ফেইসবুক অনুবাদের কৃতিত্ব হাইজ্যাকে গ্রামীণ ফোনের চেষ্টা

হাসিব এর ছবি
লিখেছেন হাসিব (তারিখ: রবি, ২৭/০২/২০১১ - ২:৪২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আজকে ওয়েবে বাংলার যে রূপটা দেখা যায় সেটা মোটা দাগে বললে ওপেন সোর্সভিত্তিক। মোস্তফা জব্বারের প্রোপ্রাইটারি বিজয় সফটওয়্যার পাবলিকেশনের কাজের বাইরে আর কোন ব্যবহার হয়না বললেই চলে। কম্পিউটারে বাংলা প্রচলনের এই কর্মযজ্ঞের একটা অংশ হলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট, সফটওয়্যারের বাংলা অনুবাদ। এই প্রচেষ্টার ফল হিসেবে আজকে আমরা সফটওয়্যার থেকে শুরু করে অপারেটিং সিস্টেম পর্যন্ত বাংলায় পাচ্ছি। এইসব অনুবাদ প্রচেষ্টার সিংহভাগ হয়েছে ক্রাউড সোর্সিঙের মাধ্যমে [১]। মানুষ স্বউদ্যোগে এই কাজগুলো করেছে এবং করছে। এখানে কোন কর্পোরেট সাপোর্ট বা অর্থউপার্জনের বিষয় নেই। এরকম একটা অনুবাদ প্রচেষ্টা চলছে ফেইসবুকে।

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক এরকম স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে অনুদিত হয়ে আসছে গত প্রায় আড়াই বছর ধরে। এই কাজটা করতে যেকোন ফেইসবুক ব্যবহারকারি যেকোন স্থান থেকে ফেইসুবুকের ট্রান্সলেট এ্যাপ্লিকেশনটা ব্যবহার করে অনুবাদে অবদান রাখতে পারেন। মোট ৫শত অনুবাদক একটু একটু করে ফেইসবুকের অর্ধেকের বেশী বঙ্গানুবাদ এর মধ্যেই শেষ করে ফেলেছেন।

ছবিঃ বাংলা ট্রান্সলেশন পেইজ

তো গতকাল ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১১ তারিখে গ্রামীণ ফোন প্রথম আলোয় ফেইসবুক অনুবাদ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছে। কোন কারণে আমার চোখ এড়িয়ে গিয়েছিলো। বিনোদন খুঁজতে আজকে ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১১ [২] প্রথম আলোর আইটি পাতায় গিয়ে দেখি সেখানের এ সংক্রান্ত গ্রামীণের প্রেস রিলিজ নিয়ে তারা নিউজ করেছে। সেটার সূত্র ধরে একদিন আগের পত্রিকায় একটা বিজ্ঞাপণ পেলাম। সেখানে লেখা হয়েছে -

ছবিসূত্রঃ প্রথম আলো, ২৫শে ফ্রেব্রুয়ারি, ২০১১

এবার অনলাইনে কাছে থাকার সবচেয়ে বড় মাধ্যম ফেসবুক হবে পরিপূর্ণ বাংলায়। সেই লক্ষ্যে গ্রামীণফোন ও ফেসবুক যৌথভাবে এমন একটি উদ্যোগ নিয়েছে, যাতে আপনি চাইলেই হতে পারেন এর সফল অনুবাদক। তাই আজই বসে যান অনুবাদে, আর বিশ্বকে জানিয়ে দিন বাংলা ভাষার অপার সৌন্দর্য।

আমি অবাক হয়ে ভাবছি এরকম একটা ডাহা মিথ্যা কথা কীভাবে একটা জাতীয় দৈনিক কোন বিজ্ঞাপণে প্রকাশিত হতে পারে। ফেইসবুক ব্যবহারকারিরা চাইলেই অনুবাদ করতে পারেন এটা অন্তত আড়াই বছরের পুরনো কথা। এবং সেখানে গ্রামীণের কোন ভূমিকার কোন প্রশ্ন নেই। ফেইসবুকের অনুবাদের উদ্যোগে গ্রামীণ ফোনের অংশের সত্যতা ফার্মগেটে বিলি করা সর্বরোগহরক ঔষুধের লিফলেটের দাবিগুলোর মতোই অসত্য। স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কাজ করা একশত অনুবাদকের কৃতিত্ব হাইজ্যাক করা ছাড়া অন্য উদ্দেশ্য ভেবে বের করা এখানে কষ্টকর।

প্রথম আলোয় প্রকাশিত নিউজে অবশ্য গ্রামীণ বেশ কিছু উত্সাহী ফেসবুক ব্যবহারকারীর অবদানের কথা কথা স্বীকার করা হয়েছে। তবে সেখানে বলা হয়েছে "আর এবার বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ওয়েবসাইটটি বাংলা ভাষায় রূপান্তরের কাজে অংশ নিতে পারবেন।" এবার মানে কী? আগে বাংলাদেশের ব্যবহারকারিরা বাংলায় অনুবাদ করতে পারতো না? "গ্রামীণের উদ্যোগের" ফলেই এটা সম্ভব হলো?

ছবিসূত্র - প্রথম আলো ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১১ [৩]

গ্রামীণের এই পুরো ক্যাম্পেইনে অসত উদ্দেশ্যের পাশাপাশি হোমওয়ার্কের সুস্পষ্ট অভাব রয়েছে। ২৫শে ফ্রেব্রুয়ারি, ২০১১তে প্রথম আলোর রাজধানী পাতায় প্রকাশিত বিজ্ঞাপণে দেখা যায় সেখানে বলা হয়েছে "অনুবাদ করতে আপনার পিসিতে বাংলা ফন্ট থাকতে হবে"। একইরকম কথা পরদিন প্রথম আলোতেও পাই আমরা। বাংলা লিখতে যে ফন্টের অতিরিক্ত একটা কিবোর্ড লেআউটও থাকতে হয় এটা মনে হয় উনারা ঠাওর করতে পারেননি। ওয়েবে বাংলা বিষয়ে উনাদের জ্ঞানগম্যি প্রকাশ পায় এভাবে -

ফেসবুকের মতো একটি বৃহত্ যোগাযোগ মাধ্যম বাংলা ভাষায় অনূদিত হলে তা অন্যান্য ওয়েবসাইটকেও বাংলায় রূপান্তরে উত্সাহিত করবে। এর ফলে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারের অন্যতম প্রধান বাধা ভাষাগত সমস্যা অনেকাংশে দূর হবে। এ ছাড়া ইন্টারনেট ব্যবহার বাড়লে বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার উদ্যোগ অনেকখানি এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়।

প্রিয় গ্রামীণ ফোন, দেশে বহুদিন ধরে দেশে একটা কৌতুক চালু রয়েছে। কৌতুকটা গরু রচনা বিষয়ে। কৌতুকটা এরকম - ছাত্র মুখস্ত করে গিয়েছে নদী রচনা। কিন্তু পরীক্ষায় এসেছে গরু রচনা। চতুর ছাত্র গরুর চারপা, দুই শিং দিয়ে শুরু করে গরু নদীতে গোসল করে লেখার পর পুরো পাতা ভরে দিয়েছে নদীর বর্ণনা! আপনাদের ফেইসবুক অনুবাদের সাথে ডিজিটাল বাংলাদেশের কানেকশনটা এরকম একটা গরু রচনা হয়েছে। গেল বছর এই সময়ে দুনিয়া কাপিয়ে ঘৃণার পাত্র হয়েছিলেন। এবার হলেন কৌতুক, উপহাসের উৎস। ঘৃণা, পরিহাস, উপহাস সমস্ত নেতিবাচক দিকে আপনাদের নাম জুড়তে হবে এরকম দিব্যি কেউ দেয়নি। এবার থামুন দয়া করে। বাংলায় যারা স্বেচ্ছাশ্রমে অবদান রেখে চলেছেন তাদেরকে তাদের কাজ করতে দিন।

সূত্রঃ
[১] ক্রাউডসোর্সিং - উইকিপিডিয়া লিংক
[২] ফেসবুক এবার বাংলায়! প্রথম আলো - ২৬শে ফ্রেব্রুয়ারি, ২০১১ লিংক
[৩] ছবিটা স্ক্যান করে সরবরাহ করেছেন যাযাবর ব্যাকপ্যাকার লিংক। কৃতজ্ঞতা এজন্য।

নোটঃ
একই সাথে ব্যক্তিগত ব্লগে প্রকাশিত [লিংক]


মন্তব্য

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

২৫ তারিখের প্রথম আলোর পেছনের পাতার বড় বিজ্ঞাপনটার নিচের অংশ দ্রষ্টব্য:

সেই লক্ষ্যে গ্রামীণফোন ও ফেসবুক যৌথভাবে এমন একটি উদ্যোগ নিয়েছে, যাতে আপনি চাইলেই হতে পারেন এর সফল অনুবাদক।

ফেসবুকের সাথে যোগাযোগ করে জানা দরকার আসলেই জিপির সাথে এদের কোন চুক্তি হয়েছে কিনা।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

হাসিব এর ছবি

আমার নিজের ধারণা চুক্তিটা হয়তো এরকম যে ফেইসবুকের নাম ব্যবহার করে কিছু বিজ্ঞাপণী কাজকর্ম করবে গ্রামীণ। এমনিতে এপিআইতে কোন পরিবর্তন দেখলাম না। আর হ্যাঁ, ছবি বড় করতে রাইট ক্লিক করে ভিউ ইমেজে গেলেই হবে।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

ছবি বড় করতে রাইট ক্লিক করে ভিউ ইমেজে গেলেই হবে।

ধন্যবাদ।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

ডুপ্লি ঘ্যাচাং

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

অতিথি লেখক এর ছবি

যোগাযোগ করার দরকার নাই। মার্ক জুকারবার্গ আর গ্রামীনের চেয়ারম্যান গতসপ্তাহে ফার্মগেট ওভারব্রিজের উপর একটা রুদ্ধদ্বার বৈঠকে এ মর্মে একটি চুক্তিপত্রে সই করেন।

বুনোহাঁস এর ছবি

Smiley

ফাহিম হাসান এর ছবি
অতিথি লেখক এর ছবি

উত্তম জাঝা! গড়াগড়ি দিয়া হাসি ওঁয়া ওঁয়া

অপছন্দনীয় এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

সামি এর ছবি

এই বিজ্ঞাপন এর সাথে ফেসবুক এর "ব্রান্ডিং পলিসি"... গ্রামীণফোন এর এক থ্রেড এ এই কথা উল্লেখ করার সঙ্গে সঙ্গে ডিলিট করে দেয় তারা ওই পুরো থ্রেড! এই থেকে আমি ধরে নিচ্ছি যে ফেসবুক এই ব্যাপারে কিছুই জানে না।

বুনোহাঁস এর ছবি

দেশ ও জাতিকে উদ্ধার করতে বদ্ধপরিকর গ্রামীণ! এবার বিজয় দিবসেও গ্রামীণের মনে হয়েছিলো আমরা এদ্দিন ভিতর থেকে জাতীয় সঙ্গীত গাই নাই। তাই সবাইকে বুকে হাত দিয়ে ভি-ত-র থেকে গাইয়েছে।

হাসিব এর ছবি

ভি-ত-র থেকে, দুনিয়া কাপিয়ে দাপিয়ে কদ্দিন চলবে এরা কে জানে!

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

নতুন সুর সংযোজনের কথাটাও ভুলে যেও না। আর এর আগে কি আর বাংলাদেশের মানুষ ভে-ত-র থেকে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছে নাকি কখনো!!

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

অতিথি লেখক এর ছবি

এটাকে কি গ্রামীনফোনের সাইবার ক্রাইম বলা যায়? যদি যায়, তাহলে এই ক্রাইম প্রচারের জন্য প্রথমালোও অভিযুক্ত হবে।

- প্রলয় হাসান

হিমু এর ছবি

খাইছে! পল্লব মোহা উরফ লোকালটক কি আলুর আইটি পাতা ছাইড়া জিপির আইটি পাতার কুতুব হৈল?

হাসিব এর ছবি

সন্দেহ আছে। গ্রামীণে চাকরি করতে বাংলা না জানতে হলেও ইংরেজি জানা লাগে। তাছাড়া কীবোর্ড লেআউট যে লাগে এইটা এতোদিন ব্লগানোর পর জানার কথা।

হিমু এর ছবি

হয়তো সালুয়ার চোদ্রির সাথে চ্যাট করতে করতে ইংরাজি (বৃটিশ অ্যাকসেন্ট) শিখে ফেলসে। আরিলের কাছ থেকে নরউইজিয়ান ভাষায় লেখা ক্যারেক্টার সার্টিফিকেটও হয়তো জমা দিসে।

হিমু এর ছবি

লতা মুঙ্গেশকরের গানের সিডির কাভারে ইভা রহমানের চেহারা ছাপালে পরিস্থিতিটা যেমন হবে, এইটা সেরকম হয়েছে।

অতিথি লেখক এর ছবি

চলুক

একজন পাঠক এর ছবি

Ekebare shohomot

আনন্দী কল্যাণ এর ছবি

এই দেশপ্রেম দেশপ্রেম খেলা আর কত? ত্যক্তবিরক্ত রেগে টং

রিফাত rifat এর ছবি

হাসিব, ধন্যবাদ। বিজ্ঞাপনটা দেখে আমিও অবাক হয়েছিলাম। কেননা বছরখানেক আগেই আমি ফেসবুকের কিছু অনুবাদ করেছিলাম। বিজ্ঞাপনে 'অনুবাদক আবশ্যক' শিরোনাম ব্যবহার করে স্টান্টবাজির ন্যক্কারজনক দৃষ্টান্ত স্থাপন করল গ্রামীণফোন। ধিক্কার জানাচ্ছি।

রিফাত হায়দার

তানভীর এর ছবি

আজ hitcric-এ পাকি চ্যানেলে খেলার মাঝে টেলিনরের অনেক বিজ্ঞাপন দেখলাম। গ্রামীন ফোনের (টেলিনর বাংলাদেশ) মতো টেলিনর পাকিস্তানও সেখানে দেশপ্রেম দেশপ্রেম (পড়ুন পাকিপ্রেম) খেলায় মত্ত দেঁতো হাসি । এদের যে কোনো দেশপ্রেম নাই এসব এডই তার প্রমাণ। ভুয়া দেশপ্রেম বিক্রি করে বাণিজ্য করা এসব বিদেশি বেনিয়াদের বর্জন করে দেশ থেকেই খেদানো উচিত রেগে টং

টেলিনরের এড- ফিউচার অফ পাকিস্তান (ইউটিউবে আরো আছে)

অতিথি লেখক এর ছবি

প্রেস রিলিজটা পড়লাম। ওখানে সরাসরি কোন "মিথ্যা কথা" বলা হয়নি। স্বেচ্ছাসেবকরা যে কাজ শুরু করে দিয়েছে সেটাও উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু রিপোর্টের টোন দেখলে ঠিকই মনে হয় গ্রামীণফোন সবাইকে সুযোগটা সৃষ্টি করে দিচ্ছে। -রু

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

গ্রামীণের এই পুরো ক্যাম্পেইনে অসত উদ্দেশ্যের পাশাপাশি হোমওয়ার্কের সুস্পষ্ট অভাব রয়েছে।

আরেকটা মজার অব্জারভেশন - জিপির এই অ্যাডে যে পোস্টার সাঁটা দেয়ালে, সেখানে লেখা -

অনুবাদক আবশ্যক
যোগ্যতা: যারা ফেসবুকে বাংলায় কথা বলতে চান
বয়স: যে কোন বছরের নারী-পুরুষ

ফেসবুকে রেজিস্ট্রেশনের নূন্যতম একটা বয়স আছে। সম্ভবত সেটা ১৩ বছর। হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

অতিথি লেখক এর ছবি

একটা অফটপিক প্রশ্ন করি, বাংলাদেশের নিজেদের কোন মোবাইল ফোন সার্ভিস প্রোভাইডার আছে কি, নাকি সবই বিদেশী? -রু

আবির আনোয়ার এর ছবি

যতদূর জানি টেলিটক পুরোপুরি দেশি।

শাহেনশাহ সিমন এর ছবি

উল্টাটাও ঘটে

_________________
ঝাউবনে লুকোনো যায় না

যুধিষ্ঠির এর ছবি

নির্লজ্জ কর্পোরেট চৌর্যবৃত্তি! আসলে যেহেতু সবার নাকের ডগা দিয়ের কাজটা, এটাকে ডাকাতি বললে ভালো হয়, কিন্তু ডাকাতের রুচি বোধহয় এর চেয়ে ভালো হয়। এইটা একেবারে ছিঁচকে চোরের কাজ।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

অনলাইনে লেখালেখির মাধ্যম সম্পর্কে মনে হয় গ্রামীনের কোন ধারণা নেই। সেজন্যই তারা বুঝতে পারেনি তাদের "উদ্যোগে"র ভাতে কেউ এভাবে ছাই দিতে পারে।

ব্লগ আসলেই শক্তিশালি মাধ্যম হয়ে উঠছে। হাসি

অতিথি লেখক এর ছবি

চলুক

আনন্দ খান এর ছবি

মোট ১১১ জন অনুবাদক একটু একটু করে ফেইসবুকের অর্ধেকের বেশী বঙ্গানুবাদ এর মধ্যেই শেষ করে ফেলেছেন।

এই তথ্যটা সঠিক না। এই মুহূর্তে ১১১ জন অনুবাদক সক্রিয়। তবে গত আড়াই বছরে বাংলা অনুবাদ করছিলেন পাঁচশ'রও বেশি মানুষ। একটা তালিকা পাওয়া যাবে এখানে -http://www.facebook.com/translations/leaderboard.php?local&app=1&aloc=bn...

খুব ভাল লাগল লেখাটা।

___________________________________________________
আনন্দে থাকি, আনন্দে রাখি

হাসিব এর ছবি

ভুল ধরিয়ে দেবার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আনন্দ খান। আমি ভুলটুকু শুধরে দিচ্ছি।

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

নির্লজ্জ গ্রামীন ফোনকে ধিক্কার!!!

একটা ব্যাপার কারো জানা থাকলে শেয়ার করুন, গ্রামীন ফোনের এই বিজ্ঞাপনটির আইডিয়া কার? এটি কোন বিজ্ঞাপনী সংস্থা বানিয়েছে? ধিক্কার সবার আগে নির্লজ্জ আইডিয়াবাজের প্রাপ্য!

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

সাফি এর ছবি

আমার ধারণা এটা মার্কেটিং এর কারো মস্তিষ্কপ্রসূত। বিজ্ঞাপনী সংস্থা মার্কেটিং পলিসি নির্ধারণ করেনা, বরং তাদের আইডিয়া কে বাস্তবায়ন করে

সাফি এর ছবি

গ্রামীণফোন তো উইকিপিডিয়াও বানাচ্ছে বাংলাসহ অনেক ভাষায়, আপনারা জানেন না?

হাসিব এর ছবি

আমার আশংকা এটা তারা করবে খুব তাড়াতাড়িই।

ফাহিম হাসান এর ছবি

আমি তো প্রথমে ভেবেছিলাম আপনি মজা করে পোস্ট দিয়েছেন। পরে দেখি সিরিয়াস ব্যাপার। (যদিও খবরটায় বিনোদনের কমতি নেই)।

বহুজাতিক কোম্পানির চোখে পড়ে না অন্তর্জালে বাংলা ভাষার স্বেচ্ছাসেবকদের শ্রম- মুনাফার লোভে এতই অন্ধ তারা।

হিমু এর ছবি

ফেসবুকে কী হয় না হয় সেইটা মনে হয় ওনারা জানেন না। এর একটা কারণ হতে পারে, ওনারা হয়তো মুমিনদের মাঝে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইট মদিনা ডট কম এস্তেমাল করেন।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

থাবড়ায়ে কানপট্টি গরম করে দেয়া দরকার নালায়েকগুলার।

নজরুল ইসলাম এর ছবি

আমার হাতেই নিলাম আমার নির্ভরতার চাবি, তুমি বাংলা ছাড়ো

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

অতিথি লেখক এর ছবি

চলুক হাততালি

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

টেলিনর ও ফাকিস্তানী স্বাধীনতাদিবস-

টেলিনর ও বাংলাদেশের স্বাধীনতাদিবস-

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

প্রথম ভিড্যুতে পোলাটা হইল টেলিনরাধমের প্রতীক। পাকিস্তানীদের প্রাণের ’নিশান’ ঠিক কইরা দিয়া স্যালুট পাইয়া আবার বাংলাদেশে রওনা দিছে আমগো জাতীয়তাবাদরে ভিতর থিকা বাইর করনের লাইগা। পপেচনাল জাতীয়তাবাদী।

নীড় সন্ধানী এর ছবি

বিজ্ঞাপনটা পড়ে রাগের চেয়েও আমোদই পেলাম বেশী। কর্পোরেট বিনোদন বলা যায়।
পরবর্তী আশংকা হলো আগামী ব্লগ দিবস গ্রামীণ ফোনের উদ্যোগে পালিত হতে পারে এবং বাংলা ব্লগ চালুর ক্ষেত্রে গ্রামীণফোনের অবদান নিয়ে মোনাজাত ও দোয়া খায়ের হতে পারে।

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

অতিথি লেখক এর ছবি

আমি একটি প্রস্তাব পেশ করছি গ্রামীণ ফোনের কাছে; তারা নিজের নাম "গ্রামীণ ফোন" এর সম্পূর্ণ বাংলায় অনুবাদ করুক। দেখি পারে কিনা। দেঁতো হাসি

-অতীত

অতিথি লেখক এর ছবি

সহমত ।

অতিথি লেখক এর ছবি

গ্রামীণফোন এম্নিতেই বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় আর বৃহৎ ফোন সার্ভিস প্রোভাইডার, এরা কিন্তু সবচেয়ে বেশি ট্যাক্সপেয়ারও বটে সেটা ভুললে চলবে না।

পাগল মন সাথে এটা ভুলে চলবে না যে গ্রামীণ VOIP অবৈধ ব্যবসার সাথে জড়িত। এই ব্যবসা দিয়ে তারা সবচে বেশি ট্যাক্স ফাঁকি দিচ্ছে।

----- সৌম্য

পাগল মন এর ছবি

আমি বিজ্ঞাপনটার অন্তত একটি ভালো দিক দেখতে পাচ্ছি: এতে করে কিছু মানুষ হয়ত বাংলা অনুবাদে উৎসাহিত হবে যারা আগে ব্যাপারটা কী জানতো না। আর এই পোস্টটার উপকারীতা হচ্ছে, আরো বেশি কিছু মানুষ ফেসবুকে বাংলা অনুবাদে আগ্রহী হবে। সব কিছুরই কিছু ভালো দিক আছে, সেটা এড়িয়ে শুধু মন্দ দিক দিক নিয়ে কথা বললে ব্যাপারটা একপেশে হয়ে যায়।

আমরা যখন গ্রামীণ ফোন, প্রথম আলোর সমালোচনা করি তখন ভুলে যাই মনে হয় যে এরা আদতে কর্পোরেট বাণিজ্য করে, এদের মূল উদ্দেশ্য প্রথমে বাণিজ্য তারপরে অন্যকিছু। এই বিজ্ঞাপনে সত্যের অপলাপ করা হয়েছে ঠিকই কিন্তু এটা যদি কিছু মানুষকে বঙ্গানুবাদে উৎসাহিত করে তাহলে কিন্তু সেটা ভালোই। গ্রামীণফোন এম্নিতেই বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় আর বৃহৎ ফোন সার্ভিস প্রোভাইডার, এরা কিন্তু সবচেয়ে বেশি ট্যাক্সপেয়ারও বটে সেটা ভুললে চলবে না। সো ওরা যদি এরকম কিছু নাও করে মানুষ কিন্তু ঠিকই জিপি ব্যবহার করবে তারপরেও ওরা এটা করছে এটা অবশ্যই প্রশংসার যোগ্য।

আমি অবশ্যই এই বিজ্ঞাপনের মিথ্যা অংশটুকু নিন্দা জানাই, সে সাথে এরকম একটি উদ্যোগের জন্য গ্রামীণফোনকে ধন্যাবাদ-ও জানাই।

------------------------------------------
হায়রে মানুষ, রঙিন ফানুস, দম ফুরাইলে ঠুস
তবুও তো ভাই কারোরই নাই, একটুখানি হুঁশ।

অতিথি লেখক এর ছবি

আমাদের উচিত প্রথম আলো এবং গ্রামীণ ফোন কে বর্জন করা।

হাসিব এর ছবি

পোস্টটা যদি ১২:২০ PM সময়ে জি এম তামিমের করা কমেন্টের বিষয় নিয়ে হতো তাহলে, আপনার মন্তব্যের চেহারাটা আন্দাজ করি এরকম হতো -

আমি বিজ্ঞাপনটার অন্তত একটি ভালো দিক দেখতে পাচ্ছি: এতে করে কিছু মানুষ হয়ত সকালে ঘুম থেকে উঠতে উৎসাহিত হবে যারা আগে ব্যাপারটা কী জানতো না। আর এই পোস্টটার উপকারীতা হচ্ছে, আরো বেশি কিছু মানুষ সকালে ঘুম থেকে উঠতে আগ্রহী হবে। সব কিছুরই কিছু ভালো দিক আছে, সেটা এড়িয়ে শুধু মন্দ দিক দিক নিয়ে কথা বললে ব্যাপারটা একপেশে হয়ে যায়।

আমরা যখন গ্রামীণ ফোন, প্রথম আলোর সমালোচনা করি তখন ভুলে যাই মনে হয় যে এরা আদতে কর্পোরেট বাণিজ্য করে, এদের মূল উদ্দেশ্য প্রথমে বাণিজ্য তারপরে অন্যকিছু। এই বিজ্ঞাপনে সত্যের অপলাপ করা হয়েছে ঠিকই কিন্তু এটা যদি কিছু মানুষকে সকালে উঠতে উৎসাহিত করে তাহলে কিন্তু সেটা ভালোই। গ্রামীণফোন এম্নিতেই বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় আর বৃহৎ ফোন সার্ভিস প্রোভাইডার, এরা কিন্তু সবচেয়ে বেশি ট্যাক্সপেয়ারও বটে সেটা ভুললে চলবে না। সো ওরা যদি এরকম কিছু নাও করে মানুষ কিন্তু ঠিকই জিপি ব্যবহার করবে তারপরেও ওরা এটা করছে এটা অবশ্যই প্রশংসার যোগ্য।

আমি অবশ্যই এই বিজ্ঞাপনের মিথ্যা অংশটুকু নিন্দা জানাই, সে সাথে এরকম একটি উদ্যোগের জন্য গ্রামীণফোনকে ধন্যাবাদ-ও জানাই।

অপটপিক - গ্রামীণে সিভিটা ড্রপ কে দিয়েন জলদি। আপনার কমেন্টটা এ্যাটাচমেন্টে দিতে পারেন।

পাগল মন এর ছবি

আমার লেখায় কোন ভুল কী আছে? কিছু বেশি মানুষ যদি এই বিজ্ঞাপন দেখে ফেসবুকে বাংলা অনুবাদে আগ্রহী হয় তাহলে সেটা তো ভালই। আর কেউ তো এরকম কিছু করেনি। সমস্যা একটাই ওরা মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। সেটা নিয়েতো বলেছিই।

অ.ট. উত্তর: গ্রামীণে কেন আমার সিভি দিতে হবে? ভালো কে ভালো আর খারাপ কে খারাপ বলা মানে কী আমি গ্রামীণকে খুব পছন্দ করি?

------------------------------------------
হায়রে মানুষ, রঙিন ফানুস, দম ফুরাইলে ঠুস
তবুও তো ভাই কারোরই নাই, একটুখানি হুঁশ।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

এই বিজ্ঞাপনে সত্যের অপলাপ করা হয়েছে ঠিকই কিন্তু এটা যদি কিছু মানুষকে বঙ্গানুবাদে উৎসাহিত করে তাহলে কিন্তু সেটা ভালোই।

পাগল ভাই, খাঁটি বাংলায় একটা কথা আছে, "গোয়া মেরে টিস্যু দান"। জানেন তো বোধ'য়। কারো কাছে মুষলধারায় পাছামারা খেয়ে নিশ্চয়ই আপনি ভাববেন, সে আপনার পাছা মেরে দিচ্ছে ঠিকই কিন্তু সাথে সুগন্ধিমাখা একটা বসুন্ধরা টিস্যুও দিচ্ছে, এইটা কিন্তু ভালোই। কী বলেন!

আর পাছামারা অংশটার নিন্দা জানালেও টিস্যুদানের উদ্যোগটা কিন্তু অবশ্যই ধন্যবাদের যোগ্য।

পাগল মন এর ছবি

ধুগোদা প্রথমত, আমার নিক "পাগল" না, "পাগল মন" হাসি
দ্বিতীয়ত, খাঁটি বাংলায় কিভাবে টিস্যু শব্দটা থাকে সেটা বুঝতে পারছি না, আমি তো জানতাম এটা ইংরেজী শব্দ অ্যাঁ চোখ টিপি

আপনার সবাই আমার কথার/মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করছেন বলে মনে হচ্ছে। আমি কখনই এটা বলিনি যে গ্রামীণ যেটা লিখেছে বিজ্ঞাপনে সেটা সঠিক। আমি শুধু বলেছি আমাদের অসত্য দিকটার প্রতিবাদ করা উচিত উদ্যোগটার নয় কেননা উদ্যোগটা নিঃসন্দেহে ভাল (আবারো বলছি, মিথ্যা অংশটুকু ছাড়া)। এখন এটাকে আপনি যদি বলেন "গোয়া মেরে টিস্যু দান" অথবা বাংলায় "গরু মেরে জুতা দান" তাহলে আমার কিছু বলার নেই আর।

------------------------------------------
হায়রে মানুষ, রঙিন ফানুস, দম ফুরাইলে ঠুস
তবুও তো ভাই কারোরই নাই, একটুখানি হুঁশ।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

বস, আবারও বলছি উদ্যোগটাই যদি একমাত্র বিচারযোগ্য ফ্যাক্টর হয়, তাহলে টিস্যু দান'টাও একটা 'উদ্যোগ'। এবং সেক্ষেত্রে গোয়া মেরে টিস্যু দান যদি এখনও আপনার প্রসংশার সাথে মেলাতে না পারেন, তাহলে কিছু বলাই নেই আর।

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

গুড ক্যাচ! কতগুলো ছাগল মনে হয় গ্রামীন ফোনে কাজ করছে। হয়ত পুরো গ্রামীন ফোনের কর্পোরেট কালচারই এরকম।

হাসিব এর ছবি

কোম্পানি বেশী বড় হয়ে গেলে সেখানে মানুষজন নিজেদের গডলাইক কিছু ভাবতে শুরু করে। সমস্ত সমালোচনার উপরে মনে করা শুরু করে নিজেদের। এ্যান্টিথিসিসের অভাব মেধা কমায় এটা চিরন্তন সত্য। নিজের একটা অভিজ্ঞতা থেকেই বললাম এটা।

দ্রোহী এর ছবি

যে কাজগুলো আজন্ম করে এসেছি গ্রামীণ ফোনের সুবাদে সে কাজগুলো নতুন করে করতে শিখব। এ আর এমন কী!

অনুবাদকের লিস্টে নিজের নামখানা খুঁজে বের করতে বেশ কষ্ট হয়েছে। কিন্তু নামটা দেখার পর হঠাৎ করে ভাল লাগল - হোক না সে এক বিন্দু জল! আফটার অল, জল তো!

জাহিদুল হোসেন এর ছবি

আমি আচাইয্য হইয়া গেলাম ব্লগ খানা পরিয়া। এমন ঘ্রিন্য কাজ শুধু মাত্র শহুরে (গ্রামীন) ফোন এর ধারাই সম্ভব

অতিথি লেখক এর ছবি

গ্রামিনফোনের নতুন বাটপারি, ফেসবুক বাংলায় অনুবাদ-- এরকম একটা লেখা আশা করেছিলাম কালকে, যাক আজকেই পেয়ে গেলাম। হাসিব ভাই অনেক ধন্যবাদ এরকম একটা ফাটা ফাটি লেখার জন্য। গ্রামিনফোনের এইসব বাটপারি দেখতে দেখতে আসলে আমরা ক্লান্ত আর এগুলোর বুদ্ধিও দেয় আমাদেরই দেশিয় কিছু উর্বর মস্তিষ্কের ছাগল।
মুর্শেদ ভাই আপনার কথার সঙ্গে আমি একমত, গ্রামিনফোনের চাকরদের মান আসলেই নিচে নেমে গেছে নাইলে গ্রামিনফোনের কর্পোরেট কালচার এমন ছিল না।

লেখাটা শেয়ার দিলাম।

--
কালো ও সাদা

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

বাহ্ বেশ বেশ! এরা দেখি বিজ্ঞাপনে omicronlab এর ফন্ট ডাউনলোড লিংকও ব্যবহার করেছে! ...পরবর্তী টার্গেট বাংলা উইকিপিডিয়া হলে আশ্চর্য হবো না।

সালাহউদ্দীন এর ছবি

গ্রামীনফোনের এসব ভন্ডামী চলতেই থাকবে

গৌতম এর ছবি

গ্রামীণফোন ফেসবুক-অনুবাদ সংক্রান্ত যে বিজ্ঞাপনটি দিয়েছে সেটা পরিষ্কার গাধামি ছাড়া আর কিছুই না। এই বিজ্ঞাপনটি দেখার পরপরই আমি ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিই এবং এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি অনুবাদক হিসেবে যার নাম দেখা যাচ্ছে সেই লেনিন ভাইয়ের সাথে ইমেইলে যোগাযোগ করি। বিষয়টি জেনে তিনিও অবাক। তাঁকে বলেছিলাম একটা লেখা তৈরি করতে। কিন্তু তিনি মনে করছেন (এবং আমার অভিজ্ঞতা বলে এই মনে করাটা পুরোপুরি যৌক্তিক) এই বিষয়ে লেখা কোনো পত্রিকা ছাপবে না। তারপরই ভাবছিলাম এই বিষয়ে অন্তত ব্লগে একটা লেখা দিব কিংবা লেনিন ভাইকে লেখার কথা বলবো। তার আগেই হাসিব ভাই লেখাটি দেয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

ফেসবুকের অনুবাদের এই কাজ শুরু হয় আজ থেকে সম্ভবত বছর দুয়েকেরও বেশি আগে। লেনিন ভাইসহ বিডিওএসএনের নাসির ভাই এবং পরিচিত আরো অনেকে দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুক অনুবাদের কাজে সক্রিয়। আমাদের সচলদের মধ্যে তানিম ভাইয়ের নামও এই অনুবাদকদের তালিকায় দেখতে পাচ্ছি। খুব সামান্য হলেও কিছু কাজ একসময় আমিও করেছি। গ্রামীণফোন এবং ফেসবুকের মধ্যে কোনো চুক্তি বা কথাবার্তা হয়েছে কিনা জানি না, কিন্তু গ্রামীণের বিজ্ঞাপন দেখে মনে হয়েছে, ফেসবুক অনুবাদের কাজটি তারা টেন্ডার পেয়েছে এবং এখন তারা কিছু অনুবাদককে দিয়ে এই কাজটি করাতে চায়। সবচেয়ে বড় কথা, কাজটি যে স্বেচ্ছাসেবীরা ইতোমধ্যে ৬৫%-এরও বেশি করে ফেলেছে, সেই টিউনটি সেখানে অনুপস্থিত। গ্রামীণফোন কি ভাবছে যে, আর কয়েকদিন পর কেউ বাংলা ফেসবুক দেখে কৃতিত্বটা তাদেরকে দিবে? সেটা হলে সে আশায় গুড়েবালি।

ফেসবুক বাংলা অনুবাদের কাজে যারা জড়িত রয়েছেন, তারা কেউই কোনো ধরনের সুযোগসুবিধা পান না। পুরোপুরি স্বেচ্ছাসেবী মনোভাব থেকে তারা এ কাজটি করছেন। অনুবাদকের নামের তালিকায় নিজের নামটি দেখা আর বাংলা ভাষার জন্য কিছু একটা করতে পারার সুখকর অনুভূতি ছাড়া আর কোনো প্রাপ্তি তাদের নেই। বরং এ কাজে প্রচুর সময় দিতে হয়। ফেসবুক অনুবাদের কাজে যে কেউই আহ্বান করতে পারে, বিজ্ঞাপন দিতে পারে; কিন্তু সেটি হতে হবে যারা ইতোমধ্যে এই কাজে জড়িত আছেন তাদের কাজটিকে সম্মান জানিয়ে, তাদের অবদানগুলোকে উল্লেখ করে। গ্রামীণের বিজ্ঞাপন থেকে সেরকম কিছু একেবারেই অনুপস্থিত। এটা পরিষ্কার শঠতা।

আমার মনে হয়, এ ব্যাপারে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা দরকার। আমি যতদূর জানি, এ ধরনের কাজের জন্য ফেসবুক কোথাও কাউকে দায়িত্ব দেয় নি; বরং তারা ব্যবহারকারীদের অবদানের উপরই নির্ভরশীল। গ্রামীণ যে এখানে একটা স্টান্টবাজি করতে যাচ্ছে, সে ব্যাপারে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে শিগগিরই জানানো দরকার। গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষকেও জানানো দরকার, তাদের এ সমস্ত স্টান্টবাজিতে আদতেই কোনো কাজ হবে না। মানুষ এখন অনেক সচেতন, বিশেষ করে অনলাইনওয়ালারা।

.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি

গ্রামীণফোনের নোংরামী আর কতো দেখবো..............

rahil_rohan এর ছবি

উত্তম জাঝা!

আরিফ জেবতিক এর ছবি

বদমায়েশির একটা সীমা পরিসীমা থাকা উচিত। কর্পোরেটদের, বিশেষ করে গ্রামীনের এসব বদমায়েশি এখন বিরক্তিকর এবং ক্লান্তিকর পর্যায়ে চলে যাচ্ছে।

স্বপ্নবাজ তানভীর এর ছবি

ধোকাবাজ গ্রামীণফোন । এদের শাস্তি হওয়া উচিত।

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

তাগো সকল আগ্রহ হৈল মানুষের বায়বীয় অনুভূতিগুলা নিয়া। ভালো কাজ কইরা দিবে না, কিন্তু ভালো কাজের শপথ করাবে। গ্রামীণের মানসিক শান্তিযুক্ত গ্যারান্টির মত। এত ’ভালু’ করার ইচ্ছা থাকলে বস্তুগত উন্নয়ন করেন! জাতীয় সঙ্গীত ভিতর হতে গাওয়ার থেকে বাংলাদেশে গভীর এবং ভিতর থেকে মৌলিক বৈজ্ঞানিক গবেষণা হওয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেটার জন্যে টাকা ঢালেন দেখি, কত ভালু করার ইচ্ছা। আপনাদের ব্যবহার করা টেকনোলজিগুলা বাংলাদেশে মৌলিকভাবে গবেষণার মাধ্যমে তৈরি হোক, সেটা তো আপনারা চান না। মোবাইলের পেছনে আমাদের দেশের ব্যবহারকারীর খরচ করা টাকা যাতে দেশেই থাকে, সেইটা তো চান না। তাইলে আমাদেরকে এত বায়বীয় প্রেরণায় বলীয়ান জাতীয়তাবাদী বানাইতে চান ক্যান?

জি.এম.তানিম এর ছবি

সৃষ্টিকর্তার সাথে গ্রামীণফোন যৌথভাবে একটি উদ্যোগ নিয়েছে। যার কল্যাণে পৃথিবীতে সূর্যোদয় এখন থেকে প্রতিদিন পূর্বদিকে হবে। আপনি যদি এই উদ্যোগে অংশগ্রহণ করতে চান, তাহলে রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠুন।

-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

হাসিব এর ছবি

এই সংক্রান্ত প্রথম আলোর প্রকাশিতব্য নিউজটার একটা মুসাবিদা করলাম -

পৃথিবীবাসিদের জন্য সুখবর! গ্রামীণফোন ও সৃষ্টিকর্তা যৌথ উদ্যোগে পৃথিবীবাসিদের জন্য সূর্য পূর্ব দিকে ওঠার সুযোগ করে দিচ্ছে। উন্মুক্ত জায়গা ছাড়া পৃথিবীবাসিরা জানালার সামনে দাড়িয়েও এ সেবা পাবেন। আজ শনিবার গ্রামীণফোন হাউসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির সিসিও কাজী মনিরুল কবির এ তথ্য জানান।
গ্রামীণফোন লিমিটেডের করপোরেট কমিউনিকেশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর আগে বেশ কিছু উত্সাহী পৃথিবীবাসি সূর্য পূর্বদিকে ওঠা প্রত্যক্ষ করলেও এর পৃথিবীবাসিদের উল্লেখযোগ্য অংশই এবিষয়ে অজ্ঞাত থেকে গেছে। আর এবার বাংলাদেশের অধিবাসীরা পূর্ব দিগন্ত সুর্যোদয় প্রত্যক্ষ করতে পারবেন। এর জন্য বাঙ্গালিদের সূর্যোদয় বাংলায় রূপান্তরের জন্য ‘পূর্বদিগন্তে সূর্য আবিস্কার’ ওপেন অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে হবে।
এর জন্য অংশগ্রহণকারীদের যে ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবে—
১. ফেসবুকে যোগ দিয়ে www.god.com/sunshine-এ লগঅন করতে হবে। ২. পাতার বাম দিকের ‘প্রিফারেন্সেস’—এ ক্লিক করতে হবে। ৩. ‘প্রিফারেন্সেস’ থেকে পূর্ব পশ্চিম উত্তর দক্ষিণ চারটা দিক থেকে ‘পূর্ব’ সিলেক্ট করতে হবে এবং আপডেট প্রিফারেন্সে ক্লিক করতে হবে। ৪. সূর্যোদয় সংকেতটিতে ক্লিক করে সূর্যকে পূর্বদিকে ওঠানো যাবে। তবে এই এ্যাপ্লিকেশন চালাতে গ্রহবাসিদের অন্তত একটি সূর্যের অস্তিত্ব নিশ্চিত করতে হবে। ৫. পূর্ব দিকে এর আগে ওঠা সূর্য থেকে সেরা সূর্যোদয় নির্বাচনে ভোট দেওয়া যাবে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, মহাবিশ্বের একটি অন্যতম প্রধান তারকা হওয়া সত্ত্বেও মহাবিশ্বে সূর্য্যের ব্যবহার খুবই কম। সূর্য পূর্বদিকে ওঠানো আমাদের সকালে ওঠানোর চর্চা বৃদ্ধিতে সহযোগিতা করবে। সূর্য্যের মতো একটি বৃহৎ তারকা পূর্ব দিকে ওঠোনো গেলে তা অন্যান্য গ্রুহপুঞ্জকের তারকাগুলোকেও পূর্বদিকে উদয়ে উত্সাহিত করবে। এর ফলে পৃথিবীতে সকালে ওঠার অন্যতম বাঁধা রাতে দেরি করে ঘুমানোর অভ্যাস অনেকাংশে দূর হবে। এ ছাড়া সূর্য পূর্ব দিকে উঠলে বর্তমান সৃষ্টিকর্তার মহাজাগতিক বিশ্ব গড়ার উদ্যোগ অনেকখানি এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়।

হিমু এর ছবি
দ্রোহী এর ছবি

বেলাছফেমি ও ইউনুচফেমি একসাথে কত্তে পাল্লেন! আপ্নার বটিগাট আপ্নার বুকে ৩৩ খানা গুলি করবে কিন্তু!

হাসিব এর ছবি


দুষ্টমতি ব্লগার প্রলয় হাসানের সৌজন্যে। ছবি বড় করে দেখতে রাইট ক্লিক করে ভিউ ইমেজে সিলেক্ট করুন।

রোমেল চৌধুরী এর ছবি

ভাই,
মোক্ষম শেল ঝেড়েছেন!

----------------------------
চারিদিকে দেখো চাহি হৃদয় প্রসারি,
ক্ষুদ্র দুঃখ সব তুচ্ছ মানি
প্রেম ভরিয়া লহো শূন্য জীবনে ॥

রণদীপম বসু এর ছবি

বিজ্ঞাপন কালচারে গ্রামীণ ফোনের রুচির এই টার্ন-ব্যাকে আশ্চর্য হই নাই ! বাঘ দুর্বল হইলে নাকি দুর্বল মানুষখেকো হয়। ডাকাত দুর্বল হলে কি ছিঁচকে চোর হয় ! তাদেরও সম্মানবোধ নিঃশেষ হয় না। কিন্তু বেনিয়া দুর্বল বা অবাধ্য হলে যে অসভ্য হয়, তাতে বিস্ময়ের কিছু নেই। এইটাই বেনিয়া চরিত্র। কারণ বেনিয়ার কোন চরিত্রই থাকে না....

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

razon এর ছবি

গুল্লি

সিয়াম এর ছবি

গ্রামীনফোনের যখন এতই ক্ষমতা তাহলে ফেসবুকের bn_IN বাংলাকে bn_BD বানিয়ে দেখাক। রেগে টং

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

মুহম্মদ জাফর ইকবাল আমাদের জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার দুরাবস্থা নিয়ে চমৎকার একটি প্রবন্ধ লিখেছেন। তবে ওনার

আমাদের রাষ্ট্রের দায়িত্ব, প্রতিটি স্কুলের এক-দুজন শিক্ষককে সঠিক কথা আর সুরে জাতীয় সংগীতটি শিখিয়ে দেওয়া এবং তাদের ওপর দায়িত্ব দেওয়া, স্কুলের সব ছাত্রছাত্রীকে প্রতিদিন সেটি গেয়ে তাদের দিনটি শুরু করানো। দেশের বড় করপোরেশনগুলোর সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে কিছু কাজ করার কথা—তারাও সাহায্য করতে পারে।

কথার ব্যাপারে আমার কিছু কথা আছে। বড় বড় করপোরেশানগুলো এসবে সাহায্য করে টাকা ঢাললে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ায় উপকারই নিশ্চয়ই হবে। কিন্তু বড় বড় কর্পোরেশালগুলোর পাতে থাকা উচিত আরও বস্তুগতধরনের উন্নয়নের দায়বদ্ধতা। জাতীয় সঙ্গীত ঠিক মত গাওয়া না গাওয়ার ব্যাপারটা পুরোপুরি বায়বীয় উন্নয়ন। অনুভূতিগত ব্যাপার। ভি-ত-র থেকে গাওয়ার মত। সেসবের ঠিকাদারী ওদের দিতে আমি রাজি না। তার মানে এই না যে সরকার দিয়ে ওদের ধরে ঠ্যাঙায়ে দিবো অমন করলে। তবে সামাজিকভাবে এর বিরুদ্ধে সচেতনতা তৈরি করবো ঠিকই। বায়বীয় অনুভূতিগুলার ঠিকাদারী যে তাদের দিতে চাই না, সেটা জোর কন্ঠে জানাবো।

শুভ পাল্গা এর ছবি

আমি ভাই সবার মত এত জ্ঞ্যানী মানুষ না।একটু আধটু বুঝি আর কি।কিন্তু আমার কাছে এই ব্যাপারটা এত সিরিয়াস কিছু মনে হয়নাই।ঠিক আছে যে এর আগে হয়তো বা অনেকেই অনুবাদ করতে সাহায্য করেছে।তার মানে তো এই না যে আর কেউ টা করতে পারবেনা।আমার মনে হয় গ্রামীনফোন ও প্রথম আলো এই ব্যাপারটা সাধারন মানুষের কাছে প্রচারের জন্য নিয়ে এসেছে ,যে ফেসবুকে বাংলা অনুবাদ সবার জন্য উন্মুক্ত।এই কথাটা সব ফেসবুক ব্যবহারকারী আগে জানত না।সত্যি বলতে কি আমি নিজেই জেনেছি ঐ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে।যদি সব বাঙালি ফেসবুক ব্যবহার কারী এক সাথে এই অনুবাদে অংশ নেয় আমার মনে হয় অন্তত ওই ১০০ বা ৫০০ জনের চেয়ে তাড়াতাড়ি কাজটা করা সম্ভব।এতে উনাদের (যারা আগে অনুবাদ করেছেন) কাজকে অসীকার করার কিছু নেই।তবে ঐ কর্পোরেট রা যদি তাদের উপেক্ষা করে নিজেরা বাহবা নিতে চান তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

হাসিব এর ছবি

আমি ভাই সবার মত এত জ্ঞ্যানী মানুষ না।একটু আধটু বুঝি আর কি।

এইটাই বুঝলাম আর কি।

নজরুল ইসলাম এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

অতিথি লেখক এর ছবি

গুল্লি

শুভ পাল্গা এর ছবি

আমি ভাই সবার মত এত জ্ঞানী মানুষ না।একটু আধটু বুঝি আর কি।কিন্তু আমার কাছে এই ব্যাপারটা এত সিরিয়াস কিছু মনে হয়নাই।ঠিক আছে যে এর আগে হয়তো বা অনেকেই অনুবাদ করতে সাহায্য করেছে।তার মানে তো এই না যে আর কেউ টা করতে পারবেনা।আমার মনে হয় গ্রামীনফোন ও প্রথম আলো এই ব্যাপারটা সাধারন মানুষের কাছে প্রচারের জন্য নিয়ে এসেছে ,যে ফেসবুকে বাংলা অনুবাদ সবার জন্য উন্মুক্ত।এই কথাটা সব ফেসবুক ব্যবহারকারী আগে জানত না।সত্যি বলতে কি আমি নিজেই জেনেছি ঐ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে।যদি সব বাঙালি ফেসবুক ব্যবহার কারী এক সাথে এই অনুবাদে অংশ নেয় আমার মনে হয় অন্তত ওই ১০০ বা ৫০০ জনের চেয়ে তাড়াতাড়ি কাজটা করা সম্ভব।এতে উনাদের (যারা আগে অনুবাদ করেছেন) কাজকে অসীকার করার কিছু নেই।তবে ঐ কর্পোরেট রা যদি তাদের উপেক্ষা করে নিজেরা বাহবা নিতে চান তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

শুভ পাল্গা এর ছবি

আমি ভাই সবার মত এত জ্ঞ্যানী মানুষ না।একটু আধটু বুঝি আর কি।কিন্তু আমার কাছে এই ব্যাপারটা এত সিরিয়াস কিছু মনে হয়নাই।ঠিক আছে যে এর আগে হয়তো বা অনেকেই অনুবাদ করতে সাহায্য করেছে।তার মানে তো এই না যে আর কেউ টা করতে পারবেনা।আমার মনে হয় গ্রামীনফোন ও প্রথম আলো এই ব্যাপারটা সাধারন মানুষের কাছে প্রচারের জন্য নিয়ে এসেছে ,যে ফেসবুকে বাংলা অনুবাদ সবার জন্য উন্মুক্ত।এই কথাটা সব ফেসবুক ব্যবহারকারী আগে জানত না।সত্যি বলতে কি আমি নিজেই জেনেছি ঐ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে।যদি সব বাঙালি ফেসবুক ব্যবহার কারী এক সাথে এই অনুবাদে অংশ নেয় আমার মনে হয় অন্তত ওই ১০০ বা ৫০০ জনের চেয়ে তাড়াতাড়ি কাজটা করা সম্ভব।এতে উনাদের (যারা আগে অনুবাদ করেছেন) কাজকে অসীকার করার কিছু নেই।তবে ঐ কর্পোরেট রা যদি তাদের উপেক্ষা করে নিজেরা বাহবা নিতে চান তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

অতিথি লেখক এর ছবি

প্রলয় হাসান ভাই কে অসংখ ধন্যবাদ এই দুস্তমতি কাজটির জন্য.

শামীম এর ছবি

টেকটিউনসে এটা কি আপনিই দিয়েছেন?
লিংক: http://techtunes.com.bd/news/tune-id/54386/

________________________________
সমস্যা জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ; পালিয়ে লাভ নাই।

হাসিব এর ছবি

ওটা আমার না। আমি টেকটিউনসে লেখি না। সামুতেও একই লোক নিজের সাইটের লিংক নিচে দিয়ে ওটা পোস্ট করেছে দেখলাম।

এএ জাইফ এর ছবি

মনে হচ্ছে গ্রামীনফোন আর একটা ধাক্কা খেতে যাচ্ছে,

মনে রাখা উচিত যে, অতি লোভে তাতি নষ্ট,

ইফতি এর ছবি

একটা জিনিস ঠিক মত পরিষ্কার হলো না, গ্রামীন ফোন যদি কাজটা এগিয়ে নিতে চায় তাহলে এত অসুবিদা কি আছে? না আমি গ্রামীন আর চামচা না, কিন্তু যারা অনেক দূর কাজটা এগিয়ে নিয়েছে
তারা তো এক দল হয়ে কাজ টা শেষ করে ফেলতে পারে

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

গ্রামীন হঠাৎ করে এসে বিনা উপার্জনে শ্রম দেয়া কয়েকশত কন্ট্রিবিউটরের করা কাজটার ক্রেডিট নিজেরাই নিয়ে চাচ্ছে। সমস্যাটা সেখানেই।

সারওয়ার রেজা এর ছবি

শেয়ার দিলাম। দরকারি লেখাটা দেয়ার জন্য ধন্যবাদ।

যূথচারী এর ছবি

হাস্যকর এবং মিথ্যা বিজ্ঞাপন দিয়েছে গ্রামীণফোন; তেমনি হাস্যকর ও মিথ্যা সংবাদ ছেপেছে প্রথম আলো। ফেইসবুকের অনুবাদ একটি চলমান প্রক্রিয়া। ২০১০-এর জানুয়ারিতেই ফেইসবুক মূল অংশের অনুবাদ মোটামুটি শেষ হয়ে যায়, তবে নিয়মিত নতুন নতুন বিষয় আসতে থাকায়, অনুবাদও চলতে থাকে। মূল ফেইসবুকের শীর্ষ অনুবাদকারীদের আমি একজন। ফেইসবুক ছাড়াও আরো বিভিন্ন ওয়েবসাইটের অনুবাদের কাজও করেছি, কিন্তু সবটাই বাংলায় ইন্টারনেট চর্চা সহজ করার ইচ্ছে থেকে, প্রথম আলো বা গ্রামীণ ফোনের মিথ্যাচার, ব্যবসা বা বিজ্ঞাপনের সুবিধা করে দেয়ার জন্য না। প্রথম আলো এবং গ্রামীণফোন এরা দুই মিথ্যাবাদী কোম্পানী মিথ্যাচারকেই একমাত্র পন্থা হিসেবে বেছে নিয়েছে।


চোখের সামনে পুড়ছে যখন মনসুন্দর গ্রাম...
আমি যাই নাইরে, আমি যেতে পারি না, আমি যাই না...

মামুনসৃজন এর ছবি

বিজ্ঞাপনটা সেদিন পত্রিকায় দেখলাম। এরা যে এতদিনে তিন চতুর্থাংশ কাজ শেষ করেছে ফেলেছেন, তার কোন নামগন্ধই নেই।

বিজ্ঞাপনটা মূলতঃ আমি প্রথমে দেখিনি। আমার এক ছোটভাই আমাকে বলছে, "দেখো ভাইয়া, গ্রামীনফোন ফেসবুককে বাংলায় অনুবাদ করতে যাচ্ছে! কিছুদিন পর থেকেই আমরা পুরো ফেসবুক বাংলায় পাবো"

এই হচ্ছে আমাদের পারিপাশ্বিক বা চারিপার্শ্বিক অবস্থা। মন খারাপ সেদিন ওকেও আমি এই লিংকটার বেশী কিছু দেখাতে পারিনি।

একজন পাঠক এর ছবি

আর কত চিটারী
ইস্ট ইন্ডিয়া কম্পানী

একজন পাঠক A KM এর ছবি

এখন ডিজিটল যুগ তো তাই সব কিছুই যেন হঠাৎ বদল হছেছ যাই হোক ভাল কিছু আশা করি আমরা তাই নয় কি

kamrul hasib এর ছবি

ei jodi hoy amader obosta, tahole valo asa korte pari kottheke?
dekhun "Jahangirnagar University" er website er sitemap
http://www.juniv.edu/site_map.php
site map sommondhe confusion thakle dekhe nite paren:
http://en.wikipedia.org/wiki/Sitemap

raj এর ছবি

vai sobay ato kisu bollen...sob e porlam...sudu akta kotha koi...Teletalk amader purapori 100%
deshi public company....koijon achen apnara Teletalk use koren...Grameenphone VOIP babsa
ai porjonto amar janamote 3600 coti tk er TAX churi korse and dhorau khaise...abar kisu
minister (BNP & awamelegue) der briefcase vorti tk dise jate teletalk er project launch na
korte pare...(ai information er kono link nai but aida open true jinish , ami onek din mobile
company te kaj korchi tai jani). Jodi sotti desh er help korte chan (by use of mobile) taile aj
theke Teletalk use koren. Karon amder minister ra to tk. khae deshi company gula re dhonso k
korte kono cinta kore na...tai amra common people, ai gorib desh ta er jonno na hoi aktu
kosto kori...

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA