প্রাগৈতিহাসিক প্রেম

চরম উদাস এর ছবি
লিখেছেন চরম উদাস (তারিখ: মঙ্গল, ১৪/০২/২০১২ - ১১:৫৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

হাবিয়াতে বৈঠকে বসেছিলেন সবাই একসাথে।

আলেকজান্ডার (বো না গ্রেট) সজোরে টেবিল চাপড়ে বললেন,
- সত্যপীরের ফাঁসি চাই। শালা টাউটের টাউট আমাদের নামে হাবিজাবি লিখে আমাদের সবার কাছা খুলে দিচ্ছে।
আওরঙ্গজেব তাল দিলেন,
- আমিও চাই। সুনা ব্লগের সুনার ছেলেরা না থাকলে আজকে এই বদমাইশ পীর আমার সুনা কেটে ফানা বানায়ে দিতো।
বড় বুশ আর ছোট বুশ দাঁত কেলিয়ে বলল,
- আগেই তো বলেছিলাম, সব ব্লগ ক্লাস্টার বোমা মেরে উড়িয়ে দিতে।

চেঙ্গিস কথা কম বলে কাজ বেশী করেন। বাই বাই করে তরবারি ঘুরিয়ে পটাপট দুই বুশের মুণ্ডু কেটে দুই বগলে নিয়ে বসে রইলেন। পিতাপুত্র খুশীতে আটখানা হয়ে গেলো। মুণ্ডুদুটো কোন কাজে আসে না, শুধু শুধুই মাথার উপর বোঝা হয়ে ছিল এতদিন।

আকবর কথাও বেশী বলেন, কাজও বেশী বেশী করেন। তরবারি নিয়ে অযথাই কিছুক্ষণ তিড়িংবিড়িং করে লাফালাফি করে বললেন, বাদশাহ জালালুদ্দিন আকবর দুধের সাধ ঘোলে মেটায় না। যোধা আমার চাই, নাইলে কিম কার্দিশান।

সিরাজদ্দৌলা খালি কথাই বলেন। উঠে দাড়িয়ে মুখ খুললেন, বাংলা বিহার উড়িষ্যায় আজ দুর্যোগের ঘনঘটা। কে দেবে আশা, কে দেবে ভরসা।

চেঙ্গিস তরবারির ডগা দিয়ে সিরাজের জায়গামত খোঁচা দিতেই সিরাজ আলেয়া আলেয়া বলে কোঁকাতে কোঁকাতে থেমে গেলো ।

হিটলার হাত তুলে সবার চেঁচামেচি থামালেন। সিরাজ তখনও মৃদু গলায় বলার চেষ্টা করছিলো, হিটলু ভাই, আমার দুইটা কথা ছিল। হিটলারের রক্তচক্ষু দেখে "হেইল হিটলু" বলে বসে পড়ল।

হিটলার শুরু করেন,
- ফ্রেন্ডস, রোমানস অ্যান্ড কান্ট্রিমেন্স। এইসব ছোটখাটো সমস্যা নিয়ে সময় নষ্ট করবেন না। আমরা আজ এক হয়েছি এই কারণে ...
সিরাজ বিড়বিড় করে,
- শালা বাটপার, ডায়লগ ভুলে এখন সিজারের ডায়লগ মারতেছে
হিটলার বলে যায়,
- পৃথিবীতে দুটো জিনিস আছে যা পোতায়ে থাকে। ধরে ঝাঁকি দিয়ে বড় করতে হয়।
সিরাজ আবারও বিড়বিড় করে,
- খাইস্টা কোথাকার। প্রথমটাতো বুঝলাম, আরেকটা কি?
- প্রথমটা হচ্ছে থান্ডার ক্যাটসের দলনেতা লায়নোর তরবারি আর দ্বিতীয়টা
সিরাজের চোখ চকচক করে কিন্তু তাকে হতাশ করে হিটলার বলে,
- দ্বিতীয়টা হচ্ছে প্রেম। দেশপ্রেম, মানবপ্রেম। যে জিনিসটা আজ বাংলায় নেই। এই কারনেই সিরাজদ্দৌলা আর তাঁর বাংলার আজ এমন বেহাল অবস্থা।
সিরাজ এবার আর বিড়বিড় না করে জোরেশোরেই বলে,
- হিটলু ভাই, এই তো কইলেন একটা ফাতরা কথা। বাংলার মানুষের দেশপ্রেম নাই কথাটা ঠিকনা। নিজ দেশের প্রতি প্রেম এট্টু কম তবে আশেপাশের দেশের প্রতি ভালোই আছে মনে করেন।
- সেটা কিভাবে দেশপ্রেম হল?
- একই তো ব্যাপার। নিজের বউকে ভালোবাসা আর বন্ধুর বউকে ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্যটা কি শুনি? বরং পরেরটাতে মনে করেন আবেগ উত্তেজনাটা এট্টু বেশী থাকে।

হিটলার কোন কথা না বলে খালি চেঙ্গিসকে চোখের ইশারা করেন। চেঙ্গিস উঠে সিরাজকে চ্যাংদোলা করে। সিরাজদ্দৌলা চেঁচাতে থাকেন, বাঁচাও বেগম আলেয়া। পিষে ফেললো।

এমন সময় রঙ্গমঞ্চে হাঁপাতে হাঁপাতে বিশ্ব বেহায়া প্রবেশ করে। দাঁত কেলিয়ে বলে, হেইল হিটলার। গোটা দশেক খতম করছি বস। শালার বাংলার মানুষ ভালবাসতে জানেনা, খালি ঘৃণার চাষ করে। ভালবাসার দিনে পোলাপান শিক্ষা নীতি নিয়ে হাউকাউ লাগাইছে।

হিটলার সস্নেহে বিশ্ব বেহায়ার মাথায় হাত বুলিয়ে বলে, ঘাবড়াও মাত বাছা। তোর দেশের মানুষ তোর মতোই বেহায়া। আমি ফটকা রেহমান কে দায়িত্ব দিচ্ছি। লাল গোলাপ দিয়ে সব রক্তের দাগ মুছে দিবে।

সিরাজ বিরস মুখে আবার বিড়বিড় করে, বাকি সব বদের দল তো তাও জলদি জলদি মইরা গিয়া নিজেও বাঁচছে দেশরেও বাচাইছে দেশপ্রেমের হাত থাইকা। এই বেহায়া তো দেখি পুরাই অমর।


মন্তব্য

কুমার এর ছবি

চ্রম চরম ভাই।

চরম উদাস এর ছবি

লইজ্জা লাগে

rabbani এর ছবি

দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

নিটোল এর ছবি

গুরু গুরু

_________________
[খোমাখাতা]

চরম উদাস এর ছবি

চাল্লু

মিলু এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গুল্লি

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

বনেতি মিমোসা এর ছবি

ধইন্না পাতার অর্থটা বুঝলাম না। পিলিজ !প্লেইন।

আব্দুর রহমান এর ছবি

ধইন্না পাতা মানে ধইন্না বাদ মানে ধন্যবাদ।

------------------------------------------------------------------
এই জীবনে ভুল না করাই সবচেয়ে বড় ভুল

ধূসর জলছবি এর ছবি

দেঁতো হাসি চলুক

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

সত্যপীর এর ছবি

সত্যপীরের ফাঁসি চাই। শালা টাউটের টাউট আমাদের নামে হাবিজাবি লিখে আমাদের সবার কাছা খুলে দিচ্ছে।
আওরঙ্গজেব তাল দিলেন,
- আমিও চাই। সুনা ব্লগের সুনার ছেলেরা না থাকলে আজকে এই বদমাইশ পীর আমার সুনা কেটে ফানা বানায়ে দিতো।

চাল্লু চাল্লু চাল্লু চাল্লু

পৃথিবীতে দুটো জিনিস আছে যা পোতায়ে থাকে। ধরে ঝাঁকি দিয়ে বড় করতে হয়।
সিরাজ আবারও বিড়বিড় করে,
- খাইস্টা কোথাকার। প্রথমটাতো বুঝলাম, আরেকটা কি?

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

এই বেহায়া তো দেখি পুরাই অমর।

গুল্লি গুল্লি

..................................................................
#Banshibir.

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-
এরপরে কার পেন্টু খুলবেন? সিরাজরে ধরেন না একটু, তারে তো এক্কেবারে সবাই ট্র্যাজিক হিরু বানায়ে বসে আছে।

সত্যপীর এর ছবি

আইচ্ছা খাড়ান।

..................................................................
#Banshibir.

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

আবছায়া এর ছবি

নবাব সিরাজদ্দৌলা হাজির?? দেঁতো হাসি

কালো কাক এর ছবি

সিরাজের পেন্টু এমনিতেই তেমন মজবুত না। পেন্টু থাক্লেও অনেক কিছুই বুঝা যায়। খাইছে খুললে তেমন আলোড়ন সৃষ্টি হবেনা তিতুমীর আর মোগলদের নিয়ে যেমন হইসে।

চরম উদাস এর ছবি

কথা সত্য, দেখি পীরবাবা কি করে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

লুলপুরুষ নাকি বইমেলায় এসে নিজের বইয়ের উদ্বোধন করে গিয়েছে, আমি বাকরুদ্ধ

চরম উদাস এর ছবি

আমিও বাকরুদ্ধ

রায়হান আবীর এর ছবি

চলুক

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

তাপস শর্মা এর ছবি

হেইল এরসাদ। - আজকের বইমেলার নাকি এটাই লেটেস্ট আপডেট। এবং খুব আবেগ ভরে মিডিয়া প্রচার করেছে - " বইমেলায় এরশাদ প্রবেশ করলেই তরুণ-তরুণীদের কবলে পড়েন। বিশেষ করে এরশাদের অটোগ্রাফ নিতে ও তার সঙ্গে ছবি তুলতে মেলায় দর্শনার্থীদের মধ্যে অনেক তরুণীই তার সঙ্গে ছবি তুলে রাখেন। এরশাদও ছবি তোলার সুযোগ দিয়েছেন আগ্রহীদের।"

আহা !! আহা !!

চরম উদাস এর ছবি

কস্কি মমিন!

হিমু এর ছবি

বিশ্ববেহায়া কিন্তু চাইলে বউমেলাও করতে পারে। তার সংগ্রহ তো বহুবিধ।

চরম উদাস এর ছবি

আবার জিগায়, করতেই পারে। কান টানলে মাথা আসে, বউ টানলে শালী আসে। বউমেলার সাথে একটা শালী মেলাও পাশে খোলা যায় তাইলে। দেঁতো হাসি

তারেক অণু এর ছবি

আর দেশপ্রেমী জনতা ৯০,এর ইতিহাস ভুলেই গেছে-- মাকসুদের একটা গানের লাইন

চরম উদাস এর ছবি

সবই ভুলে গেছে মন খারাপ

শমশের এর ছবি

লেখা পুরাটাই চরম হইছে। গুরু গুরু
আজকের দিনে বইমেলায় আসছে। সাধে কি আর বিশ্ববেহায়া নাম হইছে?

চরম উদাস এর ছবি

এক্কেবারে ইউনিভার্সাল বেহায়া

মোখলেছুর রহমান সজল এর ছবি

রসে ভরপুর। পুরোটাই উপভোগ করেছি একদমে।

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

সাফি এর ছবি

সিরাজ আবারও বিড়বিড় করে,
- খাইস্টা কোথাকার। প্রথমটাতো বুঝলাম, আরেকটা কি?

আমি তো দেখি সিরাজের লাইনে চিন্তা করি দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আমরা তো সবাই সিরাজ মামুরই বংশধর দেঁতো হাসি

শিশিরকণা এর ছবি

বাংলার মানুষের দেশপ্রেম নাই কথাটা ঠিকনা। নিজ দেশের প্রতি প্রেম এট্টু কম তবে আশেপাশের দেশের প্রতি ভালোই আছে মনে করেন।
- সেটা কিভাবে দেশপ্রেম হল?
- একই তো ব্যাপার। নিজের বউকে ভালোবাসা আর বন্ধুর বউকে ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্যটা কি শুনি? বরং পরেরটাতে মনে করেন আবেগ উত্তেজনাটা এট্টু বেশী থাকে।

ম্যাঁও

~!~ আমি তাকদুম তাকদুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল ~!~

চরম উদাস এর ছবি

ধ্রুবনীল এর ছবি

মুণ্ডুদুটো কোন কাজে আসে না, শুধু শুধুই মাথার উপর বোঝা হয়ে ছিল এতদিন।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

শাব্দিক এর ছবি

মাথার উপর মুণ্ডু বোঝা? অ্যাঁ
ক্যাম্নে কি?

চরম উদাস এর ছবি

যাকে মাথাটা কখনো ব্যবহার করতে হয় না তার জন্য বোঝা তো বটেই খাইছে

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

নমস্কার করলাম।
কিন্তু লেখাটা ছোট! আরেকটু টানলেন না! মন খারাপ

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

চরম উদাস এর ছবি

টানলে যে লুম্বা হয়ে যাবে। কত্তবড় লেখা দিলাম, তাও বলে ছোট ইয়ে, মানে... । খাড়ান, সাহিত্যিকের পরের পর্ব দিবো নেক্সট সপ্তাহে, ওইটা দেইখেন বড় কাকে বলে।

কায়সার এর ছবি

-পৃথিবীতে দুটো জিনিস আছে যা পোতায়ে থাকে। ধরে ঝাঁকি দিয়ে বড় করতে হয়।
সিরাজ আবারও বিড়বিড় করে,
- খাইস্টা কোথাকার। প্রথমটাতো বুঝলাম, আরেকটা কি?

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

রাজিব মোস্তাফিজ এর ছবি

দারুণ চলুক

----------------------------------------------------------------------------
একশজন খাঁটি মানুষ দিয়ে একটা দেশ পাল্টে দেয়া যায়।তাই কখনো বিখ্যাত হওয়ার চেষ্টা করতে হয় না--চেষ্টা করতে হয় খাঁটি হওয়ার!!

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

অরফিয়াস এর ছবি

প্রভুখন্ড গুরু গুরু

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

দেশি বলদ এর ছবি

জনাব কালা বলদ,আপনি দেখি আপনার আসল নাম পালটাইয়া আবার চরম উদাস নাম এ লেখা শুরু করছেন।অতি হাল্কা কিন্তু উচ্চমানের লিখা হাসি

চরম উদাস এর ছবি

অ্যাঁ গালি দেন কেন?

ধুসর গোধূলি এর ছবি

আগে ভাবতাম নরকে বুঝি অন্তত দুদণ্ড শান্তিতে থাকা যাবে আর মৌজমাস্তিমুজ্রাকরতঃ ভালোবাসাবাসি করার অবসর পাওয়া যাবে। কিন্তু, এইসব নাফরমান, কুলাঙ্গার, বেত্তমিজ, নালায়েক আশেকানদের জন্য তো নরকও নরকগুলজার হয়ে গেলো দেখছি! এখন আমি কৈ যামু! কে দিবে আমারে আশা, কে দিবে ভরসা... আলেয়া কো, আলেয়া?

চরম উদাস এর ছবি

আলেয়া শান্তি দিতে পারবে না, ঘষেটি বেগম এর কাছে যান চিন্তিত

ধুসর গোধূলি এর ছবি
চরম উদাস এর ছবি

চাচামিয়ার কাছে পাবেন খাইছে

কাজি মামুন (অতিথি লেখক) এর ছবি

চরম উদাসি ভাইয়ের এই উদাসি লেহাডা গতকাল থেইক্কা পড়বার চেষ্টা করতেছি; কিন্তু কিছুতেই ঢুকবার পারি নাই চরম নেট অব্যবস্থাপনার লাইগগা! কিন্তু শ্যাষম্যাষ ঢুইক্কা খুশিতে লটপট খাইলাম!

চেঙ্গিস তরবারির ডগা দিয়ে সিরাজের জায়গামত খোঁচা দিতেই সিরাজ আলেয়া আলেয়া বলে কোঁকাতে কোঁকাতে থেমে গেলো ।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি বিশ্ব বেহায়ার জায়গামত খোঁচা দিলে, কার নাম ধইরা ডাকত? চাচার আলেয়া তো আর একখান না!

- পৃথিবীতে দুটো জিনিস আছে যা পোতায়ে থাকে। ধরে ঝাঁকি দিয়ে বড় করতে হয়।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি পৃথিবীতে তো ঝাকানোর মত অনেক জিনিসই আছে; তারপরও পেটে খিল ধরাইয়া দিলেন তো!

সেটা কিভাবে দেশপ্রেম হল?

উদাস ভাই, ইন্ডিয়া আর পাকিস্তান কি দ্যাশ না? তাই কেউ ইন্ডিয়া বা পাকিস্তান ভালবাসলে, তাদের এই প্রেমরে কিন্তু দ্যাশপ্রেমের বাইরে রাখতে পারেন না। তিনাদের এই দূরদ্যাশপ্রেমরে আফনে পরকিয়া কইতে পারেন বড়জোড়!
এইবারেরডা আনতে অনেক দেরী করছেন! রসের ঠিলার লাইগগা বেশী ধৈর্য ধরন যায় না, আপ্নে ভালমতই জানেন!

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-
কি আর করা, এট্টু দেরীই হয়ে গেলো। শালার বস লাইপে শান্তি দিলোনা। অপিসে বসে শান্তিমতো লিখতে দেয়না ইয়ে, মানে...

কাজি মামুন (অতিথি লেখক) এর ছবি

শালার বস লাইপে শান্তি দিলোনা। অপিসে বসে শান্তিমতো লিখতে দেয়না

উদাস ভাই, আপনের বসরে একটা রসের ঠিলা উপহার দেন না। বাঙ্গালি রসে দেখবেন, কেমন মইজা গ্যাছে। তহন দেখবেন ক্যামনে আপনার কাছে খালি রসের ঠিলার লাইগগা ঠেলাঠেলি করে!

প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

হো হো হো

শাব্দিক এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

অমিত এর ছবি

ওরে ভাইজান, হো হো হো গুরু গুরু থামতে পারছি না। এইরকম রসের গপ্পো আরও পাইতে মুঞ্ছায়। হাততালি

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-
খাইছে

কালো কাক এর ছবি

"বাংলার মানুষের দেশপ্রেম নাই কথাটা ঠিকনা। নিজ দেশের প্রতি প্রেম এট্টু কম তবে আশেপাশের দেশের প্রতি ভালোই আছে মনে করেন।" চলুক
"এই বেহায়া তো দেখি পুরাই অমর।" চলুক

চরম উদাস এর ছবি

শয়তানী হাসি

মন মাঝি এর ছবি

আরে প্রেমের সওদাগর ফটকা রেহমানের ফটকাবাজি সম্পর্কে তেমন কিছু বললেন না যে!

****************************************

চরম উদাস এর ছবি

ফটকা রেহমানের ফটকাবাজির গপ্প শুরু করলে থামা মুশকিল হবে

ব্যাঙের ছাতা এর ছবি

স্যার, শুরু করেন, আমরা তো আছি, পড়ার জন্য। গরম গরম ধুপি পিঠার মত শেষ হয়ে যাবে।

স্বপ্নাদিষ্ট এর ছবি

প্রথমটাতো বুঝলাম, আরেকটা কি?

নিজেকে দেখি খালি সিরাজ সিরাজ লাগে.. লেখা সেইরকম চলুক হাততালি উত্তম জাঝা!

-স্বপ্নাদিষ্ট
=======================
যে জাতি নিজের ভাগ্য নিজে পরিবর্তন করে না, আল্লাহ তার ভাগ্য পরিবর্তন করেন না।

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-
আমরা সবাই সিরাজ আমাদেরই সিরাজের রাজত্বে দেঁতো হাসি

মরুদ্যান এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

একেবারে কেবল জমতে জমতে শেষ হয়ে গেল না বস??

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

চরম উদাস এর ছবি

জমতে জমতে বালুবাসা দিবস এসে গেলো যে। পরে টেনে আরও লম্বা করবোনে, আগামী বইমেলায় যখন "ফাতরা গল্প সমগ্র" বের করবো খাইছে

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

দেঁতো হাসি

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

ইস্কান্দর বরকন্দাজ এর ছবি

ওকে পাইন

..................................................................
আমি ছুঁয়ে দিতে চাই সেই বৃষ্টিভেজা সুর...

চরম উদাস এর ছবি

চিন্তিত

পরী  এর ছবি

ইস্কান্দর বরকন্দাজ ভাই, ইমোকন খেমতা পাইয়া সক্কলেরে কতকিছু দিয়া যান, আপ্নেরেও একদিন এমুন ইমোকন দিমু আম্রা, ডরে খেমতা ছাইড়া দৌড় দিবেন। গুল্লি এক মাঘে কইলাম উইন্টার নট গো শয়তানী হাসি

অনিকেত এর ছবি

চলুক হাততালি

চরম উদাস এর ছবি

থিন্কু অনিকেত দা।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

দুর্দান্ত

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

দুষ্ট বালিকা এর ছবি

চ্রম! দেঁতো হাসি

**************************************************
“মসজিদ ভাঙলে আল্লার কিছু যায় আসে না, মন্দির ভাঙলে ভগবানের কিছু যায়-আসে না; যায়-আসে শুধু ধর্মান্ধদের। ওরাই মসজিদ ভাঙে, মন্দির ভাঙে।

মসজিদ তোলা আর ভাঙার নাম রাজনীতি, মন্দির ভাঙা আর তোলার নাম রাজনীতি।

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

আশফাক আহমেদ এর ছবি

মজারু।

-------------------------------------------------

ক্লাশভর্তি উজ্জ্বল সন্তান, ওরা জুড়ে দেবে ফুলস্কেফ সমস্ত কাগজ !
আমি বাজে ছেলে, আমি লাষ্ট বেঞ্চি, আমি পারবো না !
আমার হবে না, আমি বুঝে গেছি, আমি সত্যি মূর্খ, আকাঠ !

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

যুমার এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

ব্যাঙের ছাতা এর ছবি

গুরু গুরু গুরু গুরু
গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি
উত্তম জাঝা!

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

দ্যা রিডার এর ছবি

হো হো হো হো হো হো

হাততালি হাততালি

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

ahasnat এর ছবি

পুরাই উড়াদুড়া।

চরম উদাস এর ছবি

আবার জিগস খাইছে

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

পড়ছি কইলাম। আর কি কমু ?

চরম উদাস এর ছবি

কিছু তো বলেন, দোহাই লাগে খাইছে

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

এই চরম উদাস লোকটা নিজেরে গোপাল ভাঁড় ভাবে। সব কিছু নিয়েই তারে পচা পচা জোকস মারতে হবে। ফাউল পুরা।।। দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আমি ভাবি না, পাব্লিক ভাবে। সিরিকাস গল্প লেখলেও মস্করা ভাবে মন খারাপ

রণদীপম বসু এর ছবি

কমেন্টের সংখ্যা দেখেই তো দাদুর জনপ্রিয়তা টের পাওয়া যায় ! ধন্যি হে বেহায়া !!

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

চরম উদাস এর ছবি

রণদা, দেন না বেহায়াটাকে কয়েকটা ইয়োগার আসন শিখায়ে, তাইলে অনায়সে ২০০ বছর বাচতে পারবে।

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

চরম! হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু বোকা প্রহরী দেঁতো হাসি

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

সংক্ষিপ্ত অথচ গভীর, অর্থবহ। উত্তম জাঝা!


_____________________
Give Her Freedom!

চরম উদাস এর ছবি

গভীর কুতায়? চিন্তিত

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

গভীরতা ইতিহাসের পাতায়........... দেঁতো হাসি


_____________________
Give Her Freedom!

পরিবর্তনশীল এর ছবি

হাততালি

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু। আবার ডুব দিয়েন না।

লাবণ্যপ্রভা এর ছবি

বিয়াফক মজা ফাইলাম ভাই।।।। আফনের নামের জয়জয়কার। চরমসস গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আবার জিগায় খাইছে

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি
চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

পরী  এর ছবি

আপনার লেখার জন্য অপেক্ষা করতে করতে ঘুমিয়েই গিয়েছিলাম জাস্ট লাইক গণ্ডার। নইলে এত্তদিন পরে লেখা চক্ষে পড়ল কেমনে। লেখনী ফাইন হয়েছে।
আরও লেখা দেন তাড়াতাড়ি। বেশী দেরি করলে ইটা রাইখ্যা গেলাম... (বুইঝা লন) রেগে টং

চরম উদাস এর ছবি

ভয় পাইছি ইয়ে, মানে...

নীড় সন্ধানী এর ছবি

এই লেখাটা মিস করছিলাম কেমনে? চরমমম চরমমম একটা লেখা। চ্রম উদাসকে আবারো কুর্নিশ!! আপনি পারেনও হাসি

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

জুয়েল দেব এর ছবি

লেজে গোবরে এরশাদ কিছুদিন পর পর একটা একটা ফ্যাকট ছাড়ে আর আমরা সেইগুলান নিয়া চিল্লাপাল্লা। উনি যে হারে উনার এক একটা গোপন তথ্য বের করতেছেন তাতে একদিন দেখা যাবে উনি বলে ফেলেছেন, উনি রজনীকান্তের গুরু। অপ্রাসঙ্গিক অনেক কথা বলে ফেললাম। আসল কথা হইলো, আপনার লেখা খুঁজে বের করে পড়লাম, পড়ে আনন্দ পাই এইজন্য।

চরম উদাস এর ছবি

Donald Trump প্রেসিডেন্ট পদে দাড়াবে বলে নানা হাস্যকর কাণ্ডকারখানা করার সময় কমেডিয়ান Jerry Seinfeld খুশী মনে একবার বলেছিলেন, I love Donald Trump, all comedians love Donald Trump, God's gift to comedy। আমাদের লেজেকে নিয়ে একই কথা বলা যায়, God's gift to comedy

কল্যাণ এর ছবি

চলুক হাততালি

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

Amoraboti  এর ছবি

সেইরকম হইসে হাসি

ভাগশেষ শূণ্য এর ছবি

দশ রিকশা গুল্লি

ছোট নদী  এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

অতিথি লেখক এর ছবি

হিটলু ভাই, এই তো কইলেন একটা ফাতরা কথা। বাংলার মানুষের দেশপ্রেম নাই কথাটা ঠিকনা। নিজ দেশের প্রতি প্রেম এট্টু কম তবে আশেপাশের দেশের প্রতি ভালোই আছে মনে করেন।
- সেটা কিভাবে দেশপ্রেম হল?
- একই তো ব্যাপার। নিজের বউকে ভালোবাসা আর বন্ধুর বউকে ভালোবাসার মধ্যে পার্থক্যটা কি শুনি? বরং পরেরটাতে মনে করেন আবেগ উত্তেজনাটা এট্টু বেশী থাকে।

হিটলার সস্নেহে বিশ্ব বেহায়ার মাথায় হাত বুলিয়ে বলে, ঘাবড়াও মাত বাছা। তোর দেশের মানুষ তোর মতোই বেহায়া। আমি ফটকা রেহমান কে দায়িত্ব দিচ্ছি। লাল গোলাপ দিয়ে সব রক্তের দাগ মুছে দিবে।

গড়াগড়ি খাইতেই আছি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।