অতিথিদের জন্যে

সন্দেশ এর ছবি
লিখেছেন সন্দেশ (তারিখ: শুক্র, ০২/০১/২০০৯ - ২:০৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রশ্নঃ সচলায়তনে ঢুকতে অ্যাতো গিয়ানজাম কেন?
উত্তরঃ কারণ আছে, পরে কমু। আগে বলেন কী গিয়ানজাম।

প্রশ্নঃ অ্যাকাউন্ট তো খুল্লাম, ঢুকতে গেলে কয় নট অ্যাকটিভেটেড। কারণ কী?
উত্তরঃ হুমম, প্রথমেই অ্যাকটিভেট করা হয় না।

প্রশ্নঃ কবে অ্যাকটিভেট করা হয়।
উত্তরঃ একটু লেখালেখি, মন্তব্যের পর।

প্রশ্নঃ সেইটা ক্যাম্নে করুম যদি অ্যাকাউন্টই না থাকে?
উত্তরঃ ক্যান, গেস্ট অ্যাকাউন্ট দিয়া?

প্রশ্নঃ সেইটা আবার কী?
উত্তরঃ অ্যাকাউন্ট guest_writer পাসওয়ার্ড guest

প্রশ্নঃ ঐটা দিয়ে ঢুকলে লেখা যাবে? কমেন্ট করা যাবে?
উত্তরঃ যাবে। ঢুকে দেখেন।

প্রশ্নঃ ঢুক্লাম তো। লিখলাম একটা পোস্ট, "রবীন্দ্রনাথ একটি দুষ্ট লোক।" কিন্তু পোস্টটা তো প্রথম পাতায় দেখি না। ঘটনা কী?
উত্তরঃ আপনি অতিথি। আপনার পোস্ট মডারেশন কিউতে আগে জমা পড়বো। মডারেটররা পইড়া দেখবো কী লিখলেন। তারপর সেইটা প্রথম পাতায় প্রকাশিত হইতে পারে, আপনার নিজের ব্লগে লোকজনের চোখের আড়ালে প্রকাশিত হইতে পারে, আবার অপ্রকাশিতও থাইকা যাইতে পারে।

প্রশ্নঃ কস্কি মমিন!! এইরকম সিস্টেম ক্যান?
উত্তরঃ কারণ আছে, পরে কমু।

প্রশ্নঃ এইমাত্র একটা কমেন্ট করলাম। কইলাম "সাবাশ, খুব ভালো লিখসেন।" কিন্তু কমেন্ট দেখি না ক্যান?
অতিথিঃ মডারেশন কিউতে কমেন্টও জমা হয়।

প্রশ্নঃ বুঝলাম। সিকিউরিটি বসাইসেন। আরে দুরো মিয়া, অ্যাম্নে লেখালেখি হয়?
উত্তরঃ হয়। খুব ভালোমতোই হয়। পইড়া দেখেন।

প্রশ্নঃ হুমমম। ওকে, আমারে অ্যাকটিভেট করসে দেখলাম। অনামিকা (অতিথি)। হুররেএএএএএ! যাক, ফ্যাসিস্ট মডারেটররা বুঝতে পারসে যে আমার লগে তাংফাং কইরা সুবিধা করতে পারবো না ...।
উত্তরঃ অ্যাত্তো খুশি হইয়েন না। আপনি অতিথি সচল।

প্রশ্নঃ সেইটা কী?
উত্তরঃ আপনার নিজের অ্যাকাউন্ট আছে। লেখা সেই অ্যাকাউন্টে জমা হবে। কমেন্ট নিজের নামে দিতে পারবেন। কিন্তু মডারেশন কিউ পার হইয়া আসবে সব।

প্রশ্নঃ বিটলামি করেন ক্যান?
উত্তরঃ কারণ আছে। পরে কমু।

প্রশ্নঃ তাইলে সচল হমু কবে?
উত্তরঃ লিখতে থাকেন।

প্রশ্নঃ কয়দিন লাগবো সচল হইতে?
উত্তরঃ ঠিক্নাই। লিখতে থাকেন।

প্রশ্নঃ কয়টা পোস্ট দ্যাওন লাগবো খালি কন। ঐ বাবুল চায়ের পানি গরম দে। আইজকা রাইতেই পঞ্চাশখান পোস্ট দিমু। দেহি সচল না কইরা কই যায়!
উত্তরঃ দিনে একটার বেশি পোস্ট দিতারবেন না।

প্রশ্নঃ ক্যান?
উত্তরঃ পোস্ট কোটা করা।

প্রশ্নঃ এর কারণ কী?
উত্তরঃ ফ্লাডিং ঠেকানো।

প্রশ্নঃ হুমমম! আমি রেটিং দিতারিনা ক্যান?
উত্তরঃ অতিথি যে?

প্রশ্নঃ মিজাজটা খারাব হইতাসে কইলাম! ঐ মিয়া সচল করেন জলদি!
উত্তরঃ আরে করুম করুম। লিখতে থাকেন।

প্রশ্নঃ লিখলাম আরেকটা পোস্ট, "রবীন্দ্রনাথ একজন খুবই দুষ্ট লোক।" কিন্তু প্রথম পাতায় আসে না ক্যান?
উত্তরঃ এই পোস্টটা আপনে আরেক কমিউনিটি ব্লগে দিসিলেন না গত সপ্তায়?

প্রশ্নঃ হ, আব্বাসেরব্লগ ডট নেটে দিসিলাম। তো কী হইসে?
উত্তরঃ অলরেডি কোথাও প্রকাশিত পোস্ট সচলায়তনে প্রকাশ করে না।

প্রশ্নঃ আপনেগো সমস্যা কী?
উত্তরঃ আছে কিছু। পরে কমু।

প্রশ্নঃ খাড়ান আরেকটা পোস্ট দিলাম, "রবীন্দ্রনাথের মতো দুষ্ট লোক দুনিয়াতে কমই ছিলো।" প্রথম পাতায় প্রকাশিত হইসিলো, লোকজন পইড়া পাঁচতারা ভি দিলো, একজন কইলো আপ্নারে উত্তম জাঝা, এখন দেখি প্রথম পাতায় আর নাই। ঘটনা কী?
উত্তরঃ পোস্টখান আপনে সচলে প্রকাশিত হওয়ার পর আরেক কমিউনিটি ব্লগে দিসেন না?

প্রশ্নঃ হ দিসি, কুদ্দুসকথা ডট কমে। সমস্যা কী?
উত্তরঃ সচলে একটা পোস্ট দিল ৭২ ঘন্টার মধ্যে অন্য কোথাও আর দিয়েন না। দিলে প্রথম পাতা থেইকা পোস্ট সরায় দিবো।

প্রশ্নঃ এইরকম ক্যান??
উত্তরঃ কারণ আছে। পরে কমু।

প্রশ্নঃ গরররররর। মিজাজটা খারাপ হইতাসে কইলাম। খাড়ান আরেকটা পোস্ট দেই, "রবীন্দ্রনাথ, দুনিয়ার সবচেয়ে দুষ্ট লোক।"
উত্তরঃ এইবার ঠিকাছে?

প্রশ্নঃ হুমম। ঠিকই তো আছে। তো এম্নেই লিখতে হইবো নাকি?
উত্তরঃ হ, লেইখা যান।

প্রশ্নঃ সচল হমু কবে? এইসব মডারেশন কিন্তু আর ভাল্লাগতাসে না।
উত্তরঃ লিখতে থাকেন। মন্তব্য করেন, আলোচনা করেন।

প্রশ্নঃ আলোচনা না কচু! মডুগো ত্যাল না দিলে কিচ্ছু হয় না।
উত্তরঃ ত্যাল দিলেও কিছু হইবো না। ত্যালহারামি সব। ত্যাল সব হজম কইরা ফালায়। তারচাইতে লিখতে থাকেন।

প্রশ্নঃ এইসব কড়াকড়ি বেশি বেশি না?
উত্তরঃ হ, বেশি বেশিই। কিন্তু কাজে দেয়।

প্রশ্নঃ হুমমম। আচ্ছা আরেকটা পোস্ট দেই, "ইয়ে হাত মুঝে দে দে রবি ঠাকুর!"
উত্তরঃ হ্যাঁ, লিখতে থাকেন। লিখতে লিখতেই একদিন দেখবেন মেইল চইলা আসছে।

প্রশ্নঃ ঠিক তো?
উত্তরঃ হুমম।


মন্তব্য

ধুসর গোধূলি (লগামু না) এর ছবি

কে এই অনামিকা, জাতি জানতে চায়! চোখ টিপি

দ্রোহী এর ছবি

আমারও একই কথা। জাতি জান্তে চায়।


বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমি শালা ভোদাই একটা!!!

অভ্রনীল এর ছবি

আরে তাইতো!! আমি তো ভুইলাই গেসিলাম যে আমার নামের পিছে তিন নম্বর ব্র্যাকেট আছে... সবসময় ব্যাকেট দেখতে দেখতে খিয়াল থাকেনা যে অইটা নামের অংশ না... হাসি

যাই হোক মোটুরামগো ত্যাল ক্যামনে মারে??? মুরুব্বীদের কেউ ত্যাল মারার কার্যপদ্ধতি (প্রয়োজনীয় উপকরনসহ) বর্ণনা করেন...

_______________

এক ছাগলের দুই কান,
তুই আমার জানের জান।

ফাহিম এর ছবি

সন্দেশ নামের আড়ালে যেই লিখে থাকুন না কেন, এই উইটি গাইডটার জন্য আপনাকে পাচ তারা দিতে মঞ্চায়...

=======================
কোথাও হরিণ আজ হতেছে শিকার;

সংসারে এক সন্ন্যাসী এর ছবি

ঐ বাবুল চায়ের পানি গরম দে

মনে পড়লো সুকুমারের "ওরে গোপাল, আর গোটা কয় পান দিতে বল খেঁদিকে" হো হো হো

আর্মেনীয় বেতার স্টাইলের উত্তরমালা জব্বর লাগলো।

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
একলা পথে চলা আমার করবো রমণীয়...

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
টাকা দিয়ে যা কেনা যায় না, তার পেছনেই সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করতে হয় কেনু, কেনু, কেনু? চিন্তিত

এনকিদু এর ছবি

ত্যাল দিলেও কিছু হইবো না। ত্যালহারামি সব। ত্যাল সব হজম কইরা ফালায়। তারচাইতে লিখতে থাকেন।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...

এনকিদু এর ছবি

ফাইযলামি না, সিরিয়াসলি একটা কথা কই ।

অনেক দিন ধরে লেখালেখি করতে হইত আগে গেস্ট অ্যাকাউন্টে । তারপর একদিন নতুন আইডিয়া দিল কে জানি, অতিথিদের নিজের নাম দেখা যাবে, কিন্তু পাশে [অতিথি] লেখা থাকবে । সেই অ্যাক্টিভেশন পাইতেও কিছু লেখা লেখি করা লাগত । তারপর আরও অনেক লেখালেখি কমেন্ট ইত্যাদি করার পর একদিন দেখি মেইল আইল একখান । তারপর যে ফিলিংস একটা হইল না , কি আর কমু । আমি ত লাফাইতে লাফাইতে খাট ভাইঙ্গা ফালাইতাম আরেকটু হইলে ।


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...


অনেক দূরে যাব
যেখানে আকাশ লাল, মাটিটা ধূসর নীল ...

দ্রোহী এর ছবি

আমি ত লাফাইতে লাফাইতে খাট ভাইঙ্গা ফালাইতাম আরেকটু হইলে ।

ইয়ে মানে আমার মাথায় একটা কথা আসছে। জিগামু?

বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমি শালা ভোদাই একটা!!!

গৌতম এর ছবি

ইয়ে মানে, প্রশ্নটা আমার মাথায়ও এসেছে। জিগামু?
.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

ব্লগস্পট ব্লগ ::: ফেসবুক

.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

এটা যে লিখছে তারে উত্তম জাঝা!

তুলিরেখা এর ছবি

অতি ভালো একখান লেখা।
যারা পারেন পাঁচতারা দিয়া দেন।
-----------------------------------------------
কোন দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

থার্ড আই এর ছবি

ব্রিটেনে ভূয়া ইমিগ্র্যান্ট ঠেকাতে পয়েন্ট সিস্টেম চালু করছে, পরে হিসাব করে দেখা গেলো , খোদ ইমিগ্রেশন মিনিষ্টারই এই নিয়ম মেনে ব্রিটেনে ঢুকা মুশকিল হয়ে যাচ্ছে।

নতুন সচলদের জন্য বেশ অসহায় বোধ করছি। ভাগ্য ভালো শুরুতেই সদস্য হয়ে গেছিলাম। এই নিয়ম মেনে আমার আমার পক্ষে ইহ জিন্দেগীতে সচল হওয়া সম্ভব হতো না। তবে নিয়ম মেনে সদস্য হবার মধ্যে একটা অর্জনের আনন্দ আছে । তবে বাংলাদেশের সচলরা এত কষ্ট করে এই দূর্বল নেটওয়ার্কের ভিতরে ব্লগিং করে যাচ্ছে তাদের স্যালুট।

মডুরা অপেক্ষমান সচলদের প্রতি সদয় হোন।

---------------------------
স্বপ্নকে ছুঁতে চাই সৃষ্টির উল্লাসে

-------------------------------
স্বপ্নকে ছুঁতে চাই সৃষ্টির উল্লাসে

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

অতিথিদের জন্য সচল সদস্যদের ভোটের ব্যবস্থা করলে কেমন হয়?

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

ইউজার পয়েন্ট বলে একটা সিস্টেম আছে। সেটা ব্যবহারের চিন্তা করেছিলাম আমরা। কিন্তু সেক্ষেত্রে সাবগ্রুপ হবার সম্ভাবনা খুব বেশী। আবার আঁতেল লেখক যিনি লেখেন খুব ভালো কিন্তু অনলাইন-কমিউনিটি-বান্ধব নন, তার ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেয়া প্রায়-অসম্ভব হয়ে যাবে তাহলে।

====
চিত্ত থাকুক সমুন্নত, উচ্চ থাকুক শির

বিপ্রতীপ এর ছবি

মনে হয় এখন যেমন আছে তেমনি ভালো। কারন, অনেক অতিথি লেখকের ভালো লেখা কেউ খুলেও দেখে না ... । তবে অতিথি নিজের নামে লিখতে পারার সুবিধাটি ভাল্লাগছে। আগের চেয়ে নমনীয় বলে মনে হয়েছে। চলুক
~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
খুঁজে যাই শেকড়ের সন্ধান...

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

আমি ব্যক্তিগতভাবে চেষ্টা করি অতিথিদের পোস্ট পড়তে ও মন্তব্য করতে। এটা ঠিক যে নামী অতিথিরা একটু এগিয়ে থাকে। সবাইকে তাই রেজিস্ট্রেশন করে লিখতে অনুরোধ করা দরকার। সেটা আপনার করছেনও। ওদিটাতেই জোড় দেয়া ভাল।

আমি এর ছবি

লেখাটা খুবই মজার হইছে।

তবে কমেন্ট মনে হয় সবাই (একাউন্ট না থাকলেও) করতে পারে, যেমন আমি করলাম।

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

হা হা হা।
গড়াগড়ি দিয়া হাসি

রানা মেহের এর ছবি

গরররররর। মিজাজটা খারাপ হইতাসে কইলাম। খাড়ান আরেকটা পোস্ট দেই, "রবীন্দ্রনাথ, দুনিয়ার সবচেয়ে দুষ্ট লোক।"
গড়াগড়ি দিয়া হাসি
-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

বিপ্রতীপ এর ছবি

"ইয়ে হাত মুঝে দে দে রবি ঠাকুর!"

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

সন্দেশরে পাঁচাইলাম দেঁতো হাসি
~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
খুঁজে যাই শেকড়ের সন্ধান...

ফরিদ এর ছবি

কওন লাগব না, এইটা মডুহিমুর লেখা। কম করে ৫ বার লেখার মধ্যে প্রতিজ্ঞা করা হয়েছে 'পরে কমু'।

যথারীতি হেমুদার ধারাবাহিক উপন্যাসগুলার মতন সেই 'পরে' আর আসিল না।

অবাঞ্ছিত এর ছবি

যেমন আছে ঠিকই আছে হাসি

তয় স্বাধীনতা অর্জনের থেকে যেন স্বাধীনতা রক্ষা করা বেশি কঠিন হয় সেইটাও মনে হয় মাথায় রাখা দরকার হাসি
__________________________
I think , therefore i am - Descartes

__________________________
ঈশ্বর সরে দাঁড়াও।
উপাসনার অতিক্রান্ত লগ্নে
তোমার লাল স্বর্গের মেঘেরা
আজ শুকনো নীল...

মুস্তাফিজ এর ছবি

"পরে কমু' এইটা পরে শুনুম

...........................
Every Picture Tells a Story

লীন এর ছবি

হুম।
নিয়মগুলা জানতাম আগেই।
তয় এতো কষ্ট ভাল লাগে না।

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

হাঃ হাঃ হাঃ, চরম মজা পাইসি।

পরে কমু পরে কমু কইয়াই পোস্টটা শেষ কইরা ফালাইলো।
তবে কামের কাম একখান হইসে, "ত্যালহারামি" গালিটা শিখসি।
এই গালি আগে কখনো শুনিনাই। মজার তো।

FAQ-টা কে লিখল জানতে ইচ্ছা করতাসে। এতো মজা কইরাও লেখা যাইতে পারে সেটার ধারনা ছিলনা।

সেদিন আমাকে একজন জিজ্ঞেস করছিল যে কয়টা লেখা দিলে সচল হইতে পারা যায়। বেচারাকে সচলের নিয়ম-কানুন সম্পর্কে সামান্য ধারনা দিচ্ছিলাম আরকি। তো প্রশ্নের উত্তরে আমিও বলসিলাম যে লিখতে থাকো, কুনু ঠিক ঠিকানা নাই। ১৮-২০টা পোস্ট দিয়েও সচল হয়ে যাইতে পারো আবার ৬০+ পোস্ট দিয়েও অতিথি হয়েও থাকতে পারো। কিছুই করার নাই, শুধু লিখতে থাকো।

--------------------------------------------------------

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

খুবই মজাদার! যে-ই লিখে থাকুক না কেন, লেখার মধ্যে একটু ধূগো'দা-ধূগো'দা গন্ধ পেলাম মনে হয়! চোখ টিপি

দ্রোহী এর ছবি

উঁহু। ধুগোর বন্ধু হিমু ল্যাখছে। খিয়াল কইরা দ্যাখেন। ধরতে পারবেন।


বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমি শালা ভোদাই একটা!!!

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- শান্তশিষ্ট ধুগোরে এহেনো অতিথি (মহিলা) সংক্রান্ত ইস্যুতে জড়ানোয় বিডিআরের তেব্রে নেন্দা জানাই।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

আমিও নেন্দা জানাইলাম বস। বিডিআর পুরাই ফাউল, চলেন ওরে ধইরা মাইর লাগাই দেঁতো হাসি

গৌতম এর ছবি

মহিলা-সংক্রান্ত ইস্যুতে ধুগো নাই- এইটা আমারে বিশ্বাস করতে কন?
.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

ব্লগস্পট ব্লগ ::: ফেসবুক

.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

দ্রোহীদা ঠিকই বলসেন, আবার পড়লাম। স্টাইল আর হিউমার দেখে মনে হচ্ছে হিমু ভাইয়েরই লেখা।

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

হ্‌ দুলাভাই, লেখার ধাচের হিমু হিমু গন্ধ আছে।

--------------------------------------------------------

স্পর্শ এর ছবি

রবীন্দ্রনাথ আসলেই একটি দুষ্ট লোক!!

তবে সচল হবার পর বাবুল রে দিয়ে গ্যালন গ্যালন পানি গরম দেওয়ালেও কেন জানি লেখার 'জুইত' আসেনা। ইয়ে, মানে...
....................................................................................
ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...


ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

খুব খারাপ অসুখ, সন্নাসীদাকে ধরেন কোনও চিকিৎসা আছে নাকি জিগান।

--------------------------------------------------------

সংসারে এক সন্ন্যাসী এর ছবি

বুঝলাম না, আমার নাম নিলেন কিল্লাই? অ্যাঁ

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
একলা পথে চলা আমার করবো রমণীয়...

~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
টাকা দিয়ে যা কেনা যায় না, তার পেছনেই সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করতে হয় কেনু, কেনু, কেনু? চিন্তিত

আরিফ জেবতিক এর ছবি

প্রশ্নঃ এই পোস্টটা কেমন হইছে ?
উত্তরঃ পরে কমু । চোখ টিপি

অবনীল এর ছবি

বস, অতিথিরা বেশী 'গিয়ানজাম' করতাসে। সব এয়াকটিভ কইরাদ্যান । কি আসে দুনিয়ায় চোখ টিপি

___________________________________
স্বপ্ন নয়, - শান্তি নয়, - কোন এক বোধ কাজ করে মাথার ভিতরে!

দ্রোহী এর ছবি

অনামিকা [অতিথি] কেঠায়?


গরীবের আবার সিগনেচার!!!

ধুসর গোধূলি এর ছবি
অমিত আহমেদ এর ছবি

অনামিকার ছবি নাই?


ওয়েবসাইট | ব্লগস্পট | ফেসবুক | ইমেইল

yokel এর ছবি

কি একটা সিরিংখলার মইধ্যে পড়লাম মন খারাপ(

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

এই স্টেপগুলো ফলো করতে হলে অতিথি স্ট্যাটাসের প্রতিই মায়া পড়ে যেত। হাসি
পোস্টে জাঝা।

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

সুলতানা পারভীন শিমুল এর ছবি

হা হা হা
খুবই মজা পাইলাম। হো হো হো

...........................

সংশোধনহীন স্বপ্ন দেখার স্বপ্ন দেখি একদিন

...........................

একটি নিমেষ ধরতে চেয়ে আমার এমন কাঙালপনা

অতিথি লেখক এর ছবি

এই কাহিনী আমাকে নিয়ে লেখা--i can feel it...
এই জীবনে সচল হওয়া হয় কিনা আল্লাহ জানে...

(জয়িতা)

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

অসুবিধা নাই আফা, পরের জন্মে সুযোগ একটা থেকেই যাচ্ছে।

--------------------------------------------------------

আসাদ [অতিথি] এর ছবি

মহা গিয়ানজাম! আসলেই শিরিংখলার মইধ্যে পড়লাম!
ধৈরা লইলাম ইহজনমে আর সচল হওয়া হইব না।

ঐ অতিথি (যাচাই করা হয়নি) সিলটাই কপালে সই।

তা মডুরা, নামওয়ালা অতিথির মত যখন একটা মধ্যবিত্ত শ্রেণী তৈরী করসেনই, তখন শ্রেণী উত্তরণের ব্যবস্থায় আরেকটু বেগ আনলে মন্দ হয় না।

সর্বহারা গোরে তাড়াতাড়ি মধ্যবিত্ত হওনের আনজাম করেন--- নাইলে কিন্তু বেপ্লব হইয়া যাইব কইলাম হাসি

আসাদ (অতিথি), যাচাই করা হয় নি!

হিমু এর ছবি

নিকহারা বিপ্লবীরা কমেন্টের শেষে নিক উল্লেখ করেন দেঁতো হাসি ...


হাঁটুপানির জলদস্যু

আসাদ [অতিথি] এর ছবি

খাইছে! এইবার দিলেন তো মাথাডা আউলাইয়া !
"আপনার নাম" ঘরে যখন জিগাইলেন, হেইডাতো কইলাম, হেইডা কি নিক না?

তাইলে তো মাথা পুরাই আউলা! আমি কোন আমলে একডা একাউন্ট বানাইছিলাম, তাতে নিক কি দিছিলাম হেইডা তো অহন মেমরীত নাইক্কা !

তয় কথাডা হইল, কোনডা যে নিক আর কোনডা যে আমার নাম, হেইডা যাচাই করনের ক্ষেমতা নাই। লগইন তো করতাম পারছি না কুন কালে!

বড়ই শিরিংখলার মইধ্যে পড়লাম !

দ্রোহী এর ছবি

অতিথি লেখক লিখেছেন:
এই কাহিনী আমাকে নিয়ে লেখা--i can feel it...
এই জীবনে সচল হওয়া হয় কিনা আল্লাহ জানে...

(জয়িতা)


আপ্নে কি অনামিকা?

বিপ্লব স্পন্দিত বুকে মনে হয় আমি শালা ভোদাই একটা!!!

একজন [অতিথি] এর ছবি

অ সন্দেশ বাইইইই
পাঠকদের সচল হওনের কুন তরিকা নাই? তুমি না কত বালা!!!
ইকটু দ্যাখননা বাইডি.....
নাইলে বুঝলানি, আমার আর ক্যাম্নে কি, কস্টু ত তুমারি।প্রই প্রতিদিন যে আমি কাসেম বিন আক্কাসের মত সেই রকম লেখা দিমু (সাথে বানান ভুল ফিরইইইইইই), হেইডাও ত তুমারেই পড়তে হইব, নাকি!!! তাই কইকি বাজান, তুমার এই দুক্ক আমাক সইয্য্য্য্য্ হইবেনা, তুমি আমারে তারাতারি কই দ্যাওও ক্যাম্নে সুধু পড়িপড়ি সচল হতি হয়।।।।

অতিথি লেখক এর ছবি

অ্যাকাউন্ট guest_writer পাসওয়ার্ড guest দিয়ে ঢুকলাম। কমেন্ট যাচ্ছে। কিন্তু নতুন পোস্ট কিভাবে করব?

প্রফাইল

....................................................................................................................
এভাবেই স্থবির ঘর একদিন উড়ে যাবে
উড়ে উড়ে যাবে

দময়ন্তী এর ছবি

কি মুশকিল! "অতিথি' নিয়ে এত চাপ কিসের? মাঝেমাঝেই দেখি এইটা নিয়ে জনতা প্রচুর চাপ খেয়ে থাকে ৷
আমার ব্যক্তিগত মত হল, সারাজীবন "অতিথি' থাকলেই বা ক্ষতি কিসের? একটা জিনিষ খেয়াল করেছি, রেটিং দেওয়া যায় না ৷ তা আমি যেহেতু লেখার রেটিং প্রথায় বিশ্বাস করি না, কাজেই ও নিয়েও কোন সমস্যা নাই৷ বাকী সব তো ঠিকই আছে৷

------------------------------------------
"নিভন্ত এই চুল্লিতে মা
একটু আগুন দে
আরেকটু কাল বেঁচেই থাকি
বাঁচার আনন্দে৷'

-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

আসাদ [অতিথি] এর ছবি

সমস্যা আছে। আমার লেখা সব ব্লগ আমি এক জায়গায় রাখতে চাই। লগইন না করলে তো সেইটা সম্ভব না।

তবে অতিথি একাউন্ট হোল্ডার হইলে এই সমস্যা থাকে না।

মডারেশন নিয়া আর রেটিং এর অক্ষমতা নিয়া আমার কোন আপত্তি নাই। আমার লেখা যদি মডু কারেকশন কইরা দেয়, বা ভুল ধরাইয়া দেয় পালিকের লাত্থি খাওনের আগে, তাইলে আমারই ভাল। লেখা বা কমেন্ট পাবলিশ হইতে একটু সময় লাগে এই যা।

নামহীন [অতিথি] এর ছবি

হ হ, ঠিকই কইছে...
কবে হমু সচল, কন তো ...

কিন্তু এইখ্যান বুঝল্যাম না যে সচল হয়্যাই বা লাভ কী? আর না হয়্যাই বা কী ক্ষতি হইচ্ছে? ঠিকই তো লেখতিছি ... মন্তব্যও করতিছি তো ... লস টা কী, সচল না হয়্যা?

... নামহীন

কেন এই'শব্দদুটি টাইপ ' -এর ঝামেলা ...?

হিমু এর ছবি
আলমগীর এর ছবি

এক মমিন পোস্টের সুবাদে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিন/চারজন অতিথির একাউন্ট এক্টিভেট হয়ে গিয়েছিল। জয়িতা, আসাদ, নামহীন এরকম কয়েকজনের কষ্ট দেখে মনে হচ্ছে আরেকটা মমিন খুব দ্রুত দিতে হবে!

নামহীন [অতিথি] এর ছবি

দেন তো ভাই, তাড়াতাড়ি দেন ...

... নামহীন

কেন এই 'শব্দদুটি টাইপ ' এর ঝামেলা ... ?

সাইফ এর ছবি

আলমগীর ভাই, আপনার পোস্ট পড়ার জন্য আমার মনটা আনচান আনচান করে, কিন্তু লগ ইন না করলে পড়া যায় না, মহা যন্ত্রনা, কতডিন যে অপেক্ষা করা লাগবে, কে যানে?

অবাঞ্ছিত এর ছবি

বাক্স্বাধীনতা না থাকলেও আমার একটা প্রশ্ন আসিলো...

ধরেন আমার দুই একটা লেখা ঘ্যাচাং হইয়া গেল... এবং আমি জানি যে এইটা আমি অন্য কোথাও লিখি নাই.... তাইলে আর কি কি কারনে ঘ্যাচাং হইতে পারে? বুঝার উপায় কি? না বুঝলে সিধা হমু কেমনে?

__________________________
ঈশ্বর সরে দাঁড়াও।
উপাসনার অতিক্রান্ত লগ্নে
তোমার লাল স্বর্গের মেঘেরা
আজ শুকনো নীল...

__________________________
ঈশ্বর সরে দাঁড়াও।
উপাসনার অতিক্রান্ত লগ্নে
তোমার লাল স্বর্গের মেঘেরা
আজ শুকনো নীল...

হিমু এর ছবি
অতিথি লেখক এর ছবি

সেরকম মমিন-উদ্যোগ অবশ্যই আগাম সাধুবাদ পাবার যোগ্য।

তবে আমি নিজে "অতিথি লেখক" হিসেবে অচল-অভাজন প্রাইমারি স্ট্যাটাসে থাকতে অস্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি না কারণ যা বলতে যাই বলতে পারছি ত'। আর সাইটটা ভাল লাগছে বলেই ত' এর সাথে আছি।

ওপরওয়ালাদের মহামূল্যবান দয়াবর্ষণের আশায় চাতক হয়ে থাকতে আমি রাজি নই।

প্রফাইল

....................................................................................................................
এভাবেই স্থবির ঘর একদিন উড়ে যাবে
উড়ে উড়ে যাবে

সাইফুল আকবর খান এর ছবি

স্টাইল আর অ্যাপ্রোচ অনেক মজা হইছে ভাইয়া।
বেশ ভালো লাগলো। হাসি

-----------------------------------
"আমার চতুর্পাশে সবকিছু যায় আসে-
আমি শুধু তুষারিত গতিহীন ধারা!"

___________
সবকিছু নিয়ে এখন সত্যিই বেশ ত্রিধা'য় আছি

অতিথি লেখক এর ছবি

সচল সম্পর্কে অনেক কিছুই জানতাম না। আমি অন্য একটা ব্লগের নিয়মিত সদস্য বলা যায়। ওখানে গল্প লিখি। এই লেখাটা পড়ে অনেক কিছু জানতে পারলাম। খুব ভালো লাগলো। লেখককে ধন্যবাদ। যদিও অনেক দেরি হবে হয়তো সদস্য একটিভ হতে। তবে খুব ভালো লাগছে এই ভেবে যে, মডুরা আমাকে যাচাই এবং গুরুত্ব দিয়েই তাদের সদস্য করবে। ধন্যবাদ সংশ্লিষ্ট সবাইকে।
(বিহোস, অতিথি লেখক)

রেনেট এর ছবি

দেশে থাকার কারণে পোস্টটি অ-নে-ক দেরীতে পড়লাম।

অ-সা-ধা-র-ণ পোস্ট!!!
---------------------------------------------------------------------------
If your father is a poor man, it's not your fault ; but If your father-in-Law is a poor man, it's definitely your fault.

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

অতিথি লেখক এর ছবি

খুব মজাদারী উপকারী বক্তৃতা হইছে।

অতিথি লেখক এর ছবি

আমাকে বলা হয়েছে নিক এবং ই-মেইল এড্রেস লেখার নীচে দিয়ে দেয়ার জন্য । আমি ই-মেইল এড্রেস দিতে চাইনা । এতে কোন সমস্যা আছে ? আর দিলেও প্রকাশিত হবেনা এমন নিশ্চয়তা কি আছে ?

আগামী

অতিথি লেখক এর ছবি

অন্য কোথাও দেইনি এমন লেখাও দিয়ে দেখলাম । বেমালুম হাওয়া হয়ে গেছে । কোন আওয়াজ না দিয়েই । কাহিনী কি ?

সাজিদ মুহাইমিন চৌধুরী এর ছবি

এই পোস্ট-টির জন্য ধন্যবাদ. অনেক গুলা কনসেপশন ক্লিয়ার করলো. এইটার লিঙ্ক একদম স্বাগতম ইমেল এ দিলে উপকৃত হতাম

সাজিদ মুহাইমিন চৌধুরী

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি

দারুন পোস্ট। যেমন মজার, তেমনই কাজের। হাসি

মৃত্তিকা এর ছবি

মারাত্বক মজার একটা পোস্ট! হাসতে হাসতে অবস্থা কাহিল!
মন খারাপ থাকলে এই পোস্টটা এসে দেখে যাব আবার!

তিথীডোর এর ছবি

উদ্ধৃতি
'মন খারাপ থাকলে এই পোস্টটা এসে দেখে যাবো আবার'
সহমত দেঁতো হাসি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

তিথীডোর এর ছবি

'হাচল' হবার মেইলটা পেয়ে খুশিতে লাফঝাঁপ দেওয়ার কথা মনে পড়ে গেলো! খাইছে

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

অতিথি লেখক এর ছবি

ব্যপক মজা খাইলাম।
অতিথি হইসি তো কি হইসে!?! সচলে আইয়া ভাল ভাল লেখা পরতাসি। জুইতমতো লেখকগোরে গুতাইতে পারতাসি, মনে চাইলে লেখা পোস্টাইতে পারতাসি... এইগুলাই বা কম কিসে?!

মনজুর এলাহী

অতিথি লেখক এর ছবি

আমার এক গুটি পোকা ভাগ্নের কাছে জানলাম এই ব্লগটির কথা। বাংলায় আমি সবসময় খুবই গাধা। কখনও বেশি নাম্বার পাইনি ক্লাসে। ক্লাস সেভেন বা এইট এ একবার বাংলায় ফেল করায় আমার বাংলার প্রফেসর ফুফু বললেন " হায় হায় বাংলায় কেউ ফেল করে !! বাংলার প্রফেসরের বাড়িতে যদি বাংলায় ফেলু হয় তহলে ত লজ্জার কথা !! কি হবে এই মেয়ে কে নিয়ে "

মন বড়ই খারাপ হলো !! মন খারাপ ক্লাস টেনে উঠে যে বাংলার অবস্থা ভাল হলো তা কিন্তু নয় তবে ভাবলাম আরেকবার ট্রায় করে দেখি না !!! চুপি চুপি বিচিত্রায় লিখে ফেললাম আমার মনের ভালবাসা বিচিত্রার প্রতি। বিচিত্রা আমার একমাত্র বিনোদোন ছিল সে সময়।

ওমা !!!! ওরা সেটা ছেপে ফেললো !!! আমি তো আনন্দে হাজার খানা !! কাউকে বলতেও লজ্জা হয়েছিল বাংলায় ফেলটুর এই অভাবনীয় এচিভমেন্ট !! শুধু জানতো তিন বছরের ছোট এক ফুফাত বোন যে আমার সকল কাজের সঙ্গী ছিল।

এখানে সবার লেখা পড়ে ও সুন্দর পরিবেশ দেখে লিখতে ইচ্ছে করল আমার কিছু অভিঙ্গতা ও ভাললাগা কথা। অনেক বানান আমার হয়তো ভুল থাকবে (বাংলায় ফেলুর) তবে অান্তরিকতা বা মনের ভাব প্রকাশের ও কমিউনিকেশনের সদ্বইচ্ছা ১০০% ভাগ থাকবে। আমার বানান গুলো যদি সুদৃষ্টি নিয়ে ক্ষমার চখে সবাই দেখেন তবে আমার সব সুন্দরতম দিন গুলো আপনাদের সাথে শেয়ারের ইচ্ছে থাকল।

অতিথি লেখক এর ছবি

লেখাটা মজার। তবে সচলয়াতন এর পদ্ধতি দেখে আমারও মনে হচ্ছে ইহজন্মে আর সচল হওয়া গেলো না | তবে হাঁ, লেখার আনন্দে লেখালেখি চলতেই পারে | বাকি তেনাদের মর্জি |
-আতিউর
atiurrs from the gmail.com

নারদ মুনি [অতিথি] এর ছবি

এই পোস্টখানা বড়ই মজেদার হয়েছে । তাই কমেন্টটা করে পেজটার লেন্থ আরেকটু বাড়ায় দিলাম।
পোস্টটা দেখতে লোকজনের আরও একটু ব্যান্ডউইথ খরচ হোক। হাসি

অতিথি লেখক এর ছবি

জব্বর একখান FAQ...পড়লাম...যে এটা লিখেছে তাকে আমার পক্ষ থেকে ফুল একটা গ্রিল খাওয়ামু...(মনে মনে ধরে নেন...)

অতিথি লেখক এর ছবি

আম্লে সব পরে কমুতে থাহেন মুই লেইখ্যা যাই।
দেখবেন লেইখ্যা লোইখ্যা চাইট্যা আপনের চুখে ধুলা দিয়্যা একদিন সচলা'কে খাইয়্যা ফালাইছি।

অতিথি লেখক এর ছবি

হাহ হাহ হাহ দেঁতো হাসি

খুব মজা পেলাম প্রশ্ন-উত্তর গুলো পড়ে ! একেই বলে "আনন্দের সহিত শিক্ষাদান " !!

"মুক্ত বিহঙ্গ" [অতিথি লেখক]
মোঃ জিয়াউর রহমান ববি

হাফিজ [অতিথি] এর ছবি

লেখার উদ্দেশ্য সফল হয়েছে। লেখক যেই হোক না কেন তাকে স্যালিউট। অতিথি লেখকদের এত সুন্দর সহজ বচন ভঙ্গিতে বোঝানো হয়েছে, একবার পড়লেই তার আর জানার কিছুই বাকি থাকবে না। যেন হৃদয়ের কাছা-কাছি উচ্চারিত কিছু শব্দমালা, একবার শুনলেই কর্ণকুহরে বাজতে থাকে বার-বার।

পরান এর ছবি

কমেন্টটা করে পেজটার লেন্থ আরেকটু বাড়ায় দিলাম।
পোস্টটা দেখতে লোকজনের আরও একটু ব্যান্ডউইথ খরচ হোক। হাসি
সচলয়াতন এর পদ্ধতি দেখে আমারও মনে হচ্ছে ইহজন্মে আর সচল হওয়া গেলো না |

অতিথি লেখক এর ছবি

পুরাই মাথা নষ্ট, বেশি পোস্ট দেয়ার টাইম পাই না তো, খালি কমেন্টস্‌ কইরা যাই!
[সচল হওয়ার টেনশন মাথায় নিতে ইচ্ছা করতাছে না, তবে হইয়া ছাড়বই ইনশাল্লাহ্‌] ঃ( কিন্তু কবে কিছুই জানিনা ঃ(
-- শফকত

মেঘনাদ সচলায়তন ৯১ [অতিথি] এর ছবি

অপেক্ষা আর অপেক্ষা!! মন খারাপ

অতিথি লেখক এর ছবি

অ্যাত্ত ঝামেলা!!! আইচ্ছা দেহি, আমারে সচল না কইরা কই যান। রাগ উইঠা গেল।।।।।।।।।।।।। গরররররররররররর

নাজমুস

রাহুল দাশ গুপ্ত। এর ছবি

মন্তব্য:-
সচলায়তনে যাঁরা লেখালেখি করেণ তাঁরা সচেতন ভাবে নীতিমালা মেনে চলার চেষ্টা করেণ।খুব কম অতিথি-লেখক ইচ্ছাকৃত ভাবে তা লঙ্ঘন করে থাকেন।এবং আন্তরিক ভাবে চান তাঁর মন্তব্য / লেখা প্রকাশিত হোক।তবু যখন মাঝে মাঝে ঘ্যাচাং হয়ে যায়, তখন খুব কষ্ট হয়।এবং আরো বেশী কষ্ট হয় যখন উনি জানতেই পারেন না কি দোষে দুষ্ট হয়ে লেখাটি বাতিল হলো।অর্থাৎ যার গলা কাটা হলো সে জানলো না তার অপরাধ-টা কি ! Natural Justice বলে ত একটা কথা আছে ? তা না হলে ব্যপারটা একতরফা হয়ে যায় না ? সচলায়তনের নিয়মিত পাঠক ও অতিথি হিসাবে কর্তৃপক্ষের বিবেচনার জন্য নিম্নলিখিত মতামত রাখতে চাই।একঃ-বাতিলের কারণ জানানো হোক।দুইঃ- ত্রুটি গুলো কাটিয়ে ওঠলে পুনঃপ্রকাশ ব্যবস্থা করা হোক।বা তিনঃ- যে হেতু লেখক অনেক কষ্ট করে লেখাটি তৈরী করেণ ,তাই সচলায়তনে প্রকাশের অযোগ্য বলে বিবেচিত হলে তা উনাকে ফেরৎ পাঠানো হোক। অন্তত তাতে লেখকের প্রতি সৌজন্য প্রদর্শন করা হবে।ধন্যবাদ।

সাদা-মডু এর ছবি

রাহুল,
আপনার মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনি "গলা-কাটা", "ন্যাচারাল জাস্টিস" এই ধরণের শব্দ ব্যবহার করে বিষয়টিকে অত্যন্ত ভীতিকর একটি বিষয়ের মত উপস্থাপন করেছেন। বিষয়টি এতো ভয়াবহ নয়।

পুরো মডারেশন বিষয়টি অত্যন্ত সময় সাপেক্ষ এবং এতে সরাসরি এক বা একধিক মডারেটরকে নিয়োজিত থাকতে হয়। মডারেশনের পর আবার আলাদা করে 'জবাবদিহী' তৈরী করার সুযোগ নেই। আর এই জবাবদিহীতার প্রয়োজনও অতটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। বুদ্ধিমানের জন্য ইশারাই যথেষ্ঠ।

বেশীরভাগ ক্ষেত্রে লেখাটার ভিত্তিই দূর্বল থাকে। তাই "সংশোধনের" সুযোগ থাকেনা লেখা গুলোতে। বানান ভুলের মত বাহ্যিক সমস্যা থাকলেও অনেক সময় ছাড় দেয়া হয়। কিন্তু একেবারে গঠনগত কিংবা দৃষ্টিভঙ্গী জনিত সমস্যাগুলো পূর্ণলিখন ছাড়া সারানোর উপায় কী? তবে পুনরায় জমা দেয়া লেখা কিন্তু পূর্ণবিবেচনা করা হয়।

ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থাটি অটোম্যাটিকালী করা যেতে পারে। ভবিষ্যতে এ ব্যপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে অনুগ্রহ করে বর্তমানে লেখার কপি রেখে জমা দিবেন। 'অপ্রকাশিত লেখা ফেরত দেয়া হয়' এমনটি কিন্তু কোথাও বলা নেই। সুতরাং এক্ষেত্রে বিষয়টি অসৌজন্যতা প্রসূতঃ নয়, বরং টেকনিকাল একটি সমস্যা।

ভালো থাকবেন।

রাহুল দাশ গুপ্ত। এর ছবি

আপনার জবাব পেয়ে ভীষণ খুশী হলাম।আসলে সচলায়তনে আমি একেবারেই নূতন ।নিজের অজ্ঞতা জনিত কারণেই হয়তো ত্রুটি গুলো ঘটছে।আশাকরি আগামীতে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা যাবে।সুপরামর্শ-এর জন্য ধন্যবাদ।

অনুসন্ধিৎসু এর ছবি

সচলায়তনে নিয়মিত পাঠক হয়ে কিছুদিন কাটানোর পর রেজি করতে মন চাইল কিন্তু নিক হিসেবে অনুসন্ধিৎসু ব্যবহার করলে তা গ্রহণ করা হচ্ছে না, ব্লগের এডমীন বৃন্দ এ ব্যাপারে কোন প্রকার সহযোগিতা করতে পারেন কি ?

অতিথি লেখক এর ছবি

খুবই গুছানো একটা ব্লগ দেখে আর লিখার লোভ সামলাতে পারলাম কই??? গল্প পড়ে তো দমফাটানো হাসি, সাথে কখনো খুব কান্না, কখনো নিজের কাজের কথা ভুলে গিয়া বকা শুনা.........আর এরকম করেই সচলায়তন এর সাথে জানা শুনা। আর একটা কথা চুপিচুপি বলে নেই, আমি না -বাংলা লিখা জানতাম না তাই এতোদিন ধরে সদস্য হতে পারি নাই। এখন অবশ্য পারি, শিখে ফেলছি শুধু এই ব্লকে লিখার জন্য............তো দোয়া কইরেন...............আর কি! এতক্ষন আমার লিখা পড়লেন কেন......এখন দোয়া করেন।হা,হা,হা......

আয়নামতি1 এর ছবি

খামোখাই রবীন্দ্রনাথকে দুষ্ট বলা! আমি তো বলি পৃথিবীতে সচলমডুদের মত এমন দুষ্ট, হাড়বজ্জাত আর নেই।

নাদিয়া জামান এর ছবি

অতিথির আরও অনেক কিছু জানার ছিল

পাঠক এর ছবি

চমৎকার লেখা, ভালো লাগলো!

tanim tanvir এর ছবি

আমার উপকার হইছে।

তানিম তানভীর

কল্যাণF এর ছবি

লেখাটা পইড়া অনেক মজা লাগলো, কিন্তু পরে কমু পরে কমু কইরা যে প্রশ্নগুলার উত্তর এড়াইয়া গেলেন সেইটার কি হইব? আর একটা কথা হইল মডুরা ত্যালহারামী বোঝলাম, মাগার মডু কেডায় হেইয়াতো বোঝলাম না। দুই/এক ব্যাটারে সন্দেহ হয় অবশ্য। মডুদের লিস্টি প্রাকাশ করা হোক যেন আমরা ত্যাল লইয়া দূরে থাকতে পারি খাইছে

guest_writer এর ছবি

সেরাম রে ভাই, ক‌্যামেতে যে ইয়া লেখেন!

প্রতিধ্বনী এর ছবি

পোষ্ট অসাধারণ। কিন্তু নীতিমালা একটু বেশি কঠিন।

তাপস শর্মা এর ছবি

হুম। এই হল অবস্থা। বুঝলাম।

বৃষ্টির রঙ এর ছবি

উপকারী পোস্ট...
পড়তে ভালবাসি..তবে আইলসামির কারণে আমার ও মনে হয় এই জনমে আর সচল হওয়া হবে না...

কল্যাণ এর ছবি

দেঁতো হাসি

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

অতিথি লেখক এর ছবি

হুম!! অনেক কঠিন এই সচল পক্রিয়া!! মন খারাপ

______
বুনোফুল

অতিথি লেখক এর ছবি

ভাল কিছু পাইতে চাইলে কষ্ট করতেই হয় । আপনি অনামিকার সাথে কথার ছলে সচলায়তনে সচল হওয়ার উপায়গুলান যেভাবে বাতলে দিছেন তাতে আমার সচল হওয়ার উৎসাহ অনেকখানি বেড়ে গেছে ।

ধন্যবাদ তোমায় , ভাই

অতিথি লেখক এর ছবি

সি

অতিথি লেখক এর ছবি

সিস্টেম খারাপ নহে!

ইউক্লিড

অতিথি লেখক এর ছবি

এ পর্যন্ত পড়ে যা বোঝা গেল তা হল গঠনগত দুর্বলতা অথবা অন্য কোথাও ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়ে থাকলে পোষ্ট করা সেই লেখা 'ঘ্যাচাং' করা হয়। তবে বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই মূল কারণটি হল গঠনগত দুর্বলতা।
কারণটি লেখককে জানানো উচিত। আমার ক্ষেত্রে একটি পোষ্ট যেটি ছোটগল্প হিসেবে 'ও' এবং 'সে' শব্দের জ্যোৎস্নালোকে- শিরোনামে দেওয়া হয়েছিল সেটি 'ঘ্যাচাং' হবার পর আমি ওই গল্প প্রথম আলো ব্লগে পোষ্ট করি। সেখানে প্রথম পাতাতে গল্পটি প্রকাশিত হয় এবং এ পর্যন্ত শতাধিক পাঠক সেটি পাঠ করেছেন। এই সব ক্ষেত্রে গঠনগত দুর্বলতাটি সুস্পষ্ট ভাবে চিহ্নিত না করলে লেখকের পক্ষে বোঝা সম্ভব হয়না যে কোন ক্ষেত্রে অধিকতর সবলতা প্রয়োজন। সংশোধনের পূর্বে ভুলটি চিহ্নিত করা বিশেষভাবে প্রয়োজন।
আশা করি মডুরা বিষয়টি নিয়ে ভাববেন।
মনোবর।

অতিথি লেখক এর ছবি

খুব নাটকিয়তায় বুঝানো। গুড! আই লাইক ইট।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA