিক সংবাদ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: রায়পুরায় চারটি মূর্তি ভাঙচুর, সংখ্যালঘুরা আতংকে, দৈনিক খবর।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: লক্ষ্মীপুর উপজেলায় অধিকাংশ হিন্দু মন্দিরে দুর্গাপূজা হবে না, দৈনিক সংবাদ।
১৭ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিক্রিয়া, পূজার বাজার ক্রেতাশুন্য, দৈনিক জনকণ্ঠ।

(১৭ তারিখ ছিল মহালয়া)
১৮ অক্টোবর, ২০০১: নড়াগাড়ীতে সহিংসতাঃ এলাকাজুড়ে চরম আতঙ্ক, পূজা মণ্ডপের মূর্তি ভাঙচুর, সংখ্যালঘুদের উপর হামলা, চাঁদা দাবি, দৈনিক ভোরের কাগজ।
১৮ অক্টোবর, ২০০১: বরিশালে দুর্গাপূজা সাড়ম্বরে পালন করতে বিএনপির আপ্রাণ চেষ্টা, হিন্দু সম্প্রদায়ের অনাড়ম্বরভাবে পালন করার সিদ্ধান্ত, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৮ অক্টোবর, ২০০১: পূজাচলাকালিন বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্তঃ অজানা শংকায় এবারের শারদীয় উৎসব অনেকাংশে স্লান, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৮ অক্টোবর, ২০০১: বকশিগঞ্জ নলডাঙ্গা রায়পুরা ঈশ্বরগঞ্জে প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক প্রথম আলো।
১৮ অক্টোবর, ২০০১: বিভিন্নস্থানে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা, মূর্তি ভাঙচুর, প্রতিবাদে বিক্ষোভ-মিছিল, দৈনিক প্রথম আলো।
১৮ অক্টোবর, ২০০১: প্রতিমন্ত্রীর চাচাতো ভাই পরিচয়ে ৪২ টি সংখ্যালঘু পরিবারের উপর মধ্যরাতে বর্বর হামলা, দৈনিক খবর।
১৯ অক্টোবর, ২০০১: বগুড়ায় প্রতিমা ভাঙচুর, নেত্রকোনায় নাটমন্দিরে লুট, পঞ্চগড়ে এবার অনাড়ম্বর পূজার সিদ্ধান্ত, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৯ অক্টোবর, ২০০১: জামালপুরে পূজার আয়োজনে উৎসাহ নেই, বাড়িঘর মন্দিরে হামলা নীরবে চলছে চাঁদাবাজি, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৯ অক্টোবর, ২০০১: চট্টগ্রামে পূজা হবে অনাড়ম্বর, অনশন ও মানববন্ধন কর্মসূচী ঘোষণা, দৈনিক জনকণ্ঠ।
১৯ অক্টোবর, ২০০১: নির্বাচনোত্তর সহিংসতাঃ বাগেরহাটে সাড়ম্বরে দুর্গাপূজা পালিত না হওয়ার আশংকা, দৈনিক সংবাদ।
১৯ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের উপর হামলা, ঘটনাগুলো অস্বীকার করার জন্য প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক চাপ, দৈনিক প্রথম আলো।
২০ অক্টোবর, ২০০১: দুর্গাপূজা উৎযাপনে বিঘ্ন সৃষ্টির চেষ্টাঃ সূত্রাপুরে উত্তেজনা, দৈনিক যুগান্তর।
২০ অক্টোবর, ২০০১: সাকা চৌধুরীর নির্দেশ! রাউজানে হিন্দু বসতিতে অগ্নিসংযোগ, ব্যবসায়ীকে হুমকি, দৈনিক ভোরের কাগজ।
২০ অক্টোবর, ২০০১: পূজামণ্ডপে হামলা প্রতিমা ভাঙচুর বন্ধ হয় নাই, অনাড়ম্বর দুর্গাপূজা পালনের সিদ্ধান্ত, দৈনিক জনকণ্ঠ।
২০ অক্টোবর, ২০০১: নবীনগরে শতাধিক দুর্গামূর্তি অবিক্রীত, কারিগররা বিপাকে, দৈনিক জনকণ্ঠ।
২০ অক্টোবর, ২০০১: অনাড়ম্বর পূজা পালনের সিদ্ধান্ত, সংখ্যালঘুদের হামলার প্রতিবাদে বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ, দৈনিক প্রথম আলো।
২০ অক্টোবর, ২০০১: পূজা পরিষদের সকাল সন্ধ্যা অনশন কর্মসূচী পালন হবে, দৈনিক প্রথম আলো।
২০ অক্টোবর, ২০০১: উপদ্রুত এলাকা ঘুরে সচেতন নাগরিকদের অভিমত, সংখ্যালঘু নির্যাতনঃ সরকার বাস্তবতাকে আড়াল করছে, দৈনিক প্রথম আলো।
২১ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের উপর হামলা, দুর্গা প্রতিমা ভাঙচুর, বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ বিক্ষোভ, পূজায় উৎসবের আমেজ নাই, দৈনিক প্রথম আলো।
২১ অক্টোবর, ২০০১: নগরকান্দায় মন্দিরে আগুন, দুর্গাপ্রতিমা ভাঙচুর, ৬ জন আটক, দৈনিক আজকের কাগজ।
২২ অক্টোবর, ২০০১: বাউফলে পূজা তোরণ এবং প্রতিমা নির্মাতার বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, দৈনিক ভোরের কাগজ।
২২ অক্টোবর, ২০০১: মীরসরাই ও সীতাকুণ্ডে সংখ্যালঘু নির্যাতন, প্রতিমা ভাঙচুর, লুট আর চাঁদাবাজি চলছে, দৈনিক ভোরের কাগজ।
২২ অক্টোবর, ২০০১: পূজামণ্ডপে হামলা, দৈনিক বাংলাদেশ অবজারভার।
২২ অক্টোবর, ২০০১: চাট মোহর ও পলাশবাড়ীতে প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক প্রথম আলো।
২২ অক্টোবর, ২০০১: ভারতে পালিয়ে আসা হিন্দুরা নির্যাতনের কথা বললেন, দৈনিক ডেইলি স্টার।

২২ অক্টোবর ছিল মহাষষ্ঠী।

২৩ অক্টোবর, ২০০১: জৈন্তাপুরে দুর্গা প্রতিমার মস্তক ছিন্ন করে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা, প্রতিবাদে ঘটপূজা, দৈনিক প্রথম আলো।
২৩ অক্টোবর, ২০০১: চাট মোহরে দুর্গাপূজার প্রতিমা ভেঙ্গেছে দুর্বৃত্তরা, দৈনিক জনকণ্ঠ।
২৩ অক্টোবর, ২০০১: অন্যের দুঃখে আমরা আনন্দে গা ভাসিয়ে দিতে পারি না, উৎসবের আমেজ নেই, রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক চাপ স্বত্বেও উত্তরাঞ্চলে সাদামাটাভাবে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে, দৈনিক সংবাদ।
২৩ অক্টোবর, ২০০১: চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে বোমা বিস্ফোরণ, কেউ হতাহত হয় নি, দৈনিক প্রথম আলো।

২৩ অক্টোবর ছিল মহাসপ্তমী।

২৪ অক্টোবর, ২০০১: সন্ত্রাসী হামলার ভয়ে সংখ্যালঘু, গ্রামের গৃহবধূরা সিঁথিতে সিঁদুর দিচ্ছে না, দৈনিক জনকণ্ঠ।

২৪ অক্টোবর ছিল মহাঅষ্টমী।

২৫ অক্টোবর, ২০০১: সংখ্যালঘুদের ভিতর তীব্র ক্ষোভ, দুর্গাপূজা বর্জন, দৈনিক সংবাদ।
২৫ অক্টোবর, ২০০১: ময়মনসিংহে চাঁদা না পেয়ে দুর্গা প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক প্রথম আলো।
২৫ অক্টোবর, ২০০১: কুমারী পূজার দিন সারা দেশে গনঅনশন কর্মসূচী পালন, দৈনিক প্রথম আলো।

২৫ অক্টোবর ছিল মহানবমী।

২৬ অক্টোবর, ২০০১: যেখানে নির্যাতন চলছে সেখানে নিয়ে যাওয়া হয় নাই, যেভাবে দুর্গাপূজা দেখিয়ে আনা হল কূটনীতিকদের, দৈনিক ভোরের কাগজ।
২৬ অক্টোবর, ২০০১: একটি সুন্দর উৎসব হামলার কারণে পণ্ড হয়ে গেল, ডেইলি স্টার ম্যাগাজিন।
২৬ অক্টোবর, ২০০১: পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে লুটপাটের পর আগুন, হিন্দু সম্পত্তি দখল, সন্ত্রাসী হামলা, দৈনিক জনকণ্ঠ।
২৬ অক্টোবর, ২০০১: আজ বিজয়া দশমী, নবমীতে অত্যাচার-নির্যাতনের প্রতিবাদে সারাদেশে মানববন্ধন, নীরবতা পালিত, দৈনিক প্রথম আলো।

২৬ অক্টোবর ছিল বিজয়া দশমী। সেবার বাংলাদেশ টেলিভিশনে খবরে প্রায় পুরোটাই ছিল দুর্গাপূজা উৎযাপন নিয়ে। বহির্বিশ্বের কাছে বিএনপি জামায়াত জোট সরকার দেখাতে চেয়েছিল হিন্দুদের তারা ‘জামাই আদরে’ রেখেছে।

২৭ অক্টোবর, ২০০১: নওগাঁয় পূজামণ্ডপে আগুন, কুলাউয়ায় প্রতিমা ভাঙচুর, দৈনিক জনকণ্ঠ।
২৮ অক্টোবর, ২০০১: অনারম্বর দুর্গাপূজা পালনের পাশাপাশি রয়েছে মূর্তি ভাঙ্গার ঘটনা, দৈনিক আজকের কাগজ।

দুর্গাপূজা শেষ হলেও প্রতিমা ভাঙচুর, মন্দিরে হামলা বন্ধ হয় নাই। সাথে অব্যাহত ছিল হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর। আত্মঘাতী বিমান হামলায় ধ্বংস করে দেয়া হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার বা টুইন টাওয়ার। আমেরিকানরা তাদের ভূমিতে ইতিহাসের সবথেকে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা দেখে।

তার ২০ দিন পর অর্ধেক পৃথিবী ঘুরে এক দারিদ্রপীড়িত দেশ দেখে তাদের ভূমিতে ইতিহাসের জঘন্য এক জাতিগত নির্মূলকরণের চিত্র। কিন্তু আমাদের স্মৃতিশক্তি খুব দুর্বল, তাই এখন মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীররা সংবাদ সম্মেলন করে জোর গলায় দাবি করে ঐ সময়ে আসলে কিছুই হয় নাই। এবং বর্তমান সরকার বারবার ট্রাইব্যুনাল করে বিচারের কথা বললেও তা অধরাই রয়ে যায় বছরের পর বছর।

২০০১ সিরিজের এর আগের লেখাগুলোর লিংকঃ
১। ভোলা ২০০১
২। বরিশাল ২০০১
৩। রামশীল ২০০১:আরেক শরণার্থী শিবির

তথ্য এবং ছবিঃ বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের ১৫০০ দিন

একাকী মানব


মন্তব্য

জীবনযুদ্ধ এর ছবি

শুরুর ছবিটা কেন যেন আসছেনা, একটু দেখবেন?

জীবনযুদ্ধ এর ছবি

ছবি আপলোডের পর ডানের লিস্ট অপসন থেকে টিক চিহ্নটি উঠিয়ে দিলে লেখার নিচে আবার পুণরায় ছবিগুলো আসবেনা।

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

... ... ...

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

অনিকেত এর ছবি

আমার স্বদেশ ......... মন খারাপ

শেহাব এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA