কেন দেশে ফিরে যেতে চাই?

রেনেট এর ছবি
লিখেছেন রেনেট (তারিখ: সোম, ১৪/০৯/২০০৯ - ২:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আমেরিকাতে আছি প্রায় পাঁচ বছর। থাকবো আরো কমপক্ষে দেড় বছর। কিন্তু এরপর আমি দেশে চলে যাবো, এমনটা প্রায় স্থির করে রেখেছি।

আমার এই সিদ্ধান্ত অনেককেই হতাশ করছে, অনেককে করছে ক্রুদ্ধ। আবার অনেকেই আড়ালে আবডালে বলবে 'আমেরিকাতে সুবিধা করতে না পেরে চলে এসেছে'। ওভার অল, প্রতিক্রিয়া খুব একটা পজিটিভ না।

আমার বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কোনকালেই আমার কোনদিন কোন উচ্চধারণা ছিল না। বরং আমার ধারণা, আমি অনেকটা রঙের মানুষের দুবলো ক্যারেক্টারের মত বোকা কিসিমের। আমার পরিচিত মানুষদের যদি এ ব্যপারে এতদিন কোন সন্দেহ থেকেও থাকে, এখন তারা মোটামুটি শিওর হচ্ছে।

যাহোক, কে কি ভাবলো, না ভাবলো সেটা নিয়ে এই মুহুর্তে আমি খুব একটা চিন্তিত না। আর্থিক দিক দিয়ে চিন্তা করলে দেশে ফিরে যাওয়াটা অবশ্যই বড়সড় বোকামী--একথা বুঝতে আইন্সটাইন হতে হয় না। এখন ছাত্রবস্থাতে ২০ ঘন্টা অন ক্যাম্পাস জব করে যা পাই, দেশে গিয়ে ফুলটাইম জব করেও হয়তো তা পাবো না।

আমেরিকার স্থানীয় বাঙালি যারা আছেন, তারা আমার কথা শুনে মিটি মিটি হাসেন...আর বলেন, এমন কথা রোজই সবাই বলে, কিন্তু কেউ যায় না...তুমিও যাবে না। এরকম একদিন এক কথা থেকে আরেক কথায় আমার রুমমেট বলেই বসল...'তুমি তো ভয়ে পালাচ্ছো...এখন পড়াশোনা করছো, পাশ করার পর চাকরি পাবে না, এই ভয়ে চলে যেতে চাও। বাপের ব্যাটা হলে আগে একটা চাকরি যোগাড় কর, তারপর চাকরির মুখে ঝাটা মেরে চলে যাও...তাহলে বুঝবো তুমি আসলেই দেশে চলে যেতে চাও... এরকম হাজারও কথা।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, কেন আমি চলে যেতে চাই? আমি এমন কোন দেশপ্রেমিক না, যে দেশের টানে চলে যাচ্ছি...তাহলে? আমি কি ভীতু?
হতেও পারে।

কিন্তু আমি জানি আমি ঠিক কি কারণে চলে যেতে চাই...আর সেটা হচ্ছে আমার মা। এই পড়াশোনা, ডিগ্রি ইত্যাদি করতে করতে ইতিমধ্যে পাঁচ বছর কেটে গেল...আরো বছর দেড়েক যাবে...আমার মনে হয় এইটুকু সময়ই যথেষ্ট হয়েছে। আমি মাসে মাসে দেশে টাকা পাঠিয়ে আর ফোনে কথা বলে নিজেকে আর সান্তনা দিতে চাই না। দেশে থাকলে এই করতাম, সেই করতাম বলে আর আফসোস করতে চাই না। আমি চাই, কাজ শেষে যখন ঘরে ফিরবো, তখন আমার অপেক্ষায় কেউ বসে থাকবে। আমি চাই আমার ছোট্ট ভাগিনীটার সাথে অবসরে খেলা করতে। বিনিময়ে যদি আমাকে ঢাকার যানযট আবার ঠেলতে হয়, ঠেলব। গরমে সেদ্ধ হতে হয়, হবো। কিন্তু এসির তলে বসে অন্যসব সুখ বিসর্জন দিয়ে আমি আর থাকতে পারবো না। মা মারা গেলে একদিনের নোটিশে টিকিট কিনে কাঁদতে কাঁদতে আমি দেশে যেতে চাই না।

আমি চাই হাসিমুখে দেশে যেতে। অনেকে নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা করে বিদেশে থাকে, আমি নাহয় আমার স্বার্থের কথা চিন্তা করে দেশে ফিরে যাবো।


মন্তব্য

তীরন্দাজ এর ছবি

আপনার নিজের ভেতরের বিশ্বাস আপনাকে যা বলে, সেটাই করবেন। অন্যের কথায় কান দেবেন না একেবারেই!

**********************************
কৌনিক দুরত্ব মাপে পৌরাণিক ঘোড়া!

**********************************
যাহা বলিব, সত্য বলিব

রেনেট এর ছবি

তীরুদা বয়জ্যেষ্ঠ মানুষ। আপনার কথা না মেনে উপায় আছে? হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

নজমুল আলবাব এর ছবি

আসেন। আমরা আছি না?

------------------------
ভুল সময়ের মর্মাহত বাউল

রেনেট এর ছবি

হাসি

সিলেটে চলে আসতে পারি কিন্তু...বুইঝেন খাইছে
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অমি এর ছবি

ভাই, একদম মনের কথাটা বলসেন...আমি সদ্য বুয়েট পাশ করা পোলা...বিদেশ যাইতে চাই...কিন্তু মায়ের কথা ভাব্লে আরে ভালো লাগে না...

রেনেট এর ছবি

বিদেশে কিছুদিনের জন্য আসা খারাপ তেমন কিছু না। আসুন, উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করুন, তারপর চলে যান দেশে হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অনীক আন্দালিব এর ছবি

লেখাটা খুব মন ছুঁয়ে গেলো রেনেট ভাই। আমি নিজে এখনও দেশে। দেশ ছাড়লেও এখানেই ফিরতে হবে আপনার কারণের মতো কারণে। এটা সবাইকে বললেও তারা বুঝে না!

শেষমেশ আমিও এভাবেই বলিঃ "অনেকে নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা করে বিদেশে থাকে, আমি নাহয় আমার স্বার্থের কথা চিন্তা করে দেশে ফিরে আসবো।"

রেনেট এর ছবি

ভাবিয়া করিও কাজ, করিয়া ভাবিও না হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

হামিদা আখতার [অতিথি] এর ছবি

আপনার লেখাটি পড়ে খুব ভালো লাগলো। কে কি বলছে সেটা না ভেবে নিজের কাছে যেটা ভালো মনে হয় সেটা করেন। "মা" এর চেয়ে মধুর পৃথিবীতে দ্বিতীয় কিছু নেই। আমিও আপনার মত পরবাসী। আজ মা'র সাথে কথা বললাম, মনটা খুব ভালো লাগছে।
আপনার মা'র জন্য শ্রদ্ধা রইলো। ওনি অনেক ভাগ্যবতী।

রেনেট এর ছবি

ধন্যবাদ পড়ার ও মন্তব্য করার জন্য। আমার মা ভাগ্যবতী কিনা জানি না...তবে আমি অনেক ভাগ্যবান।
ভালো থাকুন।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অনিকেত এর ছবি

রেনেট,

গুরু গুরু

তোমার পাঁচ বছর চলছে।
আমার চলছে আট।

এখনো যেকোন সময়ে আমার প্রিয়তম সাধ---দেশে ফিরে যাওয়া।

এখনো যেকোন সময়ে আমার প্রিয়তম স্বপ্ন---বাবা-মায়ের সাথে কারেন্ট চলে যাওয়া রাতে,সামনের বারান্দাটায় বসা, গ্রীলের ফাঁক দিয়ে গলে গলে পড়া চাঁদের আলো, আর সারাটা চরাচর সুরের প্লাবনে ডুবিয়ে দিয়ে বোনের কন্ঠে সেই অলৌকিক গান 'হেথা যে গান গাইতে আসা---'

তোমার পাঁচ আর আমার আটের মাঝে আমি তফাৎ দেখিনা কোন। তোমার দেশে চলে যাবার ইচ্ছের সাথে, আমার দেশে ফেরার ইচ্ছারও তফাৎ পাই না কোন।

শুধু তফাৎ একটা জায়গায়। আমি নিশ্চিত নই শেষ পর্যন্ত আমি যা ভেবে রেখেছি তা ঘটবে কি না। আজ থেকে চার বছর আগের 'আমি', আর এখনকার 'আমি'-র মাঝে শুধু বয়েসের আঁকিবুকিটাই বেড়েছে, এমন নয়। এই কয় বছরে নিজেকে হারিয়ে ফেলেছি বেশ কয়েকবার। যুদ্ধের ময়দান থেকে নিজের লাশ কাঁধে করে বয়ে নিয়ে ফিরেছি ঘরে----
অনেকবার ঘরে আলো জ্বালব বলে পুড়িয়ে দিয়েছি নিজের আঙ্গুল।

কিন্তু এসব কিছুর পরও---আমার মাঝে এখনো যতটুকু 'আমি' বেঁচে আছে, সে অংশটুকু পুর্বমুখী।

অনেক ব্যর্থতায় মোড়া এই জীবনে কোন দুঃখ রবে না যদি আমার এই শেষ ইচ্ছেটুকু পূরণ হয়----

চমৎকার একটা লেখার জন্যে সুরমা পাড়ের এক বুক খোলা হাওয়া উপহার দিলাম---

ভাল থেকো, সব সময়।

রেনেট এর ছবি

দেখা যাক শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে পারি কিনা। আমি আশাবাদী।

ম্যালা রাত হইসে...যান, ঘুমাতে যান হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সাইফ তাহসিন এর ছবি

চলুক

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

আসলে ফিরতে চাইলেও ফেরা হয় না, অনেকেই পারে না, রেনেট পারলে সে হাততালি পাবে অবশ্যই, তবে যারা পারে না, তাদেরকেও দোষ দেয়া যায় না।

অর্থ অবশ্যই অনেক স্বাধীনতা দেয়। তবে অর্থনৈতিক সুবিধাই যদি একমাত্র কারণ হতো, তাহলে অনেক লোকই দেশে চলে যেতো। আমার নিজের কথা বলতে পারি, এখানে যা আয় করি, তার তিন ভাগের একভাগ দেশে পেলেই আমার জন্য যথেষ্ট এবং দেশে ফিরলে তা না পাওয়ার কোনো কারণ নেই। আর্থিক বিবেচনায় জীবনযাত্রার মান কমবে। কারণ, কালোটাকার বদৌলতে আমার বিদেশে অভ্যস্ত মানের জীবন কিনতে দেশেও ব্যয় খুব একটা কম হবে না। সে পরিমাণ ব্যয় সামর্থের বাইরে থাকলেও সবার সাথে মিলেমিশে থাকার দিকটি ঠিকই ক্ষতিপূরণ করিয়ে দিবে।

আমার সমস্যা অন্য যায়গায়। আমি নিজের মতো করে থাকতে চাই, যেটা উন্নত বিশ্বেও হয়তো একেবারে সিমলেসভাবে সম্ভব না, তবে দেশে গেলে প্রতি মুহূর্তেই যে পরিমাণ আবর্জনা ফেস করতে হবে, তাতে মেজাজের বারোটা বাজবে। আমি বদমেজাজী মানুষ, আকামে অন্যের অধিকারে নাক গলাই না, তেমনি আশাও করি যে, অন্যেও আমাকে আমার কাজটা চুপচাপ করতে দিবে। আমি যতোদূর বুঝি, দেশে এটা সম্ভব নয়।

সুতরাং এখানে একটা ট্রেড অফের প্রশ্ন আসে। বিদেশে বসে যেভাবে দেশকে ফিল করি, তার অনেকটাই বাস্তবতা বিবর্জিত ও রঙচঙে ভরা। কারণ, দূর পরবাসের চ্যালেঞ্জিং জীবনে দেশের মূলত সুখস্মৃতিগুলোই বেশি মনে থাকে। সমস্যা হলো, বাস্তবে শৈশবের সেই খেলার মাঠটা আর সেরকম থাকে না, সেখানে গেলে দেখা যাবে নিজেকেই আগন্তুক মনে হচ্ছে। ঝাঁকের কইয়ে অভিযোজিত হওয়া ছাড়া কোনো উপায় থাকে না। অভিযোজিত না হতে পারার জন্য যে কষ্টটা প্রতি মুহূর্তে ফিল করতে হবে, যতো রূঢ়ই মনে হোক, মায়ের চোখের আদর সেই কষ্টটা ভুলিয়ে দেয়ার জন্য ঠিক বাস্তবসম্মত সমাধান নয়।

নিজের এরকম স্বার্থপর চিন্তার বাইরেও আরেকটা কারণ আছে। বিশেষ করে, আমার মতো মিডিওকার এনার্জির লোকদের ক্ষেত্রে দেশের জন্য ভালো কিছু করতে চাইলে দেশে না থেকে বিদেশে থেকে সেটা করা সহজতর।

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

রেনেট এর ছবি

বলাইদা, আমি বাস্তবতা বুঝি। ইচ্ছে থাকলেই যে সবসময় সবকিছু করা যায় না, তাও জানি। যারা থেকে যায়, তাদের প্রতি আমার কোন অভিযোগ নেই, তাচ্ছিল্য নেই। সবার বাস্তবতা ভিন্ন।
কিন্তু দিনশেষে আমি যেকোন কিছুর বিনিময়েই মার সাথে থাকতে চাই। জানি, এটা আমার ছেলেমানুষী আবেগ, এবং বাস্তব জীবনে এধরনের আবেগ নিয়ে পড়ে থাকলে চলে না, কিন্তু আমি আমার জীবনটা বোকামী করেই কাটাতে চাই, এবং এজন্য আমার কোন আফসোস নেই।
আমি এখনও প্রতিদিন পেপারে ছিনতাইয়ের কথা পড়ে আঁতকে উঠি... সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দূর্নীতির শক্তি দেখে ভীত হই...কিন্তু মায়ের মুখটা দেখার কাছে আমার বাকী সব অসুবিধা তুচ্ছ মনে হয়। জানি সবারই এরকমই মনে হয়, এবং সবাইই যেতে চায়, কেউ যেতে পারে, কেউ পারে না। আমি পারার দলে থাকতে চাই।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

বর্ষা [অতিথি] এর ছবি

রেনেট এর লেখাটি মন ছঁইয়ে গেলো। কোনো বড় বড় বুলি না---- সহজ যুক্তিতে দেশে ফেরত যাবার ইচ্ছা।

আমি দেশে যাইনা সাড়ে তিন বছর। কবে যাবো তারো ঠিক নেই। আমার পছন্দ দেখে আব্বু প্রতি রোজার সময় সুতলি কাবাব আনতো-- আব্বু এখন ইফতারে আর আনেনা বল্লো। হার্টের রুগী ( ৩টি ব্লক আছে ) কবে যে কি হয় বলা যায়না----

রেনেট এর ছবি

মন খারাপ
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সবজান্তা এর ছবি
রেনেট এর ছবি

এয়ারপোর্টে নিতে আইসেন তাইলে হো হো হো
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

রায়হান আবীর এর ছবি

লেখাটি অনুভবিত হয়েছে। দেশে আসেন, আচ্ছা মতো ছিল দিমু প্রতিদিন দেঁতো হাসি


পুচ্ছে বেঁধেছি গুচ্ছ রজনীগন্ধা

রেনেট এর ছবি

কি বললেন আবার কষ্ট করে বাংলায় বলেন হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

রায়হান আবীর এর ছবি

আম্রিকায় থাইকা বাংলা ভুইলা গেছেন। কইষা মাইনাস। দেঁতো হাসি


পুচ্ছে বেঁধেছি গুচ্ছ রজনীগন্ধা

সুবিনয় মুস্তফী এর ছবি

নিজের জীবনের বড় বড় সিদ্ধান্তগুলো এইভাবে নিজেকেই নিতে হয়। আমার কারণ/অকারণ, ভালো বা মন্দগুলো আর কারো জন্যই প্রযোজ্য নয়। তাই রেনেট, আপনি দুর্মুখের কথায় পাত্তা দিয়েন না।

অপরদিকে যারা চিরতরে বিদেশে থাকবেন, তাদের সিদ্ধান্তেও নাক সিঁটকানোর কোন কিছু নেই। নিজের সুখ দুখ হোক, দায়বদ্ধতা বা জবাবদিহিতা - সবার আগে নিজের কাছেই।
-------------------------
হাজার বছর ব্লগর ব্লগর

রেনেট এর ছবি

অপরদিকে যারা চিরতরে বিদেশে থাকবেন, তাদের সিদ্ধান্তেও নাক সিঁটকানোর কোন কিছু নেই। নিজের সুখ দুখ হোক, দায়বদ্ধতা বা জবাবদিহিতা - সবার আগে নিজের কাছেই।

সেটাই।

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সাইফ তাহসিন এর ছবি

একমত

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

সমুদ্র এর ছবি

স্থির করা লক্ষ্যে ফিরে আসেন, মায়ের কাছে ফিরে আসেন, দেশে ফিরে আসেন। ছোট জীবনে বড় বড় আক্ষেপ জমার সুযোগ দিয়েন না।

"Life happens while we are busy planning it"

রেনেট এর ছবি

ছোট জীবনে বড় বড় আক্ষেপ জমার সুযোগ দিয়েন না।

সেটাই।

ভালো থাকুন।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

রেনেট এর ছবি

পোস্টটা আবার পড়লাম...শেষ প্যারাটা একটু মিস লিডিং। যারা বিদেশে থাকছে, তাদের আমি কটাক্ষ করছি না। যে যার বাস্তবতা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। এখানে আমি বলার কেউ না। আমার বাস্তবতা আনুযায়ী আমি চলে যেতে চাচ্ছি, এটা যেমন আমার কাছে স্বাভাবিক, তেমনি যিনি থাকছেন, তিনিও তার বাস্তবতা অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এবং সেটাই স্বাভাবিক।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

না, ঠিকাছে। সচলের পাঠকেরা অনেক শেয়ানা। হাসি
তবে টানের ওপর লিখে ফেলা পোস্ট বা মন্তব্যে অনেক সময় ঝামেলা হয়ে যায়। যেমন, উপরে আমি একটা মন্তব্যে লিখেছি,

কালোটাকার বদৌলতে আমার বিদেশে অভ্যস্ত মানের জীবন কিনতে দেশেও ব্যয় খুব একটা কম হবে না।

পড়তে গিয়ে হোঁচট খেলাম। মনে হচ্ছে কালো টাকার বদৌলতে আমি বিদেশে হাইফাই লাইফ লিড করি। দেঁতো হাসি
আসল কাহিনী হলো, দেশের কালো টাকাওয়ালাদের দৌরাত্মে জিনিসপত্রের দাম বাড়ে। তখন আমার মতো গুণে গুণে মাস শেষে ফিক্সড বেতন পাওয়া লোকেরা পড়ে বিপদে।

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

নিবিড় এর ছবি

চলে আসেন। শুনছি আপনি নাকি আমার প্রতিবেশী হাসি দেশে আসলে আমাদের এলাকার সচল দিয়ে একটা সচলাড্ডা করা যাবে অনায়েসে হাসি


মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড় ।

রেনেট এর ছবি

হেহে...আমি আড্ডা দিতে একেবারে যাকে বলে অপটু...আগের আড্ডায় যারা ছিল, তাদের জিজ্ঞেস করে দেইখেন হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ফরিদ এর ছবি

ফারুক ভাইয়ের বাবার ফোনের মত পরিস্থিতি এবছরের শুরুর দিকে হয়েছিল। মনে হচ্ছিল পরিচিতরা হারিয়ে যাচ্ছে আর বড়রা বুড়িয়ে যাচ্ছে। তাই এ অবস্থায় একদিনের মাথায় বৈদেশ ছাড়ার সিদ্ধান্ত একমাসের মাথায় ঢাকায় হাজির।

এখন পর্যন্ত প্রচন্ড সন্তুষ্ট নিজের সিদ্ধান্তের জন্য। হয়ত সবার অবস্থা এক না...

রেনেট এর ছবি

আমিও জানি, আমি সন্তুষ্ট থাকবো। peer pressure টাই সমস্যা
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ফরিদ এর ছবি

কান্ট্রি অফ ফ্রিডমের অবস্থা জানিনা, কিন্তু লন্ঠন শহরে ফ্রোজেন ভেজিটেবল, দিনের পর দিন মুরগী আর ফ্রাইড চিকেন নামের অখাদ্য খেতে খেতে পেটে যেই চরা পড়ে গেছিল গত চারমাসে মোটামুটি সেখান থেকে রসনাতৃপ্তির দিক থেকে হলেও মানুষের জীবন মনে হয়।

জয় বাংলা!

যদিও এখনো বাইরের খাবার খাইনা বললেই চলে আর পৃথিবীর সবচেয়ে বোরিং মানুষের মত ইফতারীর টাইমেও ভাত খাই। অগ্রীম স্বাগতম

এনকিদু এর ছবি

তীরন্দাজের মন্তব্যের সাথে আমি সহমত ।

আমার মনে হয় এখন আপনার হাতে দুইটা পথ রয়েছে । এক হল দেশে মায়ের কাছে ফিরে যাওয়া, দুই হল মা কে নিজের কাছে নিয়ে আসা । চিন্তা ভাবনা করার মত যথেষ্ট সময় মনে হয় হাতে আছে । তবে মনে রাখবেন, একটা প্রাচীন হিব্রু প্রবাদ আছে, " যখন মাত্র দুইটি পথ সামনে রয়েছে, তখন তৃতীয় পথটা ধরা উচিৎ " চোখ টিপি


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...

রেনেট এর ছবি

তিন নাম্বার রাস্তাটা কি? চিন্তিত
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

এনকিদু এর ছবি

চিন্তা করে বের করতে হবে ।


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

মন যা বলে সেটাই করা উচিৎ। দেশে আসলে আমরা আছি না ?? দেঁতো হাসি
---------------------------------------------------------------------------
- আমি ভালোবাসি মেঘ। যে মেঘেরা উড়ে যায় এই ওখানে- ওই সেখানে।সত্যি, কী বিস্ময়কর ওই মেঘদল !!!

_________________________________________

সেরিওজার গল্প

রেনেট এর ছবি

হ। আমি দেশে যেতে যেতে আবার আপনি উড়াল দিয়েন না!
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ফকির লালন এর ছবি

সব সেরা ছেলেগুলো বিদেশে থেকে গ্যালে দেশটার কি হবে?

রেনেট এর ছবি

আমি দেশে গেলে দেশে বলদের সংখ্যা বড়জোর একটা বাড়বে হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

মামুন হক এর ছবি

দারুন স্বার্থ পরের মতো কাজ হচ্ছে, আমি কান পাতলেই আম্রিকার এই প্রান্ত থেকে ঐ প্রান্তের বালিলাকূলের চিৎকার দিয়া কান্নার আওয়াজ পাই রেন্টু মিয়ার অকাল প্রস্থানের সিদ্ধান্ত শুনে। কপাল ভালো ইশতি আছে তাদের সামাল দিতে হাসি
রেনেট কথা আমরা অনেকেই বলি, আসল কাজটা তুমি করতে যাচ্ছ।
শুভ কামনা রইল।

রেনেট এর ছবি

ইশতি আমার ছোট ভাইয়ের মত...ওকেই বুঝিয়ে দিয়ে যাচ্ছি অম্রিকার সমস্ত বালিকা চোখ টিপি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ইশতিয়াক রউফ এর ছবি

বলছো যখন, তখন দেশ ও নারীর এই ক্রান্তিলগ্নে নিতান্ত অনিচ্ছাসত্বেও আমি এই গুরুভার সবিনয়ে গ্রহণ করলাম। চোখ টিপি

[পোস্ট পড়েছি সকালেই। কী মন্তব্য করবো জানি না। আমার চিন্তাগুলোর সাথে মিলে যায়, তাই আলাদা করে কিছু লিখিনি। দেশে দেখা হবে। হাসি ]

সাইফ তাহসিন এর ছবি

রেনেট মিয়া, সাবাশ, দোয়া করলাম, তুমি সফল হইবা, দেশ থিকা শেষ আইসি ২০০৭ এর ফেব্রুয়ারী মাসে, তারপর থিকা মাইঙ্কা চিপায় পইড়া আছি, বাপরে দেখি নাই আড়াই বছর, আমার ২ কলিজা ভাতিজারেও দেখি নাই, একই ঘটনা আমার বড় ভাইয়ের সাথেও, ফোন করলেই প্রথমে তারা জিগায়, কাক্কু তুমি কবে আসবা? উত্তর দিতে পারি না, চোখ কড়কড় করতে থাকে। বলার ই বা কি আছে? এর মাঝে সেদিন আমার ভাতিজি হইল, তারে চামড়ার চোখে দেখিই নাই, মাঝে মাঝে খুব বিষন্ন লাগে, এমন না যে, আমি কোন কোর্স করতেছি, কি এক অনিশ্চয়তার মাঝে যে দিন কাটাইতেসি, রেসিডেন্সি পাই নিয়া এখনো, আর জানিও না কবে আবার দেশে যাবো।

তোমারে এই দৃঢ় সিদ্ধান্তে যে যাই বলুক না কেন, কানে দেবার দরকার নাই। বড়ই হিংসা হইল তোমার এমন সিদ্ধান্তে। সুবিনয়দা এখানে সবচেয়ে মুল্যবান মন্তব্যটি করেছেন। একজনের টা আরেকজনের উপর খাটে না।

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

রেনেট এর ছবি

সাইফ ভাই, মন খারাপ কইরেন না। আপনার কষ্টের দিনগুলি সাময়িক। রেসিডেন্সি হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ খুব তাড়াতাড়ি। আর এরপর এই কষ্টগুলো আর থাকবে না। দেশে যাওয়ার সামর্থ্য, আর সুযোগ দুটোই থাকবে অন্য যে কোন গড়পরতা প্রবাসীর চেয়ে বেশি।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

দময়ন্তী এর ছবি

আমার এক বন্ধু ১১ বছর পর ফিরেছে৷ প্রথমে চাকরীর জন্য গেছিল৷ পরে ভাল লাগল না, তখন পি এইচ্ ডি করে ফিরবে ঠিক করল৷ তাই করেছে, গতবছর ফিরেছে৷ ওর ছেলেটা প্রায় বছর ৫ বয়স তখন৷ দেশে এসে খুবই কষ্ট হয়েছে ছেলেটার অ্যাডজাস্ট করতে৷ কিন্তু এখন অনেক থিক হয়েছে৷ তো, বন্ধু প্রথম যখন বলত "ফিরে যাব', লোকে যথেচ্ছ টিটকারি দিত৷ কিন্তু এখন সব চুপ৷

আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল৷
-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

রেনেট এর ছবি

ধন্যবাদ, দময়ন্তীদি হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

নৈষাদ এর ছবি

আমরা যারা বাংলাদেশে আছি, আমারা চাইব আপনাদের মত মানুষ দেশে ফিরে আসুক।

আমার জীবনের দু’টা গুরুত্বপূর্ণ সময়ে (উচ্চ-মাধ্যমিকের পর কী পড়ব এবং কী জীবিকা বেছে নিব) আমার খুব কাছের প্রিয় একজনের কাছ থেকে একটা গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ পেয়েছিলাম, যা্র প্রতিফলন আমার পেশাগত জীবনে সবসম্য়ই দেখতে পাই। এবং যা আমাকে সিদ্ধান্ত গ্রহনের ব্যাপারে দৃঢ়তা দিয়েছে, এবং জীবনকে উপভোগ করার ব্যাপারে সাহায্য করেছে। ১। বিভিন্ন জন আপনাকে বিভিন্ন কথা বলবে, কখনো কখনো সম্পূর্ন পরস্পরবিরোধী, এবং তাঁদের প্রত্যয় (conviction) আপনাকে দ্বিধায় ফেলবে। কিন্তু দিনের শেষে আপনার সিদ্ধান্তের পরিণাম শুধু আপনাকেই ভোগ করতে হবে, এটা হাড়ে হাড়ে উপলব্ধি করা চরম সত্য। ২। দ্বিধাগ্রস্থ সিদ্ধান্তের পর যদি আপনি শুধুই তুলনাই করেন, তবে সবসময়ই দীর্ঘশ্বাসই ফেলতে হবে…। দৃঢ় সিদ্ধান্তের পর যদি নিজের উপর ভরসা রাখেন, সবখানেই সুখি হবেন।

অনেক উদাহরন দেয়া যায়, শুধু ছোট্ট একটা বলব। আমার পূর্বপুরুষদের খূব কাছের একজন অবিভক্ত ভারতে পেশার জন্য ভারতে চলে গেছল। পরের জেনরেশনের একজন অধ্যাপনাকে পেশা হিসাবে নিলেন (যিনি আশির দশকে দুই/তিন বছরের জন্য বাংলাদেশও অধ্যাপনা করেছে্ন।) এবং গত দশ বছর Cambridge এ পূর্ণ অধ্যাপক হিসাবে অধ্যাপনা করে অবসর গ্রহন করেছেন। সেদিন ফোনে কথা হচ্ছিল, এই প্রথম জানতে পারলাম তিনি এখনো ভারতীয় নাগরিক, পরিষ্কার বাংলা কথায় একটা ইংরেজী শব্দ নেই। আমাকে বললেন আমি পেশার কাজে যুক্তরাজ্যে এসেছি, দ্যাটস অল। থাকার কথা তো কখনোই ছিলনা, আমি সব সময়ই জানতাম অবসর গ্রহন করে ফিরে যাব দেশে। স্বভাবগত ভাবে আস্থে আস্থে কথা বললেন, কিন্তু গলায় যে প্রত্যয় ছিল, তা কখনো ভুলব না। সুখি এবং সম্পূর্ন একজন মানুষ। নিশ্চিয়ই এমন প্রত্যয় নিয়ে সুখি এবং সম্পূর্ন প্রবাসীরাও আছেন।

কখনো দেখা হওয়ার প্রতাশায় রইলাম।

রেনেট এর ছবি

ধন্যবাদ, সুমন। আপনার মন্তব্যটি বেশ ভালো লাগলো হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

জি.এম.তানিম এর ছবি

দেশে ফেরত যাওয়ার পক্ষে বিপক্ষে অনেক যুক্তি পাবেন। কিন্তু করবার সময় নিজের মনমতোটাই করুন। প্রতিটা মানুষ কেবল তার নিজের মতোই। আর জীবন তো আর কোন কম্পিউটার গেম নয় যে চীট কোড আর ওয়াক থ্রু পাবেন, এখানে সঠিক পথ বলে কিছু নেই। যেই সিদ্ধান্ত নিন, সুখী হোন... প্রার্থনা করি!
-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

রেনেট এর ছবি

ধন্যবাদ, তানিম হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অনিন্দ্য রহমান এর ছবি

আয়া পড়েন হাসি


রাষ্ট্রায়াত্ত শিল্পের পূর্ণ বিকাশ ঘটুক

রেনেট এর ছবি

বলছেন?
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

শাহেনশাহ সিমন [অতিথি] এর ছবি

তীরুদার মন্তব্যে সহমত।

আর দোস্ত, তুমি নিজে জানো যে তোমার জন্য ভালো কোনটা। সেইমোতাবেক সিদ্ধান্ত নিয়ে নাও। আর জানোইতো, সিদ্ধান্তের ভালো-খারাপ কিছু নাই, ওটাকে সিদ্ধান্তই বলে হাসি

রেনেট এর ছবি

খালি আয়া পড় বললেই তো হবে না দোস্ত...চাকরিও যে দেখা লাগে...দিতে পারবা নাকি ?
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সৈয়দ আখতারুজ্জামান এর ছবি

এর পর আর কোন কথা থাকে না। মন যা চায় হবে। জীবন একটাই।

রেনেট এর ছবি

সেটাই হাসি
আসছি আপনাদের জ্বালাতে হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সৈয়দ আখতারুজ্জামান এর ছবি

জন্ম থেকেই জ্বলছি.........

তানবীরা এর ছবি

রেনেট, আমার ফিলিপসের চাকরী চলে যাওয়ার পর আমি প্রায় মাস ছয়েক দেশে গিয়ে ছিলাম। চাকরী খুঁজেছিলাম, জয়েন করবো কি না ডিসাইড করতে পারি নাই। কিন্তু একটা ব্যথা বুকে নিয়ে ফিরে এসেছি। আমি তখন প্রথম আবিস্কার করলাম আসলে এখন আর আমার কোন দেশ নাই। এখানে থাকলে ওখানকে মিস করি আবার ওখানে থাকলে এখানকে। সত্যি কথা বলতে আজকাল ভয় লাগে কিন্তু বাবা মা, ভাইবোন, ঈদ - পহেলা বৈশাখ বাদ দিলে বিদেশও একটা খুব খারাপ জায়গা না বোধ হয়।

তোমার স্বপ্নের প্রতি রইলো অনেক অনেক শুভকামনা
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

রেনেট এর ছবি

আমারও মাঝে মাঝে মনে হয় এরকম। আমরা অনেকটা ধোপার কুকুরের মত হয়ে গেছি...না ঘরের, না ঘাটের মন খারাপ
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- রেনেট, আমাদের সবার ভেতরেই প্রধানত দুই ধরণের সত্তা কাজ করে। একটা চরম বাস্তববাদী আরেকটা চরম স্বপ্নবাজ। এই দুয়ের মাঝে একটা সত্তা আছে যেটা স্বপ্নের মাঝে বাস্তবতার হালকা প্রলেপ দেয় বা দেয়ার চেষ্টায় জীবন পার করে দেয়। প্রথম দুই অংশের সংখ্যাই বেশি। খুব কম মানুষই আছে যারা তৃতীয় সত্তা সত্যিকারভাবে ধারণ করে। জীবনটা খুব ছোটরে ভাই। এই জীবনে পুরো মাত্রায় বাস্তববাদী বা পুরো মাত্রায় স্বপ্নবাজ হয়ে গেলে নিজেকে ঠকানো হয়। কী দরকার নিজেকে ঠকানোর। খুব সামান্য সময়ের এই জীবনটাকে নিজের মনমতো করে চালান। কারো কথা না, শোনেন একমাত্র নিজের কথা। কে কী বললো, হু কেয়ারস্! খুব তুচ্ছ কিছু স্বপ্ন পুরণে নাইবা শুনলেন কারো কথা। চাট্টিবাট্টি গোছান, রওনা দেন নিজের গন্তব্যে। কথা শোনানোর জন্য সবসময়ই কাউকে না কাউকে পাবেন। ঐসব ভেবে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছু করবেন না বলেই বিশ্বাস করি। আপনাকে খালি বলার জন্যই না, একেবারে ভেতর থেকেই স্যালুট জানাই।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

রেনেট এর ছবি

ধুগোদা, আপনার মন্তব্য পড়ে মন ভালো হয়ে গেল হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

একজন [অতিথি] এর ছবি

ভাই, আপনার লেখাটা পড়ে খুব ভালো লাগলো। আপনার মতো আমি ও যদি পারতাম। ভালো থাকবেন। শুভ কামনা সব সময়...

রেনেট এর ছবি

আপনার সহৃদয় মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাই।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অতিথি লেখক এর ছবি

আপনার জন্য আমার নিচের লেখাটি দিতে ইচ্ছে হল। লেখাটা অনেক দিন আগে "আমারব্লগে লিখেছিলাম: দেখুনতো ভাল লাগে কিনা?
মা আমার মা....

মা-কে নিয়ে পৃথীবির অনেক মনীষি, লেখক, কবি ও সাহিত্যকরা অনেক লেখা লিখছে, মা -কে নিয়ে লেখার সাহস আমি কোন দিন পাইনি, আজ অনেকটা সাহস নিয়ে লিখতে বসলাম। আমি জানি আমার ভাষা জ্ঞান খুবী সীমিত, মা-কে নিয়ে লেখার মত ভাষা ভান্ডার আমার নেই। তারপরও শুরু করলাম। খারাপ লাগলে, ভালো না হলে প্রিয় বন্ধুরা আমাকে ক্ষমা করবেন। প্রিয় পাঠকরা খারাপ লাগলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন বলে আশা করি।
ছোটো বেলায় একটা কবিতা খুব পড়তাম ----------
" মা কথাটি ছোট্র অতি
কিন্ত যেনো ভাই,
ইহার চেয়ে নাম যে মধুর
ত্রি-ভূবনে নাই।"
পৃথীবিতে অনেক ভাষায় অনেক সুন্দর সুন্দর নাম আছে, অনেক সুন্দর সুরের গান আছে, কিন্ত "মা" ডাকের মত এতো মিষ্টি, মধুর, সুরের মায়াজাল আর কিছুতে নেই। পৃথীবিতে অনেক সুন্দর সুন্দর রোমান্টিক গান আছে, আছে হাজারও ধরনের গান কিন্ত মা কে নিয়ে যতো গুলো গান হয়েছে তার তুলনা আমার মনে হয়না কোনটা আছে। মা কে নিয়ে অনেক গান আছে, সব আমার মনে নেই, বা সব গুলো আমার শুনার সুভাগ্য হয়নি, যে কয়টা গান আমার মনে পরে বা শুনেছি সেই গুলো একটু এখানে লিখতে চাই।

সম্প্রতি মাকে নিয়ে গাওয়া নগড় বাউলের কর্ণধার "জেমসের" গানটা কার না ভালো লাগে? যে ব্যাক্তি জেমসের ঘোর বিরোধী বা যার জেমসের গান কোন দিন ভালো লাগেনি সেও বলে উঠবেন- আহা কি অসাধারণ গান-
"দশ মাস দশ দিন ধরে গর্ভে ধারন,
কষ্টের তীব্রতা নিয়ে মাগো আমায় করেছে লালন।"
আমার মনে হয়না এই গানের পর মা- কে নিয়ে আর কিছু লিখতে হয়না। তারপরও আমরা লিখি, কারন আমরা মা-কে অনেক ভালোবাসি, সেই ভালোবাসা প্রকাশের জন্য আমরা কলম ধরি, মা-কে নিয়ে লেখার ইচ্ছা পোষন করি।
যারা মার কাছ থেকে দূরে থাকে তারা নিজের অজান্তেই গেয়ে উঠে-
"মা আমার সাধ না মিটিলো
আশা না পুরিলো,
সকলি ফুরিয়ে যায় মা।
জনমের মত ডাকিগো মা তোরে
কোলে তুলে নিতে আয় মা।"

কাছে দূরে যেখানেই থাকিনা কেনো, এই গান শুনলে কার না ভালো লাগে, বলেন? যাদের মা পৃথীবিতে নেই, তাদের পক্ষে কি চোখের জল ধরে রাখা সম্ভব? মা যে কি? যার নেই সে বুঝে। অনেক ক্লান্তির পর একবার মায়ের কোলে মাথা রাখতে পারলে আর কি ক্লান্তি থাকে , বলেন? মায়ের আচঁলে মুখ রেখে বসে থাকার মত চরম শান্তি কি পৃথীবির আর কোথাও আছে? মায়ের কোলে শুয়ে ঘুমানোর মত শান্তির নিদ্রা কি পৃথীবির কোন আভিজাত হোটেল দিতে পারবে? পারবে না। মা যে আমার শন্তির জন্য নিজের জীবনটা দিতে পারে।

তাইতো কিছু সময়ের জন্য মায়ের কাছ থেকে দূরে গেলেই আমরা গেয়ে উঠি---
"পথের ক্লান্তি ভুলে
স্নেহ ভরা কোলে তব
মাগো বলো কবে শীতল হবো,
কত দূর, আর কত দূর বলো মা।
এই যে সন্তানের আকুতি কেনো, বলতে পারেন? মায়ের চেয়ে ভালোবাসতে পারে এমন কোন জিনিষ বিধাতা পৃথীবিতে পাঠায় নি। মায়ের পায়ের নীচেই যে সন্তানের বেহেসত।
এই রকম হাজার গান আছে মা কে নিয়ে। বাংলা চলচিত্র থেকে শুরু করে পৃথীবির সমস্ত দেশের চলচিত্রে মা কে নিয়ে গানের শেষ নেই। মা কারো একা নয়, এটা যে সার্বজনীন একটা শব্দ।, একজন মা যেনো জগতের সমস্ত সন্তানের মা। মা যেনো অফুরন্ত ভালোবাসা নিয়ে পৃথীবিতে এসেছে, তার ভালোবাসা কখনো শেষ হয়না। মানুষ যখন প্রচন্ড অসুখে পরে, বিপদে পরে, মানুষের যখন খারাপ সময় যায়, মানুষ তখন নিজের অজান্তেই মা কে ডাকে। সৃষ্টিকর্তার পর মানুষ সবার আগে যে নামটি বেশি জপে তা হলো মা। মা যেনো সকল দুঃখ, কষ্টের উপশম। মাকে ডাকলেই সকল কষ্ট, ব্যাথা পরাভূত হয় মুহূর্তে। মা আমার মা তুমি থাকলে আমার কোন কিছু চাইনা। অসুখে ডাক্তার চাইনা, বিপদে তুমি ছাড়া কাউকে চাইনা, কষ্টে তুমি আমার সুখের ছোয়া মা। তোমার হাসি মাখা মুখটা আমার সমস্ত কষ্ট, দুঃখ, ব্যাথা, জরা জীর্ণতা দূর করে দেয়। তোমাকে ভালোবাসি মা। তোমাকে অনেক ভালোবাসি মা। ভালোবাসি চিরদিন।

রেনেট এর ছবি

লেখাটি চমৎকার হয়েছে। আপনার নামটা জানা হলো না।
মন্তব্য ও লেখার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

কীর্তিনাশা এর ছবি

তাড়াতাড়ি আসেন রান্টু ভাই। আপনারে লইয়া হোটেল স্টারে লেগরোস্ট খাইতে যামুনে। দেঁতো হাসি

-------------------------------
আকালের স্রোতে ভেসে চলি নিশাচর।

-------------------------------
আকালের স্রোতে ভেসে চলি নিশাচর।

রেনেট এর ছবি

না গেলে কৈলাম খবরাছে!
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

যার যা খুশি বলুক, আপনি তো জানেন আপনি কেন আসতেসেন, সেইটাই অনেক। বেশি না ভেবে, স্রেফ চলে আসেন। হাসি

রেনেট এর ছবি

আসতেসি...চিন্তায়েন না...আমার জন্য চাকরি বাকরি দেখতে থাকেন এই ফাঁকে হাসি
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

বিপ্রতীপ (অফলাইনে) এর ছবি

রেনেট ভাই,
এই পোস্টের জন্য আপনাকে স্যালুট জানিয়ে গেলাম... চলুক

রেনেট এর ছবি

স্যালুটের কি আছে রে ভাই। ভালো থেকো।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

রানা মেহের এর ছবি

রেনেট
সিদ্ধান্ত যদি বদলাতে হয় কখনো
তাও ভেঙে পড়বেন না

মঙ্গল হোক
-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

রেনেট এর ছবি

রানাপু, আপনার মন্তব্য পড়ে আমি কনফিউজড হয়ে গেলাম...আমাকে আপনি আপনি করে বলেন?
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

সবজান্তা এর ছবি

আরে আপনি বোধহয় জানেন না, রানা ভাইয়াতো বয়সে আমাদের সবারই ছোট দেঁতো হাসি উনার বয়স তো বায়ো কী তেয়ো দেঁতো হাসি

তাই না রানা আপু ?


অলমিতি বিস্তারেণ

s-s এর ছবি

নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নেবার আনন্দই আলাদা, সেটায় আপনার জয় হোক, এই কামনা করি। কিন্তু বিদেশে সবাই স্বার্থের জন্য থাকেননা, নিজের পছন্দে ও সিদ্ধান্তেও থাকেন, এবং পরিপূর্ণতা নিয়েই থাকেন। ভৌগলিক সীমারেখার দূরত্ব দিয়ে আজকাল কিছু মাপা আসলে কঠিন হয়ে যাচ্ছে তাইনা? ভালো থাকুন।

রেনেট এর ছবি

যারা থেকে যাচ্ছে, তাদের প্রতি আমার কোন অভিযোগ/ কটাক্ষ নেই। মূল লেখাতে বিষয়টি পরিস্কার হয়নি।
পড়ার ও মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

প্রবাসিনী এর ছবি

আপনার লেখা পড়ে খুবই ভাল লাগলো। আমিও দেশে ফিরে যেতে চাই, জানি না পারবো কি না।
________________________________________________

হইয়া আমি দেশান্তরী, দেশ-বিদেশে ভিড়াই তরী রে

________________________________________________

হইয়া আমি দেশান্তরী, দেশ-বিদেশে ভিড়াই তরী রে

রেনেট এর ছবি

আমার আত্মকথন কেউ পড়বে, ভাবিনি। পড়ার ও মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

হ্যারি এর ছবি

আপনার লেখাটা পড়ে বেশ মজা পাইলাম। ইমোশন মাপার যন্ত্র থাকলে আমি মোটামুটি সিওর আপনার ইমোশনটা সর্বোচ্চের ঠিক কাছাকাছি থাকতো।
খুব ভালো...খুব ভালো...। অবশ্যই খুব ভালো...। আপনাদের খুজছে এই বাংলা। স্বাগতম আপনাকে।
তবে এখন ঢাকাকে চিনতে পারবেন কিনা সন্দেহ!!!!!!
হয়ত, ভবিষ্যতে হয়ত বলবেন- "মা, চল তোমাকে আমেরিকা নিয়া যাই।" ভাগ্নিকে হয়ত বলবেন-"মা, ভাল করে পড়ালেখা কর, এরপর আমেরিকায় আমার কাছে চলে আস।"

অতিথি

রেনেট এর ছবি

হাহাহা...আপনার কমেন্ট পড়েও আমি দারুন মজা পেলাম। আপনি হয়তো সত্যিই বলেছেন।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

দ্রোহী-স্বপ্নেরা এর ছবি

MS শেষ করে দেশে ফিরেছি প্রায় দেড় মাস আগে। এখনো কোথাও যুক্ত হওয়ার সুযোগ পাইনি। বেশ কিছুদিন ধরে ভাবছিলাম কেনো ফিরলাম,কেনো বিদেশে অন্য কিছু একটা খুঁজে নিলাম না। আজ কারণটা খুঁজে পেলাম- আমার মা, আমার ভাগ্নে।

ধন্যবাদ দারুণ লেখাটির জন্য হাসি

jamalraja এর ছবি

ভাই সালাম নিবেন , এখন কেমন আছেন জানালে খুশী হতাম, আমিও আসছি ইনশাআল্লাহ,

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA