Archive - নভ 18, 2010 - ব্লগ

নীলু

শঙ্কর এর ছবি
লিখেছেন শঙ্কর [অতিথি] (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ১০:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সরল অঙ্ক আমার সবসময়েই ভীষণ জটিল লাগে, আর সিঁড়িভাঙ্গার নাম শুনলে তো একদম সিঁড়ির ওপর বসে পড়ি। কাজেই রথীনস্যার যখন ক্লাসে চার নম্বর চ্যাপ্টারের বারো নম্বর অঙ্ক নিয়ে ব্যস্ত, আমি তখন জানালার বাইরে আমগাছের ডালে শালিক পাখিদুটোর ঝগড়া শুনছি। বিকেলে পটলাদের সাথে ফুটবল ম্যাচ আছে। ওদের রাইট-ব্যাক হারুটা একটু খনি আছে। ওর দিকে বল গেলে একটা ইন্সাইড ডজ মারলেই সামনে শুধু গোলকিপার বোঁচা। শরীর ...


শৈশব

সজল এর ছবি
লিখেছেন সজল (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৯:০০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আমার জন্ম, আর বেড়ে ওঠার কিছুটা সুদূর ভাটি অঞ্চলে। আমাদের গ্রামের গঠনটি বেশ মজার। বছরে ছয়টা মাস পানিবেষ্টিত থাকতে হয়, তাই পানির উপস্থিতিকে জীবনের আর কয়টা স্বাভাবিক অনুষঙ্গের মতই মেনে নিয়েছে গ্রামবাসী। দুইপাশে পানির দৌরাত্ম্যকে প্রশ্রয় দিতে গিয়ে প্রস্থে যতটা সম্ভব সরু হয়ে, লম্বায় যতটা পেরেছে বিস্তৃত হয়ে পুষিয়ে দিয়েছে। শুকনো মৌসুমে গ্রামটিকে দেখলে বেশ উদ্ভট মনে হবে, নীচের মাঠ ...


আম যেভাবে জাতীয় বৃক্ষ হলো

হিমু এর ছবি
লিখেছেন হিমু (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৮:৫০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১.
সচিব মহোদয় ফাইলটি খুললেন শুরুতে। তারপর চোখ খুললেন।

নাহ, সব ঠিকই আছে। ছয়টার কথাই বিশদ লেখা আছে। বৈজ্ঞানিক নামধাম, কোথায় জন্মে, কত উঁচু হয়, উপকারিতা কী, ইত্যাদি নানা হাবিজাবি গুছিয়ে লেখা আছে। দুই সপ্তাহ আগে এক অধিদপ্তরের কর্তা এই ফাইল পাঠিয়েছিলো, তাতে হিজল আর তাল ছিলো না। দুটো গাছকে ফাইলে ঢোকাতে মাত্র দুই সপ্তাহ লেগেছে। মনে মনে উপসচিবের প্রশংসা করলেন তিনি। ছেলেপেলে খুব কর্ম ...


এক মহান চরিত্রের স্মৃতিতে

কৌস্তুভ এর ছবি
লিখেছেন কৌস্তুভ (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৮:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এই দৃঢ়চেতা মহাপুরুষ দুর্ভাগ্যজনকভাবে সচলবাসীদের কাছ থেকে যথাযোগ্য শ্রদ্ধা পেয়ে উঠতে পারেন নি এখনও। আজ তাই আমার জীবনে এনার একটি মহান অবদানের কথা আপনাদের শোনাব, যাতে আপনাদের এই ধ্যানধারণা কিছুটা হলেও পরিবর্তিত হতে পারে।

*********

চেক-ইন করে সিকিউরিটি পেরিয়ে শিকাগো এয়ারপোর্টে ডেল্টা’র লাউঞ্জে বসে আছি। আধঘণ্টা বাদে প্লেন দেবে হয়ত। মিনিয়াপোলিস ফিরব। এখানের ইউনিভার্সিটিতে একটা ...


লাজওয়াব লালাখাল

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি
লিখেছেন যাযাবর ব্যাকপ্যাকার (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৮:০৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[সারি ভ্রমণ ফটোব্লগের প্রথম গল্পটা এখানে]
 
সারি নদী ধরে প্রায় দেড় ঘন্টার নৌপথ পাড়ি দিয়ে লালাখাল টি-এস্টের ঘাটে আমরা যখন নামলাম তখন দুপুর গড়িয়ে গেছে। দশমীর ছুটি ছিল, পূজো উপলক্ষে বন্ধ লালাখাল টি-এস্টেটের ফ্যাক্টরি আর অফিস।
 

 

 মধ্য অক্টোবরের এই ছুটিটা কাজে লাগিয়ে দুষ্ট বালিকা, মনামী, অনিন্দ্য, পলাশ,
নজরুলভাই-নূপুরাপু-নিধি আর আমি হুট করেই সিলেট চলে এসেছি। সকালে অপু (আলবা ...


ইন্দুর আর বিলাই

শুভাশীষ দাশ এর ছবি
লিখেছেন শুভাশীষ দাশ (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ১১:২৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ইন্দুর আর বিলাই

আমাদের মহল্লায় শহীদুল জহির থাকতেন। মহল্লায় যুদ্ধ বা অযুদ্ধ থাকাকালীন সময়ে কিছু মানুষ বিলাই সাজে আর কিছু মানুষ ইন্দুর হয়। শহীদুল জহির এসব খেয়াল করেন। বিলাই আর ইন্দুরের মধ্যে দ্বন্দ্ব সংঘাত ভালো মতো গল্পে লিখে দেন। আমাদের মহল্লার ইন্দুর বিলাই খেলা অন্যান্য মহল্লা খেয়াল করে। সেখানেও এই খেলা চালু হয়। এরপর মহল্লার পর মহল্লা মেতে উঠে ইন্দুর বিলাই খেলায়। একসময় দ ...


হরনেট ফ্লাইট (প্রথম পর্ব)

মানিক চন্দ্র দাস এর ছবি
লিখেছেন মানিক চন্দ্র দাস [অতিথি] (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৪:৫৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

পূর্ব কথা

হাসপাতালের দীর্ঘ করিডর, শুনশান নীরবতা। শুধু একজন মানুষের হাঁটার শব্দ পাওয়া যাচ্ছে। ভদ্রলোকের এক পা কাঠের। তিনি মাথা নিচু করে হেঁটে চলেছেন। হাঁটা দূর থেকে দেখলে ভদ্রলোকের এক পা যে কাঠের তা বোঝা যায়না। স্বাস্থ্য অ্যাথলেটদের মতো, ছোটখাটো গড়ন, বয়স ত্রিশের কোঠায়। পড়নে চারকোল গ্রে স্যুট। হাঁটার সময় ট্যাক ট্যাক ধরনের শব্দ হচ্ছে। তাঁর চোখমুখ শক্ত। হাঁটার সাথে চলছে আবেগ ...


আমার নাম...সভ্য

নীলকান্ত এর ছবি
লিখেছেন নীলকান্ত (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৩:৩০পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

কি যে হইলো, বইয়্যা বইয়্যা খালি ভাবি। হক্কালে এসএমএস পাইয়া নাক ডাকাইয়া ঘুম দিছি। উঠছি সেই বিকাল পাঁচটায়। উইঠ্যা দেহি মাইনষে স্ট্যাটাস দিছে আজ সকালে ঈদের ছুটি দিছে...বুয়েট বন্ধ। বগল বাজাইলাম আবার।

সঙ্গে সঙ্গে কারেন্ট গেল গা। কি আর করমু, মোবাইল নিয়া গুতাগুতিতে বইলাম।

কারেন্ট আইতেই পানি আইলো, গোসল দিয়া লগে লগেই বাসার বাইর। ভার্সিটি যামু।


বঙ্গদেশে হলি গ্রেইল

সাবিহ ওমর এর ছবি
লিখেছেন সাবিহ ওমর [অতিথি] (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৮/১১/২০১০ - ৩:২৬পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

নেপোলিয়ন তখন জেসিকা থুড়ি এলবা দ্বীপে আটকা। অন্যদিকে তার ছোট শালা আর্টেরিও ডি ব্যালন পড়েছে মহা ফ্যাসাদে। এমনিতেই লন্ডন শহরে এসে ইংরাজ সেজে দুই বেলা ফিশ এন্ড চিপ্স খাওয়া লাগছে, তার উপর এই হলি গ্রেইলের পোটলা। পুরা জিনিসটা আটলান্টিকে ছুঁড়ে ফেলে আসার প্রবল ইচ্ছা হলেও বদদোয়া লাগার ভয়ে তা করা যাচ্ছে না।
এদিকে পাশের বাসার এক ইন্ডিয়ান নবাবপুত্তুরের সাথে তার নিদারুণ মাখামাখি। একদিন ...