Warning: Creating default object from empty value in i18ntaxonomy_term_page() (line 34 of /var/www/sachalayatan/s6/sites/all/modules/i18n/i18ntaxonomy/i18ntaxonomy.pages.inc).

অণুগল্প

আমি তোমাকে ভালোবাসি!

অভ্রনীল এর ছবি
লিখেছেন অভ্রনীল (তারিখ: রবি, ০৭/১২/২০০৮ - ১১:৫৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চরিত্রঃ
একটি ছেলে
একটি মেয়ে
একটি ওয়েটার

স্থানঃ
একটি অভিজাত রেস্টুরেন্ট

দৃশ্যঃ
ছেলেটা আর মেয়েটা মুখোমুখি বসে আছে। দু'জনের খাওয়া শেষ। ছেলেটা অনেক্ষণ ধরে উস্‌খুস করছিলো কিছু বলার জন্য। অবশেষে ছেলেটার একহাত মেয়েটির হাতকে স্পর্শ করে...

ছেলেঃ আমি তোমাকে ভালোবাসি।
মেয়েঃ কি বলছ! আমি তোমাকে সবসময় বন্ধু মনে করে এসেছি...
ছেলেঃ বন্ধুকে কি ভালোবাসা যায়না?
মেয়েঃ নাহ, সরি... আমি ...


প্রতিশোধ

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: বুধ, ০৩/১২/২০০৮ - ১:৩৩পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

অবিন্যস্ত ঘরটার এককোণায় টেবিলে বসে শাওন ভাবছিল কোন শাস্তিটা দিলে সেটা 'উচিৎ শিক্ষা' হবে মৌয়ের জন্য।গত দেড়বছরে জমে গেছে প্রচুর ছবি।তার মধ্যে অন্তরংগ ছবিও নেহায়েত কম না।মেইলবক্স ঘাটলে রোমান্টিক চিঠিরও দেখা মিলবে।এসএমএস গুলোই বা কম কিসে?

সব কিছুর একটা কমপ্লিট প্যাকেজ ওর হবু বরের ঠিকানায় পাঠালে কেমন হয়?হুহ! বিয়ে করার শখ মিটে যাবে।
নাহ হবে না।এতে হয়ত শুধু বিয়েটা ভাংবে।ওকে এতো কম...


একটি পরমানু গল্পঃ দাগ

নির্বাক এর ছবি
লিখেছেন নির্বাক [অতিথি] (তারিখ: সোম, ০১/১২/২০০৮ - ১১:৫৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

“ধুশ্‌ শালা, দাগটা লেগেই গেল! এই দাগ কি আর সহজে উঠবে? অন্যকোন দাগ হলেও নাহয় একটা কথা ছিল! সার্ফ এক্সেল দিলেওতো মনেহয় উঠবেনা। এখনই ধুয়ে দিতে পারলে হয়ত উঠে যেত; কিন্তু এই অবেলায় জামা ভেজাতে দেখলে মা নিশ্চিত কিছু একটা সন্দেহ করে বসবে। বাড়ির লোকগুলোও সব; সারাক্ষন আমার পিছু লেগে আছে! কোন কিছু হলেই অপেক্ষায় থাকে কখন আমাকে ধরবে! জ্যাকেটটা নিয়ে আসলেই ভাল হত, দাগটা তাহলে ওটার উপর দিয়েই যেত। জ...


একটি অনুগল্প : ভূঁতের নাম ম্যান্দামারা

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বিষ্যুদ, ২৭/১১/২০০৮ - ৪:৩৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শরিফের চোখ দিয়ে অঝোর ধারায় অশ্রু ঝরছে। কিছুতেই সে কান্না থামাতে পাড়ছে না। এত বড় দুঃখ সে এ জীবনে আর পায়নি। আজ ফুলির বিয়ে। যে ফুলির সাথে তার পাঁচ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। যে ফুলি দু’দিন আগেও শরিফের গলা জড়িয়ে বলেছে - তোমারে ছাড়া বাঁচবো না। সেই ফুলি দুবাই ফেরৎ পাত্র পেয়ে প্রেমের মুখে ঝাঁটা দিয়ে বিয়ে করতে বসে গেছে। এ দুঃখ শরিফ রাখবে কৈ। সে তাই ঠিক করেছে এ জীবন আর রাখবে না। আত্মহত্যা করব...


একটি অনুগল্প : একি কান্ড! - কে কার খাদ্য !!

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বুধ, ২৬/১১/২০০৮ - ৪:৩৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এক ঝিলের ওপর দিয়ে একটা গঙ্গাফড়িং উড়তে উড়তে ঘুরতে ফিরতে ক্লান্ত হয়ে একটা পদ্মফুলের ওপর বসে পড়ল। একটা কোলাব্যাঙ অদূরেই একটা পদ্মপাতার ওপর ঝিমাচ্ছিল বসে বসে। সে গঙ্গাফড়িংটাকে আয়ত্বের মধ্যে পেয়ে টপ করে জিভ ছুঁড়ে সেটাকে মুখে পুড়ে চিবাতে লাগলো আরামে। একটা ঢোঁরা সাপ পানির উপর মাথাতুলে ভাসছিল ব্যাঙটার পেছনে। ব্যাঙটার এই অন্যমনস্কতার সুযোগে সে ছোবল হানলো। মুহুর্তে ব্যাঙটাকে পেঁ...


পরমানুর পঞ্চবাণ - ১৩ (হাসির গল্প)

দেবোত্তম দাশ এর ছবি
লিখেছেন দেবোত্তম দাশ (তারিখ: মঙ্গল, ২৫/১১/২০০৮ - ১১:০৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

small
এক চাকার সুন্দর এক মোটর-সাইকেল নিয়ে ছেলেটি তার বন্ধুর সাথে দেখা করতে গেল।

এক চাকাওয়ালা মোটর-সাইকেল দেখে বন্ধুটি বলে উঠলো এই মোটরসাইকেল
তুমি কোথায় পেলে?

আর বলো না, কাল রাতে এক সুন্দর পরী এই বাইক নিয়ে এসে আমার সামনে তার জামাকাপড়
খুলে আমাকে বলল “যেটা পছন্দ সেটা নাও”

বন্ধুটি বলে উঠলো, এক চাকার মোটর-সাইকেলটা নিয়েই তুমি ঠিক করেছ, মেয়েদের জামা-...


একটি অনুগল্প : তানবীরা : একজন ফটোগ্রাফার

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: মঙ্গল, ২৫/১১/২০০৮ - ৩:১২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শানেনুযুল :
গতকাল সচল তানবীরা তাঁর ফটোগ্রাফি প্রতিভা নিয়ে একখানা অনুগল্প লিখতে বলেছিলেন আমাকে (দেঁতোহাসি)। আর সন্ন্যাসী দা এবং বি ডি আর-এর মতে আমি যেহেতু অনুগল্পের ফ্যাক্টরি - সুতরাং আমাকে আর পায় কে? তাদের দেয়া নামের সুবিচার করতে নামিয়ে ফেললাম গল্পটা। দেঁতো হাসি

তবে সব কথার শেষ কথা হলো - গল্পটা ভালো লাগলে সমস্ত প্রশংসা একমাত্র আমার। আর খারাপ লাগলে সমস্ত দায় তানবীরা আপুর (দেঁতো...


একটি অনুগল্প : সততা

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: সোম, ২৪/১১/২০০৮ - ৪:০৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সরকারী কর্মকর্তা ইকবাল সাহেব সকালে অফিসে এসেই তার টেবিলে একটা শাদা খাম পড়ে থাকতে দেখলেন। খামটা খুলে বিরক্তিতে তার চোখ মুখ কুঁচকে গেল। সেখানে দশ হাজার টাকার একটা ক্যাশ চেক আর এক টুকরো ছোট কাগজে একটা ফাইল নম্বর লেখা রয়েছে। দেখেই তিনি বুঝলেন ঘুস দেবার এটা নয়া তরিকা। বি সি এস পাশ করে অনেক চড়াই উৎরাই পেড়িয়ে এক মাস হলো তিনি কাজে যোগ দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই তার সততার খ্যাতি ছাড়িয়ে পড়েছে বি...


জন্মদিন ও একটি উইশের গল্প

নিবিড় এর ছবি
লিখেছেন নিবিড় (তারিখ: বুধ, ১৯/১১/২০০৮ - ১১:২২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আহ কি শান্তি । যাক ট্রেন টা ছেড়েছে । সকাল বেলা ট্রেন জার্নির মজাটাই আসলে অন্যরকম কেমন জানি একটা অদ্ভুত তাল আর সাথে ঠান্ডা বাতাস । এরকম একটা দিনে ট্রেনের এই তাল কেমন জানি ঝিমুনি ধরিয়ে দেয় । কিন্তু কে কাকে বুঝাবে এই কথা । শান্তা সব সময় বলবে ট্রেন জার্নি বোরিং ।

ওর ঐ এক কথা - এত ঢকর ঢকর এর মাঝে মানুষ থাকতে পারে নাকি । তার উপর বাসে কত কম সময়ে যাওয়া যায় আর ট্রেনে ? আমি যতই বলি - আরে ট্রেন...


একি প্রেম নাকি ..............

কীর্তিনাশা এর ছবি
লিখেছেন কীর্তিনাশা (তারিখ: বুধ, ১৯/১১/২০০৮ - ২:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

০১

রুমি আর নীরার মধ্যে মোবাইলে কথা হচ্ছে। কথা না বলে অবশ্য ঝগড়া বললে ব্যাপারটা ভালো বোঝা যাবে।

রুমি : তুই আসবি কি আসবি না, তাই বল?
নীরা : না আসবো না।
রুমি : কিন্তু তুই সকালেই তো বললি আজকে দেখা হবে। তাহলে এখন আবার কথা ঘুরাচ্ছিস কেন?
নীরা : কথা ঘুরাচ্ছি কারন আমি খুব ক্লান্ত। রংপুর থেকে আধবেলা জার্নি করে এসে এখন আর শরীরে কুলাচ্ছে না।
রুমি : শরীরে কুলাচ্ছে না বললে তো হবে না। তুই তোর নানা...