আয় তোর মুণ্ডুটা দেখি কালাইডোস্কোপ দিয়ে ০৩

সুজন চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন সুজন চৌধুরী (তারিখ: বিষ্যুদ, ২০/০১/২০১১ - ৯:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গোয়েন্দা ঝাকানাকা কমিক সিরিজের প্রথম ইস্যু, "গোয়েন্দা ঝাকানাকা ও জাদুঘরে চুরি রহস্য"-এ জাদুঘরের কিউরেটর চরিত্রটি নিয়ে অনেক চিন্তা করতে হয়েছে। আক্কাস আলি মৃধার দেখতে কেমন হওয়া উচিত?

সরকারী কর্মকর্তাদের বেশভূষার কিছু স্টেরিওটাইপ আছে। সেগুলোকে কমিকে ধরে রাখা জরুরি কি না, কিংবা ধরে রেখে কীভাবে গল্পের রসটা ফুটিয়ে তোলা যায়, এ নিয়ে ভাবতে ভাবতে নানা ব্যক্তি আর চরিত্রের চেহারা নিয়ে ঘাঁটতে হয়েছে। আমলাদের ছবি সহজে পত্রিকায় আসে না, আরো ঘন ঘন আসা উচিত। আমাদের সরকারের কাজকর্ম যারা করছেন, তাদের চেহারা মানুষের নাগালে, কিংবা আরো ভালো করে বললে, গুগলের নাগালে থাকা জরুরি।

যদিও কোনো মিল নেই মৃধার সাথে, কৌতূহলবশে ইন্টারনেটে খুঁজছিলাম ড. নলিনীকান্ত ভট্টশালীর ছবি। পাইনি। তিনি নমস্য মানুষ, তাঁর চেহারার আদলকে কমিকের চরিত্রে গুঁজে দেয়ার কোনো অভিপ্রায়ও আমার নেই। প্রশ্নটা তাই থেকেই গেলো, জাদুঘরের কিউরেটরদের দেখতে কেমন হওয়া উচিত? একটি দেশের প্রত্নসংগ্রহ যাঁর তত্ত্বাবধানে, তিনি কেমন হবেন দেখতে? হায়, দেশের জ্ঞানীগুণীদের ছবি নেটে পাওয়া যায় না, খালি রূপালি পর্দার লোকজন দিয়ে গুগল বোঝাই। তাছাড়া সেই রামও অযোধ্যার সাথে বিলুপ্ত, মনীষী ভট্টশালীকে আজ জাদুঘরের কর্তাদের সমকক্ষ ভাবাও অনুচিত।

ভেবে দেখলাম, কিউরেটর হিসেবে আক্কাস আলি মৃধার চেহারা হওয়া উচিত জ্ঞানের আমলাতত্ত্ব আর আমলাতত্ত্বের জ্ঞানে ভরপুর। পরনে থাকবে পরিপাটি স্যুটবুট, চোখে পুরু লেন্সের চশমা, মাথায় ইন্দ্রলুপ্তিকে আড়াল করার জন্যে কয়েক গাছি অসহায় চুল, মধ্যপ্রদেশ আমলা ফরম্যাটের আর গায়ের রং হবে শীতাতপনিয়ন্ত্রিত টুকটুকে, রইস ঘরের সন্তানদের মতো।

আক্কাস আলি মৃধা

স্টাইলাস হাতে ভাবতে ভাবতে মনে পড়ে গেলো কৈশোরের বিটিভিতে প্রচারিত "দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া"র কথা। চক্ষু বুঁজে তাই দেখতে শুরু করলাম। চেনা চেনা লাগে, তবু অচেনা। যারা এখনো গোয়েন্দা ঝাকানাকা কমিক নিয়ে অবগত নন, তাদের জন্য রইলো ওয়েবসাইটের সিঁদকাঠি

আক্কাস আলি মৃধা


মন্তব্য

নৈষাদ এর ছবি

ঠিকাছে।

ফ্রুলিক্স.. এর ছবি

বড়ই সৌন্দর্য্য

তারাপ কোয়াস এর ছবি

জটিল!!


love the life you live. live the life you love.

অতিথি লেখক এর ছবি

ঠিকাছে চলুক

ধৈবত

ধুসর গোধূলি এর ছবি

আক্কাস নাকি আক্কাছ- কিউরেটর সাহেবের নামের বানানের দিকে খিয়াল রাখা জরুরী! দেঁতো হাসি

বাই দ্য ওয়ে, "হোতায়ালান্তিস" কৈতে ভুইল‌্যা গেছিলাম। ভেম ক্ষমা সোন্দয্য দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানাই।

তাসনীম এর ছবি

পারফেক্ট।

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

মাহবুব লীলেন এর ছবি

সাফারি পরা একখান ছবি থাকলে আরো ভালু হইত

অতিথি লেখক এর ছবি

জটিলস্য জটিল দেঁতো হাসি

---আশফাক আহমেদ

অতিথি লেখক এর ছবি

দারুণ দেঁতো হাসি

কুটুমবাড়ি

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

এক্কবারে ঠিকঠাক খোমা হইছে...

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

অতিথি জলতরঙ্গ এর ছবি

দারুন চলুক

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

সুজন্দার একটা পাংখাপাতা খোলার সময়াসছে।

টিউলিপ এর ছবি

সুজন্দা রক্স।

___________________

রাতের বাসা হয় নি বাঁধা দিনের কাজে ত্রুটি
বিনা কাজের সেবার মাঝে পাই নে আমি ছুটি

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

আবার জিগস ... রাপু খাপাং ...

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

মুস্তাফিজ এর ছবি

পুরাই আক্কাস

...........................
Every Picture Tells a Story

কৌস্তুভ এর ছবি

দেঁতো হাসি

একটা প্রফেসর-প্রফেসর ভাব আছে...

স্বাধীন এর ছবি

এইটা আর প্রথমটা চমৎকার লেগেছে। একেবারে চরিত্রের সাথে মানিয়ে গিয়েছে। তবে বিজ্ঞানীর ছবিটা নিয়ে আরেকটু চিন্তা করতে পারেন। বিজ্ঞানীর ছবিটা কেমন যেন একটা ঢাউস মাউস (ইদুরের) এর মত লাগছে ওঁয়া ওঁয়া

ঝাকানাকার সফলতা কামনা করি চলুক

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

এবারের বর্ণনা এবং কার্টুন দুটোই জবরদস্ত! গতবারের কার্টুনটা একটু দায়সারা মনে হয়েছিল। খাইছে

পান্থ রহমান রেজা এর ছবি

বেশ বেশ!

শোহেইল মতাহির চৌধুরী এর ছবি

চিনছি...ড. এনামুল হক....দুর্দান্ত হইছে...

-----------------------------------------------
মানুষ যদি উভলিঙ্গ প্রাণী হতো, তবে তার কবিতা লেখবার দরকার হতো না

অতিথি লেখক এর ছবি

পার্ফেক্ট!!
দূর্দান্ত!!

---------------------
তৌফিক

সচল জাহিদ এর ছবি

জটিলান্তিস


এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি, নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।
বিশ্ব পানি দিবসব্যক্তিগত ব্লগ। কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ অভ্র।

রানা মেহের এর ছবি

একদম জোশিলা

-----------------------------------
আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

বাহ বাহ! কিন্তু আক্কাস আলি মৃধা যদি পরের ছবির মতো ঐরকম চোর চোর ভাব নিয়ে পা টিপে টিপে চলে, তাইলে কিন্তু আমি এখনই ধরে নেব কে মিউজিয়ামের চুরি করেছিল! খাইছে

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

অমিত এর ছবি

সিরাম কিন্তু

দ্রোহী এর ছবি

আক্কাস আলি মৃধা অসাধারণ হইছে।

"দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া" শুনেই চিনতে পেরেছি। না হলে মিলটুকু ধরতে পারতাম না।

তিথীডোর এর ছবি

দেঁতো হাসি হাততালি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

অতিথি লেখক এর ছবি

ভদ্রলোকের নামটা ভুলে গেছি। তবে অনুষ্ঠানটা আমার খুব প্রিয় ছিল।

---থাবা বাবা!

গৌতম এর ছবি

জাদুঘরের কিউরটরকে অবশ্য স্যুটের বদলে সাফারিতেই মানাবে ভালো। তবে বদনখানি (টাকসহ) দুর্দান্ত।

.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।