মাসিক স্বর্গবার্তা— স্পেশাল এডিশন

ধুসর গোধূলি এর ছবি
লিখেছেন ধুসর গোধূলি (তারিখ: সোম, ১৬/১১/২০০৯ - ১০:২৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাটীর দাওয়ায় আদম পাংশু মুখে বসিয়া নিজের ইউজড ম্যাকবুক খানা খুলিয়া তাহাতে ফার্মভিল খেলিতেছে। ভিতর হইতে ইভের সাড়ে তিনশ ওয়াটের সুমধুর গলার স্বর কোনো বিরতি ব্যতিরেকেই বাহিরে দেড় কিলোমিটার র‌্যাডিয়াসের মধ্যে চলাফেরা করিতেছে রাজ্যের যতো পদের শ্লীল-অশ্লীল শব্দমালা আছে, উহাদের যথাযথ ব্যবহার সমেত। ইভের বাক্য সম্ভারে আদমের পৌনে ঊনত্রিশ গোষ্ঠিকে একযোগে সার্ফ এক্সেল সহযোগে ধৌত করিয়া চলিয়াছে সে।

ঘটনা তেমন কিছুই ঘটে নাই। সকালে ঘুম হইতে জাগিয়া আদম খাষ্টাঙ্গে শায়িত আলুথালু ইভকে দেখিয়া বেশ ইয়ে হইয়া ওঠে। সে ঘরের কপাট লাগাইয়া ইভের বক্ষদেশে কিঞ্চিৎ স্পর্শ প্রদান করিতেই ইভ ধরমড়াইয়া লাফাইয়া উঠিয়া চেঁচাইয়া ওঠে, "কী, করিতেছো তুমি হ্যাঁ? তোমার কি শরম ভরম নাই?"

আদম ইভের আরেকটু কাছে ঘেঁষিতে যায়। দাঁত কেলাইয়া বলে, "কী আবার, আসো একটু ভালোবাসা করি। কম্প্যুটারে রোমান্টিক গান ছাড়িয়া দিবো? আইজ পাশা খেলবো রে শাম..."

ইভ এইবার তেলেবেগুনে জ্বলিয়া ওঠে।

"সারাদিন কম্প্যুটারে বসিয়া কী সব হাবিজাবি দেখো। আর রাত্রি হইলেই আমার উপরে ঝাঁপাইয়া পড়িয়া সেগুলার ফিল্ড প্র্যাকটিস করিতে চাও। বলি, আমাকে কি তুমি কলাবাগান মাঠ পাইয়াছো যে ফ্রি স্টাইলে নেট প্র্যাকটিস করিবা? আমারে অবলা নারী পাইয়া তুমি রাতেবিরাতে, সকালেবৈকালে আমার শরীরের দিকে কুদৃষ্টি দাও, কী সব ইঙ্গিত করো, শরীরের যেখানে সেখানে আনঅথোরাইজড হস্ত নিক্ষেপ করো। তোমার ঘরে কি মা বইন নাই?"

ইভ এক নিঃশ্বাসে বলিয়া রাগে ফোপাইতে থাকে।

এইবার আদম ক্ষেপিয়া যায়।

"মাগী, তিনজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে, রীতিমতো টাইটেল পাশ কাজীর সামনে তিন তিনবার কবুল বলিয়া স্বর্গীয় ভুর্জপত্রে স্বাক্ষর মারিয়াছি। আদম বকিয়া চলে। পাজঁরের হাড়ের অনুপস্থিতিতে বুকের বাম দিকটা এখনো চিনচিন করে। আর তুমি মাগী আমারে ভালোবাসা করিতে দাও না! এইটা তোমার কীরূপ ইনসাফ?"

ইভও কম যায় না। "আর বেশি বাড় বাড়িও না আদম। সোজা ঈশ্বরের কাছে নালিশ ঠুকিয়া দিবো। তুমি আমার নারী অধিকার হরণ করিতে চাহিতেছো। মিনিমাম পাঁচ বছর লাল দালানের চাক্কি পিষিতে হইবে কয়ে দিলুম! যখন অন্য দাগী আসামীরা তোমার পিছন বরাবর ঘুরঘুর করিবে তখন বুঝিবে সখা ভালোবাসা করা কাহাকে বলে!"— কোমরে আঁচল জড়াইয়া দক্ষিণ হস্তের তর্জনী খাড়া করিয়া ইভ আদমকে সাবধান করিয়া দেয়।

ঘটনার পাশবিকতা নিরূপন করিয়া আদম চুপসাইয়া গিয়া অন্দরমহল হইতে বাহিরে চলিয়া আসে স্বীয় কম্পুখানা বগলদাবা করিয়া। তাহার পর হইতে ভিতরে ইভের অণলবর্ষী বাক্যবানের সহিত পাল্লা দিয়া আদম তাহার ফার্মভিলে ঢুকিয়া অমুক ফেরেস্তা, তমুক ফেরেস্তার ক্ষেতে সার-পটাশ মারিয়া আসিতে লাগিলো। আর মনে মনে ফুঁসিতে লাগিলো।

হঠাৎ কী মনে করিয়া আদম ঠাশ করিয়া কম্পুখানার ঢাকনা বুঁজাইয়া উহা লইয়া ছুটিলো ঈশ্বরের দরবারে। ইহার একখানা বিহিত না করিলেই না। বহুত হইয়াছে, আর না। ঈশ্বর ধুনফুন বুঝাইয়া ইভকে তাহার গলায় ঝুলাইয়া দিয়া নিশ্চিন্ত মনে স্বর্গের হুর পরীদের নিয়া স্বর্গের বাইরে ওভারনাইট ট্রিপ মারিতেছেন। আর এদিকে আদম আপনা হাত জগন্নাথ করিয়া তাহার হস্তরেখা সব প্রায় বিলুপ্ত করিয়া ফেলিয়াছে!

ঈশ্বরের দরবারে ঢুকিবার মুখে ফেরেশতা গিব্রিল বণ্ডাইল লোটা হস্তে নিমের ডালায় মেছওয়াক করিতে করিতে আদমকে শুধাইলো, "ওহে আদম, এইরূপ হন্তদন্ত হইয়া কই যাইবার লাগছো হালায়!"

আদম বেশ ক্ষেপিয়াই ছিলো। বলিলো, "তা দিয়া তোমার কী কম্ম মাঙ্গের পো! যে বাল ফেলিতেছো, উহাই ফেলিতে থাকো না!"

বণ্ডাইল বুঝিলো অবস্থা বেগতিক। সে চুপ মারিয়া, মুখ খানা বাংলা পাঁচের মতো করিয়া টাট্টিখানার দিকে যাত্রা করিলো।

ঈশ্বর নাকের ডগায় অর্ধচন্দাকৃতির চশমা লাগাইয়া স্বর্গের মাসিক নগদান বহিতে চোখ বুলাইতেছিলেন। ফেরেশতাগণ ইদানিং বড়ই দুর্নীতিবাজ হইয়া উঠিয়াছে। স্বয়ং দুদকও ঈশ্বরকে বুকাচুদা ভাবিয়া নয়ছয় করিয়া হিসাবের বহি জমা দিয়াছে। হিসাবে গোঁজামিল দেখিয়া ঈশ্বরের মেজাজ সবে সপ্তমে উঠিতেছে, ঠিক সেই সময় ক্ষিপ্র গতিতে দরবারে আদম প্রবেশ করিলো।

"বলি, আর ইউ কিডিং উইথ মী, মি. ঈশ্বর?"

মুখ না তুলিয়া ঈশ্বর চশমার উপর দিয়া চাহিয়া এক নজর দেখিলেন আদমকে। স্যাণ্ডো গেঞ্জি পরা, লুঙ্গি হাঁটুর উপরে উঠিয়া রহিয়াছে। ডান পায়ের গোঁড়ালিতে কিঞ্চিৎ প্যাঁক। ঈশ্বরের দরবারে ইরান হইতে সদ্য ইমপোর্টেড কার্পেটের উপরে সেই অবস্থায় আদম দাঁড়াইয়া আছে।

"কী বলিবে ঝটপট বলিয়া বিদেয় হও আদম। মেজাজ মর্জি ভালো না কইলাম।"

"আপনার মেজাজ মর্জির নিকুচি করি আমি।" আদম ঝলমল করে ওঠে।

ঈশ্বর হাঁকিয়া ওঠেন, "গিব্রিল, এই হতচ্ছাড়া গিব্রিল, ডাকি যে কানে ঢোকে না?"

টাট্টিঘর হইতে লোটা হস্তে ছুঁটিয়া গিব্রিল আসিয়া দাঁড়ায় দরবারে। গলা খাঁকাড়ি দিয়া বলে, "বণ্ডাইল, জেমস..."

উড়িয়া আসা হার্ড কভারের লাল বাইণ্ডিং করা খাতার আঘাতে গিব্রিল ফিতা আটকাইয়া যাওয়া ক্যাসেট প্লেয়ার মতো থামিয়া যায়।

কতোবার বলিয়াছি, "এই বালনুডুস মার্কা নাম আমার সন্মুখে বলিবে না।" ঈশ্বর ঝলসে ওঠেন।

কী করিবো হুজুর, "ক্যাসিনো রয়ালে আপনার দেয়া এ্যাসাইনমেন্টে গিয়াই তো এই মুদ্রাদোষখানা সম্বল করিয়া ফিরিয়া আসিয়াছি!" গিব্রিল কাঁচুমাচু করিয়া বলে।

"বাজে বকিওনা আবাল কোথাকার। যাও এই হিসাবের খাতা হিসাব রক্ষকের নাক বরাবর ছুড়িয়া মারিয়া বলিবা এইসব বালছাল মার্কা হিসাব জানি আমার সামনে আর না আনে। আমি কি হিসাব বুঝিনা? মেট্রিকে বুককিপিং-এ লেটার মার্ক্স পাইয়াছিলাম কি নকল করিয়া? উইদিন টুয়েন্টি ফোর আওয়ার্সের মধ্যে আমি স্বর্গের গত ছয় মাসের আয় ব্যয়ের হিসাব চাই। অপারগতায় সকলের কোটা হইতে মাসিক তিনজন করিয়া হুর কাটিয়া লওয়া হইবে, নো এক্সেপশনস। এখন নিষ্ক্রান্ত হও।"

গিব্রিল প্রস্থান করিলে ঈশ্বর আদমকে লক্ষ্য করিয়া জিজ্ঞেস করেন, "তুমি কী যেনো বলিতেছিলে আদম?"

আদম বলিলো, "কী আবার। সেই পুরানা কাসুন্দি...!"

ঈশ্বর কপট রাগিয়া উঠিলেন, "এতোদিনেও একজন নারীকে বশে আনিতে পারিলে না আদম। কীসের পুরুষ তুমি!"

"ঐত্তা আলাপ বাদ দেন। কর্কশ ইভকে আমার গলায় ঝুলাইয়া দিয়া আমার ভাগের সত্তুরটা হুর নিয়া মাস্তি করিয়া বেড়ান আপনি। মাগী আমারে ভালোবাসা তো করিতে দেয়ই না উল্টা আমার স্বর্গবাসী পিতামাতা নিয়া এমন সকল আনসেন্সরড কথাবার্তা বকিয়া চলে যাহা আমি এইখানে উল্লেখ করিতে পারিবো না। ওর কথা একবার শ্রবণ করিলে আব-ই-জমজমের পানিতে সারা দিন ডুবিয়া থাকিলেও কর্ণ পাকসাফ হইবে না! আমার হুর আমারে ফেরত দেন ঈশ্বর। আমি বিবাহিত বউয়ের সহিত না, হুরদের সহিতই ফষ্টিনষ্টি করিতে চাই!"

ঈশ্বর গলা খাকাড়ি দিয়া বলিলেন, "বিবাহিত পুরুষের অন্য নারীতে আসক্ত থাকা ঠিক না। তুমি বিবাহিত পুরুষ আদম, ভুলিয়া যাইয়ো না। তোমার কাছে ইভ-ই সব। হুরপরীদের চিন্তা মাথা হইতে ঝারিয়া ফেলো নাফরমান। মাথা বেশি গরম হইয়া গেলে ইন্টারনেট ঘাঁটিয়া সামাজিক ফ্লিম দেখিবা। কম্পুখানা কিনিয়া দিয়াছি কী হেতু?"

"আপনার ধুনফুন টেন্ডারবাজী রাখেন তো। কোন চোরাই মার্কেট হইতে এই কম্পু কিনিয়াছেন আপনিই মালুম। কম্পুকানা পাইয়া পুরান মাল গছাইয়া দিয়াছে আপনাকে। ইহা ইশটার্ট করিতেই ঘন্টা পার হইয়া যায়। তাহার উপর স্বর্গের নেট লাইনের যে ছিরি। ইউটিউব বাফার হইতেই দিন কাবার, সবিতাভাবী তো আসেই না। আর সামাজিক ছবি? ফযর ওয়াক্তে চালু করলে পরের দিন জোহরের পর গিয়া এক মিনিট দেখা যায়। তার উপর মাঝে মইধ্যেই নেট ডাউন, ফাইবার অপটিক কেবল সংস্কার! বুঝেন তো না বালের আগাটাও। আলু ব্যাপারীর হাতে দিছেন ইন্টারনেটের টেন্ডার। লাগবো না আমার এইসব। আপনের কম্পু আপনে ফেরত নিয়া নেন আর আমার সত্তুর হুর আমাকে ফেরত দিয়া দেন, বাটীতে চলিয়া গিয়া উহাদের সহিত ইশক্ লাড়াই!"

"মুখ সামলাইয়া হাউকাউ করো আদম। তুমি কি ভুলিয়া গিয়াছো কার সন্মুখে দণ্ডায়মান হইয়া কথা কহিতেছো...?"

"আপনেরে না আগেই বলিয়াছি, বাঙ্গালরে উচ্চতর আদালত দেখাইবেন না। আপনি আমার সহিত বাড়াবাড়ি করিলে আমি আপনার নামে যশোর আদালতে ফৌজদারী আইনে মকদ্দমা করিয়া দিবো। মোহাম্মদ মামলা। আমি জানিয়া গিয়াছি, আপনার নামের শেষেও আপনি গোপনে মোহাম্মদ ব্যবহার করেন! ইহা গুরুতর অপরাধ!"

ঈশ্বর গলার স্বর নিচু করিয়া আদমকে শুধান, "তুমি কী করিয়া জানিলে আদম? তুমি কি দ্য ডেইলি নিউ হরাইজন পড়ো রেগুলার?"

"ডেইলি হরাইজনের বেইল নাই এখন বস। ফেসবুকের দুনিয়ায় সব ফকফকা অদ্যকল্য। রাজী হইয়া যান আমার প্রস্তাবে। ফিরাইয়া নিন ইভ, দিয়া দিন হুরসমগ্র। আর নয়তো বুঝিতেই পারিতেছেন, প্রথমবারের মতোন, ছয় যোগ দুই ইন টোটাল আটমাস কারাবাস আছে আপনার ঈশ্বর ক্যারিয়ারের ভাগ্যে...!"


মন্তব্য

আহির ভৈরব এর ছবি

হাসিতে হাসিতে হাসিতে হাসিতে পেটে খিল! হো হো হো

-----------------------------------------------------
আর কিছু না চাই
যেন আকাশখানা পাই
আর পালিয়ে যাবার মাঠ।

-----------------------------------------------------
আর কিছু না চাই
যেন আকাশখানা পাই
আর পালিয়ে যাবার মাঠ।

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

চ্রমোছ্যে

সাফি এর ছবি

খাড়ান কেস করতাসি আপনার নামে। শুধু ধর্মীয় না অনেক অনুভূতিতে আঘাত দিসেন। রেগে টং

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- আহির ভৈরব, শুভাশীষ দাশ ধন্যবাদ বস আপনাদের।

সাফি ভাই, কেস করেন। লন আমরা জামাতের সহিত কেস করি।
আমাগো দেশের যে আইন তাতে দেখবেন আমার তো কিছুই হয় নাই উল্টা আপনের নামে মানহানীর মকদ্দমা ঠুকে দিয়ে আমার অকাইল্যা তাল গাছে বেল ঝুলতাছে। রসারসা, টসটসা।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

দ্রোহী এর ছবি

নজমুল আলবাব এর ছবি

তুই লিখলি বলেই হাসলাম
তুই লিখলি বলেই, যতক্ষণ
পড়লাম, মন ভালো থাকলো।

------------------------
ভুল সময়ের মর্মাহত বাউল

রায়হান আবীর এর ছবি

লেখা পইড়া হেব্বি ড়াম পেলাম, মজাও দেঁতো হাসি


পুচ্ছে বেঁধেছি গুচ্ছ রজনীগন্ধা

ধুসর গোধূলি এর ছবি
নীড় সন্ধানী এর ছবি

‍‌ঈশ্বর অবমাননা মামলায় আপনার জন্য বছর লাখ দুয়েক হাবিয়া দন্ড বরাদ্দ হইতে যাইতেছে..............

-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-
সেই সুদুরের সীমানাটা যদি উল্টে দেখা যেত!

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

ধুসর গোধূলি এর ছবি
পান্থ রহমান রেজা এর ছবি

গল্প ভালো হৈছে!
............................................................................

আমি অতো তাড়াতাড়ি কোথাও যেতে চাই না;
আমার জীবন যা চায় সেখানে হেঁটে হেঁটে পৌঁছুবার সময় আছে,
পৌঁছে অনেকক্ষণ ব'সে অপেক্ষা করার সময় আছে।

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

আঘাত, আঘাত, চ্রম আঘাত। ভুলিলে চলিবে না যে আমাদের পরান পিরিয়, আলেমে-ওলামা, ইসলামের ধ্বজা ধারি, এই মুলুকের পরহেজগার জনাব মতিউর রমান নেজামি ছাহেব আবারো আমাদের পথ প্রদর্শক হইয়াছেন। এই আঘাতের কর্মফল স্বরূপ উনি আপনাকে একটা ফুতকারে বালের ন্যায় উড়াইয়া সুদুর চীন দেশের কোন খাটাশ রমনীর পশ্চাতদেশের চিপায় বন্দি করিয়া রাখিবেন।

খোদাকে ভয় না পাইলেও চলিবে, হে মূর্খ, নেজামি কে ভয় পাইও।

-----------------------------------------------------------
সকলই চলিয়া যায়,
সকলের যেতে হয় বলে।

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- মূল কথাই সেটা। স্বয়ং ঈশ্বরও যেনো মুজা শুয়োর, নেজা শুয়োর আর গুআ শুয়োরকে ভয় পায়, বখরা দিয়ে চলে। আর ঈশ্বরের পোঙ্গামারা খায় সাধারণ আরিফরা।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

কল্পনা আক্তার এর ছবি

পাজঁরের হাড়ের অনুপস্থিতিতে বুকের বাম দিকটা এখনো চিনচিন করে।

ডান পায়ের গোঁড়ালিতে কিঞ্চিৎ প্যাঁক।

"মুখ সামলাইয়া হাউকাউ করো আদম।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

লেখা ধুগোয়িত হইয়াছে দেঁতো হাসি
........................................................................................................
সব মানুষ নিজের জন্য বাঁচেনা


........................................................................................................
সব মানুষ নিজের জন্য বাঁচেনা

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- আররে, বহুদিন বাদে যে! থাকেন কই? সেই যে পাক্কা এক বছর আগের 'সেই গল্পটা' নিয়া কইছিলেন, তারপর তো হলোওম্যান হয়া গেলেন!
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অতিথি লেখক এর ছবি

হাসুম না। পেটে খিল ধরলে কি প্যারাসিটামল আপ্নে দিবেন?

স্পার্টাকাস

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- ক্যা, প্যারাসিটামল আমি দিমু ক্যান? আমি কি ডাক্তার না কবিরাজ? নাকি আমি ফার্ম্মেসীর ব্যবসা করি! আমি বড়জোর প্যারাসিটা বাদ দিয়া যা থাকে ঐটা দিতে পারি, তাও কমোডে! দেঁতো হাসি
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

উদ্ভ্রান্ত পথিক এর ছবি

কি লেখলেন ধূগোদা! হাস্তে হাস্তেতো চেয়ার থিকা পইড়া গেলাম প্রায়!! গড়াগড়ি দিয়া হাসি

---------------------
আমার ফ্লিকার

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- এর লাইগাই নিয়মে আছে, সিট বেল্ট বান্ধেন মিয়ারা। কথায় আছে, "সিট বেল্ট সেইভ লাইভস!"
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

মামুন হক এর ছবি

পুরান বোতলে পুরান মদ ধুগো। এ জাতীয় প্লট, কেচ্ছা-কাহিনী বা হিউমার বহু ব্যবহারে জর্জরিত। কোথাও কোথাও একটু খাপছাড়াও মনে হলো।

ধুসর গোধূলি এর ছবি
মামুন হক এর ছবি

নো ওয়ে মেইট...নট গেটিং এনি রং মেসেজ ফ্রম ইউ হাসি
তুমি আপন বলেই খোলামেলাভাবে বললাম, মাইন্ড কর নাই তাতেই আমি আনন্দিত।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- মাইন্ড করার সিস্টেম নাইরে ভাই। ঐ ব্যাটারে সেদিন রাইনের পানিতে চুবায়া রাইখা আসছি, থাকুক হালায় ঠান্ডার মধ্যে পইড়া। বহুত হাংকি পাংকি করছে আমার লগে!

'রং মেসেজ' বলতে বললাম, আপনি লেখাটাকে যে দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলেন, সেটা যেনো না দেখেন।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

লুৎফুল আরেফীন এর ছবি

হাহাহাহা....ধূগো...কাঁপাইলা মিয়া!!! আণবিক বোমা হইছে।
মুখফোঁড়কে খোঁজ করতে হবে এখন। তার আদম-ইভরে লইয়া টানাটানি শুরু হইয়াছে!!!

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- ধন্যবাদ সুজন ভাই। তবে গঠনা হইলো, মুখফোড় আইসা কিন্তু এখন আপনারেই খুঁজবো আমার আগে, নামের মইধ্যে চন্দ্রবিন্দু লাগাইলেন ক্যা? হো হো হো
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অতিথি লেখক এর ছবি

চমৎকার হইয়াছে ।
একজন নীল ভুত ।

অতিথি লেখক এর ছবি

কি আর কমু, খাড়ান আগে হাইস্যা লই।

স্বপ্নদ্রোহ

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- ধন্যবাদ নীল ভূত (নামটা মামদো ভূত নেন। নামই যেহেতু নিবেন একটু মোটা তাজা দেখেই নেন যাতে নাম শুনলেই পোলাপানে ডরায়)

এবং স্বপ্নদ্রোহ (নিকটা সুন্দর, মানে কী এর?)
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

সচল জাহিদ এর ছবি

জটিল হইসে ......

----------------------------------------------------------------------------
zahidripon এট gmail ডট কম


এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি, নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।
বিশ্ব পানি দিবসব্যক্তিগত ব্লগ। কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ অভ্র।

ভণ্ড_মানব এর ছবি

অশ্লীল! দেঁতো হাসি

ধুসর গোধূলি এর ছবি

জাহিদ ভাই, ভণ্ড (নামটা উচ্চারণ করতেই কেমন জানি লাগে!) এবং মুখা— তিনজনকেই ধন্যবাদ।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

তানবীরা এর ছবি

সবই বুঝলাম কিন্তু কলাবাগান মাঠকে কেনো টানা হইলো??? জবাব চাই নইলে তোমার নামে মামলা ......।।

**************************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- আচ্ছা যান, আপনার অনারে কলাবাগান মাঠকে আবাহনীর মাঠে নিয়ে গিয়ে ছেড়ে দিলাম। এইটারে আর বদলাইতে কইয়েন না। এই দুই জায়গাই চিনি। আর কিছু চিনি না। মন খারাপ
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

ইশতিয়াক রউফ এর ছবি

পুরা ডিস্কো মুখা হইছে...

রেশনুভা এর ছবি

হাহাহাহা ... আদম-ইভের রসালো কথাবার্তা সিরাম হইছে। এখনও হাসতাছি। সাবাশ বস।
গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- রসালো কথাবার্তাগুলোতে বাস্তবের তুলনায় রসের পরিমান একটু কম হয়ে গেছে বস। আরেকটু রসায়ে বলা যেতো, পরিস্থিতির কারণে পারা গেলো না!
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অনিন্দিতা চৌধুরী এর ছবি

হাসতে হাসতে শেষ।
দারুণ হয়েছে ধুগো!

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- আপনি তো এমনিতেই শেষ হয়ে থাকেন, আতা-পাতা থাকে না।
গরীবের লেখায় আপনি ভিজিবল হলেন বলে ধন্যবাদ থাকলো।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

ওডিন এর ছবি

হায় ঈশ্বর
হায় ঈশ্বরের ক্যারিয়ার! গড়াগড়ি দিয়া হাসি
-------------------------- -------------------
ফুল ফোটে? তাই বল! আমি ভাবি পটকা। চিন্তিত

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

মাই ঈশ্বর, !!! বস্‌- এইটা কী দিলেন ?? পুরা লেখাই কোট করতে মঞ্চাইতেসে ...

গুল্লি
গুল্লি
গুল্লি

______________________________________________________

মধ্যরাতের কী-বোর্ড চালক

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- হে হে হে
মঞ্চইলে করে ফেলেন বস। আমি একটা "এই মর্মে প্রত্যায়ন" করে দিয়ে আসবো নে, "এইটা মহামান্য সুহানের লেখা!" অন্তত জেল জরিমানা থেকে তো বাঁইচা যাবো। দেঁতো হাসি
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

স্বর্গবার্তার বাৎসরিক গ্রাহক হইতে চাই... দেঁতো হাসি
____________________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ !

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

ধুসর গোধূলি এর ছবি
দময়ন্তী এর ছবি

এবাবা আপনিও "সবিতাভাবী'র লাইনে আছেন? চিন্তিত
এহেহে ছেলেপুলেগুলো একেবারে উচ্ছন্নে গেল গো! খাইছে
-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- হে হে হে দন্তময়ী।
আদম আছে, আপনি আছেন, উচ্ছন্নে যাওয়া পোলাপানও আছে; তাইলে অলরেডি উচ্ছন্নে বসবাস করতে থাকা আমি ভাবীর লাইনে থাকলে কী পিরোবলেম? চোখ টিপি
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

মনজুর এলাহী এর ছবি

এদিকে আদম আপনা হাত জগন্নাথ করিয়া তাহার হস্তরেখা সব প্রায় বিলুপ্ত করিয়া ফেলিয়াছে!
ইতা কিতা খোরলেন গো ভাইশা!!! আদমরে তো আন্নে নষ্ট করি হালাইলেন।

ধুসর গোধূলি এর ছবি
সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

যাই অযু কইরা আসি
______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- লগে দুই রাকাত নফল নামাজও পইড়েন মিয়া। আর আসার সময় যার যার ডাইনে চলবেন, জিকিরে ফিকিরে চলবেন।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

খেকশিয়াল এর ছবি

মজা পাইসি! মুখার লিঙ্ক দেওন দেইখা আবার বোনাস পাইলাম হো হো হো

------------------------------
'..দ্রিমুই য্রখ্রন ত্রখ্রন স্রবট্রাত্রেই দ্রিমু!'

-----------------------------------------------
'..দ্রিমুই য্রখ্রন ত্রখ্রন স্রবট্রাত্রেই দ্রিমু!'

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ধুগোদা, কি খাইয়া ইহা লিখিলেন, নিশ্চই স্পন্জ রসগোল্লা। এক প্যারা পড়িয়াই বুঝিলাম, ইহা পড়িতে হইলে চেয়ারে নিজেকে বাধিয়া নিতে হইবে, নতুবা পরিয়া গিয়া কোমর ভাঙ্গিব নির্ঘাত। তাহার পরে নিজেকে চেয়ারে বাধিয়া পড়িতে বসিলাম, কিন্তু কপাল এমনি খারাপ, হাসিতে হাসিতে চেয়ার সহ উল্টাইয়া পরিয়া গেলাম। পারেন আপনে লিখিতে, এইভাবে মুখফোড়ের ভাত মারিলেন যে কি বলিব! লেখা বড়ই রসময় এবং উপভোগ্য হইয়াছে।

আর আপনার প্রদত্ত মেসেজটা পেয়ে ভালো লাগল। আশা করিব চা পান করিয়া আবার এমন আরেকখানা লেখা নামাইয়া দিবেন। আর ইশ্বরের কামটা উচিত হয় নাই, ইভের পাশাপাশি সে আদমরে একটা শালীতো দিতে পারত অন্তত চোখ টিপি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ধুসর গোধূলি এর ছবি

নাগো ডাগদর ভাই, স্পঞ্জ রসগোল্লা খাই নাই। সময় সুযোগ পাই নাই। তবে আশা আছে আইজকা মদনার ওইখানে যামুই যামু।

আমার চা বিরতি সহসা শেষ হইবো বইলা মনে হৈতাছে না। একটা গল্পের প্লট মাথায় ঘুরতাছে। ঐটা নামবো কবে, কীনা আদৌ নামবো কীনা কইতার্তারিনা। মন খারাপ
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

ওযুর লোটা যোগাড় করতে হবে মনে হচ্ছে চিন্তিত

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- বিডিআর মিয়া, ট্রান্সফার কৈয়া এক্কেরে খাগড়াছরি পাঠায়া দিমু কৈলাম। লগে বোনাস হিসাবে কয়েক পশলা কিল!
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

তুলিরেখা এর ছবি

আদমচরিত না মুখফোঁড় লিখতেন? কাপিরাইটে ফাঁইসা যাইবেন যে গো জনাব ধূগো! চিন্তিত

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- মুখফোড়কে শুধাইয়াছিলাম আদমচরিত লিখিবার জন্য, সে আমার অনুরোধখানা ফিরাইয়া দিয়া ফিরতি ডাকে লিখিয়া পাঠাইলো, "বাহে ধুসর গোধূলি, দারা-কন্যা-পরিবার লইয়া কিঞ্চিৎ মুসিবতে আছি। এ যাত্রা কষ্ট করিয়া কিয়দ গোঁজামিল গুঁজিয়া কিছু একটা চালাইয়া দিতে আপনাকে পাল্টা অনুরোধ করি। আপনার অনুরোধ রাখিতে পারিলাম না বলিয়া মার্জনা করিবেন। ইতি মুখফোড় (ইউদাউট চন্দ্রবিন্দু)"

মুখফোড়কে খুশি করিবার নিমিত্তেই এই স্বর্গবার্তাখানা রচিলাম। শুনিয়াছি, তাহার বেশ রূপসী একখানা শ্যালিকা বিদ্যমান, এবং তিনি ইশটিল সিঙ্গেল! দেঁতো হাসি
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

তুলিরেখা এর ছবি

আরে তাই তো। উইদাউট চন্দ্রবিন্দু ই তো। আমার ভুল হইয়া গেছে, জ্যান্ত মানুটারে চন্দ্রবিন্দু দিয়া দিছি। চিন্তিত
তবে আরেক কিস্তি লিখেন জনাব ধূ গো, শালিকা আসিতেছে, জোড়া শালিক পাশে। হাসি
-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

ধুসর গোধূলি এর ছবি
নাতাশা এর ছবি

হিহিহি।

ধুসর গোধূলি এর ছবি
নাতাশা এর ছবি

হিহিহি। নামের সাথে মিল দেখে খাই নাই।

ধুসর গোধূলি এর ছবি
নাতাশা এর ছবি

আগে তো কেউ না। আপনার মতো পাজি লোকের সাথে দেখা হয়নি তো।

ধুসর গোধূলি এর ছবি

হায় হায়! এখানে হিহি করলেন না দেখি! হাসি

পাজি বলেন ক্যান, আমি এখনও পর্যন্ত আপনারে বাতাসা বলছি?
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

নাতাশা এর ছবি

এই যে বললেন।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।