নাশতারান এর ব্লগ

বাচ্চালাপ ০২

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: শনি, ২০/০৩/২০১০ - ৩:২৩পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:
আমার খালাত ভাই মাহরাফ।
ক্লাশ টুতে পড়ে।
নিচু ক্লাশে পড়লেও তার জ্ঞানগম্যি অত্যন্ত উঁচু দরের। অন্তত আমার বিচারে।
তাই জীবনের অমিমাংসিত কোন সমস্যার সমাধান খুঁজতে মাহরাফের শরণাপন্ন হই নির্দ্বিধায়।

অচিন সুরের খোঁজে

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: রবি, ১৪/০৩/২০১০ - ৬:০৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

মাঝে মধ্যে কিছু গান মাথার ভেতর গেঁথে যায় হঠাৎ করেই। যতই বের হতে বলি না কেন, শোনে না কিছুতে। দস্যি মেয়ের মতো বিনুনি দুলিয়ে খিলখিলিয়ে ছুটে বেড়ায় স্নায়ুর অলিতে গলিতে। তখন উলটে তার কথাই আমার শুনতে হয়। বুঝতে হয়।

গানের বাণী আমার কাছে খুব গুরুত্ব বহন করে। কোনো গান ভালো লেগে গেলে লিরিক নামিয়ে দেখি। ভালো লাগাটুকু ভালোবাসা হয়ে ওঠে তার বক্তব্য ভালো লাগলেই।

গেল সপ্তাহে একটা গান ঢুকে গে ...


আসুন, দেশকে ভালবাসি অটবির মত করে

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: শনি, ০৬/০৩/২০১০ - ১০:৫৬অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রথম আলোর শেষ পাতার নিম্নার্ধ জুড়ে বিশাল বিজ্ঞাপণ।

চারটে খাট, তিনটে আলমারি, একটা ওয়ার্ড্রোব, একটি জুতোর বাক্স, একটি ডেস্ক আর দু’টো ড্রেসিং টেবিল।

বোঝাই যাচ্ছে কোন আসবাব কারখানার বিজ্ঞাপণ।
যে জিনিসটা বোঝা যাচ্ছে না সেটা হলো প্রতিটি আসবাবের সাথে বন্দুক, বেতার এবং পত্রিকার উপস্থিতির কারণ।

এরা কি কাঠের আসবাবের পাশাপাশি কাঠের বন্দুকও তৈরি করছে?
তাহলে পত্রিকা আর বেতার কেন?

আ...


মেঘের পরে মেঘ ...

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: শনি, ২৭/০২/২০১০ - ৩:২৮অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তখন শুধইু মেঘের ছবি তুলতাম। এগারো তলার বারান্দা থেকে ক্যামেরা বাড়ালে মেঘেদের দেখা মিলত সবার আগে। আকাশের মেজাজ বদলালে মেঘেরা রং বদলে সেজে গুজে ছবি তুলতে ডাকত।
সে অনেক আগের কথা। ক্যামেরার জাতপাত বুঝতাম না। মুঠোফোনের দুবলা ক্যামেরাই ছিলো ভরসা। এরপর মুঠোফোন বদলেছে কয়েক দফা। মেগাপিক্সেল এগিয়েছে কদম দুয়েক। মেঘেরাও রং বদলেছে বহুবার। বারান্দায়, পথেঘাটে, নদীর বুকেও ডাক দিয়েছে অনে ...


একুশ, একটি ছুটির দিন

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: রবি, ২১/০২/২০১০ - ২:২৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এ বছর ২১ শে ফেব্রুয়ারি রোববার পড়েছে।
যাক, একদিন বাড়তি ছুটি পাওয়া গেলো।
কতদিন ঘুরতে বের হইনা !
অফিস-বাসা-অফিস-বাসা। উফ!
অ্যাই, একুশে ঘুরতে বেরুবি?
চল না!
শাড়ি পরব।
কতদিন শাড়ি পরে ঘুরতে বের হই না!
তোর সাদা-কালো শাড়ি আছে তো?
না থাকলে কিনে ফ্যাল। কে-ক্র্যাফটে সুন্দর সুন্দর শাড়ি এসেছে দেখলাম।
আমিও কিনব।
আমার অবশ্য আছে একটা। গত বছরের। কিন্তু পুরনো শাড়ি পরতে ইচ্ছে করছে না।
ও একটা পার্লে...


ভেতোদের সুশিত দুপুর

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: শুক্র, ১৯/০২/২০১০ - ৫:৪৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সময়: মধ্যদুপুর
স্থান: গুলশানের এক অভিজাত জাপানি রেস্তোরাঁ
লক্ষ্য: সুশি আস্বাদন
কেন্দ্রীয় চরিত্র: ভেতো-১ আর ভেতো-২, দুই তরুণ হাভাতে বাঙালি যারা তাদের ভেতো জিভে অচেনা বিজাতীয় স্বাদ ছোঁয়াবার বাঁধভাঙ্গা বিলাসী ইচ্ছের তাড়নায় ঢাকা ঢুঁরে খুঁজে বের করেছে এই রেস্তোরাঁটি।
পার্শ্বচরিত্র: জুডো, রেস্তোরাঁর খাদ্যপরিবেশনকারী যুবক।

দৃশ্য-১

ভেতো-১ আর ভেতো-২ জাপানি কেতায় সাজানো রেস্তোরাঁ ...


আমাদের ভালবাসার ছাদটি

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/০২/২০১০ - ২:৩৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এই আমাদের ছাদে
দত্যি দানোর মজমা জমে,
অসহ্য আহ্লাদে।
জোট বেঁধে সব ঘোট পাকিয়ে
ফন্দি ফিকির ফাঁদে।
আমার নিজের ছাদে।
কী ভাবে সব?
এই তান্ডব
সইব নির্বিবাদে?
খুঁটিগাড়া প্রেতবাহিনীর
টুঁটি ছেড়ার আশায়
এই আমাদের বাসায়
ওঝা আসেন সদলবলে।
তাঁদের সেবায় ফুলে ফলে
উপচে পড়ে ডালা।
শালা!
সরষে দানায়
ভূতের ছানা
ঘাপটি মেরে বসে।
হাতুড়েদের দোষে
পিশাচেরা দাপিয়ে বেড়ায়
এখনো এই ছাদে।
জলখাবারের স্বাদ...


টাইমপাসঃ প্রতিমা বেদীর স্মৃতিকথা || ভূমিকা ||

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: সোম, ০১/০২/২০১০ - ১২:৩২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রতিমা বেদীর জন্ম ১৯৪৯-এ, দিল্লীতে। ষাট আর সত্তর দশকের মাঝামাঝি সময়ে বোম্বের প্রসিদ্ধ মডেল ছিলেন তিনি। বিয়ে করেছিলেন চলচ্চিত্রাভিনেতা কবির বেদীকে। তাঁদের দু’ সন্তান: পূজা, সিদ্ধার্থ। কবীরের সাথে প্রতিমার বিচ্ছেদ ঘটে ১৯৭৮-এ। ১৯৭৪-এ তিনি সমালোচিত হন প্রকাশ্যদিবালোকে স্ট্রিকিংয়ের জন্য।


অ্যাম্বিগাঁয়ের গুপ্তপথ

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: শনি, ০৯/০১/২০১০ - ৩:৫৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

অ্যাম্বিঝড় এখনো বহমান। বিবিধ সফটওয়্যার সহযোগে, বিভিন্ন ভঙ্গিতে বাংলা বর্ণমালাকে দুমড়ে মুচড়ে অ্যাম্বিবাক্সে বন্দি করার চেষ্টায় মত্ত অনেকেই। ধূগোদা একটা পোস্ট দিয়েছেন অ্যাম্বিগ্রামারের উপর। আমিও গোমর ফাঁস করব বলেছিলাম তখনই। আমার গত পোস্টের অ্যাম্বিগ্রামগুলো দেখে যারা বিমোহিত তাঁদের মোহভঙ্গ করতে এবং যারা যান্ত্রিক আঁকাআঁকিতে জড়ত ...


ভূতের নাম অ্যাম্বিগ্রাম

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: মঙ্গল, ০৫/০১/২০১০ - ২:৪৪পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আমি হুজুগে মানুষ। লোকে অনুরোধে ঢেঁকি গেলে। আমাকে অনুরোধও করতে হয় না। হুজুগ দিলেই আমি ঢেঁকিঘরসমেত ঢেঁকি গিলতে উদ্যত হই।
তার উপরে বেকার। কথায় আছে নাই কাজ তো খই ভাজ।
তো আমি খই ভাজি, নিজে খাই এবং বিলাই।

আমার অতিসম্প্রতি হুজুগের নাম “অ্যাম্বিগ্রাম”। সচলরা এই শব্দটির সাথে অতিপরিচিত আম্বিগ্রামগুরু জি.এম. তানিমের সুবাদে। তবে আমার মধ্যে এ রোগের সংক্রমণ হিমু ভাইয় ...