জীবন-মরণ খেলার কৌশল

ফাহিম হাসান এর ছবি
লিখেছেন ফাহিম হাসান (তারিখ: রবি, ২৭/০২/২০১১ - ৯:১৮পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আমেজ সবখানে। ব্লগ উপচে পড়ছে বাংলদেশের জয়ের আবেগে। আমি খেলা ভালো বুঝি না। বন্ধুরা যখন তুমুল তর্কে ব্যস্ত, আমি তখন দুই দিকেই মাথা নাড়ি। সাধারণ জ্ঞানে এইটুকু বুঝি - যে কোন খেলাতেই জিততে হলে কৌশলী হতে হয়। দুই পক্ষের মাঝে সামর্থ্যের তারতম্য থাকতেই পারে, কিন্তু সঠিক সময়ে নেওয়া সঠিক সিদ্ধান্ত, কূট বুদ্ধির যথাযথ প্রয়োগ অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলকেও জিতিয়ে দিতে পারে।

এই পোস্টটা মূলত এই সব কৌশলী ছোট দল নিয়েই।

দুনিয়াটা এমনিতেই খুব খারাপ জায়গা। প্রচুর গিয়ানজাম। এ ওরে খায়। সে তারে খায়। কামড়াকামড়ি চলছেই। শিকারীর অভাব নেই। শিকারের প্রাণে বাঁচা দায়। প্রাণিজগতের খাদ্যজাল তাই জটিল ও বহুমুখী। খুব কৌশলী না হলে সটান অন্য কারো পেটে চলে যেতে হবে। জান বাঁচাতে চাই অস্ত্র, যা হয়তোবা শিকারের কাজেও লাগতে পারে। সিংহের থাবা, চিতার ক্ষিপ্রগতি, চিলের তীক্ষ্ণ নজর ও নখর - কী চমৎকার সব হাতিয়ার!

কিন্তু এরা তো সব উপরতলার বাসিন্দা (মানে খাদ্য-পিরমিডের উপরে থাকে আর কি!)। ব্রাত্যজনের কী উপায়? ছোট ছোট সরীসৃপ, ডানা মেলা প্রজাপতি অথবা বাবুরাম সাপুড়ের সাপটা (যার বিষ নেই, ঢুঁস-ঢাসও মারে না) কিভাবে বাঁচাবে নিজেদেরকে?

আসেন দু’একটা নমুনা দেখি।

১। Common Tiger (Danaus genutia)

এই প্রজাপতিটা বাংলাদেশের সর্বত্র দেখতে পাওয়া যায় । এদের ডোরাকাটা পাখা সহজেই নজর কাড়ে। এই ডোরা দাগেই লুকিয়ে আছে সংকেত - ওরে, ভুলেও আমার কাছে আসিস নে! কারণ আমাকে খেলে তোমার পেটে বদ হজম হবে।

Common Tiger

আসলেই হবে। কারণ এই প্রজাতির শুঁয়োপোকা ও পূর্ণবয়স্ক প্রজাপতি উভয়ই বিষ নিঃসরণ করে। তাই পাখি বা গিরগিটির কাছে এরা নিজেকে “একেবারে অখাদ্য” বলে প্রমাণ করতে চায়।

এই ভাবে রঙের মাধ্যমে সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ দেওয়াকে বলে Aposematism (apo মানে দূরে, sematic মানে সংকেত)

২। Green Fan-throated Lizard (Ptyctolaemus gularis)

সাধারণত ঘন বর্ষাবনে (rain forest) এদের বাস। সহজে দেখা মিলে না (uncommon)। এরা তক্ষকের মত ডাকতে পারে না। শত্রু এলে তাই চট করে গলার নিচে সবুজ পাখার মত থলিটা বের করে দেয়। তখন এদের দেখতে ভয়ংকর লাগে (অন্তত এদের শিকারীর কাছে)। এভাবে ভয় দেখিয়ে বিপদ তাড়ায় তারা। এই ছবিটা তুলতে আমাকে ধৈর্য ধরে অনেকক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়েছিল। আমি তার পাখাসহ ছবি নিতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু সে ছিল গাছের ডালে চুপচাপ বসে। এক পর্যায়ে আমি পা দিয়ে মাটিতে আলতো শব্দ করলাম। সাথে সাথে সতর্ক হয়ে পাখা মেলে দিল। আর আমি করলাম ক্লিক।

Green Fan-throated Lizard (Ptyctolaemus gularis)

Green Fan-throated Lizard

৩। তক্ষক (Gekko sp.)

এই তক্ষকদের গায়ের রঙ এমন যে এদের খালি চোখে খুঁজে পাওয়া মুশকিল। গাছের গুঁড়ি বা ডালের মাঝে লুকিয়ে থাকে নিখুঁতভাবে। এই ক্যামোফ্লাজের জন্য শিকারীরা এদের সহজে দেখতে পারে না। খাওয়া তো দূরের কথা।

এই ছবিটা দেখুন - গায়ের রঙ কী চমৎকার ভাবে মিশে আছে গাছের ডালের সাথে। ৩০০মিমি লেন্স দিয়ে ক্লোজ-আপ তোলা বলে লেজটা বোঝা যাচ্ছে, নাহলে তাও যেত না। ফ্ল্যাশ মারতেই সব ফকফকা!

Gekko camouflage

Gekko camouflage 2

ন্যাশনাল জিওগ্রাফি বা অ্যানিমেল প্প্ল্যানেটে আমরা বাঘ-সিংহ-কুমীর-চিতার শিকার দৃশ্য দেখে শিহরিত হই। অথচ আমাদের চারপাশেই প্রতিনিয়ত চলছে শিকার-শিকারীর দ্বৈরথ, যা আমাদের চোখ এড়িয়ে যায়। আসুন সবাই মিলে এদের আবাসস্থল রক্ষা করি। বেশি করে গাছ লাগাই। বন সংরক্ষণ-ই এদের টিকিয়ে রাখবে।

কেননা এরা শিকারী প্রাণীদের হাত থেকে বাঁচার কৌশল রপ্ত করছে ঠিকই, কিন্তু মানুষের হাত থেকে বাঁচার উপায়?

Indiscriminate Logging


মন্তব্য

অতিথি লেখক এর ছবি

দুর্দান্ত বস ছবিগুলো। গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু

-অতীত

ফাহিম হাসান এর ছবি

ঘ্যাচাং

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। লজ্জা পেলাম। কুর্নিশ নয়, কোলাকুলি করি কোলাকুলি

অতিথি লেখক এর ছবি

প্রজাপতির ছবি আর তথ্য খুব ভালো লাগলো। একেই বলে ভয়ঙ্কর সুন্দর! যথারীতি গিরগিটি টিকিটিকির ছবি বাদ দিয়ে দেখেছি।

মানুষের হাত থেকে আসলেই এদের মুক্তি নাই। খুব ভালো পোস্ট। -রু

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ।

আমি মাকড়শা খুব ভয় পাই। খুবই। কিন্তু ছবি তোলার সময় ভিউফাইন্ডারে তাকালেই সব ঠিক।

সাফি এর ছবি

পাখা খোলা অবস্থার ছবি অসাধারণ হয়েছে, বাকিগুলো সুন্দর সাথে বর্ণনাও... আপনার গিয়ারের একটা বর্ণনা দিয়েন পারলে

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।

গিয়ারের বর্ণনা-

* Canon EOS 40D
* Canon EF 70-300mm f/4-5.6 IS USM
* Canon EF 300mm f/4 L
* Canon EF-s 18-55mm IS
* Canon 430EX speedlite
* Tripod

দ্রোহী এর ছবি

প্রো-লোকজন ক্যানন কেন ব্যবহার করে বলতে পারেন?

ফাহিম হাসান এর ছবি

ক্যানন এর L series লেন্স ওয়াইল্ড লাইফের জন্য খুব ভালো সাপোর্ট দেয়। দ্রুত ফোকাস আর শার্প ছবি পেতে এর জুড়ি মেলা ভার। এছাড়া মাঝারী শ্রেণীর canon EOS 7D এর রেজাল্ট দেখলে টাশকি লাগতে বাধ্য।

তবে আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি (যদিও আমি প্রো না) প্রো লেভেলে চলে গেলে ক্যানন-নাইকন ব্যাপার না। আসলেই না। তাই বলে আবার সিগমা-সনি-অলিম্পাস-স্যামসাং এ গেলে চলবে না। ওয়াইল্ড লাইফের জন্য নাইকন বা ক্যানন। অন্য কাজের জন্য 35mm তে একটা থ্রেশ হোল্ডের পর সবই কমবেশি এক।

যুধিষ্ঠির এর ছবি

প্রো লোকজন ক্যানন ব্যবহার করেন এই ধারণাটা ঠিক না। কোন একটা কারণে বাংলাদেশে উঁচুমানের ফটোগ্রাফারদের মধ্যে ক্যাননের ব্যবহারকারী বেশি। কিন্তু তার বাইরে নাইকন ব্যবহারকারী প্রো-এর সংখ্যা অনেক, এবং সেটা ক্যাননের সংখ্যার থেকে খুব একটা অন্যরকম না। এই তথ্যটা কোন কারণে অনেকেই জানেন না। ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক-এর অসংখ্য ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফার নাইকন ব্যবহার করেন। সাইণ্টিফিক্যালি বা স্ট্যাটিসটিক্যালি ক্যানন এবং নাইকনের মধ্যে এখন পর্যন্ত কোন ক্লিয়ার উইনার নাই, সেটা প্রো বলেন আর অ্যামেচার বলেন। পুরাটাই ব্যক্তিগত বা গোষ্ঠীগত মতবাদের উপরে চলে।

ক্যানন আর নাইকন একসঙ্গে এসএলআর মার্কেটের ৭০-৮০ ভাগ দখল করে আছে - এবং সেটা এই দুই ব্র্যাণ্ডের মধ্যে মোটামুটি ৫০-৫০ ভাগাভাগি। এইসঙ্গে এইটাও বলি, আমি নিজের চোখেই অসংখ্য প্রো-ফটোগ্রাফার দেখসি যারা সনি আর অলিম্পাস দিয়ে ছবি তুলেন। দিন শেষে কি প্রডিউস করলেন আপনি, সেটাই মুখ্য বিষয়।

যুধিষ্ঠির এর ছবি

ঘ্যাচাং। ভুল জায়গায় পোস্ট হয়েছিলো।

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

খুব ভাল্লাগলো। চলুক

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধইন্যা আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

আপনার ফ্যান হইলাম আবারো

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

ফাহিম হাসান এর ছবি

কী যে বলেন! লইজ্জা লাগে

পরের বইমেলায় দেশে থাকব আশা করি। তখন আপনার সাথে কম্পিটিশানে বই কিনবো।

দ্রোহী এর ছবি

আপনি দেখি অ্যাটেনবরোর ভাত মারার তালে আছেন। হাসি

মুগ্ধ হলাম। ভক্ত হলাম।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। অ্যাটেন গুরুর অ্যাসিস্ট্যান্ট হওয়ারও যোগ্যতা নাই।

আপনার হিউমারের আমি একজন ভক্ত।

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি

ফাহিম ভাই,
তাক লাগায়া দিলেন।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। সবুজ ভাই, আসেন দেশটারে আরেকটু সবুজ বানাই।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

উফফ!! আবারো দারুণ! হাসি
আচ্ছা, কমন টাইগার প্রজাপতির শুঁয়োপোকাগুলোই কি কালো রঙের উপরে দারুণ রঙিন ডোরাকাটা হয়? আমাদের বাড়ির ঘাসফুলের ঘাসে থাকতে দেখতাম আগে, মনে হয় বর্ষায়। অনেকদিন দেখি নাই, এবার দেখলে ছবি তুলে রাখবো।

অট: ইয়ে, সিগ্নেচারটা হালকা করার ব্যাপারে কিছু করা যায় না? পিকাসা ট্রাই করে দেখতে পারেন।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ভাইয়া, সিগ্নেচার একটু নিয়ে বিপদে আছি। আপনার কথামত গিম্প ব্যবহার করছি। পুরানো ছবি (যেমন: লিজার্ড ২, ৩) আগে ফ্লিকারে আপলোড করা ছিল। সেখান থেকে এম্বেড করে দিলাম। শেষ তিনটা ছবিতে নতুন করে সিগ্নেচার দিলাম। এগুলোও কি চোখে লাগছে? আর এম্নিতেও যাতে পত্রিকার লোকজন যাতে ব্যবহার করতে না পারে তাই একটু পুরুষ্টু করে দিতে চাই। ( একটা বুদ্ধি দেন তো - ওয়াটার মার্ক করলে কেমন হয়? )

কমন টাইগার প্রজাপতির শুঁয়োপোকাগুলোই কি কালো রঙের উপরে দারুণ রঙিন ডোরাকাটা হয়?

ছবি তুলে আপলোড করলে আইডি করার চেষ্টা করা যায়। যদিও হাতের কাছে বইপত্র নেই।

অ-নে-ক ধন্যবাদ

কিংকর্তব্যবিমূঢ় এর ছবি

ফাস্টস্টোন ফটো রিসাইজার ব্যবহার করতে পারেন ... ফ্রী, লাইটওয়েট, ইউজার ফ্রেন্ডলি ... ব্যাচে ফেলে একসাথে সব ছবি রিসাইজ করতে পারবেন বা বর্ডার, কপিরাইট মার্ক বা ওয়াটারমার্ক দিতে পারবেন ...

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। চেষ্টা করে দেখবো।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আমি মনে হয় পিকাসার কথাই বলেছিলাম। গিম্প আমি ব্যবহার করিনি। হাসি
আমি তো ফটোশপ পারি না, চটজলদি কাজ সারার বান্দা। পিকাসায় সব ধরে ওয়াটারমার্ক, সিগ্নেচারের সাইজ, ফন্ট, ঝাপসা-গাঢ় সবই করা যায়, ওই দিয়ে কাজ সেরে দেই।

আপনার লিঙ্কে শুঁয়োপোকার একটা ছবি আছে, আমি যেগুলো দেখেছি সেগুলোর গায়ে আরো রঙ্গিন ডোরা থাকে। এর পরে ছবি তোলার চেষ্টা করবো।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ঘ্যাচাং

ফাহিম হাসান এর ছবি

ওহ হো, সাইফ ভাই বলেছিলেন গিম্প ব্যবহারের কথা। আমার কাছে গিম্প পিকাসার চেয়ে ভালো লেগেছে কারণ আলাদা লেয়ার নিয়ে কাজ করা যায়। তবে ছবি দেখার জন্য বা ছোট-খাটো কাজের জন্য পিকাসার জুড়ি নেই।

আমি আসলে সম্পাদনায় খুব কাঁচা। শেষ দুই বছরে RAW তে ছবি তুলেছি। এখন এডিট করতে জন বেরিয়ে যাচ্ছে।

আপনার নিক তো যাযাবর, খুব ঘুরেন নিশ্চয়? ছবি তুলে পোস্ট দেন শিগগিরি।

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

চমেৎকার! অতি চমেৎকার!! হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধইন্যা। অনেক অনেক ধইন্যা। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

rahil_rohan এর ছবি

জিনিআস হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ঘ্যাচাং

ফাহিম হাসান এর ছবি

আরে না রে ভাই। আসল খেলোয়াড় যার ছবি তুলসি সে।

যুধিষ্ঠির এর ছবি

চমৎকার ছবি। খুব ভালো লাগলো।

একটা-দু'টা কৌতুহল আছে। ২ নম্বরের ছবিদুটোতে ব্যাকগ্রাউণ্ডটা কিভাবে এনেছেন? মানে জানতে চাইছি, ফোরগ্রাউণ্ড আর ব্যাকগ্রাউণ্ডে আলোর যে পার্থক্য সেটা কি ক্যামেরা থেকে সরাসরি এসেছে? কি রকম মিটারিং বা সেটআপ ব্যবহার করেছেন? ফ্ল্যাশ ব্যবহার করেছেন? কোন তার সঙ্গে কোন পোস্টপ্রসেসিং?

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ ভাইয়া।

ফিল ইন ফ্ল্যাশ ব্যবহার করে অ্যাপারচার ফুটা বাড়ায় দিয়েছি। মিটারিং সবসময় সেন্টার রাখি। কোন পোস্ট প্রসেসিং নাই (সিগ্নেচার ছাড়া)।

উদ্ভ্রান্ত পথিক এর ছবি

-ছবি দেইখা লগাইতে বাধ্য হইলাম! ওয়াইল্ড লাইফে আপনার হাত চমৎকার।
-আমি সামনে ৬০ডি কিনবো ভাবতেছি।
-300mm/4L এর পারফরমেন্স নাকি মারাত্নক? এইখানে কোনটা তোলা এই লেন্স দিয়ে?

---------------------
আমার ফ্লিকার

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ। Canon 60D এর থেকে বোধ হয় 7D আরো ভাল হবে। তাছাড়া 60D ওয়েদার সিল্ড না।

শেষ তিনটা ছবি ৩০০মিমি দিয়ে তোলা। ফাটানো লেন্স।

অতিথি লেখক এর ছবি

চমৎকার হয়েছে। ফাহিম ভাইকে ধন্যবাদ।

কিন্তু একটা জিনিস দেখে খারাপ লাগলো, সবাই চমৎকার বলছে কিন্তু এদের রক্ষা কেমন করে করা যাবে বা আমাদের করনীয় কি তা নিয়ে কেউ আলাপ করল না ( আমি সব গুলো পরে দেখি নাই, যদি কেউ করে থাকেন তাহলে আমাকে মাপ করবেন)।

বন রক্ষা করলে এরা বাঁচবে, কিন্তু আমরা বন কি করে রক্ষা করব? এই বিষয় নিয়ে আলোচনা হবার দরকার মনে করছি।

------ সৌম্য

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ সৌম্য ভাই।

বনরক্ষা করা আসলে খুব কঠিন কিছু না। সংক্ষেপে - গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে এবং দেশী গছ লাগাতে হবে। পর্যটকদের সচেতন করতে হবে যাতে বন নোংরা না করে। সেই সাথে অবৈধ শিকার বন্ধ করা প্রয়োজন।

এ নিয়ে বিস্তারিত পোস্ট দেওয়ার আশা রাখি। আপনার মতামত জানালে খুশি হব।

অতিথি লেখক এর ছবি

ফাহিম ভাই, বন ধ্বংস এর প্রধান কারন হলো গাছ কাটা। গাছ কাটার সাথে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার সর্ম্পক রয়েছে বলে মনে করি। তা ছাড়া মানুষের ভোগের চাহিদা এর সাথে সর্ম্পকীত। সুতরাং বিষয়টিকে খুব সরল ভাবে দেখার অবকাশ নাই মনে হয়।

বিষয়টি নিয়ে আরও আলোচনা ও লেখালেখির দাবি করছি।

---- সৌম্য
_____________________________________________________

প্রকৃতি বাঁচলে বাপের নাম।

হিমু এর ছবি
ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ।

Aposematism, rainforest, landscape এগুলো প্রায়শ ব্যবহার করতে হয়। ভালো বাংলা করা যায় না?

উইকিতে rainforest এর বাংলা পেলাম না। কিন্তু বর্ষাবন কথাটা ভালো লেগেছে। তাই এটাই ব্যবহার করলাম।

landscape এর বাংলা কি তটচিত্র হতে পারে? (বড় খটমট শোনাচ্ছে)

তিথীডোর এর ছবি

গুল্লি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

ফাহিম হাসান এর ছবি
মানিক চন্দ্র দাস এর ছবি

অসহ্য !!!! এত্তো সুন্দর ছবি কেমনে তোলেন মিয়া?? খেলুম না।
গুরু গুরু

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। না খেললে কিভাবে হবে? আসেন সবাই মিলে বন বাঁচাই।

রোমেল চৌধুরী এর ছবি

অসাধারণ পোষ্টের জন্য ধন্যবাদ। খাদ্য ও খাদকের চক্র সম্পর্কে প্রথম জ্ঞানলাভ করি জীবনানন্দের 'বিভা' উপন্যাস হতে। বোধকরি অনেকেই পড়েছেন, যারা পড়েন নি, পড়ে দেখতে পারেন, ভালো লাগবে।

------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
আমি এক গভীরভাবে অচল মানুষ
হয়তো এই নবীন শতাব্দীতে
নক্ষত্রের নিচে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনাকেও ধন্যবাদ। বিভা পড়া হয়নি। হাতের কছেও নেই। পড়ব সময় করে।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

দারুণ কাজ, ফাহিম। চালিয়ে যাও।

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনাদের উৎসাহে ভরসা পাই, ভালো লাগে খুব।

নিশু এর ছবি

ফাহিম, খুব সুন্দর এসেছে ছবিগুলো।অনেক ধন্যবাদ।অনেক কিছু জানলাম। আরো লেখা চাই।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। চেষ্টা করবো আরো লিখতে।

রণদীপম বসু এর ছবি

দুর্দান্ত ছবিগুলা দেখে মনে হলো এইবার আমার ক্যানন এডভান্সড পাওয়ার শট-টাকে আছাড় দেবার দিন-তারিখটা ঠিক করে ফেলতে হবে !

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

ফাহিম হাসান এর ছবি

রণদা, আমি কিন্তু আপনার দুই মেগাপিক্সেল আগ্রহ নিয়ে পড়েছি। আলোকচিত্রে ভালো ক্যামেরা থাকাটা বাড়তি পাওনা, কিন্তু না থাকলে সেই সীমাবদ্ধতা অনেক সময় স্বকীয় চিন্তার সুযোগ তৈরী করে।

কাজেই আসুন একসাথে ছবি তুলি, ছবিতে মনের কথা তুলে ধরি।

আপনার মন্তব্য থেকেই পরের পোস্টের কথা মাথায় এলো। সেজন্য ধন্যবাদ।

জোহরা ফেরদৌসী এর ছবি

এরা শিকারী প্রাণীদের হাত থেকে বাঁচার কৌশল রপ্ত করছে ঠিকই, কিন্তু মানুষের হাত থেকে বাঁচার উপায়?

গুরুত্বপূর্ণ লেখাটিতে পাঁচ তারা । আমাদের স্বার্থেই জীব বৈচিত্রকে বাঁচিয়ে রাখা জরুরী ।

অ. ট. আপনার ছবি তোলার হাত দারুন ।

__________________________________________
জয় হোক মানবতার ।। জয় হোক জাগ্রত জনতার

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আমাদের স্বার্থেই জীব বৈচিত্রকে বাঁচিয়ে রাখা জরুরী ।

ঠিক এই কথাটাই বলতে চাই।

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

আপনার ছবির হাত চমৎকার- একথা সকলেই নিশ্চয় আগে বলেছে। আমি কিন্তু আপনার লেখারও দারুণ ভক্ত। আপনার শিরোনাম আর বর্ণনার প্রথমাংশ দেখে আঁচ করা যায় না আপনার ছবির বিষয়বস্তু কী হবে...

পাঁচতারা, যথারীতি।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। আসলে গাছপালা, পশুপাখি নিয়ে বেশি কথা বলতে শুরু করলে আমার বন্ধুরা মুখ চেপে ধরে, কেউ হাই তুলে। কাহাতক একই কথা শোনা যায়! তাই চেষ্টা করি একটু অন্যভাবে লিখতে যাতে আগ্রহটুকু থাকে।

আপনার ভালো লেগেছে জেনে খুশি হলাম খুব।

ফাহিম হাসান এর ছবি

কোথাকার মন্তব্য কই যায়??

ঘ্যাচাং

আনন্দী কল্যাণ এর ছবি

আপনার ফটোগ্রাফির সাথে সমসাময়িক কে মেলানোর কায়দাটা ভারি পছন্দ আমার।
চমৎকার হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। আপনাদের মন্তব্যে অনুপ্রাণিত হই।

নাশতারান এর ছবি

আবারো রাপুখাপাং

এখানে মন্তব্য করতেই লগইন করলাম। আপনার দেখার চোখ দারুন!

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

ফাহিম হাসান এর ছবি

দবান্যধ ! হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

কৌস্তুভ ভাই, দেরী করে উত্তর দেওয়ার জন্য দুঃখিত। দ্রোহীদা ঠিক বলেছেন তক্ষক হল gekko। ঐ যে রাতে টক টক করে ডাকে। গ্রামে গেলে বাঁশবনের কাছাকাছি বাসাগুলোতেও দেখতে পেতে পারেন।

কৌস্তুভ এর ছবি

দূরে গিয়া মরেন মিয়া! আপনার ছবি দেখে হাঁ করে থাকতে থাকতে গালে ব্যাথা হই যায়!

তক্ষক তো একরকমের সাপের নাম বলে জানতাম। গিরগিটির এই ভাইবোনদেরও বলে নাকি?

দ্রোহী এর ছবি

উঁহু, তক্ষক সাপ না। তক্ষক = gekko

কৌস্তুভ এর ছবি

ফাহিম ভাইয়ের কমেন্ট দেখি উর্ধগামী হয়েছে। যাহোক, তক্ষক একরকম সাপ এটাও দেখছি খুব ভুল বলিনি। তাও যে-সে রকম সাপ নয়, একজন মহা মাননীয় সাপ। ইনি পুরাণোল্লিখিত অষ্টসাপের একজন প্রধান সাপ। অর্জুনের পৌত্র পরীক্ষিৎ এনার হাতে, থুড়ি, দাঁতে পড়েই এই জালিম দুনিয়া থেকে মুক্তি পান। লিঙ্ক

ফাহিম হাসান এর ছবি

এটা জানতাম না। অনেক ধন্যবাদ।

ফাহিম হাসান এর ছবি

নগদে আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

অতিথি সন্ধ্যা এর ছবি

বিমুগ্ধকর সব ছবি হাততালি

বনরক্ষা করা আসলে খুব কঠিন কিছু না। সংক্ষেপে - গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে এবং দেশী গছ লাগাতে হবে। পর্যটকদের সচেতন করতে হবে যাতে বন নোংরা না করে। সেই সাথে অবৈধ শিকার বন্ধ করা প্রয়োজন।

এর মধ্যে দেশী গাছ লাগানোর কাজটা সবচেয়ে সহজ, প্রত্যেকে ব্যক্তিগতভাবে নিজেদের আশেপাশে দেশী গাছ লাগাতে পারি আর দেশটাকে করতে পারি আরও সবুজ হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ঠিক বলেছেন। বট-পাকুড়ের মত গাছ হারিয়ে যাচ্ছে। কষ্ট হয় খুব।

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

নগদে পাঁচ।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ শুভাশীষদা। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

guest_writer এর ছবি

গাছ কাটা বন্ধ করছে বলেছেন। এ্যাহ এত্ত সোজা? পরিবেশ রক্ষা কমিটি গলদঘর্ম হচ্ছে গাছ কাটা ঠেকাতে গিয়ে আর আমিতো কোন ছার। লেখাটা মনে দাগ কেটেছে, সাথে চমৎকার ছবিগুলো সত্যিই অসাধারন।ধন্যবাদ, আশাকরছি এরকম পোষ্ট আরও পাব।

ফাহিম হাসান এর ছবি

গাছ কাটা বন্ধ করা কঠিন। কিন্তু সম্ভব। কঠোর আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে হয়ত সম্পূর্ণ রোধ করা যাবে না, কিন্তু কমিয়ে আনা যাবে নিশ্চিত। বন বাঁচাতে আসলে সচেতনতার বিকল্প নেই।

উৎসাহ দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

কল্যাণF এর ছবি

গুল্লি

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।