ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফি: গিরগিটি ও বরাহ

ফাহিম হাসান এর ছবি
লিখেছেন ফাহিম হাসান (তারিখ: সোম, ৩১/০১/২০১১ - ৮:১৬পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আলোকচিত্রে প্রকৃতি ও জীবজগতের বৈচিত্র তুলে ধরার অপটু প্রয়াস বহুদিনের। শুরুতে যা ছিল শখ - এখন তা নেশা। মুশকিল হল একটা ভালো ছবি পেতে ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করতে হয় বহুক্ষণ। নির্বান্ধব পরিবেশে (স্থান বিশেষে নির্বিদ্যুৎ ও নির্টয়লেটও বটে) বিশাল ওজনের মাল-সামালা নিয়ে মশার কামড় খাওয়া এবং দিন শেষে ষোল গিগা মেমোরি কার্ডের অন্তত বিশ মেগা ভর্তি করতে পারাটা যেন আরেটা পুলসিরাত। তবু এই কষ্ট গায়ে লাগে না যখন পাওয়া যায় একটা মনমত ফ্রেম - বেশিরভাগ সময়ই তা দুর্বল কারিগরী জ্ঞানের স্বাক্ষী, কিন্তু হয়ত একটা যুতসই বক্তব্যের ছবি।

আর কথা না বাড়ায় আসেন ছবি দেখি। নিচের ছবিটা একটি সাধারণ গিরগিটির। আপনার বাড়ির বাগানে, পার্কের ঝোপে ঝাড়ে, ক্যাম্পাসের চিপায় একটু খুঁজলেই দেখা মিলবে। এর ইংরেজি নাম changeable lizard/ common garden lizard (Calotes versicolor)।

Changeable Lizard 1

এদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হল এরা সুযোগ বুঝে রঙ বদলাতে ওস্তাদ। মৈথুনাভিচারে (কপিরাইট হিমু ভাই) অথবা প্রতিপক্ষকে ভয় দেখাতে এরা রঙ বদলায়। মাথা ও ঘাড়ের রঙ টকটকে লাল করে ফেলে। এই রঙ বদলের মূল উদ্দেশ্য হয় বালিকাকে মুগ্ধ করা অথবা ধোঁকবাজি।

Changeable Lizard3

Garden Lizard ( male on display)

অনেক অঞ্চলে মানুষ এদের ডাকে রক্তচোষা। কেউ কেউ এদের বিষাক্ত বলে ভয় পায়। আদতে এরা নির্বিষ এবং রক্ত চুষে খায় না। খালি লোক দেখানো বাহাদুরী।

এবার আমরা আলোচনা করব একটা সাধারণ প্রশ্ন - কেন বরাহরা দল বেঁধে থাকে অথচ শিকারী প্রাণিরা বাস করে বিচ্ছিন্ন ভাবে ? বরাহের সংখ্যা এত বেশি কিন্তু শিকারীর সংখ্যা এত কম কেন?

কিছু ব্যতিক্রম বাদ দিলে (যেমন- সিংহ , হায়েনা ও ওয়াইল্ড ডগ দল বেঁধে শিকার করে) বেশিরভাগ শিকারী পশু বাস করে একলা - শিকার করে নিজে নিজেই। অথচ বরাহের দল কেমন সামাজিক - একসাথে মিলে মিশে খায়, ঘোঁত ঘোঁত করে। তারপর যখন হামলা হয়, তখন একটা না একটা মারা পরে শিকারীর থাবায়। (সময় মত লেজ উঁচিয়ে ভাগতে পারলে বেঁচেও যায় কখনো কখনো।) তা ওরা বিচ্ছিন্ন ভাবে থাকলেই পারে - খুঁজতে বড় বেগ পেতে হবে শিকারীর। তা না করে এরা দলেবলে থকে কেন?

Boar

এরা বুঝি পরিসংখ্যান জানে? কারণ পালে থাকলে বেঁচে যাওয়ার সম্ভাব্যতা (probability) বেশি। ধরুন, পালে n সংখ্যক শুয়োর আছে। তাহলে হামলা হলে মারা পড়ার সম্ভাবনা ১/n । এই n এর মান যত বড় হয় তত তার জন্য ভালো। কারণ মারা পড়ার সম্ভাবনা কমে যায়। অথচ একলা হলে সম্মুখ যুদ্ধে মরণ প্রায় নিশ্চিত। তাই বেঁচে থাকার তাগিদে এরা একসাথে থাকে। (কথাগুলো ছাগলের জন্যও প্রযোজ্য)।

অপরদিকে বরাহশিকারের আনন্দ শিকারীরা ভাগ করে নিতে চায় না। তারা নিজ হাতে বরাহনিধন করতে চায়। এদের সংখ্যা বরাহের তুলনায় কম, এরা হাঁকও ছাড়ে কম, চলে নি:শব্দে - পেশিতে, চোয়ালে থাকে পর্যাপ্ত জোর।

---------------------------------------------

পুনশ্চ: লেখার মাঝে গুঁজে দেওয়া নিরীহ ছবিতে কাউন্টার ন্যারেটিভ কিছু নেই। শিকার-শিকারীর তত্ত্বের পিছনে দ্বান্দ্বিক সম্পর্কের ডিস্কোর্স নেই, ডারউইনের থিওরির বিনির্মাণের তো প্রশ্নই আসে না। আর গিরগিটির ছবি দিলাম স্রেফ চেনানোর জন্য। এটা কমন স্পিশিজ়, আসেপাশে খুঁজলেই পাবেন - তবে এরা নির্বিষ, কামড়ায় না।


মন্তব্য

হিমু এর ছবি
ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। দেঁতো হাসি

অতিথি লেখক এর ছবি

বাঃ বাঃ, সময়োপযোগী একেবারে দারুন এক পোস্ট।

ঠিকযেন- "বুনোজীবনের চিত্রঃ রাজাকারের গুয়েবাড়া"

ধৈবত

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ।

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

আপ্নে একটা পাপিষ্ঠ। ভালো ভালো গিরগিটি আর বরাহদেরকে ক্যান যে খোঁচান। উনাদের বয়স হচ্ছে। ডায়াবেটিস হবে। ইনসুলিন ইঞ্জেকশান কেনার পয়সাটা একটু তুলতে দ্যান না, ভাই। দেঁতো হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

তা আর বলতে! শয়তানী হাসি

তিথীডোর এর ছবি

গুল্লি গুল্লি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

ফাহিম হাসান এর ছবি
প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

দারুণ, ফাহিম। অসাধারণ উদাহরণ।

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ পিপিদা

অপছন্দনীয় এর ছবি

সুন্দর ছবি হাসি

গিরগিটি বরাহ ইত্যাদি আপনার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারে আপনার চোখের 'ডেপথ' কম - মাথা দেখা গেলেও লেজের 'পার্সপেক্টিভ' 'ক্লিয়ার' নয় ... দেঁতো হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনার মন্তব্য পড়ে গড়াগড়ি দিয়া হাসি

স্বপ্নহারা এর ছবি

হাহাহাহাহাহাহা...মারাত্মক! সময়োপযোগী!

-------------------------------------------------------------
জীবন অর্থহীন, শোন হে অর্বাচীন...

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

মুস্তাফিজ এর ছবি

তাই বেঁচে থাকার তাগিদে এরা একসাথে থাকে। (কথাগুলো ছাগলের জন্যও প্রযোজ্য)

চমৎকার

...........................
Every Picture Tells a Story

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ

ধুসর গোধূলি এর ছবি
ফাহিম হাসান এর ছবি

অসংখ্য ধন্যবাদ।

হিমু এর ছবি

শেষ ছবিটার ক্যাপশন হতে পারে "ফিউশন ফাইভ" হাসি

ধুসর গোধূলি এর ছবি

ফিউশন ফাইভ ক্যামনে? ঐখানে তো "ফিউশন সাড়ে ছয়"। চিন্তিত
তবে, দ্দীণূ আর মিল্লাতবামরে ঢুকাইলে তাই দাঁড়ায় অবশ্য!

হিমু এর ছবি

দ্দীণূ আর ফাকমিদুল। দ্দীণূর উচ্চতা বিচারে অবশ্য ব্যাপারটা সাড়ে ছয়ই দাঁড়ায় শেষমেশ।

নিভৃত_সহচর এর ছবি

গিরগিটির ছবিগুলো পুরা সেইরকম হইসে! গুরু গুরু

ফাহিম হাসান এর ছবি
উদ্ভ্রান্ত পথিক এর ছবি

বাহ দারুন শার্প! ফোকাল দেখতেছি ৩০০মিমি। লেন্স কি ১০০-৪০০এল/৭৫-৩০০এল/৭৫-৩০০নন এল ?

---------------------
আমার ফ্লিকার

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। আপনার ছবির আমি একজন ভক্ত। হাসি

১, ৩ - canon 70-300 is usm

২ - canon 300 L

৪ - ভুলে গেসি

অতিথি লেখক এর ছবি

গিরগিটির ছবিগুলো দারুন হইসে ।

বরাহের নিচের লেখা আর পুনশ্চের লেখাটা মনে ধরলো । হাসি

------------------------------
নিক : সবুজ পাহাড়ের রাজা

রোমেল চৌধুরী এর ছবি

পোষ্টটি খুব ভালো লেগেছে!

------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
আমি এক গভীরভাবে অচল মানুষ
হয়তো এই নবীন শতাব্দীতে
নক্ষত্রের নিচে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

জেনে খুশি হলাম।

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

আপনার ফ্যান হয়ে গ্লেম ভাই। হাসি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। কী যে বলেন! লইজ্জা লাগে

সুরঞ্জনা এর ছবি

দুর্ধর্ষ! হাততালি
ভালো ফোটোগ্রাফারদের দেখছি দৃষ্টি অনেক পরিস্কার, সর্বক্ষেত্রেই। হাসি

............................................................................................
এক পথে যারা চলিবে তাহারা
সকলেরে নিক্‌ চিনে।

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। আমি কিন্তু চারচোখা - চশমা পড়ি। দেঁতো হাসি

সজল এর ছবি

আপনার ক্যামেরার ডিসকোর্স, কিবোর্ডের ডিসকোর্সের সাথে কনভার্জ করছে চোখ টিপি

---
মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। হাসি

নাশতারান এর ছবি

রাপুখাপাং

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

ফাহিম হাসান এর ছবি

অর্থ কী ? ইয়ে, মানে...

নাশতারান এর ছবি

হো হো হো

রাপুখাপাং হলো "পুরা পাংখা"-র অ্যানাগ্রাম।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

ফাহিম হাসান এর ছবি

আরে দারুণ তো। দুঃখিত। খেয়াল করি নাই। আচ্ছা আমার লেখায় নতুন মন্তব্য এলে সেটা আমি বুঝব কিভাবে?

ধন্যবাদ।

নাশতারান এর ছবি

নিজের ব্লগে যান। অথবা নিজের প্রোফাইলে গিয়ে "অনুসরণ" চাপুন।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক ধন্যবাদ।

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

বাহ, দারুন। ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফি দেখতে বেশ লাগে, আপনি তুলেছেনও সুন্দর। বিশেষ করে গিরিগিটির শেষ ছবিটা তো পুরাই লা-জওয়াব।

একটু টেকনিক্যাল কথা বলি - ২ আর ৩ নাম্বার ছবিতে লাইটের ডিস্ট্রিবিউশন খুবই চমৎকার। তবে ৩ নাম্বারের ফ্রেমিং একেবারে অসাধারণ।

আরও ভালো ভালো ছবি দেখার প্রত্যাশা থাকলো। হ্যাপি ক্লিকিং ... ... চোখ টিপি

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

ফাহিম হাসান এর ছবি

অনেক অনেক ধন্যবাদ। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

আলাভোলা এর ছবি

গুরু গুরু

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ। হাসি

মানিক চন্দ্র দাস এর ছবি

বোকস হয়ে গেলাম। সেইরম লাগছে ভাই। আমি থ্রিঞ্চিত।

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপনার মন্তব্য পেয়ে আমিও থ্রিঞ্চিত।

তাসনীম এর ছবি

দারুণ।

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

ফাহিম হাসান এর ছবি

অসংখ্য ধন্যবাদ।

পান্থ রহমান রেজা এর ছবি

ব্যাপকস!

ফাহিম হাসান এর ছবি

অসংখ্য ধন্যবাদ।

অতিথি লেখক এর ছবি

লেখা বা ছবি সম্পর্কে কোন মন্তব্য করতে পারছি না, কারন দেখি নাই। চোখ বন্ধ করে স্ক্রল বার ধরে একটানে নিচে নেমে আসছি মন্তব্য করতে। আপনার ছবি এবং বর্ণনা যে ভাল হবে তাতে আমার কোন সন্দেহ নাই। ছবি যত ভালই হোক না কেন বটম লাইন হচ্ছে আমি যেকোন প্রকার সরীসৃপ সহ্য করতে পারি না। আমার গা পুরাই ঘিনিঘিন করে ওঠে। বাংলাদেশে বাসার ছোট টিকটিকিরাও আমাকে নিয়ে অনেক মশকরা করেছে, এখনো ভুলি নাই সেই সব দিনের কথা। -রু

ফাহিম হাসান এর ছবি

আমি যেকোন প্রকার সরীসৃপ সহ্য করতে পারি না।

ক্ষেত্র বিশেষে আমিও না। চোখ টিপি

তবে এমনিতে আমি সাপ, ব্যাঙ, গিরগিটি ভালো পাই।

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

ছবি, উপস্থাপন এবং বাঁশ, সবগুলোই অতি চমৎকার! চলুক

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ ভাইয়া।

মাহবুব রানা এর ছবি

চলুক

ফাহিম হাসান এর ছবি
রণদীপম বসু এর ছবি

বাহ্ বাহ্ ! কলমের ফোকাস আর লেন্সের ফোকাস মিলে মিশে একাকার !!

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

ফাহিম হাসান এর ছবি

মন্তব্য পেয়ে পুলকিত হলাম। আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

রানা মেহের এর ছবি

আপনার ছবিগুলো একদম পাপিষ্ঠ।
লেখাটা ছি ছি।
ফুকো দেরিদা পড়েন নি বলে এমন করে বলতে পারলেন দেঁতো হাসি

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

ফাহিম হাসান এর ছবি

ঠিক বলেছেন। আমি এক গুনাহগার বান্দা বই ত নই।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

আপনারে বস মানলাম... ম্রাত্মক... ফাটাফাটি... লেখা ছবি দুইটাই

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

ফাহিম হাসান এর ছবি

প্রশংসা শুনে আকাশে উঠে গেলাম লইজ্জা লাগে

কৌস্তুভ এর ছবি

ছবিতে (গুড়), আর লেখায় গুল্লি

ফাহিম হাসান এর ছবি

আপন্র মন্তব্য আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা- র ক্ষেত।

নীড় সন্ধানী এর ছবি

অত্যন্ত সময়োপযোগী। যদিও গ্রান্ড ন্যারেটিভের পার্সপেক্টিভসটা ঝাপসা আসছে হো হো হো

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

ফাহিম হাসান এর ছবি

খিক খিক হা হা হো হো হো

অতিথি লেখক এর ছবি

দারুণ! হাততালি

আপনে গুরু গুরু গুরু

কুটুমবাড়ি

---------------------------------------------------
প্রাণি=প্রাণী
বৈচিত্র=বৈচিত্র্য
আসেপাশে=আশপাশে

ফাহিম হাসান এর ছবি

আন্তরিক ধন্যবাদ বানান ভুল ধরিয়ে দেওয়ার জন্য।

কিন্তু প্রাণি=প্রাণী, বৈচিত্র=বৈচিত্র্য বানান নিয়ে ব্যাখ্যা দিলে আরো পরিষ্কার হত।

প্রাণীর পরে কিছু যোগ দিলে বুঝি প্রাণি হয়ে যায়?? যেমন - প্রাণিবর্গ ইত্যাদি।

কিন্তু বন্যপ্রাণি লিখতে ই-কার কেন দেয়?

সংসদ বাংলায় দুটোই পেলাম -

বৈচিত্র=বৈচিত্র্য

বৈচিত্র, বৈচিত্র্য (p. 644) [ baicitra, baicitrya ] বি. 1 বিচিত্রতা, নানারূপতা; 2 বিচিত্র শোভা বা সৌন্দর্য। [সং. বিচিত্র + অ, য]

অতিথি লেখক এর ছবি

প্রাণীর পরে কিছু যোগ দিলে বুঝি প্রাণি হয়ে যায়??

সংস্কৃত ব্যাকরণ অনুযায়ী এই পরিবর্তন হতে পারে- ইয়ে, মানে...

যেমন : প্রাণীদের নিয়ে যে জগৎ—প্রাণিজগৎ। সমাসবদ্ধ হওয়ার সময় প্রাণী শব্দের ঈ-কার পরিবর্তিত হয়ে ই-কারে পরিণত হয়েছে।

একইভাবে, প্রাণিতত্ত্ব, প্রাণিবিদ্যা, প্রাণিবর্গ ইত্যাদি।

কিন্তু : প্রাণী+রা= প্রাণীরা। 'প্রাণী' শব্দের সাথে বাংলা 'রা' বিভক্তি যুক্ত হওয়ায় 'প্রাণীরা' বানানে কার-চিহ্নের পরিবর্তন হয়নি।

কিন্তু বন্যপ্রাণি লিখতে ই-কার কেন দেয়?

ভুল করে, নিঃসন্দেহে। হাসি

সংসদ বাংলায় দুটোই পেলাম -

বৈচিত্র=বৈচিত্র্য

সংসদ বাংলা অভিধান কতটুকু নির্ভরযোগ্য বলতে পারছি না। চিন্তিত তবে বাংলা একাডেমীর 'ব্যবহারিক বাংলা অভিধানে' বৈচিত্র ভুক্তিটি নেই। তার মানে প্রতিষ্ঠানটির মতে 'বৈচিত্র' বানানটি অশুদ্ধ (অপ্রমিত হলে ভুক্তি হিসেবে রেখে দেয়া হতো)।

কুটুমবাড়ি

ফাহিম হাসান এর ছবি

ধন্যবাদ

কল্যাণF এর ছবি

চলুক

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।