উইকিনামা - ২ : উইকি-রাজনীতির রকমফের

রাগিব এর ছবি
লিখেছেন রাগিব (তারিখ: বুধ, ২৬/১০/২০১১ - ১০:০২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


উইকিপিডিয়ার নানা নিবন্ধের লেখা নিয়ে খাপ্পা, এমন মানুষের সংখ্যা কম নয় বটে। "অমুক নিবন্ধে তমুক নাই কেনো?", "তমুক রাজনীতিবিদকে চোর বলা হয়েছে কেনো?", "সমুক ব্যাটার যুদ্ধাপরাধ উল্লেখ করা হয়েছে কেনো?" -- এমন অভিযোগ আছে অনেকেরই, আর সেজন্য উইকিপিডিয়ার কর্তৃপক্ষের গদিতে আগুন জ্বালাতে তারা পারলে এখনই রওনা দিতে প্রস্তুত। কেউ কেউ আবার এক কাঠি এগিয়ে, বাংলাদেশের এক কুখ্যাত রাজাকার তার জীবনী নিবন্ধে তাকে রাজাকার বলা হয়েছে কেনো, এই নিয়ে উকিল নোটিশ পর্যন্ত পাঠিয়েছিলেন সরাসরি উইকিপিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা জিমি ওয়েল্সের নামে!!

তা, উইকিপিডিয়ার "কর্তৃপক্ষটা" কে? বেচারা জিমিকে উকিল নোটিশ পাঠিয়ে খুব একটা ফায়দা হবে কি?

এই প্রশ্নের জবাবটা বেশ ইন্টারেস্টিং। উইকিপিডিয়ার কর্তৃপক্ষ টাইপের কিছু আসলে সেরকম নেই। আদৌই।

খোলাসা করে বলি, উইকিপিডিয়ার সার্ভারগুলো আর দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার ভার রয়েছে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন নামের একটা নন-প্রফিট সংস্থার হাতে। এর সদরদপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিস্কোতে। (সেখানেই রাজাকারটির উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছিলো!!)। আর উইকিপিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা জিমি ওয়েল্স এই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এমেরিটাস পদে আছেন। তবে খুব অল্প কিছু বিষয় বাদে (যেমন, চাইল্ড পর্ন, ব্যক্তি আক্রমণ) আর কোনো ক্ষেত্রে ফাউন্ডেশন বা জিমি ওয়েল্সের কোনো হাত নেই উইকিপিডিয়ার কোনো নিবন্ধে। খোদ জিমি ওয়েল্সের উইকি-জীবনী নিবন্ধেই তার নামে একগাদা সমালোচনা রয়েছে (রেফারেন্স সমেত)। (আর উইকিতে কী লেখা হচ্ছে, তার দায় দায়িত্ব মার্কিন আইন অনুসারে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের না, সে দায়টা যে লেখা যোগ করবে, তার।)

তাহলে উইকিপিডিয়ার লেখা কী হবে, সেটা চালায় কে?

ঢাল নেই তলোয়ার নেই, নিধিরাম প্রশাসক


উইকিপিডিয়ার সম্পাদকেরা? মানে নিবন্ধিত লেখকেরা? তাহলে দেখা যাক নিবন্ধিত লেখকদের রকমফের। উইকিপিডিয়ার কিছু নির্ভরযোগ্য এবং মোটের উপরে নিরপেক্ষ ইউজারকে বেশ খুঁটিনাটি দেখা একটি ভোটের প্রক্রিয়া পেরিয়ে "প্রশাসক" পদে উন্নীত করা হয়। এই প্রশাসকেরা কিন্তু আবার বাংলাদেশের জেলা প্রশাসক বা এমপি মার্কা নন ... নামে প্রশাসক হলেও কামে এরা কিন্তু খুব সুনির্দিষ্ট কিছু ক্ষমতা রাখেন। কাগজে কলমে প্রশাসকদের ক্ষমতার মধ্যে আছে, নিবন্ধ মুছে ফেলা, বেয়াড়া ইউজারকে ব্যান করা, কিংবা খুব বেশি ভ্যান্ডালাইজ হয় এমন পাতাকে সুরক্ষিত করে রাখা। কিন্তু প্রতিটা কাজের লগ হলো পাবলিক, আর প্রতিটা ক্ষেত্রেই প্রশাসনিক অ্যাকশনের জবাবদিহি করতে এই প্রশাসকেরা বাধ্য। কাজেই নিজের ইচ্ছামতো কোনো মতামত উইকিতে ঢোকানোর এখতিয়ার এদেরও নেই, বরং এরকম ধান্ধা করতে গিয়ে অনেকেই নানা সময়ে প্রশাসকের গদি হারিয়ে ফেলেছে। প্রশাসকদের কাজকে বড়োজোর ঝাড়ুদারের সাথে তুলনা করা যেতে পারে, উইকি থেকে আবর্জনা, জঞ্জাল এসব দূর করাই তাদের কাজ, নিদেনপক্ষে দুই ইউজারের ঝগড়া মেটাতে প্রশাসকেরা কড়াভাবে নিয়ম মেনে তাদের ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারেন, এই যা।

ঝগড়া, চুলাচুলি, এবং অতঃপর

প্রতিষ্ঠাতাও চালাননা, প্রশাসকেরাও না, তবে উইকিপিডিয়ার কোন নিবন্ধে কী থাকবে, তা নির্ধারিত হয় কীভাবে? এইখানেই হলো ইন্টারেস্টিং ব্যাপার, উইকিপিডিয়ার নানা নিবন্ধের লেখা কেমন হবে তা কিছু নীতিমালা এবং উইকির লেখকদের ঐক্যমতের ভিত্তিতে নির্ধারিত হয়ে থাকে। গত পোস্টের কমেন্টেই বলেছিলাম, উইকিতে লেখা যোগ যে কেউ করতে পারে, তবে নিয়ম না মানলে সেই লেখা টিকে থাকবে না। নিয়মগুলোর সংখ্যা অল্পই, আর তা হলো, প্রতিটা কথার রেফারেন্স নির্ভরযোগ্য তথ্যসূত্র থেকে চাহিবা মাত্র দিতে বাধ্য থাকতে হবে, আর লেখাকে লিখতে হবে নিরপেক্ষভাবে। যেমন, "হাবুল ব্যাটা চোর, তার মতো ভয়ানক দুইনম্বর মানুষ আর হয়না" টাইপের কথা লেখা চলেনা, বরং লেখা চলে, "অমুক সূত্রে উল্লেখ করা হয়েছে যে, হাবুল একজন চোর", ব্য্স। মানে উইকিতে কথা বলতে হলে নিজের বরাতে বলা যাবে না, বরং সূত্রের উল্লেখ রেখে নানা সূত্রে কী বলা হয়েছে, সেটা উল্লেখ করাই যাবে কেবল। আর ফ্যাক্ট ছাড়া বিশেষণ বাদ দিয়ে ("নৃশংস", "মর্মান্তিক", "ভয়াবহ") লিখতে হবে সবখানে।

নীতিমালা সুস্পষ্ট থাকলেও অনেক সময়ে বিতর্ক শুরু হয় বটে। কোন সূত্র বিশ্বাসযোগ্য, কোনটা না, কিংবা কোনো নিবন্ধে কোন কোন মতবাদ প্রকাশ পাবে, সেটা নিয়ে প্রায়ই রীতিমতো মারদাঙ্গা ঝগড়া বেধে যায়। ঝগড়া, থুক্কু "আলোচনা" করার জন্য উইকিপিডিয়ার প্রতিটি পাতার সাথে রয়েছে একটি আলাপ পাতা। বলা বাহুল্য, আলাপের চাইতে সেখানে ঝগড়াই বেশি হয়। প্রাত্যহিক জীবনের মতোই কুতর্কে পারদর্শী লোকজনের সংখ্যা উইকিতে কম নয়, আর নিজের (চরমপন্থী) মতাদর্শে প্রচন্ডভাবে নিবেদিত, এমন লোকের সংখ্যা পারলে উইকিতে অনেক অনেক বেশিই বটে। ফলে সামান্য বা গুরুতর, সব বিষয়ের মতপার্থক্যেই পাতার পর পাতা লিখে লিখে ঝগড়া করতে এদের উৎসাহ কিংবা সময়ের কমতি নেই।

থিওরেটিকালি, আলাপ পাতায় আলোচনা করে একটা ঐক্যমতে পৌছানোটা উইকির নিয়ম। অনেক ক্ষেত্রেই সেটা কাজ করে। এক্ষেত্রে সংখ্যাগরিষ্ঠতার চাইতে যুক্তির সঠিকতাই বেশি গুরুত্ব পায়। তবে, সেটা থিওরেটিকালি। বাস্তব ক্ষেত্রে বাস্তব জীবনের মতো উইকিতেও গড়ে উঠেছে নানা মতাদর্শের লেখকগোষ্ঠী। আগের পোস্টেই দেখিয়েছিলাম, উইকির লেখক হলো গড় হিসাবে ৩০ এর নিচে বয়সী, পুরুষ, সিঙ্গল, পিতা নন, এরকম। আর ইন্টারনেটে পড়ে থাকার অঢেল সময় আছে। এরকম কেউ যদি চরমপন্থী মনোভাবাপন্ন হন, তবে তো কথাই নেই, দিনের পর দিন মন্তব্যের পর মন্তব্যের ঝড় বইয়ে দিয়ে আলাপ পাতার সাইজ কয়েক মেগাবাইট বানিয়ে ফেলতে তারা পিছপা হয়না। ফলে উইকিপিডিয়ার বেশ কিছু বিতর্ক মিমাংশা হয়না কখনোই। এর মাঝে হাস্যকর কিছু ইস্যু যেমন আছে (তারিখ লেখার সিস্টেম কি মার্কিনী নাকি ইংরেজি হবে, বলিউডের সিনেমাগুলো কি হিন্দি নাকি উর্দু, নাকি হিন্দুস্তানী ভাষার), তেমনি আছে গুরুতর সব বিষয় (জলবায়ু পরিবর্তন, ফিলিস্তিন-ইজরায়েল বিতর্ক, তুর্কি-আর্মেনিয় বিতর্ক)। গুরুতর ঝগড়া মেটাতে শেষ রক্ষা হলো উইকির নিজের আর্বিট্রেশন কাউন্সিল বা সালিশী বোর্ড, যেখানে "মামলা" দায়ের করে কোনো বিষয়ের মিমাংসা করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তার পরেও রয়ে যায় গুরুতর সব বিতর্ক।

তাহলে চলে কীভাবে উইকি?

যাহোক, এর পরেও উইকিপিডিয়া চলছে। আম জনতা মোটের উপরে কুতর্ক অপছন্দ করে, এই থিওরিটা উইকির সাফল্যেই প্রমাণিত। তবে উইকির নিবন্ধগুলোর সবগুলো নিরপেক্ষ নয়, কোনো কোনো ক্ষেত্রে চরমপন্থী লেখকগোষ্ঠী তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা আর গলাবাজির জোরে নিজেদের দিকে নিবন্ধের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে বটে। ভারতীয়, চীনা, কিংবা আর্মেনিয় উইকিপিডিয়ানেরা এর উদাহরণ -- উইকিতে এসব দেশের বিপক্ষে যায় এমন কিছু লিখে পার পাওয়াটা বেশ কঠিন, সাথে সাথে ঝাঁপিয়ে পড়বে এসব দেশের হাজারো উইকিপিডিয়ান সেই মতের বিপক্ষে লড়তে। দুঃখজনক হলো, বাংলাদেশের পক্ষে কাজ করার মতো সেরকম কাউকে পাওয়া যায় না, ফলে উইকিযুদ্ধ মহাসমারোহে শুরু হয়েও হয়ে পড়ে স্থবির, কিংবা শর্মিলা বোসের মতবাদ উইকিতে প্রতিষ্ঠা পাওয়া ঠেকাতে হাতে পায়ে ধরে অনুরোধ করতে হয় সবাইকে। সে তুলনায় বাংলাদেশ বা তার স্বাধীনতাবিরোধী চরমপন্থীরা বেশ নিবেদিতপ্রাণ। সব দেশেই তাই। ফলে ভারতীয় হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণাত্মক উগ্র জাতীয়তাবাদী মতবাদ যেমন ধীরে ধীরে ঢুকে যাচ্ছে উইকিতে, তেমনি করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধীদের নিবন্ধেও সুক্ষ্ণভাবে চুনকামের কাজটা চলছে। উইকিতে দেয়ার মতো সময় সবার না থাকলেও এই চরম নিবেদিতপ্রাণ চরমপন্থীদের কিন্তু ঠিকই আছে।

---

তো, জিমি ওয়েলসকে ঢাকার উত্তরা থেকে পাঠানো উকিল নোটিশের কী হলো? বলাই বাহুল্য, ঐ নোটিশটা ট্র‍্যাশে ফেলা ছাড়া ফাউন্ডেশনের আর কোনো কাজ ছিলোনা, যেহেতু তারা "কর্তৃপক্ষ" নয়। তবে তার মানে কি সেই যুদ্ধাপরাধীর কুকীর্তি উইকিতে আছে? নাহ, তা আর নেই। আর সেটা নেই উকিল নোটিশের ভয়ে নয়, বরং উইকিপিডিয়ার যাচাইযোগ্যতার নিয়মের কারণে -- ব্লগে পত্রিকায় যুদ্ধাপরাধীদের কথা নিয়ে উৎসাহ কম না থাকলেও ঠিকমতো শক্ত রেফারেন্স দিয়ে লেখার লোকের অভাব বাংলাদেশে ব্যাপক। ফলে রেফারেন্সবিহীন তথ্যগুলো নিতান্ত অপারগ হয়ে সরিয়ে ফেলতে হয়েছে।

যুদ্ধাপরাধীদের কুকীর্তি কি তবে হারিয়ে যাবে জনমানুষের বিশ্বকোষ থেকে? না, সেটা হবে না, তবে সেই হারিয়ে যাওয়াটা এড়াতে হলে কোনো একজনকে এগিয়ে আসতে হবে।

সেই কোনো একজনটা কে? আপনি?

(উইকিনামার ১ম পর্ব)

(ছবির কৃতজ্ঞতা - ফ্রিফোটোডটকম, গ্রাফিক্সহান্ট্ডট্কম,ফায়ারস্যাম)


মন্তব্য

আশফাক আহমেদ এর ছবি

ভাইয়া, এমন গ্রন্থ যার শুধু হার্ডকপি পাওয়া যায়, তাকে কী রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করা যায়?

-------------------------------------------------

ক্লাশভর্তি উজ্জ্বল সন্তান, ওরা জুড়ে দেবে ফুলস্কেফ সমস্ত কাগজ !
আমি বাজে ছেলে, আমি লাষ্ট বেঞ্চি, আমি পারবো না !
আমার হবে না, আমি বুঝে গেছি, আমি সত্যি মূর্খ, আকাঠ !

রাগিব এর ছবি

অবশ্যই যাবে। পৃষ্ঠা নম্বর এবং বইয়ের অন্যান্য তথ্য রেফারেন্সে উল্লেখ করতে হবে।

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

অজ্ঞ পাঠক এর ছবি

কেউ তো নাই দেখছি ওঁয়া ওঁয়া

নাম লেখানোর পরে আমি নিজেও আর আগাতে পারিনি মন খারাপ

নিটোল. এর ছবি

দুর্দান্ত! উইকিতে সামান্য কন্ট্রিবিউট করার আগ্রহ পাচ্ছি।

তানভীর এর ছবি

চলুক

খেয়াল করে দেখলাম, উইকিতে রসকসহীন নিবন্ধ লেখার চাইতে আলাপ পাতায় ফাইট করার আনন্দ বেশি দেঁতো হাসি শুধু এজন্যই একটা আলাদা একাউন্ট খুলে ফেললাম।

রাগিব এর ছবি

শুধু ফাইট করলে কিন্তু সিংগেল পারপাস একাউন্টের ট্যাগ খেয়ে যাবেন, কাজেই সাবধান!! হাসি

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

নূপুরকান্তি এর ছবি

রাগিব,
উইকি-লেখাগুলো পড়ে ভালো লাগছে।
এবারের পর্বটি আরো সুলিখিত হয়েছে।
সেই 'রাজাকার'টির নামটি এখানে বলেই ফেলো না হয়।
তার আস্ফালন-আস্পর্ধা সম্পর্কে আরেকটু জ্ঞানলাভ করি।

ভালো থেকো।

রাগিব এর ছবি

নূপুরদা, ধন্যবাদ।

ধরে নেন, লালদাড়ির এই লোক কোনো এক বেসরকারী টিভি চ্যানেলে নিয়মিত ফতোয়াবাজি করতো।

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনার আগের পোস্ট পড়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিষয়ে ভুক্তিগুলো দেখলাম। সত্যিই অনেক কাজ বাকি। আমি নিজে কোন জিনিস জানার দরকার হলে উইকি ঘাঁটি (এমনকী কোর্সের কিছু অ্যাডভান্সড লেভেলের টপিকও)। রেফারেন্স হিসেবে এর নির্ভরযোগ্যতা শিক্ষকদের কাছে কম, কিন্তু চট জলদি কোন বিষয় সম্প্কে ধারণা দিতে উইকির জুড়ি নেই। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে বেশ কিছু চমৎকার আছে, কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই মানুষ আগে উইকিতে উঁকি মারবে - তাই আমাদেরকে আসলেই সতর্ক থাকতে হবে আর যতটুকু সম্ভব কন্ট্রিবিউট করতে হবে।

আগের পোস্টে ৪৭ নং মন্তব্যে দুইটা প্রশ্ন করেছিলাম। সময় পেলে উত্তর দিয়েন।

রাগিব এর ছবি

ধন্যবাদ। আপনার ঐ কমেন্টের জবাব দিয়েছি।

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

উচ্ছলা এর ছবি

একটি আন্তর্জাতিক ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে যুদ্ধাপরাধীদের কুকীর্তি নিয়ে বিশদ ডকুমেন্টেশন করছি আমরা দুই বন্ধু মিলে। কাজটি মোটামুটি শেষের দিকে এলে আমরা এগুলো উইকিতে অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারে প্ল্যান করব।

আপনার এই পোস্টের শেষ বাক্যটা তুখোড়!
দারুন লেখাটার জন্য ধন্যবাদ।

নজরুল ইসলাম এর ছবি

উইকিতে কিছু যোগ করার প্রক্রিয়াটা আমার মতো টেকিমুর্খর জন্য অনেক কঠিন। শুধু এজন্যই আমি পারছি না মন খারাপ
ব্লগে বা ফেসবুকে লেখা যেরকম সহজ, উইকিতে সেরকম না... রেফারেন্স নিয়ে ভাবনা নাই। প্রচুর তথ্য আমি দিতে পারবো রেফারেন্সসহ... পারছি না শুধু টেকিমুর্খ বলে

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

কল্যাণF এর ছবি

নজরুল ভাই, আমি এই ব্যাপারে আপনাকে সাহায্য করতে চাই। আগে কখনো আমি উইকিতে কিছু পোস্ট করি নাই, এর মধ্যে তাই একটু কায়দা কানুনগুলো দেখে নেই।

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

সব জায়গায়ই তাইলে রাজনীতির মধ্যে পলিটিক্স ঢুকে গেছে!

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

তাসনীম এর ছবি

পড়ছি - উইকি নিয়ে কথা এলেই নিজেক একটু অপরাধী মনে হয় - কোনো সাহায্যই করতে পারিনি এতে।

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

রাগিব এর ছবি

বাহ, নতুন ডিজাইন তো খুব চমৎকার লাগছে দেখতে!!

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

স্বাধীন এর ছবি

সিরিজ চলতে থাকুক। এই গল্পগুলো শুনে হয়তো অনেকেরই আগ্রহ হবে উইকিতে লেখালেখি করার জন্যে।

রু (অতিথি) এর ছবি

লেখাটা ভালো লেগেছে, তবে নিধিরাম ছাড়া অন্য দুটো ছবি একটু বেখাপ্পা লাগছে।

উইকিপিডিয়ায় লেখালেখি নিয়ে সাধারন প্রশ্ন কোথায় করতে হয়, পারলে একটু জানাবেন। ধরুন, ছোটখাটো একটা কিছু লিখলাম, ড্রাফট হিসাবে সংরক্ষণ করতে চাই শুধু, সেটা সম্ভব কিনা বুঝতে পারছি না। এই জাতীয় আহাম্মকি প্রশ্নগুলো কাকে কীভাবে করবো?

রাগিব এর ছবি

উইকিপিডিয়ায় লেখালেখি নিয়ে সাধারন প্রশ্ন কোথায় করতে হয়, পারলে একটু জানাবেন। ধরুন, ছোটখাটো একটা কিছু লিখলাম, ড্রাফট হিসাবে সংরক্ষণ করতে চাই শুধু, সেটা সম্ভব কিনা বুঝতে পারছি না। এই জাতীয় আহাম্মকি প্রশ্নগুলো কাকে কীভাবে করবো?

উইকিপিডিয়ার প্রতিটা ইউজারের আলাপ পাতা একটা আছে। সেখানে যতখুশি প্রশ্ন করতে পারেন। বাংলা উইকির কর্মীরা বেশ তৎপর, আপনি নিজের আলাপ পাতায় প্রশ্ন রাখলে সাধারণত অল্প সময়ের মধ্যেই জবাব পাবেন।

----------------
গণক মিস্তিরি
জাদুনগর, আম্রিকা
ওয়েবসাইট | শিক্ষক.কম | যন্ত্রগণক.কম

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

চলুক চলুক

লিখতে এগিয়ে আসাটা খুব দরকার................


_____________________
Give Her Freedom!

শাব্দিক এর ছবি

খুব আগ্রহ নিয়ে পড়লাম। কিন্তু বাংলাদেশের পক্ষে কাজ করার মত তেমন কাউকে পাওয়া যায় না ব্যাপারটা সত্যই দুঃখজনক।

মঈনুল ইসলাম এর ছবি

সুপ্রিয় নজরুল ইসলাম এবং তাসনীম, আপনাদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি, আপনারা যে নিবন্ধেই কাজ করতে ইচ্ছুক, দয়া করে লেখা যোগ করা শুরু করে দিন (অবশ্যই তথ্যসূত্রসহ), যদি ব্লগে লিখতেন, তবে যেভাবে তথ্যসূত্র দিতেন, হয়তো সেভাবেই দিলেন। তখন সহায়তাকারীরা আপনাদেরকে পথ বাতলে দিবেন, কিভাবে সেটাকে উইকি-ফরম্যাটে নিয়ে যেতে হবে। একবার বলে দিলে বুঝবেন না, এমন টেকীমূর্খ ভাবাটা অন্যায় হবে, কারণ সচলরা আর যাই হোক, "মূর্খ" না। বলে দিলে বুঝে নিতে পারেন। তো, স্বাগতম উইকিপিডিয়াতে। লিখুন, সহায়তা আসবে ইনশাল্লাহ।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA